শনিবার, ১৩ জুলাই 2024 বাংলার জন্য ক্লিক করুন
  
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   রাজনীতি -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
আদালতে হাজিরা দিয়ে বাড়ি ফিরলেন বিএনপি-জামায়াতের ২ নেতা, তবে...

নোয়াখালী প্রতিনিধি:

নোয়াখালী জেলা চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত থেকে হাজিরা দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে সুবর্ণচরে সড়ক দুর্ঘটনায় জামাল উদ্দিন গাজী (৫৫) ও মাওলানা হাফিজ উল্যাহ (৫৭) নামে দুই বিএনপি-জামায়াত নেতার মৃত্যু হয়েছে। ২০১৪ সালের উপজেলার বাংলাবাজার এলাকার একটি বিস্ফোরক মামলার হাজিরা দিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন।

মঙ্গলবার দুপুর সোয়া ১২টার দিকে উপজেলার চর ওয়াপদা ইউনিয়নের সুলতান নগর এলাকার চরজব্বর-সোনাপুর সড়কে এই দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত জামাল উদ্দিন গাজী উপজেলার চর আমানউল্যা ইউনিয়নের ১নম্বর ওয়ার্ডের কাটাবুনিয়া গ্রামের মৃত সুলতান আহমদের ছেলে এবং একই ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি ছিলেন। হাফিজ উপজেলার চরবাটা ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের মৃত মাওলানা নুরুল উল্যার ছেলে এবং একই ইউনিয়নের জামায়াত নেতা ও উপজেলা ওলামা দলের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন।

চর আমান উল্যা ইউনিয়নের ১নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সাবেক সদস্য (মেম্বার) হোসেন আহাম্মদ দুলাল বলেন, সকালে বিএনপি নেতা গাজী তার আত্মীয় জামায়াত নেতা হাফিজ উল্যা একসাথে মোটরসাইকেলযোগে জেলা শহর মাইজদীতে রাজনৈতিক একটি বিস্ফোরক মামলার হাজিরা দিতে যান। হাজিরা দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে উপজেলার চরজব্বর-সোনাপুর সড়কের সুলতান নগর এলাকার পৌঁছালে পেছন থেকে একটি বেপরোয়া গতির সিএনজি চালিত অটোরিকশা তাদের মোটরসাইকেলে ধাক্কা দেয়। এতে মোটরসাইকেল চালক হাফিজ উল্যাহ ও আরোহী জামাল উদ্দিন মোটরসাইকেল থেকে ছিটকে পড়ে পেছনের চলন্ত একটি ট্রাকের সাথে ধাক্কা লেগে রাস্তার বাহিরে চলে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই বিএনপি নেতা জামাল উদ্দিন গাজী মারা যায়। পরে স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক জামাল উদ্দিন গাজীকে মৃত ঘোষণা করে। মোটরসাইকেল চালক জামায়াত নেতা মাওলানা হাফিজ উল্যাহ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিকেল ৪টায় মারা যান।

চরজব্বর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাউছার আলম ভূঁইয়া বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। স্থানীয়রা সিএনজি চালিত অটোরিকশা ও ট্রাক ড্রাইভারসহ ট্রাকটি আটক করে থানা পুলিশের কাছে সোর্পদ করে। তবে পরে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানানো হবে।

আদালতে হাজিরা দিয়ে বাড়ি ফিরলেন বিএনপি-জামায়াতের ২ নেতা, তবে...
                                  

নোয়াখালী প্রতিনিধি:

নোয়াখালী জেলা চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত থেকে হাজিরা দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে সুবর্ণচরে সড়ক দুর্ঘটনায় জামাল উদ্দিন গাজী (৫৫) ও মাওলানা হাফিজ উল্যাহ (৫৭) নামে দুই বিএনপি-জামায়াত নেতার মৃত্যু হয়েছে। ২০১৪ সালের উপজেলার বাংলাবাজার এলাকার একটি বিস্ফোরক মামলার হাজিরা দিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন।

মঙ্গলবার দুপুর সোয়া ১২টার দিকে উপজেলার চর ওয়াপদা ইউনিয়নের সুলতান নগর এলাকার চরজব্বর-সোনাপুর সড়কে এই দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত জামাল উদ্দিন গাজী উপজেলার চর আমানউল্যা ইউনিয়নের ১নম্বর ওয়ার্ডের কাটাবুনিয়া গ্রামের মৃত সুলতান আহমদের ছেলে এবং একই ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি ছিলেন। হাফিজ উপজেলার চরবাটা ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের মৃত মাওলানা নুরুল উল্যার ছেলে এবং একই ইউনিয়নের জামায়াত নেতা ও উপজেলা ওলামা দলের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন।

চর আমান উল্যা ইউনিয়নের ১নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সাবেক সদস্য (মেম্বার) হোসেন আহাম্মদ দুলাল বলেন, সকালে বিএনপি নেতা গাজী তার আত্মীয় জামায়াত নেতা হাফিজ উল্যা একসাথে মোটরসাইকেলযোগে জেলা শহর মাইজদীতে রাজনৈতিক একটি বিস্ফোরক মামলার হাজিরা দিতে যান। হাজিরা দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে উপজেলার চরজব্বর-সোনাপুর সড়কের সুলতান নগর এলাকার পৌঁছালে পেছন থেকে একটি বেপরোয়া গতির সিএনজি চালিত অটোরিকশা তাদের মোটরসাইকেলে ধাক্কা দেয়। এতে মোটরসাইকেল চালক হাফিজ উল্যাহ ও আরোহী জামাল উদ্দিন মোটরসাইকেল থেকে ছিটকে পড়ে পেছনের চলন্ত একটি ট্রাকের সাথে ধাক্কা লেগে রাস্তার বাহিরে চলে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই বিএনপি নেতা জামাল উদ্দিন গাজী মারা যায়। পরে স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক জামাল উদ্দিন গাজীকে মৃত ঘোষণা করে। মোটরসাইকেল চালক জামায়াত নেতা মাওলানা হাফিজ উল্যাহ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিকেল ৪টায় মারা যান।

চরজব্বর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাউছার আলম ভূঁইয়া বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। স্থানীয়রা সিএনজি চালিত অটোরিকশা ও ট্রাক ড্রাইভারসহ ট্রাকটি আটক করে থানা পুলিশের কাছে সোর্পদ করে। তবে পরে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানানো হবে।

প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফর নিয়ে বিএনপি মিথ্যাচার করছে: আরাফাত
                                  

স্বাধীন বাংলা প্রতিবেদন:

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভারত সফরে কিছু সমঝোতা স্মারক সই নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ও বিভিন্ন মূলধারার গণমাধ্যমে অপপ্রচার হয়েছে। এ নিয়ে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরও মিথ্যাচার করেছেন বলে জানিয়েছেন তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী মোহাম্মদ আলী আরাফাত।

সোমবার (১ জুলাই) দুপুরে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে সমসাময়িক বিষয় নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা জানান।

আরাফাত বলেন, বাংলাদেশের বুক চিরে ভারতের ট্রেন চলবে উল্লেখ করে মির্জা ফখরুল বলেছেন আমাদের দেশ নাকি নিরাপত্তা ঝুঁকির মধ্যে পড়বে। এই লাইনে ভারত নাকি এখানে দিয়ে আর্মস নিয়ে যাবে। কিন্তু সমঝোতা স্বারকে এমন কিছুই নেই। বরং আর্মসসহ এ জাতীয় কিছুই পরিবহন করা যাবে না উল্লেখ আছে। এ নিয়ে একটা কল্পিত ঝুঁকির ভয় দেখানো হচ্ছে সাধারণ মানুষকে।

তিনি আরও বলেন, ভারত শুধু আমাদের ওপর দিয়ে ট্রেন নিয়ে যাবে না বরং আমরাও ভারতের ওপর দিয়ে ট্রেন নিয়ে নেপাল, ভুটান যাব। এসব অর্জনকে বিকৃতভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে। এটাকে তো নতজানু পররাষ্ট্রনীতি বলে না।

ঢাকায় বিএনপি-আওয়ামী লীগের সমাবেশ
                                  

স্বাধীন বাংলা প্রতিবেদন:

বিএনপি চেয়ারপরসন খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে রাজধানীর নয়াপল্টনে সমাবেশ ডেকেছে দলটি। অপরদিকে দলের ৭৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষ্যে বিকেলে বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে সমাবেশ করবে আওয়ামী লীগ।

দুপুর আড়াইটায় নয়াপল্টনে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশ করবে বিএনপি। সমাবেশকে কেন্দ্র করে বড় জমায়েতের প্রস্তুতি নিয়েছে দলটি। এতে ঢাকা মহানগর ছাড়াও এর আশাপাশের জেলা ও মহানগর থেকেও নেতাকর্মীদের অংশ নিতে বলা হয়েছে।

প্রায় আট মাস পর বিএনপির চেয়ারপারসনের মুক্তির দাবিতে বিএনপি এ কর্মসূচি দিয়েছে। সমাবেশে ঢাকা মহানগর ও জেলা ছাড়াও আশপাশের জেলা থেকেও নেতা-কর্মীরা যোগ দেবেন বলে দলীয় সূত্রে জানা গেছে।

দলীয় সূত্র জানা গেছে, দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে অনেক দিন পর কর্মসূচি দেওয়া হয়েছে। এ কারণে সমাবেশটি বড় করতে সাংগঠনিক প্রস্তুতি নিচ্ছেন নেতারা।

বর্তমানে ঢাকা মহানগরে বিএনপির কোনো কমিটি নেই। তাই কেন্দ্রীয় বিএনপির ব্যানারে এই সমাবেশ হবে। দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এতে প্রধান অতিথি থাকবেন। সভাপতিত্ব করবেন স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস। সমাবেশে দলের জ্যেষ্ঠ নেতারা বক্তব্য দেবেন।

এদিকে, দলের ৭৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষ্যে আওয়ামী লীগ শনিবার বিকালে বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউতে দলীয় কার্যালয়ের সামনে আলোচনা সভা করবে। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এতে প্রধান অতিথি থাকবেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্র থেকে জানা গেছে, আওয়ামী লীগ হঠাৎ করেই শুক্রবার বিকালে আলোচনা সভার কর্মসূচি ঘোষণা করে। প্রতিষ্ঠার প্লাটিনাম জুবিলি উপলক্ষে এ কর্মসূচির আয়োজন করা হলেও এ বিষয়ে আগে থেকে কোনো সিদ্ধান্ত ছিল না।

যাবজ্জীবন শাস্তির দাবিতে বেনজীর-মতিউরের কুশপুত্তুলিকা দা হ
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক:

দুর্নীতিবাজদের তালিকা প্রণয়ন এবং কমপক্ষে যাবজ্জীবন শাস্তির দাবিতে দুর্নীতিবাজ বেনজীর-মতিউর-এর কুশপুত্তুলিকা দাহ ও সমাবেশ করেছে নতুনধারা বাংলাদেশ এনডিবি।

শুক্রবার (২৮ জুন) সকাল সাড়ে ১০টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অনুষ্ঠিত সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন নতুনধারা বাংলাদেশ এনডিবির চেয়ারম্যান মোমিন মেহেদী।

পুলিশী বাঁধার মুখে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন নতুনধারা বাংলাদেশ এনডিবির প্রেসিডিয়াম মেম্বার বোর্ডের সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা কৃষকবন্ধু আবদুল মান্নান আজাদ, সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান শান্তা ফারজানা, ভাইস চেয়ারম্যান ডা. নূরজাহান নীরা, যুগ্ম মহাসচিব মনির জামান, সদস্য আফতাব মন্ডল, আল আমিন বৈরাগী, নিজাম উদ্দীন প্রমুখ।

বক্তব্যে এনডিবির চেয়ারম্যান মোমিন মেহেদী বলেন, সারাদেশে সাপের দংশনের সংবাদ গণমাধ্যমে দেখছি, যে সাপ দংশন করছে সেই সাপের নাম রাসেলস ভাইপার। সেই রাসেল ভাইপারের কামড়ে মানুষ মারা গেছে ছয়শ; আর সচিবালয়ের রাসেল ভাইপারদের কামড়ে সারাদেশের মানুষ আস্তে আস্তে ধ্বংস হচ্ছে অর্থনৈতিক-সামাজিক-শিক্ষা ও সাংস্কৃতিকভাবে।

তিনি বলেন, বাংলাদেশকে বাঁচাতে, বাংলাদেশের অর্থনীতিকে বাঁচাতে, বাংলাদেশের মানুষকে বাঁচাতে সচিবালয়সহ বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত দুর্নীতিবাজদের তালিকা আগামী ১ মাসের মধ্যে না করলে দুদক কার্যালয় ঘেরাও কর্মসূচি করবে নতুনধারা।

সমাবেশ শেষে শ্লোগান দিলে আবারো পুলিশের বাঁধার মুখে পরে নতুনধারা বাংলাদেশ এনডিবির নেতৃবৃন্দ। এসময় নতুনধারার চেয়ারম্যান মোমিন মেহেদীকে উঠিয়ে নিয়ে যাওয়ারও হুমকি দেন দায়িত্ব পালনকারী পুলিশ কর্মকর্তা বুলবুল। তিনি এসময় ব্যানার কেড়ে নিয়ে নেতাকর্মীদেরকে ছত্রভঙ্গ করার চেষ্টা করেন বলে এনডিবির পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়।

ভারত বিরোধীরা আবারও ভুল পথে যাচ্ছেন: কাদের
                                  

স্বাধীন বাংলা প্রতিবেদন:

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ভারত বিরোধিতার নামে যারা আজ আন্দোলনের ইস্যু খোঁজার চেষ্টা করছেন, তারা আবারও ভুল পথে যাচ্ছেন।

শুক্রবার (২৮ জুন) সকালে সংসদ ভবনের সামনে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন আয়োজিত সাইকেল র‌্যালি উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, আওয়ামী লীগ কোনো পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি দিচ্ছে না। আওয়ামী লীগের বছরব্যাপী কর্মসূচি আগেই ঘোষিত হয়েছে। কেন্দ্রের পর মহানগর এবং আওয়ামী লীগের সব সহযোগী সংগঠন প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষ্যে অনুষ্ঠানমালা আয়োজন করবে।

এ সময় দেশের তরুণ সমাজকে আওয়ামী লীগে যোগদানের আহ্বান জানান ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, বেকার তরুণদের কর্মসংস্থানে নির্বাচনি অঙ্গীকার পূরণ করবে আওয়ামী লীগ।

র‌্যালিতে মেয়র আতিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে আরও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক, কামরুল ইসলাম, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দীন নাছিম, দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া, উপ-দপ্তর সম্পাদক সায়েম খান, কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য মোহাম্মদ আলী আরাফাত প্রমুখ।

নয়াপল্টনে বিএনপির সমাবেশ শনিবার
                                  

স্বাধীন বাংলা প্রতিবেদন:

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে ৩ দিনের সমাবেশ কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বিএনপি। রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে বেগম জিয়া চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

বুধবার (২৬ জুন) দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টন দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এই কর্মসূচি ঘোষণা করেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। এর আগে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে যৌথসভা অনুষ্ঠিত হয়।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে আগামী ২৯ জুন বিকাল ৩টায় রাজধানীর নয়াপল্টন বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশ, ১ জুলাই সারা দেশের মহানগর এবং ৩ জুলাই জেলা সদরে সমাবেশ হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলন আরও বেগবান করা হবে। এই আন্দোলনকে আমরা চূড়ান্ত পর্যায়ে নিয়ে যেতে চাই।’

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ডা. ফরহাদ হালিম ডোনার, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, যুগ্ম মহাসচিব খাইরুল কবির খোকন, হাবিবউন নবী খান সোহেল, শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, আব্দুস সালাম আজাদ, চেয়ারপারসনের বিশেষ সহকারী শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাস, প্রচার সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দিন টুকু প্রমুখ।

ভোট চুরি করে কেউ ক্ষমতায় থাকতে পারে না: প্রধানমন্ত্রী
                                  

স্বাধীন বাংলা প্রতিবেদন:

আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ভোট চুরি করে কেউ ক্ষমতায় থাকতে পারে না, ১৯৯৬ সালে খালেদা জিয়ার পদত্যাগ সেটা প্রমাণ করে।

শনিবার (১৫ জুন) সকালে গণভবনে কৃষক লীগের উদ্যোগে তিন মাসব্যাপী বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি উদ্বোধন ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

শেখ হাসিনা বলেন, বিএনপির মুখে গণতন্ত্র ও ভোটাধিকারের কথা শুনলে হাসি পায়। বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানই প্রথম মানুষের ভোটাধিকার হরণ করেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, জিয়াউর রহমান অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করে এ দেশের ভোটের সমস্ত অধিকারগুলো কেড়ে নিয়েছিল। তার সেই হ্যাঁ-না ভোট দিয়ে যাত্রা শুরু; অবৈধ ক্ষমতাকে বৈধ করার জন্য।

তিনি বলেন, একাধারে সেনাপ্রধান, তারপর আবার নিজেকে রাষ্ট্রপতি ঘোষণা দিয়ে ক্ষমতায় এসে রাষ্ট্রপতি নির্বাচনি প্রহসন। ক্ষমতার মসনদে বসেই দল গঠন। ক্ষমতার উচ্ছিষ্ট বিলিয়ে যে দলটি গঠন করে, তাকে আবার জিতিয়ে আনার জন্য ভোট চুরির একটা প্রক্রিয়া এ দেশের শুরু করেছিল।

তিনি আরও বলেন, জিয়াউর রহমানের পরে তারই পদাঙ্ক অনুসরণ করে এরশাদ ক্ষমতায় এসে জনগণের ভোটের অধিকার নিয়ে ছিনিমিনি খেলে। এ দেশের কৃষক-শ্রমিকরা সব সময় অবহেলিতই থেকে যায়। এরপর আসলো খালেদা জিয়া। সেও ক্ষমতায় আসার পর দেখা গেল, শুধু জনগণের ভোট চুরি করাই না, দেশের কৃষকের ভাগ্য নিয়েও ছিনিমিনি খেলে; সার পাওয়া যাচ্ছে না, কৃষক আন্দোলন করেছে। আন্দোলন করার অপরাধে ১৮ জন কৃষককে গুলি করে হত্যা করেছিল।

শেখ হাসিনা বলেন, খালি কৃষক কেন! রোজার দিনে শ্রমিকরা মজুরির দাবিতে যখন আন্দোলন করে তখনো প্রায় ১৭ শ্রমিককে গুলি করে হত্যা করেছিল এই খালেদা জিয়া। বিদ্যুতের দাবি করেছিল কানসাটে; কৃষকরাই সেচের জন্য পানি পাচ্ছিল না। সেখানেও নয়জন মানুষকে হত্যা করা হয়। তাদের এই অপকর্মের ফলে যখন জনগণ তাদের ওপর বিতশ্রদ্ধ, সেই সময় ১৯৯৬ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি একটা প্রহসনমূলক নির্বাচন হয়, খালেদা জিয়া সেই নির্বাচনে ভোট চুরি করে ক্ষমতায় থাকার চেষ্টা করে। মাত্র ২২ শতাংশ ভোট পড়েছিল সেখানে। সরাসরি নির্বাচিত কোনো প্রতিপক্ষ ছিল না।

অর্থনৈতিক দুঃশাসন ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে জেবিডি’র মানববন্ধন
                                  

স্বাধীন বাংলা প্রতিবেদন:

ঋণ খেলাপি, অর্থ পাচারকারী, অর্থনৈতিক দুঃশাসন ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে মানববন্ধন করেছে জাগ্রত বাংলাদেশ (জেবিডি)। মানববন্ধন থেকে ঋণখেলাপি ও অর্থপাচারকারীদের তালিকা প্রকাশ ও অর্থনৈতিক সুশাসন নিশ্চিত করাসহ বেশকিছু দাবি তুলে ধরেন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।
শনিবার (০১ জুন) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন দলের সভাপতি আজমুল জিহাদ।

মানববন্ধনে আরও উপস্থিত ছিলেন- জাগ্রত বাংলাদেশের সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. নূরুল আমিন ভূঁইয়া, সাংগঠনিক সম্পাদক মহিউদ্দিন মামুন, আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাড. এবিএম জোবায়ের, সাংস্কৃতিক সম্পাদক রোমান কবির, জাগ্রত আইনজীবী বাংলাদেশের আহ্বায়ক অ্যাড. আনোয়ার হোসেন, জাগ্রত শ্রমিক বাংলাদেশের আহ্বায়ক রুবেল হোসেনসহ ঢাকা মহানগর উত্তর, দক্ষিণ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

মানববন্ধনে সংগঠনের সভাপতি আজমুল জিহাদ বলেন, ঋণ খেলাপি, কর খেলাপি, অর্থ পাচারকারীদের তালিকা অবিলম্বে জনসম্মুখে প্রকাশ করে তাদেরকে সামাজিকভাবে বয়কট করতে হবে।

তিনি বলেন, এরা পাকিস্তান ও ব্রিটিশদের উত্তরসূরী। এরা যুদ্ধাপরাধীদের দোসর, এরা রাবণের বংশধর। এদেরকে জনসম্মুখে চিহ্নিত করতে হবে। একটা অর্থনৈতিক কাউন্সিল করে সকল পাচারকৃত অর্থ ফেরত আনতে হবে। খেলাপি ঋণ ও খেলাপি কর অর্থ উত্তোলন করতে হবে।

মানববন্ধনে ঋণখেলাপি ও অর্থপাচারকারীদের বিরুদ্ধে জনতাকে সঙ্গে নিয়ে রুখে দাঁড়াবার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. নূরুল আমিন ভূঁইয়া। তিনি বলেন, দেশের মুষ্টিমেয় কিছু ঋণখেলাপি ও অর্থপাচারকারীদের হাতে জনগণ জিম্মি। তাদের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। অবিলম্বে জনগণের জানমালে ও তাদের অধিকার জনগণের হাতে ন্যস্ত করতে হবে।

বক্তারা বলেন, দেশের জনগণের ব্যাংকে রাখা অর্থ লোপাট করে বিদেশে লক্ষ লক্ষ টাকা পাচার করা হচ্ছে। আমার দেশের অসহায় জনগণের উপর মাথাপিচু ঋণের বোঝা চাপিয়ে দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু যে সব ঋণখেলাপিরা ঋণের টাকা ফেরত না দিয়ে বিদেশে পাচার করে বেগমপাড়া করছেন তাদের বিরুদ্ধে প্রশাসন কোনো ব্যবস্থা সেভাবে নিতে পারছে না। অর্থনৈতিক দু:শাসন ও অনিয়ম দুর্নীতি আজ নিয়মে পরিণত হয়েছে।

ঋণ খেলাপি, অর্থ পাচারকারী, অর্থনৈতিক দুঃশাসন ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে জাগ্রত বাংলাদেশের মানববন্ধনে দাবি করা হয়- ঋণ খেলাপি ও অর্থপাচারকারীদের তালিকা ও অর্থের পরিমাণ জনসম্মুখে প্রকাশ করতে হবে, কেন্দ্রীয় ব্যাংকের স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে হবে, অর্থনৈতিক সুশাসন নিশ্চিত করতে হবে এবং মালিক গ্রাহক ও সরকারের সমন্বয়ে ব্যাংকিং পরিচালনা পরিষদ গঠন করতে হবে।

কাউকে জেলে পাঠানোর এজেন্ডা আমাদের নেই: ওবায়দুল কাদের
                                  

স্বাধীন বাংলা প্রতিবেদন:

কাউকে জেলে পাঠানোর এজেন্ডা আওয়ামী লীগের নেই বলে মন্তব্য করেছেন দলটির সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, রাজনৈতিক দল বিবেচনায় কাউকে গ্রেপ্তার, কারাদণ্ড বা শাস্তি দেওয়া হয় না। শুধুমাত্র অপরাধ করলেই শাস্তি দেওয়া হয়।

শনিবার (২৫ মে) সকাল সাড়ে ৭টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদ প্রাঙ্গণে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১২৫তম জন্মবার্ষিকীতে আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে এসব কথা বলেন তিনি।


সেতুমন্ত্রী বলেন, কোনো রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীকে জেলে পাঠানোর এজেন্ডা আমাদের নেই। যারা অপরাধে জড়িত তারা রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মী নন। তারা দুর্বৃত্ত। জাতীয় স্বার্থেই এদের শায়েস্তা করতে হবে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, আমরা মুক্তিযুদ্ধে বিজয়ী হয়েছি বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে। কিন্তু সেই বিজয়কে সংহত করার এখনও অনেক কাজ বাকি। সংহত করার পথে বিএনপির পৃষ্ঠপোষকতায় কিছু অশুভ শক্তি তৎপর। আজকের দিনে আমাদের অঙ্গীকার, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমরা সাম্প্রদায়িক বিষবৃক্ষকে সমূলে উৎপাটিত করে অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়ব। সেটিই হবে নজরুলের প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদনের সার্থকতা।

এ সময় আওয়ামী লীগ নেতাদের মধ্যে সেখানে উপস্থিত ছিলেন— দলের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দীন নাছিম, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, এস এম কামাল হোসেন, সুজিত রায় নন্দী, দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া, প্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার আব্দুস সবুর প্রমুখ।

আশুলিয়ায় জামায়াতে ইসলামীর গোপন বৈঠক, আটক ২১
                                  

আশুলিয়া(সাভার)প্রতিনিধি:

আশুলিয়ায় একটি রেষ্টুরেন্ট থেকে ২১ জনকে আটক করেছে পুলিশ। পুলিশ বলছে আটকরা জামায়াতে ইসলামীর সদস্য এবং এখানে গোপন বৈঠক করছিলো। গোপন বৈঠকের সংবাদ পেয়ে ২১ জনকে আটক করা হয়েছে। যাচাই বাচাই শেষে নাশকতার প্রমাণ পাওয়া গেলে তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

শুক্রবার (২৪ মে) বিকেলে আশুলিয়ার পল্লিবিদ্যুৎ এলাকায় ফুড প্লানেট রেষ্টুরেন্ট থেকে তাদের আটক করা হয়।

আটককৃতরা হলেন- রাজবাড়ী জেলার পাংশা থানার বাগমারা গ্রামের হাবিবুর রহমানের ছেলে জিল্লুর রহমান (৪৫), নাটোরের বাগাতিপাড়া থানার লুৎফর রহমানের ছেলে আশিকুর রহমান (৪০), চাঁদপুর জেলার ফরিদগঞ্জ থানার কাসাড়া গ্রামের বাবুলের ছেলে আনোয়ার (২৯), জামালপুর জেলার মেলান্দহ থানার ঢালুখাবাড়ি চরপাড়ার নাজিমুদ্দিনের ছেলে আব্দুর রাজ্জাক (৫০), টাঙ্গাইলের নাগরপুর থানার পাকুটিয়া গ্রামের বাদশা মিয়ার ছেলে রফিকুল ইসলাম (৪২), মেহেরপুর জেলার গাংগী থানার সাহেবনগর গ্রামের আব্দুর রহমানের ছেলে আবুল বাশার (৪৩), টাঙ্গাইল জেলার মির্জাপুর থানার ভাওয়া গ্রামের মৃত মোজাফফর আলীর ছেলে আব্দুল কাদের (৬০), সিরাজগঞ্জ সদর থানার শিলদাহ গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে আমিনুল ইসলাম (৩৩), আশুলিয়ার নয়ারহাটের ঘুঘুদিয়া এলাকার আলী আকবরের ছেলে আরমান হোসেন (৩৭), মাদারীপুর জেলার শিবচর থানার সন্যাষীর চর এলাকার আব্দুল মান্নান খানের ছেলে জলিল খান (৪২), লক্ষীপুর জেলার রামগঞ্জ থানার কান্দিরপাড় গ্রামের মো. মুসলীমের ছেলে সোহেল রানা (২৮), চাঁদপুর জেলার মতলব উত্তর থানার সিকিরচড় গ্রামের মৃত আরশাদ মিয়ার ছেলে আবুল কালাম আজাদ (৫৩), বগুড়া জেলার ধনুট থানার বড়মোগাচর গ্রামের আব্দুল কাশেমের ছেলে আব্দুল করিম (২৯), নীলফামারীর ডোমার থানার উত্তর আমবাড়ি গ্রামের দারাজ উদ্দিনের ছেলে নুরনবী (৩৮), লক্ষীপুরের রামগঞ্জ থানার কালিকাপুর গ্রামের মৃত হেদায়েত উল্লাহর ছেলে তৈয়ব উল্লাহ (৪৭), ময়মনসিংহ জেলার ত্রিশাল থানার উরাগাছা গ্রামের মোহাম্মদ আলী মন্ডলের ছেলে মোজাম্মেল হক (৪০), দিনাজপুর জেলার কোতোয়ালি থানার নিশ্চিন্তপুর গ্রামের মঞ্জুর হোসেনের ছেলে মিরাজ হোসেন (৩৪), আশুলিয়ার পলাশবাড়ি বটতলা এলাকার আবু জাফরের ছেলে মানিক (৩৪), বরিশালের মুলাদি থানার চরপদ্মা গ্রামের আব্দুর রশিদের ছেলে মো. হাসান (৩৫), বরিশাল সদরের চরকালামতি এলাকার আব্দুল মালেকের ছেল জসিমউদ্দীন (৪০) ও সিরাজগঞ্জে জেলার চৌহালী থানার চৌবাড়িয়া গ্রামের আব্দুল মজিদের ছেলে জাহিদ হাসান (৪১)।


পুলিশ জানায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জামায়াতে ইসলামীর গোপন বৈঠকের সময় বেশ কিছু নেতাকর্মীকে আটক করা হয়েছে। আটকদের যাচাই-বাছাই চলছে। নাশকতার পরিকল্পনার সাথে সম্পৃক্ততা পাওয়া গেলে তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হবে।

আশুলিয়া থানার পরিদর্শক (ওসি তদন্ত) মাসুদুর রহমান বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান পরিচালনা করে জামায়াতে ইসলামীর বেশ কয়েক জন নেতাকর্মীকে আটক করা হয়েছে। আটকদের যাচাই-বাছাই করা হচ্ছে। তারা নাশকতার পরিকল্পনার সাথে জড়িত হলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আশুলিয়া থানার পরিদর্শক (ওসি অপারেশন) নির্মল কুমার দাস বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতেই তাদের মিটিং থেকে আটক করা হয়েছে। এছাড়া নাশকতার সাথে আরও কেউ জড়িত থাকলে তাকেও আইনের আওতায় আনা হবে।

‘যারা আমার বিরোধিতা করবে, তারা আল্লাহর সঙ্গে বিরোধিতা করবে’
                                  

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি:

কুষ্টিয়া আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের প্রশাসক সদর উদ্দিন খানের একটি বক্তব্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। বক্তব্যে তিনি বলছেন, ‘যারা আমার বিরোধিতা করবে, তারা আল্লাহর সঙ্গে বিরোধিতা করবে’। বুধবার সন্ধ্যায় খোকসা উপজেলার আমবাড়িয়া ইউনিয়নের গোসাইডাঙ্গী বাজারে উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী ছোট ভাইয়ের নির্বাচনি প্রচারে গিয়ে এ মন্তব্য করেন তিনি।

তার এমন বক্তব্যের ২ মিনিট ১৮ সেকেন্ডের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে। এরপর থেকেই উপজেলা আওয়ামী লীগের একাংশের নেতাকর্মীসহ সাধারণ ভোটাররা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

ওই ভিডিওতে সদর উদ্দিন খান বলেন, ‘আল্লাহ পাক উন্নয়ন করাবে আমাকে দিয়ে। যারা আমার বিরোধিতা করবে, তারা আল্লাহর সঙ্গে বিরোধিতা করবে। শয়তানরাও মসজিদে আসবে, শয়তানরাও গোরস্তানে শোবে। শয়তানরা মসজিদে এসে সুখে থাকতে পারবে না। কোনো ওয়াক্তে যাবে, কোনো ওয়াক্তে যাবে না। আর গোরস্তানে গেলে শয়তানদের যেভাবে মাটি চাপা হবে, আপনারা কল্পনাই করতে পারবেন না।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমি শয়তানের অনুসারীদের বলব— শয়তানের সঙ্গে থাইকি এই শাস্তি ভোগ করার দরকার নেই। যারা শয়তান আছে থাক, তা বাদে সবাই আপনারা একসঙ্গে আসবেন। একসঙ্গে হয়ে জয় সুনিশ্চিত করেন। জয় আল্লাহপাকের ইচ্ছা। আল্লাহপাকের রহমতে আইজকি বুইলি গেলাম, জয় সুনিশ্চিত।’

এ বিষয়ে কথা বলতে কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সদর উদ্দিন খানের সঙ্গে একাধিকবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

প্রসঙ্গত, আগামী ৮ মে প্রথম ধাপে অনুষ্ঠিত হবে ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন। ছয়টি উপজেলার মধ্যে প্রথম ধাপে কুষ্টিয়া সদর ও খোকসা উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

বিএনপিকে গণতান্ত্রিক দল মনে করি না: কাদের
                                  

স্বাধীন বাংলা প্রতিবেদন:

বিএনপিকে গণতান্ত্রিক দল মনে করি না। তাদের ইতিহাসে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার কোনো নজির নেই বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। শনিবার সকালে শেরেবাংলা একে ফজলুল হকের ৬২তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষ্যে তার সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে এসব কথা বলেন তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, তারা(বিএনপি) গণতন্ত্রকে হত্যা করেছে, প্রহসনে পরিণত করেছে। গণতান্ত্রিক বিধিবিধান তারা দলের মধ্যেও কোনো দিন মানেনি। তারা বড় বড় কথা বলে, তারা কবে দলীয় কাউন্সিল করেছে? তারা কোথায় দলীয় কাউন্সিল করেছে? ৭-৮ বছর আগে লা মেরিডিয়ানে কেন্দ্রীয় কমিটির মিটিং হয়েছে।

কাদের বলেন, বিএনপি জনগণকে মূল বিষয় হিসেবে মনে করে না। বিদেশি প্রভুদের দাসত্ব করলে ক্ষমতায় যাওয়া যায়? এখনো তাদের দুরভিসন্ধি হচ্ছে বিদেশি প্রভুদের দাসত্ব করে কীভাবে ক্ষমতায় যাওয়া যায়?

সেতুমন্ত্রী বলেন, এ দেশে সাধারণ মানুষের মাঝে যারা রাজনীতিকে নিয়ে গিয়েছিলেন তাদের মধ্যে জাতীয় নেতা শেরেবাংলা ছিলেন অন্যতম। সাধারণ মানুষকে স্বাধীনতার মন্ত্রে উজ্জীবিত করেছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। শেরেবাংলাকে গ্রামবাংলার কৃষকরা কোনো দিনও ভুলতে পারবেন না। তিনি চিরদিন তাদের মাঝে স্মরণীয় হয়ে থাকবেন। প্রজাস্বত্ব ও ঋণ সালিশি বোর্ড গঠন করে সুদখোর মহাজনদের অত্যাচার থেকে রক্ষা করেছেন, তিনি সে জন্য এখনো স্মরণীয় হয়ে আছেন।

আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, আজ আমাদের অঙ্গীকার বঙ্গবন্ধু, সোহরাওয়ার্দী, মওলানা ভাসানী, শেরেবাংলা একে ফজলুল হকের অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গঠন করা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমরা লড়ে যাচ্ছি মানবিক ও অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়তে। সেটাই শেরেবাংলা একে ফজলুল হকের স্বপ্ন এবং সেটা আজ আমাদের অঙ্গীকার।

উপজেলা নির্বাচন: কেন্দ্রীয় নির্দেশ অমান্য করে নির্বাচনে বিএনপির ৩৮ নেতা
                                  

স্বাধীন বাংলা প্রতিবেদন:

আ.লীগ সরকারের অধীনে ধারাবাহিকভাবে সকল নির্বাচন বর্জন করেছে বিএনপি। এরই ধারাবাহিকতায় আনুষ্ঠানিকভাবে দলটির পক্ষ থেকে এবারের উপজেলা নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। তবে, দলটির নীতিগত এই সিদ্ধান্ত মানতে নারাজ তৃণমূলের অনকে নেতা। দলীয় নির্দেশনা উপেক্ষা করে বেশ কয়েকজন নেতা উপজেলা নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন।


প্রথম ধাপের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বিএনপির ৪৯ জন চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন। তাদের মধ্যে ১১ জন মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। নির্বাচন বর্জনের কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ৩৮ জন। এর মধ্যে বিএনপির পদধারী নেতা ১৮ জন। বাকিরা বিএনপি নেতাদের আত্মীয়স্বজন ৯ জন ও দল থেকে বহিষ্কৃত নেতা। বিএনপি কেন্দ্রীয় দপ্তর সূত্রে জানা গেছে এ তথ্য।

এ বিষয়ে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, বর্তমান সরকার ও নির্বাচন কমিশনের অধীনে কোনো নির্বাচনে অংশ নেবে না বিএনপি। এটা দলীয় সিদ্ধান্ত। সেজন্য উপজেলা পরিষদ নির্বাচনও বর্জনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। কাজেই দলের দায়িত্বশীল যারাই উপজেলা নির্বাচনে প্রার্থী হবেন তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদের প্রার্থিতা প্রত্যাহার করেছেন উপজেলা বিএনপি’র যুগ্ম আহ্বায়ক ভিপি মো. কামাল। দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে উপজেলা বিএনপি’র সভাপতি শাহ মোহাম্মদ শামীম হোসেন চৌধুরী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন মাস্টার উপজেলা পরিষদ নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন। তিনি উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী ছিলেন। সোমবার দুপুরে সরাইল প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলন করে প্রার্থিতা প্রত্যাহার করেন।

চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুর উপজেলা চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন বিএনপি নেতা আব্দুল্লাহ আল রায়হান। তবে চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুর উপজেলায় চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হয়েছেন সাবেক বিএনপি নেতা আশরাফ হোসেন (ডালিম), ভোলাহাট উপজেলায় চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক মোহাম্মদ বাবর আলী, উপজেলা বিএনপির সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. আনোয়ারুল ইসলাম। নাটোরের নলডাঙ্গা উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান পদে জেলা মহিলা দলের নেত্রী সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মহুয়া পারভীন লিপি মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেননি।

নাটোর সদর উপজেলার তেবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান জেলা বিএনপির সাবেক নেতা গোলাম সারোয়ার প্রার্থিতা প্রত্যাহার করেননি। তিনি নাটোর সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করছেন। অপরদিকে নলডাঙ্গা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থিতা প্রত্যাহার করেননি উপজেলা বিএনপির সহসভাপতি সরদার আফজাল হোসেন।

ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে বিএনপির ময়মনসিংহ জেলা উত্তর বিএনপির সদস্য আব্দুল হামিদ এবং জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের কেন্দ্রীয় সদস্য আবুল হাসনাত তারেক শেষদিনেও প্রার্থিতা প্রত্যাহার করেননি। এ ব্যাপারে আব্দুল হামিদ বলেন, বিগত উপজেলা নির্বাচনের পূর্বেই আমি দল থেকে পদত্যাগ করেছি। সুনামগঞ্জের দিরাই ও শাল্লা উপজেলায় বিএনপির দুই শীর্ষ নেতা নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এরা হচ্ছেন শাল্লা উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান গণেন্দ্র চন্দ্র সরকার ও দিরাই উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ও সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান গোলাপ মিয়া। দুজনের মধ্যে কেউই মনোনয়ন প্রত্যাহার করেননি। এ ব্যাপারে শাল্লা উপজেলা বিএনপির সভাপতি গণেন্দ্র চন্দ্র সরকার ও দিরাই উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক গোলাপ মিয়া জানান, তৃণমূল নেতাকর্মীদের চাপে তারা নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছেন। মাঠ পর্যায়ের নেতাকর্মীরা মাঠে তাদের সঙ্গে থাকবে বলে তারা আশাবাদী।

ময়মনসিংহের উপজেলা চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন দাখিলকারী বিএনপি নেতা এমরান হাসান পল্লব প্রার্থিতা প্রত্যাহার করেননি। পল্লব ফুলপুর পৌরসভা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে দলীয় সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন উপজেলা বিএনপির সিনিয়র সহসভাপতি সারোয়ার হোসেন।

এদিকে মৌলভীবাজারের বড়লেখায় টানা চতুর্থবারের মতো উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলেন বর্তমান উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রাহেনা বেগম হাছনা। উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে তিনি একক প্রার্থী ছিলেন। রাহেনা বেগম উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক এবং মৌলভীবাজার জেলা মহিলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক। চাঁপাইনবাবগঞ্জের ভোলাহাট উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান (পুরুষ) প্রার্থী উপজেলা বিএনপির সাবেক কোষাধ্যক্ষ মোহা. কামাল উদ্দিন, উপজেলা ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক কায়সার আহমেদ, ভাইস চেয়ারম্যান (মহিলা) পদে প্রার্থী বিএনপির বহিষ্কৃত নেত্রী মোসা. রেশমাতুল আরস।

এবার উপজেলা নির্বাচন বর্জন করল বিএনপি
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক:

জাতীয় নির্বাচনের পর এবার উপজেলা পরিষদ নির্বাচন বর্জন করেছে বিএনপি। দলটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আগামী ৮ মে থেকে শুরু হওয়া সকল ধাপের উপজেলা পরিষদ নির্বাচন বর্জন করবে তারা। সোমবার রাতে দলটির স্থায়ী কমিটির ভার্চুয়াল বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

আজ মঙ্গলবার(১৬ এপ্রিল) দুপুরে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।
এতে বলা হয়, সোমবার রাত ১০টায় শুরু করে স্থায়ী কমিটির বৈঠক শেষ হয় গভীর রাতে। এতে সভাপতিত্ব করেন ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান।

বৈঠকের সিদ্ধান্ত জানিয়ে প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি যারা প্রতিটি ক্ষেত্রে জনগণের নিকট জবাবদিহি করে সেই নির্বাচন গণতন্ত্রের অপরিহার্য শর্ত। এই শর্তের অনুপস্থিতিতে স্বৈরতন্ত্র হিংস্ররূপে আত্মপ্রকাশ করে। বর্তমানে বাংলাদেশে এক বিকট স্বৈরাচারের অভ্যুদয় হয়েছে। আওয়ামী দখলদার শাসকগোষ্ঠী ক্ষমতাসীন হয়ে দেড় দশক ধরে অবাধ, সুষ্ঠু, শান্তিপূর্ণ ও সকলের অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন বাংলাদেশ থেকে উচ্ছেদ করেছে। এদের আমলে কখনোই জাতীয় ও স্থানীয় সরকার কোনো নির্বাচনই অবাধ ও সুষ্ঠু হয়নি। জনগণের ভোটের তোয়াক্কা না করে ক্ষমতাসীন দলের মনোনীত প্রার্থীদেরই আজ্ঞাবাহী নির্বাচন কমিশন বিজয়ী ঘোষণা করে। দখলদার শাসকগোষ্ঠী প্রতিটি নির্বাচনের পূর্বে জনগণকে প্রতারিত করার জন্য নতুন নতুন রণকৌশল গ্রহণ করে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, প্রাণবন্ত গণতন্ত্রে নিরপেক্ষ নির্বাচনের সংস্কৃতি আওয়ামী লীগ কখনোই রপ্ত করেনি। তাদের অধীনে সকল জাতীয় সংসদ ও স্থানীয় সরকার নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বী বিরোধী দলের প্রার্থীদের নানাভাবে হামলা, মামলা ও হয়রানির শিকার হতে হয়েছে। মনোনয়নপত্র তোলা ও জমা দেওয়া এবং নির্বাচনি প্রচারণায় হামলা ও শারীরিক আক্রমণসহ পথে পথে বাধা দেওয়া হয়। অনেককেই মনোনয়নপত্র জমা দিতেও দেওয়া হয়নি।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, অগণতান্ত্রিক শক্তি কখনো অবাধ, সুষ্ঠু নির্বাচনের মিত্র হতে পারে না। আওয়ামী শাসকগোষ্ঠী ভোটারবিহীন ৭ জানুয়ারির ডামি নির্বাচনের সকল আয়োজন সম্পন্ন করার পরও তারা আশঙ্কামুক্ত হতে পারেনি। তাই নির্বাচনি পর্যবেক্ষকদেরও নির্বাচন পর্যবেক্ষণের সুযোগ না দেওয়া, ইন্টারনেটের গতি স্লথ করা, নাগরিকদের নজরদারি নস্যাৎ ইত্যাদি নজিরবিহীন সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন বিনাশী পদক্ষেপ গ্রহণ করে। এর আগেও জাতীয় ও স্থানীয় সরকার নির্বাচনে বিরোধী দলের পোলিং এজেন্টদের নানাভাবে বাধা প্রদান করা হয়। কিছু এজেন্টদের ভোটকেন্দ্রে ঢুকতে দেওয়া হলেও পরক্ষণেই তাদেরকে বের করে দেওয়া হয়।

বলা হয়, এরা একতরফা নির্বাচন করতে গিয়ে বিএনপিসহ গণতন্ত্রমনা দলগুলোর হাজার হাজার নেতাকর্মীকে কারাগারে ভরে রাখে। ৭ জানুয়ারির ডামি নির্বাচনে বিএনপির শীর্ষ নেতৃবৃন্দসহ প্রায় ২৫ হাজারেরও বেশি নেতাকর্মীকে কারান্তরীণ করা হয়, এদের অনেকেই এখনও কারাগারে মানবেতর জীবনযাপন করছেন। গুম, খুন অব্যাহত থাকে। এমতাবস্থায় বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল—বিএনপি শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকার ও তার সাজানো নির্বাচন কমিশনের অধীনে এবং প্রশাসন ও পুলিশের প্রকাশ্য একপেশে ভূমিকার জন্য ইতোপূর্বে অনুষ্ঠিত জাতীয় সংসদ ও স্থানীয় সরকার নির্বাচন বর্জন করেছে। এখনও সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের পরিবেশ তৈরি হয়নি এবং বিদ্যমান অরাজক পরিস্থিতি আরও অবনতিশীল হওয়ায় আসন্ন উপজেলা নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করার যৌক্তিক কারণ রয়েছে।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, এই সরকার ভোট, সংবিধান, ভিন্নমত প্রকাশ, বহুদলের অংশগ্রহণে নির্বাচনসহ মানুষের সহজাত অধিকারগুলোকে নির্দয় দমনের কষাঘাতে বিপর্যস্ত করেছে। আওয়ামী লীগের রাজনীতির একমাত্র ভিত্তি হচ্ছে মানুষকে ভয় দেখিয়ে ক্ষমতা ধরে রাখা। তাই সহিংস সন্ত্রাসের ব্যাপক বিস্তারের ফলশ্রুতিতে এই অবৈধ সরকারের অপরাজনীতি ও নির্বাচনি প্রহসনের অংশীদার না হওয়ার বিষয়ে দৃঢ় প্রতীজ্ঞ বিএনপি আগামী ৮ মে থেকে শুরু হওয়া সকল ধাপের উপজেলা পরিষদ নির্বাচন বর্জন করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে।

তালিকা দিন নইলে ক্ষমা চান, ফখরুলকে কাদেরের চ্যালেঞ্জ
                                  

স্বাধীন বাংলা প্রতিবেদন:

জেলে থাকা নেতাকর্মীর সংখ্যা নিয়ে বিএনপি মিথ্যাচার করছে দাবি করেছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। আটক নেতাকর্মীদের তালিকা না দিতে পারলে বিএনপি মহাসচিবকে ক্ষমা চাইতে বলেছেন তিনি।

আওয়ামী লীগের সভাপতির ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে সোমবার দুপুরে এক বিফ্রিংয়ে ওবায়দুল কাদের এসব কথা বলেন।

বিএনপির ৬০ হাজার নেতাকর্মী জেলে দলটির নেতাদের এমন দাবির বিষয়ে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ছিল (কারাবন্দি) ২০ হাজার এখন সেটা ৬০ লাখ হলো কি করে? ৬০ লাখ বন্দির তালিকা অবিলম্বে প্রকাশ করুক। না হয় মিথ্যাচারের জন্য জাতির কাছে মির্জা ফখরুলকে ক্ষমা চাইতে হবে।

বিএনপির রাজনীতির সমালোচনা করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ১৭ এপ্রিল মুজিব নগর দিবস। স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম সরকারের শপথ দিবস, সেই দিনটিকে তারা অস্বীকার করে। ১০ এপ্রিল প্রথম স্বাধীন বাংলাদেশের সরকার গঠন হয় সেটা অস্বীকার করে। স্বাধিকার আন্দোলনের মাইলফলক ৭ জুন অস্বীকার করে। বিএনপি বাঙালি সংস্কৃতির চেতনা নিয়ে ইতিবাচক রাজনীতি করবে এটা আমি বিশ্বাস করি না।

বাংলাদেশের স্বাধীনতার চেতনাকে ধ্বংস করার জন্য বিএনপির জন্ম মন্তব্য করে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, তারা বাংলাদেশের অস্তিত্বের মূলে আঘাত করতে চায়। ৭১ এ তাদের যে ভূমিকা, হঠাৎ করে বাঁশিতে ফুঁ দিলেন অমনিই তিনি ঘোষক হয়ে গেলেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক, মির্জা আজম, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন, সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল, উপ-দপ্তর সম্পাদক সায়েম খান।

 

সাম্প্রদায়িকতার বিশ্বস্ত ঠিকানা বিএনপি: কাদের
                                  

স্বাধীন বাংলা প্রতিবেদন:

বিএনপি বাংলাদেশের সাম্প্রদায়িকতার বিশ্বস্ত ঠিকানা ও জঙ্গিবাদের পৃষ্ঠপোষক বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, তারা (বিএনপি) বাঙালি সংস্কৃতিকে সহ্য করতে পারে না।

রোববার (১৪ এপ্রিল) সকালে বাংলা নববর্ষ ১৪৩১ উদযাপন উপলক্ষে বাহাদুর শাহ পার্কে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, কারা বৈশাখের চেতনাবিরোধী, তা আজ দেশে প্রতিষ্ঠিত সত্য। তারা বাঙালির সংস্কৃতিকে সহ্য করতে পারে না। তাদের চেতনা ও হৃদয়ে পাকিস্তান।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু আহমেদ মন্নাফীর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মেহের আফরোজ চুমকি, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সজল কুন্ডু, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগের সভাপতি আক্তার হোসেন।


   Page 1 of 139
     রাজনীতি
আদালতে হাজিরা দিয়ে বাড়ি ফিরলেন বিএনপি-জামায়াতের ২ নেতা, তবে...
.............................................................................................
প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফর নিয়ে বিএনপি মিথ্যাচার করছে: আরাফাত
.............................................................................................
ঢাকায় বিএনপি-আওয়ামী লীগের সমাবেশ
.............................................................................................
যাবজ্জীবন শাস্তির দাবিতে বেনজীর-মতিউরের কুশপুত্তুলিকা দা হ
.............................................................................................
ভারত বিরোধীরা আবারও ভুল পথে যাচ্ছেন: কাদের
.............................................................................................
নয়াপল্টনে বিএনপির সমাবেশ শনিবার
.............................................................................................
ভোট চুরি করে কেউ ক্ষমতায় থাকতে পারে না: প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................
অর্থনৈতিক দুঃশাসন ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে জেবিডি’র মানববন্ধন
.............................................................................................
কাউকে জেলে পাঠানোর এজেন্ডা আমাদের নেই: ওবায়দুল কাদের
.............................................................................................
আশুলিয়ায় জামায়াতে ইসলামীর গোপন বৈঠক, আটক ২১
.............................................................................................
‘যারা আমার বিরোধিতা করবে, তারা আল্লাহর সঙ্গে বিরোধিতা করবে’
.............................................................................................
বিএনপিকে গণতান্ত্রিক দল মনে করি না: কাদের
.............................................................................................
উপজেলা নির্বাচন: কেন্দ্রীয় নির্দেশ অমান্য করে নির্বাচনে বিএনপির ৩৮ নেতা
.............................................................................................
এবার উপজেলা নির্বাচন বর্জন করল বিএনপি
.............................................................................................
তালিকা দিন নইলে ক্ষমা চান, ফখরুলকে কাদেরের চ্যালেঞ্জ
.............................................................................................
সাম্প্রদায়িকতার বিশ্বস্ত ঠিকানা বিএনপি: কাদের
.............................................................................................
শীর্ষ নেতাদের যা বললেন খালেদা জিয়া
.............................................................................................
প্রথম বৈঠকেই নির্বাচনী এলাকার রাস্তা সংস্কারের দাবি এমপি জাহাঙ্গীরের
.............................................................................................
ছাত্রলীগ ঢাবিতে ফ্যাসিবাদ কায়েম করে বুয়েটে গণতন্ত্র চায় : ছাত্রদল
.............................................................................................
একাত্তরের মতো ভারত এবারও আমাদের পাশে দাঁড়িয়েছে: কাদের
.............................................................................................
বিএনপি পাকিস্তানি কায়দায় ভারত বিরোধিতা করছে: ওবায়দুল কাদের
.............................................................................................
স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষ্যে ৩ দিনের কর্মসূচি ঘোষণা বিএনপির
.............................................................................................
অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে শামীম ওসমান
.............................................................................................
সাকিব আমার কাছে এসেছিল, উৎসাহ না পেয়ে ফিরে গেছেসাকিব আমার কাছে এসেছিল, উৎসাহ না পেয়ে ফিরে গেছে
.............................................................................................
পদোন্নতি পেলেন বিএনপির ৩ নেতা
.............................................................................................
ভারত পাশে ছিল বলেই নির্বাচনে বড় বড় রাষ্ট্র অশুভ হস্তক্ষেপ করতে পারেনি: ওবায়দুল কাদের
.............................................................................................
নির্বাচনের ফল কোথাও কোথাও পূর্বনির্ধারিত ছিলো, সংসদে জিএম কাদের
.............................................................................................
মেগা প্রকল্প নামে মেগা দুর্নীতি করছে সরকার: বিএনপি নেতা জামাল
.............................................................................................
চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুর গেলেন মির্জা ফখরুল
.............................................................................................
উপজেলা নির্বাচনে না আসলে বিএনপিকে ভুলের খেসারত দিতে হবে: সেতুমন্ত্রী
.............................................................................................
পিলখানা হত্যাকাণ্ডের বিষয় খালেদা জিয়া আগেই জানতেন: বিমানমন্ত্রী
.............................................................................................
শেখ হাসিনা খাঁটি ঈমানদার: প্রতিমন্ত্রী শফিক চৌধুরী
.............................................................................................
জামিন পেলেন ফখরুল-খসরু, কারামুক্তিতে বাধা নেই
.............................................................................................
খালেদা জিয়ার সাবেক উপদেষ্টা এখন আ.লীগ নেতা
.............................................................................................
সংরক্ষিত আসনের মনোনয়ন ফরম বিক্রি করেছে আ.লীগ
.............................................................................................
বিএনপি-জামাত থেকে সতর্ক থাকতে বললেন গণপূর্তমন্ত্রী
.............................................................................................
ভালো কথা বললেও আপনারা ক্ষেপে যান, সাংবাদিকদের আইনমন্ত্রী
.............................................................................................
বিএনপিকে নিয়ে নয়, দ্রব্যমূল্য নিয়ে চিন্তিত: কাদের
.............................................................................................
নির্বাচন নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের বক্তব্যে অস্বস্তিতে নেই আ.লীগ: কাদের
.............................................................................................
মির্জাপুরে স্বতন্ত্র প্রার্থীর কর্মীর উপর হামলা, থানায় অভিযোগ
.............................................................................................
জাপা মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নুর চ্যালেঞ্জ
.............................................................................................
ডামি নির্বাচনের মাধ্যমে দেশের গণতন্ত্রকে ধ্বংস করেছে সরকার: রিজভী
.............................................................................................
বিকালে আ.লীগের যৌথসভা
.............................................................................................
জাতীয় পার্টির সকল পদ-পদবী থেকে পদত্যাগ করলেন নিয়াজ উদ্দিন
.............................................................................................
মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের জামিন শুনানি আজ
.............................................................................................
সাভার-আশুলিয়ায় চাদাবাজ রাখবেন না বলে ঘোষণা নবনির্বাচিত এমপি সাইফুলের
.............................................................................................
আইজিপির ভাইয়ের নৌকা ডুবিয়ে দিলনে জয়া সেনগুপ্তা
.............................................................................................
নতুন কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বিএনপি
.............................................................................................
প্রতিমন্ত্রী এনামের নৌকাকে ডুবিয়ে দিল সাইফুলের ট্রাক
.............................................................................................
১১ আসনে ঠেকলো জাতীয় পার্টি
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
    2015 @ All Right Reserved By dailyswadhinbangla.com

Developed By: Dynamic Solution IT