শুক্রবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৮ | বাংলার জন্য ক্লিক করুন
  
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   এক্সক্লুসিভ
  সেলুলয়েডে ‘অপারেশন জ্যাকপট’: সংরক্ষণ হচ্ছে যুদ্ধ স্মারক এমভি ইকরাম
  18, August, 2018, 9:35:12:PM

বশীর আহমেদ:
মুক্তিবাহিনীর অকুতোভয় নৌ-কমান্ডোদের বিধ্বংসী অপারেশন অবলম্বনে নির্মিতব্য চলচ্চিত্র ‘অপারেশন জ্যাকপট’ মুক্তিযুদ্ধের চেতনা জাগ্রত রাখার প্রয়াসে বড় ধরণের উদ্যোগ- বলেছেন নৌপরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান। তিনি বলেন, বর্তমান প্রজন্ম মুক্তিযোদ্ধাদের নজিরবিহীন দেশপ্রেম ও আতœত্যাগের অজানা ইতিহাস সঠিকভাবে জানতে পারছে না। অথচ এগুলো জানবার প্রবল আগ্রহ রয়েছে তাদের। আমাদের নবীন প্রজন্মের সে আগ্রহ নিরসন এবং মুক্তিযুদ্ধের চেতনা প্রজন্মের দুয়ারে অবারিত রাখবার দায়বোধ থেকে মুক্তিবাহিনীর ব্যাপক-বিধ্বংসী কমান্ডো অপারেশন জ্যাকপট অবলম্বনে ডকুমেন্টারী তৈরীর ভাবনাটি মাথায় আসে- বলেন নৌপরিবহনমন্ত্রী।

অপারেশন জ্যাকপট চলচ্চিত্র নির্মানের প্রেক্ষাপট নিয়ে দৈনিক স্বাধীন বাংলা’র সাথে একান্ত আলাপচারিতায় এভাবেই নিজের অনভূতি প্রকাশ করেন নৌপরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান, এম.পি। নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা যায়, অপারেশন জ্যাকপট সিনেমার শুভ-মহরত আগামী ১৬ সেপ্টেম্বর ঢাকায় অনুষ্ঠিত হবে। ‘মনপুরা’ সিনেমাখ্যাত সফল পরিচালক গিয়াস উদ্দিন সেলিমকে দেয়া হয়েছে ছবিটি পরিচালনার দায়িত্ব।

নৌপরিবহনমন্ত্রী জানান, কেবলমাত্র অপারেশন জ্যাকপট ডকুমেন্টারীই নয়, মুক্তিযুদ্ধে স্বেচ্ছায় জীবন উৎসর্গকারী নৌ-কমান্ডোদের লিম্পেট মাইন হামলায় বিধ্বস্ত জাহাজ এম ভি ইকরাম সংরক্ষণেও তিনি উদ্যোগ নিয়েছেন। একাত্তরের ৩০ অক্টোবর চাঁদপুর নদীবন্দরের কাছে ডাকাতিয়া নদী মোহনায় পাকিস্তান সেনাবাহিনীর সমরাস্ত্র বোঝাই জাহাজ এম ভি ইকরাম সুইসাইডাল নৌ-কমান্ডোরা ধ্বংস করেছিলেন। বীর মুক্তিযোদ্ধা শাজাহান খান বলেন, সৌভাগ্যবশত মুক্তিযুদ্ধের ৩৭ বছর পর নিমজ্জিত সে জাহাজটি উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃত জাহাজটি নৌ-কমান্ডো অপারেশনের খুঁজে পাওয়া একমাত্র নিদর্শন। বিষয়টি নিয়ে অন্য এক মন্ত্রণালয় বিগত প্রায় ৯ বছর কাজ করলেও তা কঙ্খিত পরিণতি লাভ করেনি। এক পর্যায়ে মুক্তিযুদ্ধের অতি মূল্যবান এই স্মারকটির বিষয় তার নজরে আসে এবং ঐতিহাসিক নিদর্শনটি স্থায়ীভাবে সংরক্ষণে তিনি উদ্যোগী হন। নৌপরিবহনমন্ত্রী বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে মুক্তিযুদ্ধের মূল্যবান যুদ্ধস্মারকটি চট্টগ্রাম মেরিন যাদুঘরে স্থায়ীভাবে সংরক্ষণের কাজ এখন চুড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে।

ইতিহাস থেকে জানা যায়, মুক্তিবাহিনীর নৌ-কমান্ডো অপারেশন জ্যাকপট ছিল মুক্তিযুদ্ধের সবচাইতে বিধ্বংসী কমান্ডো অপারেশন যা বাংলাদেশে চলমান মুক্তিযুদ্ধের প্রতি আন্তর্জাতিক মিডিয়ার নজর কাড়তে এবং বিশ্বব্যাপী মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে প্রচার ও জনমত গঠনে কার্যকর ভূমিকা রেখেছিল। এ অপারেশন মুক্তিযুদ্ধ দীর্ঘমেয়াদী হওয়ার সমুহ আশঙ্কা ও বিজয়ের অনিশ্চিতি পেছনে ঠেলে তৈরী করেছিল নতুন সম্ভাবনা। মুক্তিযুদ্ধের দুঃসহ দিনগুলোতে অপারেশন জ্যাকপটের অভূতপূর্ব সাফল্য কার্যকর ভাবে ভেঙ্গে দিতে সক্ষম হয়েছিল দখলদার পাকিস্তান সেনাবাহিনীর মেরুদন্ড।

একাত্তরে মুক্তিবাহিনীর নৌ-কমান্ডোদের সমন্বিত আক্রমন পরিকল্পনার সাঙ্কেতিক নাম ছিল অপারেশন জ্যাকপট, যা সংঘটিত  হয়েছিল আজ থেকে সাতচল্লিশ বছর আগে ১৫ আগষ্ট গভীর রাতে। তবে মূল পরিকল্পনায় আক্রমনের নির্দ্ধারিত সময় ছিল ১৪ আগষ্ট মধ্যরাতের পর, যে রাতের আগের দিনটি ছিল পাকিস্তানের স্বাধীনতা দিবস। কিন্তু নিরাপত্তাজনিত বাধার মুখে কমান্ডোদল সময়মত টার্গেট এলাকায় পৌছাতে ব্যর্থ হলে আক্রমন পরিকল্পনা পূর্ব-নির্দ্ধারিত ভাবেই পরিবর্তন হয় এবং একদিন পর পরিচালিত হয় কমান্ডো অপারেশনটি। পাকিস্তান সেনাবাহিনীর নিñিদ্র নিরাপত্তা ভেঙ্গে অকুতোভয় নৌ-কমান্ডোরা এক রাতে চট্টগ্রাম, চাঁদপুর, মংলা এবং নারায়ণগঞ্জ নৌবন্দরে অত্যন্ত সফলতার সাথে পাকিস্তানীদের দখলে থাকা প্রায় ১ লাখ টনের অধিক জাহাজ এবং নৌ-স্থাপনা ধংস করে। তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানে স্বাভাবিক অবস্থা ফিরে এসেছে বলে পাকিস্তান সরকার যে দাবী করে আসছিল অপারেশন জ্যাকপটের সাফলতা প্রথমবারের মত তা নস্যাৎ করে দেয়।


মুক্তিযুদ্ধের অবিনাশী স্মারক এম ভি ইকরাম। জাহাজটি সংরক্ষণের কাজ চুড়ান্ত পর্যায়ে।-স্বাধীন বাংলা

একাত্তর সালের ৩০ অক্টোবর রাতে এম ভি ইকরাম অপারেশনে অংশগ্রহণকারী চাঁদপুরের বীর মুক্তিযোদ্ধা, নৌ-কমান্ডো মোঃ শাহজাহান কবির, বীরপ্রতীক জানান, নৌ-কমান্ডো হামলায় বিধ্বস্ত ও নিমজ্জিত এম ভি ইকরাম জাহাজকে কেন্দ্র করে ডাকাতিয়া নদী চ্যানেলে ধীরে ধীরে বিশাল এক বালুচরের গোড়াপত্তন ঘটে। এক পর্যায়ে ‘কাইশা বনে’ আচ্ছাদিত হলে চরটি মেইনল্যান্ডের কৃষকদের পশুচারণ ভূমিতে পরিণত হয়। এভাবে বালুচরের গভীরে লুকিয়ে থাকা মুক্তিযুদ্ধের অবিনাশী স্মারক এম ভি ইকরামের কথা কালক্রমে হারিয়ে যায় বিস্মৃতির অতলে।

১৯৮০ সালে চাঁদপুরের এক ব্যবসায়ী সর্বপ্রথম জাহাজটি বালি খুঁড়ে উদ্ধারের চেষ্টা শুরু করলে সাড়া পড়ে যায় চাঁদপুরে। উৎসুক মানুষের আলোচনায় ফিরে আসে একাত্তরের ভূলে যাওয়া ইতিহাস। প্রায় ২ বছরের সে উদ্ধার প্রচেষ্টা পুরোপুরি ব্যর্থ হলে জাহাজটি উদ্ধার অসম্ভব বলে ধরে নেন চাঁদপুরবাসী। এভাবে সুদীর্ঘ ২৭ বছর এম ভি ইকরাম উদ্ধারের চেষ্টা চলেছে- কখনো জোরেশোরে আবার কখনো বা ধীর গতিতে। কিন্তু জাহাজটি আর উঠে আসেনি বালি-মাটির গভীর তলা থেকে।

এম ভি ইকরাম উদ্ধারকারীদের সূত্র জানায়, ২০০৭ সালে এর সর্বশেষ মালিকপক্ষ উদ্ধার কাজে হাত দিলে ৩৭ বছর বালি-মাটিতে ঢেকে থাকা এম ভি ইকরাম প্রথমবারের মত খোলা পানির দেখা পায়। পরে ক্রেন দিয়ে টেনে তোলা হয় পানির সমান্তরালে এবং শক্তিশালী পাম্প দিয়ে জাহাজের ভেতরকার পানি-বালি অপসারণ করা হয়। এক পর্যায়ে নজরে আসে জাহাজের তলদেশ। মাইন বিষ্ফোরণে ৩টি বড় আকারের ছিদ্র হয়েছিল জাহাজের তলায়। সেখানে লোহার প্লেট ওয়েল্ডিং করে বসিয়ে পানি ওঠা বন্ধ করা হয়। পরে ট্রলারে বেঁধে ভাসমান এম ভি ইকরাম টেনে নেওয়া হয় চাঁদপুর লন্ডন ঘাটে। এ ঘটনা ২০০৮ সালের অক্টোবর মাসের।  

মুক্তিযুদ্ধের গৌরবময় নৌ-কমান্ডো হামলার নিদর্শন এম ভি ইকরাম চাঁদপুরে সংরক্ষণের দাবীতে স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধারা এবং বিভিন্ন সামাজিক ও রাজনৈতিক সংগঠন মিছিল-মিটিং, মানববন্ধনসহ বিভিন্ন কর্মসূচী আরম্ভ করলে নিরাপত্তার স্বার্থে ২০০৮ সালের ১৪ অক্টোবর জাহাজটি টাগবোটে বেঁধে নারায়ণগঞ্জের সোনাকান্দায় সরিয়ে আনা হয়।

মুক্তিযুদ্ধের দুর্লভ এ স্মারকটি সংরক্ষণে সরকারী সিদ্ধান্তের পর বিআইডব্লিউটিএ ২০০৮ সালের ১৫ অক্টোবর জাহাজটির মালিকপক্ষকে ‘যেখানে যে অবস্থায় আছে-সে অবস্থায়’ সংরক্ষণের নির্দেশ জারি করে। পরে সংরক্ষণের কাজ স্থানান্তরিত হয় মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ে। কিন্তু ২০১৭ সালের প্রথমার্ধ পর্যন্ত এ ব্যাপারে আর কোন বাস্তব কোন অগ্রগতি হয়নি। ২০১৭ সালের ২ জুলাই নৌপরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান জাহাজটি স্থায়ী সংরক্ষণে ব্যক্তিগতভাবে উদ্যোগী হন। এক বছরের প্রানান্তকর চেষ্টায় অবশেষে এম ভি ইকরাম চট্টগ্রাম মেরিন যাদুঘরে স্থায়ীভাবে সংরক্ষণের কাজ এখন প্রায় চুড়ান্ত পর্যায়ে অগ্রসর হয়েছে বলে জানা গেছে।   



সংবাদটি পড়া হয়েছে মোট : 206        
   শেয়ার করুন
Share Button
   আপনার মতামত দিন
     এক্সক্লুসিভ
পার্বত্য চট্টগ্রামের পর্যটন শিল্পের বিকাশে করণীয়
.............................................................................................
সেলুলয়েডে ‘অপারেশন জ্যাকপট’: সংরক্ষণ হচ্ছে যুদ্ধ স্মারক এমভি ইকরাম
.............................................................................................
অগ্নিঝরা মার্চ
.............................................................................................
কেন্দ্রীয় সম্মেলন নিয়ে ছাত্রলীগের মধ্যে ক্ষোভ-হতাশা
.............................................................................................
অগ্নিঝরা মার্চ: ৬ মার্চ সর্বাত্মক হরতাল পালিত হয়
.............................................................................................
পুশব্যাকের শঙ্কায় আসামের দেড় কোটি বাংলাভাষী
.............................................................................................
ব্যাংক খাতে কোনঠাসা ‘বাংলা’
.............................................................................................
বাংলাদেশে গণহত্যা: পর্ব- ২ আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালত এবং ইতিহাসের দায়মোচন
.............................................................................................
বাংলাদেশে গণহত্যা: পর্ব-১ আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালত এবং ইতিহাসের দায়মোচন
.............................................................................................
কে হচ্ছেন ১৯ হেয়ার রোডের বাসিন্দা
.............................................................................................
বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চ ঐতিহাসিক ভাষণের অজানা ইতিহাস
.............................................................................................
বিশ্বে শক্তিশালী পাসপোর্টের শীর্ষে সিঙ্গাপুর, বাংলাদেশ ৯০তম
.............................................................................................
ফারাক্কা বাঁধ ‘ডি-কমিশন’ সময়ের দাবী
.............................................................................................
নৌ-কমান্ডোরা পূর্ব পাকিস্তানকে নৌ-যানবিহীন অবরুদ্ধ দেশে পরিণত করে
.............................................................................................
রোহিঙ্গা ইস্যুতে ট্রাম্পের সাহায্য আশা করা যায় না: প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................
মুক্তিযুদ্ধে ‘অপারেশন জ্যাকপট’ ও কিছু কথা: পর্ব-২
.............................................................................................
একটি সংবাদের পোস্টমর্টেম
.............................................................................................
স্রোতের বেগে আসছে ভারতীয় গরু, আতঙ্কে দেশীয় খামারিরা
.............................................................................................
মুক্তিযুদ্ধে ‘অপারেশন জ্যাকপট’ ও কিছু কথা: পর্ব- ১
.............................................................................................
কুরুচির থাবা ছিনিয়ে নিল ঊর্মির প্রাণ
.............................................................................................
বাঙালির স্বপ্নদ্রষ্টা শেখ মুজিব
.............................................................................................
মৃত্যুঞ্জয়ী মুজিব
.............................................................................................
শোকের মাস
.............................................................................................
২০ জুন রাতে সৌদি রাজপ্রাসাদে যা ঘটেছিল!
.............................................................................................
লিভার ক্যান্সারে আক্রান্ত ছাতকের আনিক বাঁচতে চায়
.............................................................................................
নাম সর্বস্ব রাজনৈতিক দল! লাভ কার?
.............................................................................................
লালমনিরহাটে গরুর গাড়ি এখন শুধুই স্মৃতি
.............................................................................................
শিশুবিবাহ: বর্তমান প্রেক্ষাপট
.............................................................................................
কমিটি নিয়ে বিএনপি নেতাদের মধ্যে বাড়ছে সন্দেহ-অবিশ্বাস
.............................................................................................
রাজনীতিতে টিকে থাকার কৌশল খুঁজছে জামায়াত
.............................................................................................
কাউন্সিলে নতুন কিছু আশা করছে বিএনপি
.............................................................................................
ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থী মনোনয়নে সাংসদদের কাছেই ধরনা
.............................................................................................
মহাসচিব কে হচ্ছেন? -গুঞ্জন বিএনপি’তে
.............................................................................................
ঘোষিত রায় পরে লেখা অবৈধ মনে করছেন না বিচারপতি আমির
.............................................................................................
জঙ্গি নির্মূলে মাদ্রাসার পাশাপাশি বিশ্ববিদ্যালয়ের দিকেও নজর দিতে হবে
.............................................................................................
এক বছরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৮৬৪২
.............................................................................................
বিজয়ের মাস ডিসেম্বর
.............................................................................................
বিজয়ের মাস ডিসেম্বর
.............................................................................................
বেকার যুবকদের ভাগ্য বদলে বিশেষ ঋণ
.............................................................................................
খাদ্য নিরাপত্তায় এখনও অনেক পিছিয়ে বাংলাদেশ
.............................................................................................
খুলনায় মাদক সম্রাট শাহজাহান আটক
.............................................................................................
স্থানীয় নির্বাচন: ক্ষমতাসীন দলে তীব্র অভ্যন্তরীণ কোন্দলের আশঙ্কা
.............................................................................................
নাশকতার আশঙ্কায় দেশে সর্বোচ্চ সতর্কতা
.............................................................................................
গম উঠাচ্ছে না মিলাররা
.............................................................................................
বর্জ্য পরিশোধনের নামে বিদেশী প্রতিষ্ঠানের প্রতারণা
.............................................................................................
নিষিদ্ধ ঘোষিত ওষুধ অবাধে বিক্রি হচ্ছে বাজারে
.............................................................................................
কোরবানির গরু ফুলানো হচ্ছে ভিটামিন দিয়ে
.............................................................................................
‘ফাঁসির মঞ্চে দাঁড়িয়ে স্ত্রীর উদ্দেশে যা বলেছিলেন এরশাদ শিকদার’
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আখলাকুল আম্বিয়া
নির্বাহী সম্পাদক: মাে: মাহবুবুল আম্বিয়া

সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: স্বাধীনতা ভবন (৩য় তলা), ৮৮ মতিঝিল বাণিজ্যিক এলাকা, ঢাকা-১০০০। Editorial & Commercial Office: Swadhinota Bhaban (2nd Floor), 88 Motijheel, Dhaka-1000.
সম্পাদক কর্তৃক রঙতুলি প্রিন্টার্স ১৯৩/ডি, মমতাজ ম্যানশন, ফকিরাপুল কালভার্ট রোড, মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত ।
ফোন : ০২-৯৫৫২২৯১ মোবাইল: ০১৬৭০৬৬১৩৭৭

Phone: 02-9552291 Mobile: +8801670 661377
ই-মেইল : dailyswadhinbangla@gmail.com , editor@dailyswadhinbangla.com, news@dailyswadhinbangla.com

 

    2015 @ All Right Reserved By dailyswadhinbangla.com

Developed By: Nytasoft