বৃহস্পতিবার, ৬ মে 2021 বাংলার জন্য ক্লিক করুন
  
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   সিলেট -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
দক্ষিণ সুনামগঞ্জে কৃষকের মুখে রাজ্য জয়ের হাসি

দক্ষিণ সুনামগঞ্জ (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি : সুনামগঞ্জের দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার হাওরে এবার বোরো ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। দুর্যোগ-দুর্বিপাক ছাড়াই সময়মতো কষ্টে বুনা ফসল ঘরে তুলতে পেরে কৃষকদের মুখে এখন রাজ্য জয়ের হাসি। শ্রমিক সংকট না থাকায় করোনা শঙ্কার মধ্যেও ধান গোলায় তুলতে কোন সমস্যা হয়নি কৃষকদের। বাজারে ধানের ভালো দাম থাকায় লাভবান হচ্ছেন তারা।

সরেজমিন উপজেলার বিভিন্ন হাওর ঘুরে দেখা গেছে, হাওরের শতভাগ ধান কাটা প্রায় শেষ। অনেক কৃষক তাদের ধান কাটা মাড়াই শেষ করে গোলায় তুলছেন। এ বছরের মত ধান তোলার  অনুকূল পরিবেশ কবে পাওয়া গেছে ঠিক মনে নেই চাষিদের। সরকার ভর্তুকি মূল্যে হারভেস্টার মেশিন দেয়ায় উপকৃত হয়েছেন কৃষকরা। প্রতিটি কৃষক পরিবারে এখন আনন্দের ছাপ। ধান শুকানোর পাশাপাশি গৃহপালিত পশুর জন্য খর শুকাতেও ব্যস্ত সময় পার করছেন কৃষকরা৷    

দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা কৃষি অফিস সুত্রে জানা যায়, চলতি বছরে এ উপজেলায় ২২ হাজার ২০০ হেক্টর জমিতে ইরি-বোরো ধানের আবাদ করা হয়েছে। যা লক্ষ্যমাত্রার চেয়েও বেশি। এ বছর ধান উৎপন্ন হয়েছে এক লাখ ১০ হাজার মেট্রিকটন। যার বাজার মূল্য হবে ২৫০ কোটি টাকারও বেশি।  

উপজেলার ডুংরিয়া গ্রামের কৃষক আব্দুল ওয়াহিদ জানান, প্রতিবছর বোরো ধান উত্তোলনের সময় ঝড় বৃষ্টি, অকাল বন্যা, শ্রমিক সংকটের পাশাপাশি প্রাকৃতিক বিপর্যয় মোকাবিলা করে আমাদেরকে বোরো ফসল ঘরে তুলতে হত। প্রতি মুহূর্ত মনে শঙ্কা থাকতো এই বুঝি কষ্টের ফসল নষ্ট হয়ে গেল। কিন্তু এবার প্রকৃতি অনুকূলে থাকায় এবং শ্রমিক সংকট না থাকায় কোন শঙ্কা ছাড়াই ধান গোলায় তুলতে পেরে ভালো লাগছে। এমন আবহাওয়া এর আগে কখনোই পাইনি।   

১০ কেদার জমিতে বোরো ধান আবাদ করেছিলেন কৃষক হান্নান মিয়া। তিনি বলেন, সব ধান কাটা শেষ। আবহাওয়া ভালো থাকায় এবার আমরা খুশি মনে ধান তুলতে পেরেছি৷ জমিতে ফসল ভালো হওয়ায় লাভবান হয়েছি।

এ ব্যাপারে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সজীব আল মারুফ বলেন, হাওরের শতভাগ ধান কাটা শেষ৷ আবহাওয়া ভালো থাকায় এবং ধানের নায্য দাম থাকায় কৃষকরা খুশি৷ এবার দক্ষিণ সুনামগঞ্জে লক্ষমাত্রার চেয়ে বেশি ধান উৎপাদিত হয়েছে।

উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান প্রভাষক নূর হোসেন বলেন, শ্রমিক সংকট না থাকায় দ্রুত হাওরের ধান গোলায় তুলতে সক্ষম হয়েছেন কৃষকরা। দক্ষিণ সুনামগঞ্জের প্রতিটি কৃষক পরিবারে এখন হাসির ঝিলিক বইছে।

দক্ষিণ সুনামগঞ্জে কৃষকের মুখে রাজ্য জয়ের হাসি
                                  

দক্ষিণ সুনামগঞ্জ (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি : সুনামগঞ্জের দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার হাওরে এবার বোরো ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। দুর্যোগ-দুর্বিপাক ছাড়াই সময়মতো কষ্টে বুনা ফসল ঘরে তুলতে পেরে কৃষকদের মুখে এখন রাজ্য জয়ের হাসি। শ্রমিক সংকট না থাকায় করোনা শঙ্কার মধ্যেও ধান গোলায় তুলতে কোন সমস্যা হয়নি কৃষকদের। বাজারে ধানের ভালো দাম থাকায় লাভবান হচ্ছেন তারা।

সরেজমিন উপজেলার বিভিন্ন হাওর ঘুরে দেখা গেছে, হাওরের শতভাগ ধান কাটা প্রায় শেষ। অনেক কৃষক তাদের ধান কাটা মাড়াই শেষ করে গোলায় তুলছেন। এ বছরের মত ধান তোলার  অনুকূল পরিবেশ কবে পাওয়া গেছে ঠিক মনে নেই চাষিদের। সরকার ভর্তুকি মূল্যে হারভেস্টার মেশিন দেয়ায় উপকৃত হয়েছেন কৃষকরা। প্রতিটি কৃষক পরিবারে এখন আনন্দের ছাপ। ধান শুকানোর পাশাপাশি গৃহপালিত পশুর জন্য খর শুকাতেও ব্যস্ত সময় পার করছেন কৃষকরা৷    

দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা কৃষি অফিস সুত্রে জানা যায়, চলতি বছরে এ উপজেলায় ২২ হাজার ২০০ হেক্টর জমিতে ইরি-বোরো ধানের আবাদ করা হয়েছে। যা লক্ষ্যমাত্রার চেয়েও বেশি। এ বছর ধান উৎপন্ন হয়েছে এক লাখ ১০ হাজার মেট্রিকটন। যার বাজার মূল্য হবে ২৫০ কোটি টাকারও বেশি।  

উপজেলার ডুংরিয়া গ্রামের কৃষক আব্দুল ওয়াহিদ জানান, প্রতিবছর বোরো ধান উত্তোলনের সময় ঝড় বৃষ্টি, অকাল বন্যা, শ্রমিক সংকটের পাশাপাশি প্রাকৃতিক বিপর্যয় মোকাবিলা করে আমাদেরকে বোরো ফসল ঘরে তুলতে হত। প্রতি মুহূর্ত মনে শঙ্কা থাকতো এই বুঝি কষ্টের ফসল নষ্ট হয়ে গেল। কিন্তু এবার প্রকৃতি অনুকূলে থাকায় এবং শ্রমিক সংকট না থাকায় কোন শঙ্কা ছাড়াই ধান গোলায় তুলতে পেরে ভালো লাগছে। এমন আবহাওয়া এর আগে কখনোই পাইনি।   

১০ কেদার জমিতে বোরো ধান আবাদ করেছিলেন কৃষক হান্নান মিয়া। তিনি বলেন, সব ধান কাটা শেষ। আবহাওয়া ভালো থাকায় এবার আমরা খুশি মনে ধান তুলতে পেরেছি৷ জমিতে ফসল ভালো হওয়ায় লাভবান হয়েছি।

এ ব্যাপারে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সজীব আল মারুফ বলেন, হাওরের শতভাগ ধান কাটা শেষ৷ আবহাওয়া ভালো থাকায় এবং ধানের নায্য দাম থাকায় কৃষকরা খুশি৷ এবার দক্ষিণ সুনামগঞ্জে লক্ষমাত্রার চেয়ে বেশি ধান উৎপাদিত হয়েছে।

উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান প্রভাষক নূর হোসেন বলেন, শ্রমিক সংকট না থাকায় দ্রুত হাওরের ধান গোলায় তুলতে সক্ষম হয়েছেন কৃষকরা। দক্ষিণ সুনামগঞ্জের প্রতিটি কৃষক পরিবারে এখন হাসির ঝিলিক বইছে।

সিলেটে সেই এসআই আকবরসহ ৬ পুলিশের বিরুদ্ধে চার্জশিট
                                  

সিলেট প্রতিনিধি :
সিলেটের বহুল আলোচিত রায়হান হত্যা মামলার অভিযোগপত্র দাখিল করছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। আজ বুধবার পুলিশের এসআই আকবরসহ ছয় পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করে সংস্থাটি। গত বছরের ১১ অক্টোবর বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়িতে নিয়ে নির্যাতন করে রায়হানকে হত্যা করে আকবর।

চার্জশিট দাখিলের তথ্য নিশ্চিত করে আদালত পরিদর্শক প্রদীপ কুমার দাস বলেন, ‘বহুল আলোচিত রায়হান হত্যা মামলার অভিযোগপত্র পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছে পিবিআই। এতে পাঁচ পুলিশসহ ছয়জনকে অভিযুক্ত করা হয়েছে। এর মধ্যে কথিত সাংবাদিক নোমান পলাতক রয়েছেন।’

চলমান করোনা পরিস্থিতির কারণে আদালতের কার্যক্রম ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে চলার কারণে চার্জশিট আদালতে দাখিল করা হচ্ছে না। আদালতের কার্যক্রম শুরুর পরই তা করা হবে। তবে এর মধ্যে পিবিআই’র দেয়া অভিযোগপত্রে কোনো অসঙ্গতি রয়েছে কিনা, তা খতিয়ে দেখা হবে। কোনো অসঙ্গতি পেলে সংশোধন করার জন্য তা পিবিআইকে জানানো হবে।

উল্লেখ্য, গত ১১ অক্টোবর ভোরে বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়িতে পুলিশের নির্যাতনের শিকার হন রায়হান আহমদ (৩৪)। পরে সিলেট এমএজি ওসমানী হাসপাতালে তিনি মারা যান। এ ঘটনায় ১২ অক্টোবর রাতে অজ্ঞাতনামাদের আসামি করে হেফাজতে মৃত্যু আইনে সিলেট মহানগর পুলিশের কোতোয়ালি থানায় মামলা করেন রায়হানের স্ত্রী। মামলাটির তদন্ত করছে পিবিআই।

জৈন্তাপুরে ভারতীয় খাসিয়ার গুলিতে বাংলাদেশী নিহত
                                  

জৈন্তাপুর প্রতিনিধি :
সিলেটের জৈন্তাপুর সীমান্তে ভারতীয় খাসিয়ার গুলিতে বাংলাদেশি এক যুবক নিহত হয়েছেন। আজ মঙ্গলবার সেহরীর পরপর ভারতের সান্ডাই বস্তিতে ভারতীয় মোবাইলের একটি চালান বাংলাদেশে নিয়ে আসতে এবং মটরশুটি নিয়ে ভারতে প্রবেশ করে চোরাকারবারী দলের সদস্যরা৷ ফেরার পথে খাসিয়ার গুলিতে কেন্দ্রী ঝিঙ্গাবাড়ী গ্রামের জামাল মিয়ার ছেলে মকবুল আলী (২৮) নিহত হয়।

এলাকাবাসী আরও জানান, সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলার  মিনাটিলা ক্যাম্পের আওতাধীন ১২৮০-১২৮৪ এলাকা দিয়ে দীর্ঘ দিন হতে বিজিবির সোর্সম্যান মির্জান রুবেল (২৯) ও শামীম আহমদের (৩৫) নির্দেশনায় ভারতে মটরশুটি, সুপারী স্বর্নের বার সহ বিভিন্ন প্লাষ্টিক সামগ্রী পাচার হয়ে আসছে। বিপরিতে কসমেটিক্স, ভারতীয় নিষিদ্ধ শেখ নাছির উদ্দিন বিড়ি, বিভিন্ন ব্যান্ডের সিগারেট, মদ ও ইয়াবা এবং গরু-মহিষ, মটর সাইকেল, শাড়ী ও মোবাইল সামগ্রী বাংলাদেশে নিয়ে আসে। সম্প্রতি ভারতের সীমান্ত বন্দ থাকায় বাংলাদেশীরা চোরাইপথে পণ্য আনা-নেওয়া করছে। ভারতীয় সান্ডাই বস্তির খাসিয়া লাইন বন্দ থাকার কারনে চোর সন্দেহে গুলি করলে ঘটনাস্থলেই মকবুলের মৃত্যু হয়৷ এসময় সাথে থাকা অন্যান্য বাংলাদেশীরা তার লাশ ভারতের ভিতর হতে সীমান্তের জিরো লাইনে এনে রেখে তারা চলে আসে।
 
এ বিষয়ে জানতে মিনাটিলা বিশেষ ক্যাম্পে একাধিক বার ফোন দিলে কোউ ফোন রিসিভ করেনি৷ ৪৮ বিজিবির শ্রীপুর কোম্পানী কামান্ডার জানান, তারা যুবক মৃত্যুর ঘটনা শুনতে পেরেছেন। তবে কি কারণে ঘটেছে তা নিশ্চিত নন৷
 
এবিষয়ে জৈন্তাপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ গোলাম দস্তগীর জানান, মৃত্যুর সংবাদ পেয়ে খোঁজ নিতে ঘটনাস্থলে লোক প্রেরণ করা হচ্ছে।

জৈন্তাপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহতদের পরিবারকে আর্থিক সহায়তা প্রদান
                                  

জৈন্তাপুর প্রতিনিধি:
গত ২মে সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলায় সিলেট-তামাবিল মহসড়কে মর্মান্তিক দুর্ঘটনায় নিহতদের পরিবারকে আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হয়েছে। নিহতদের পরিবারের খোঁজখবর নিতে তাদের বাড়ীতে আসেন জামায়াতে ইসলামী বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় সেত্রেুটারী জেনারেল ও সাবেক সংসদ সদস্য অধ্যাপক মিয়া গোলাম পরওয়ার।

গত ২ মে সিলেট তামাবিল মহা-সড়কের ফেরীঘাটে এক মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত উপজেলার রূপচেং গ্রামের সিএনজি চালক হোসেন আহমদ, জামাল উদ্দিনের স্ত্রী, এক ছেলে, এক মেয়ে ও ছোট বোনের শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানাতে আজ মঙ্গলবার দুপুর ২টায় নেতৃবৃন্দ তাদের বাড়ীতে যান।

কেন্দ্রীয় জামায়াতের পক্ষ থেকে জামাল উদ্দিনের পরিবারকে এক লক্ষ টাকা, তার ছোট বোনের পরিবারকে ৫০ হাজার টাকা ও সিএনজি চালক হোসেন আহমদের পরিবারকে ৫০ হাজার টাকার নগদ অনুদান প্রদান করা হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন কানাইঘাট-জকিগঞ্জের সাবেক সংসদ সদস্য অধ্যক্ষ মাওলানা ফরিদ উদ্দিন চৌধুরী, জামায়াতে ইসলামীর সিলেট অঞ্চলের পরিচালক এডভোকেট এহসানুল মাহবুব যুবায়ের, সিলেট মহানগরের আমীর ফখরুল ইসলাম, সিলেট জেলা উত্তরের আমীর আনোয়ার হোসনে খান, জেলা উত্তরের নায়েবে আমীর ফয়জুল্লাহ বাহার, সিলেট জেলা উত্তরের সেত্রেুটারী ও জৈন্তাপুর উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মোঃ জয়নাল আবেদীন, জেলা উত্তরের নায়েবে আমীর আব্দুল মন্নান, জৈন্তাপুর উপজেলা জামায়াতের আমীর মাওলানা আনোয়ারুল আম্বীয়া, সেত্রেুটারী মাওলানা নাজমুল ইসলাম, শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশন সিলেট জেলা উত্তরের সদস্য এনামুল হক, উপজেলা শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশনের সভাপতি মাওলানা আব্দুল খালিক, সেত্রেুটারী নুরুল ইসলাম, বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবির জৈন্তাপুর উপজেলা উত্তরের সভাপতি জসিম উদ্দিন, দক্ষিণ শাখার সভাপতি আব্দুল খালিক, স্থানীয় ইউপি সদস্য গোলাম সোবহানী ময়না, জামায়াত নেতা মিজানুর রহমান, আতিকুল ইসলাম, স্থানীয় সমাজসেবী মাহমুদ আলী ও আবুল খায়ের তালিব প্রমুখ।

পরে নিহতদের মাগফিরাত কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করেন সাবেক সংসদ সদস্য অধ্যক্ষ মাওলানা ফরিদ উদ্দিন চৌধুরী।

নবীগঞ্জে করোনাকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে ঈদ শপিংয়ে মানুষের ঢল
                                  

নবীগঞ্জ প্রতিনিধি :
নবীগঞ্জে মহামারি করোনাকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে ঈদ শপিংয়ে মানুষের ঢল। মহামারি করোনা দ্বিতীয় ঢেউ ঠেকাতে গত ৫ এপ্রিল থেকে সারা দেশে এক সপ্তাহের লকডাউন দেয় সরকার। কিন্তু পরিস্থিতি আরও অবনতি হওয়ায় ১৪ এপ্রিল থেকে আরও এক সপ্তাহের জন্য সারা দেশে সর্বাত্মক লকডাউন ঘোষণা করে কঠোর বিধি নিষেধ আরোপ করা হয়। পরে সেটি দুই দফায় বর্ধিত করা হয় ২৮ এপ্রিল পর্যন্ত। তাতেও করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়ায় এই কঠোর লকডাউনের সময়সীমা আরও বাড়ানো হয়, যা চলবে আগামী ৫ মে মধ্যরাত পর্যন্ত। এরমধ্যে গণপরিবহনও অর্ধেক আসন ফাঁকা রাখার শর্তে চালু করলেও তা আবার বন্ধ করে দেওয়া হয় সর্বাত্মক লকডাউন ঘোষণার মধ্য দিয়ে।

এদিকে কঠোর লকডাউন চলাকালীন ব্যবসায়ীদের কথা চিন্তা করে সারা দেশের সব শপিংমল ও দোকানপাট খুলে দেওয়া হয় গত ২৫ এপ্রিল থেকে। সরকারের নির্দেশনায় বলা হয়, কঠোর স্বাস্থ্যবিধি মেনে শপিংমল কিংবা দোকানপাটে যাতায়াত করতে হবে। কিন্তু নবীগঞ্জে কিছুই মানছেন না বিক্রেতা ও ক্রেতারা।

পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে নবীগঞ্জের সব শপিংমল, মার্কেটে ভিড় জমিয়েছেন ক্রেতারা। স্বাস্থ্যবিধি না মেনে ক্রেতাদের মার্কেট ও বিপণি বিতানে ভিড় করতে দেখা গেছে। ঈদকে কেন্দ্র করে পরিবার-পরিজনের জন্য পছন্দের জামা-কাপড় কিনতে প্রখর রোদ ও করোনা ভীতিকে উপেক্ষা করে ক্রেতাদের ঢল নেমেছে নবীগঞ্জের অভিজাত মার্কেটগুলোতে। মানুষের ভিড়ে তিল ধারণের জায়গা নেই।

রবিবার (২ মে) শহরে ঘুরে দেখা যায়, শুধু মার্কেটই নয়- ফুটপাত ও বিভিন্ন সড়কে মানুষের ভিড়। ব্যক্তিগত গাড়ি ও রিক্সার যানজট লেগে আছে প্রতিটি সড়কে। বিশেষ করে শেরপুর রোড,  মধ্য বাজারসহ সহ বিভিন্ন এলাকায় ছিলো মানুষের প্রচন্ড ভিড় ঈদের শপিং করতে আসা ক্রেতাদের মধ্যে নারীর সংখ্যা বেশি। রয়েছে ছোট্ট শিশু-কিশোররাও। এতে ওইসব মার্কেটের ব্যবসায়ীরাও অনেক খুশি। কারণ করোনার কারণে এতদিন বিক্রি কম হলেও এখন বেড়েছে। ধম ফেলার সময় পাচ্ছেন না তারা। দীর্ঘদিন ব্যবসার মন্দা থাকার পর ক্রেতাদের এমন উপস্থিতি এবারের ঈদে রেকর্ডসংখ্যক বিক্রি হবে বলে আশা করছেন এসব মার্কেটের ব্যবসায়ীরা।

এক শাড়ি-কাপড় ব্যবসায়ী বলেন, দীর্ঘদিন ব্যবসার মন্দা থাকার পর ক্রেতাদের উপস্থিতি বেড়েছে। আশা করছি, আগের পুরনো অবস্থা কেটে যাবে এবং গতবার রোজার ঈদের আগে দোকান খুলে দিলেও এত বিক্রি হয়নি। কিন্তু এবার ক্রেতাদের উপস্থিতি বেশ ভালো। আশা করছি, ঈদের আগে বিক্রি আরও জমজমাট হবে। তবে গণপরিবহন চালু না থাকায় বেশ ভোগান্তিও পোহাতে হচ্ছে ক্রেতাদের। সিএনজি অটোরিকশা বেশি ভাড়া দিয়ে শপিংয়ে যেতে হচ্ছে ক্রেতাদের।

গোয়াইনঘাটে মন্ত্রী ইমরান আহমদের ঈদ উপহার পেল অসহায় পরিবার
                                  

গোয়াইনঘাট (সিলেট) প্রতিনিধি :
প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ এমপির ব্যক্তিগত উদ্যোগে নিজস্ব তহবিল থেকে সিলেটের গোয়াইনঘাটে ২ হাজার ৫শত পরিবারের মাঝে ঈদ উপহার বিতরণ করা হয়েছে।

রোববার (২ মে) গোয়াইনঘাট উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দের মাধ্যমে মানুষের বাড়িতে বাড়িতে এ উপহার সামগ্রী পৌঁছে দেয়া হয়

উপহারের প্রত্যেক প্যাকেটে ছিল ৫ কেজি চাল, ১ কেজি চিনি, ১ কেজি, মসুরি ডাল, ১ কেজি ছোলা, ১কেজি, ময়দা ১ কেজি, সেমাই ২ প্যাকেট, সয়াবিন তৈল ১ লিটার, ও
সাবান একটি।

উপহার সামগ্রী বিতরণের পাশাপাশি প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী তার নির্বাচনী এলাকার জনগণকে পবিত্র ঈদুল ফিতর এর শুভেচ্ছা জানান। গোয়াইনঘাট উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার এবং আওয়ামী লীগ জনগণের জীবন ও জীবিকার প্রয়োজনীয় সকল পদক্ষেপ গ্রহণ করছে। তিনি বলেন, আমরা সকলে মিলে করোনাভাইরাসের এই দুর্যোগ মোকাবিলা করবো।

গোয়াইনঘাট উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহাম্মদ ইব্রাহিমের সভাপতিত্বে ও  সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন গোয়াইনঘাট উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ ফারুক আহমদ, গোয়াইনঘাট উপজেলা নির্বাহী অফিসার তাহমিলুর রহমান, গোয়াইনঘাট উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ গোলাম কিবরিয়া হেলাল, গোয়াইনঘাট সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার প্রভাস কুমার সিংহ, গোয়াইনঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আব্দুল আহাদ, গোয়াইনঘাট সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ ফজলুল হক, সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও পূর্ব জাফলং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা লুৎফুর রহমান লেবু প্রমুখ।

এসময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোঃ ইসমাইল আলী মাস্টার, সুভাষ চন্দ্র পাল ছানা, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার আব্দুল হক, গোয়াইনঘাট প্রেসক্লাব সভাপতি এম এ মতিন, গোয়াইনঘাট উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও নন্দীরগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এস কামরুল হাসান আমিরুল, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট জামাল উদ্দিন, ইউ পি চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শাহাব উদ্দিন, মোঃ মাহবুব আহমেদ, চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুস সালাম, আমিনুর রহমান চৌধুরী, মোঃ আবুল খায়ের, উপজেলা আওয়ামীলীগের দপ্তর সম্পাদক মোঃ মুজিবুর রহমান, যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক মোঃ কামরুল হাসান, কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক এম নিজাম উদ্দিন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য লুৎফুল হক, গোয়াইনঘাট উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের আহবায়ক ফারুক আহমদ, যুগ্ম আহবায়ক শাহাবুদ্দিন, যুগ্ম আহবায়ক আহমেদ মোস্তাকিন, সাংবাদিক সুবাস দাস, রুস্তুমপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মোঃ আশিকুর রহমান, সাধারন সম্পাদক মোঃ হেলাল উদ্দিন, পশ্চিম জাফলং ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মোঃ শফিক আহমদ, সাধারণ সম্পাদক মোঃ নজরুল ইসলাম নজু, পূর্ব জাফলং ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের আহবায়ক মোঃ মিনহাজুর রহমান, লেঙ্গুড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি জহির উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক মোঃ ফারুক আহমদ, আলীরগাঁও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মস্টার ওলিউল্লাহ,সাধারণ সম্পাদক মোঃ ফারুক আহমদ, ডৌবাড়ী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি শহীদ উল্লাহ, সাধারণ সম্পাদক মোঃ মিছবাহ আহমদ, ফতেহপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মাস্টার নজরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক মোঃ নাজিম উদ্দীন, নন্দীরগাঁও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মোঃ সিরাজ উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক মোঃ আব্দুল খালিক,তোয়াকুল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মোঃ মনজির আহমদ চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ লোকমান।

অনুষ্ঠানে পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে সরকারের প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী  ইমরান আহমদ এমপির নিজস্ব তহবিল থেকে গোয়াইনঘাট উপজেলার রুস্তুমপুর ইউনিয়নের ৩০০ পরিবার, পশ্চিম জাফলং ইউনিয়নের ৩০০ পরিবার ও পূর্ব জাফলং ইউনিয়নের ৩০০ পরিবার ছাড়াও উপজেলার বাকি ৭টি ইউনিয়নের ১ হাজার ৪০০ শত পরিবারের পাশাপাশি গোয়াইনঘাট উপজেলা আওয়ামী লীগ ১০০টি পরিবারে ঈদ সামগ্রী বিতরণ করে। এসময়  প্রত্যেক ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি/সাধারণ সম্পাদকসহ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দের হাতে উক্ত ঈদ সামগ্রী তুলে দেয়া হয়।

করোনায় সিলেটে গত ২৪ ঘন্টায় কেউ মারা যায়নি, সুস্থ ৭৭, শনাক্ত ৪১
                                  

সিলেট প্রতিনিধি :
প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে সিলেটে গত ২৪ ঘণ্টায় কেউ মারা যাননি। তবে, বিগত এক সপ্তাহে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যান ২৪ জন। এছাড়া ২৪ ঘণ্টায় সিলেট বিভাগে করোনা শনাক্ত হয়েছেন ৪১ জন। একই সময়ে চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়েছেন ৭৭ জন।  

এ পর্যন্ত মোট সংক্রমিতদের মধ্যে শুধুমাত্র সিলেট জেলায় সংক্রমিত হয়েছেন ১৩ হাজার ২৭০ জন। এছাড়া সুনামগঞ্জে ২ হাজার ৭৩৪ জন, হবিগঞ্জে ২ হাজার ৩৬৯ জন ও মৌলভীবাজারে ২ হাজার ৩১৯ জনের করোনায় আক্রান্ত সনাক্ত হয়েছে।

গত ২৪ ঘন্টায় সিলেটে যারা সংক্রমিত হয়েছেন তাদের মধ্যে ২০ জনই সিলেট জেলার বাসিন্দা।

শনিবার (১ মে) দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদফতরের সিলেট বিভাগীয় পরিচালক ডা. সুলতানা রাজিয়া স্বাক্ষরিত এক প্রতিবেদনন পর্যালোচনা করে এ তথ্য জানা গেছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গেল ২৪ ঘণ্টায় সিলেটের চারটি ল্যাবে নমুনা পরীক্ষায় ৪১ জন করোনা আক্রান্ত সনাক্ত হন। এর মধ্যে সিলেট জেলার ২০ জন, সুনামগঞ্জের ৯ জন, হবিগঞ্জে ৯ জন, মৌলভীবাজারে ৩ জন।

নতুন এই ৪১ জনসহ সিলেট বিভাগে মোট করোনা রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২০ হাজার ৬৯২ জনে। তবে সিলেট বিভাগে করোনা সংক্রমিত সক্রিয় রোগী আছেন ১ হাজার ১০৫ জন। বাকি ১৯ হাজার ২৩৭ জন জন চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়েছেন। আর মারা গেছেন ৩৫০ জন।

অক্সিজেন সংকটে পড়তে যাচ্ছে সিলেটের হাসপাতালগুলাে
                                  

সিলেট প্রতিনিধি :
প্রতিবেশী দেশ ভারত অক্সিজেন সরবরাহ বন্ধ করে দেওয়ায় সিলেটের হাসপাতালগুলো হাসপাতালে অক্সিজেন সংকটে পড়তে যাচ্ছে। বিশেষ করে করোনার বিশেষায়িত হাসপাতালে অক্সিজেন সংকট দেখা দিলে চিকিৎসায় ভয়াবহ পরিস্থিতি তৈরি হতে পারে!

এমনটি আশঙ্কা করে চিকিৎসকরা বলছেন, এমনিতে হাতে গোনা কিছু হাসপাতালে সেন্ট্রাল অক্সিজেন সুবিধা রয়েছে। জেলা সদরের হাসপাতালগুলোতে অক্সিজেন সুবিধা অপ্রতুল থাকায় রোগীদের চাপ পড়ে বিভাগীয় সদরের সরকারি হাসপাতালগুলোতে। ফলে অক্সিজেন বিড়ম্বনায় ভয়াবহ পরিস্থিতি তৈরি হতে পারে।

খোঁজ নিযে জানা গেছে, সিলেট বিভাগে সরকারি-বেসরকারি মেডিক্যাল কলেজ ও ডায়গানস্টিক সেন্টার রয়েছে ১৫২টি। এরমধ্যে সরকারি মেডিক্যাল কলেজ একটি এবং বেসরকারি মেডিক্যাল কলেজ আছে ৫টি। জেলা সদরে সরকারি সদর হাসপাতাল ৪টি, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ৩৪টি, আবাসিক টিভি হাসপাতাল ও সংক্রমণব্যাধি হাসপাতাল একটি করে আছে সিলেটে। এর বাইরে টিভি ক্লিনিক আছে প্রতি জেলায়। খাদিমপাড়ায় আছে ৩১ শয্যার হাসপাতাল। এছাড়া বেসরকারি হাসপাতাল-ক্লিনিক আছে ৩৫টি।

সংশ্লিষ্টরা জানান, সিলেটে অক্সিজেন সুবিধা আছে ওসমানী মেডিক্যাল কলেজে ২০ হাজার ও ১০ হাজার ঘন লিটারের দুটি প্লান্টে। এগুলো থেকে অক্সিজেন সরবরাহ দিয়ে ১৫ দিন কার্যক্রম চালানো যায়। করোনার বিশেষায়িত হাসপাতাল খ্যাত সিলেটের শহীদ ডা. শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতালে ১০ হাজার ঘন লিটারের একটি অক্সিজেন প্লান্ট আছে। এ দু’টি হাসপাতালে অক্সিজেন সরবরাহ দিচ্ছে স্প্রেক্টা নামক প্রতিষ্ঠান।

এছাড়া সিলেটের বেসরকারি তিনটি হাসপাতালে সেন্ট্রাল অক্সিজেন সরবরাহ রয়েছে। সেগুলোতে চিকিৎসা ব্যবস্থা অত্যন্ত ব্যয় বহুল। এসব হাসপাতালের চিকিৎসা ব্যবস্থা সাধারণ মানুষের বাইরে। এর বাইরে বিভাগের জেলা সদরের হাসপাতালগুলোতে সেন্ট্রাল অক্সিজেন লাইন নেই। তবে, সম্প্রতি অক্সিজেন প্লান্টি তৈরির কাজ চলছে বলেও জানা গেছে।
 
এ বিষয়ে সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের উপ পরিচালক ডা. হিমাংশু লাল রায় বলেন, অক্সিজেনের ৩০ হাজার লিটারের দু’টি প্লান্টে দিয়ে ১৫/২০ দিন সরবরাহ নিশ্চিত করা যায়। ভারত অক্সিজেন সরবরাহে সংকট দেখা দিলে দেড় লিটারের ছোট ছোট কনসেন্টেন্ট দিয়ে চালানো যাবে। তবে, এগুলোতো বেশি নেই। অবশ্য সংকট নিরসনে সরকার আগে থেকেই বিকল্প চিন্তা করছে। তারপরও মানুষকে সচেতন হতে হবে। ঈদকে সামনে রেখে যে হারে মানুষের চলাচল বেড়েছে, লোকজনকে বুঝতে হবে-জীবনের চাইতে ঈদ বড় নয়। ব্যবসার চাইতে জীবন বড় নয়, জীবনের জন্য ব্যবসা।  

জানা যায়, বাজারে তিন সাইজের অক্সিজেন সিলিন্ডার দিয়ে বেসরকারি হাসপাতাল ক্লিনিকগুলোতে রোগীদের অক্সিজেন সেবা দেওয়া হয়। কিন্তু সেগুলো চাহিদার তুলনায় অপ্রতুল। ছোট সিলিন্ডারে ১ দশমিক ৫ ঘন মিটার, মাঝারি ৩ ঘন মিটার এবং বড় সিলিন্ডার ৮ দশমিক ৩ ঘন মিটার অক্সিজেন থাকে। সংকট সৃষ্টি হলে এগুলোতেও সংকট সৃষ্টি হতে পারে!

সংশ্লিষ্টরা আরো বলেন, দেশে অক্সিজেন সংকট দেখা দিলেও বেসরকারি কোম্পানিগুলো অক্সিজেন সরবরাহ করতে পারবে। এরমধ্যে আবুল খায়ের গ্রুপসহ আয়রন মিলগুলো থেকে সরকার অক্সিজেন সরবরাহে সহযোগিতা নিতে পারবে।

হাওরে ধান কাটতে গিয়ে বজ্রপাতে দুই ভাইয়ের মৃত্যু
                                  

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি : সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলায় হাওরে ধান কাটতে গিয়ে বজ্রপাতে দুই ভাইয়ের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও তিন জন। বুধবার সকালে দিরাইয়ের ভাটিপাড়া ইউনিয়নের মধুরাপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- ফখরুল (৪৭) ও ফজলু (৪৫)। আহতরা হলেন- শাবনুর, হাবিব ও লাদেন। তাদের মধ্যে দুইজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

এ ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে। পরিবারের ২ সদস্যকে হারিয়ে শোকে স্তব্ধ ও বাকরুদ্ধ পরিবারের সদস্যরা।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, প্রতিদিনের মতো সকালে মাধুরাপুর হাওরে নিজেদের জমিতে ধান কাটছিলেন তারা। হটাৎ ঝড় শুরু হলে নিরাপদ আশ্রয়ে যাওয়ার আগেই বজ্রপাতে দুই ভাইয়ের মৃত্যু হয় এবং পাশে থাকা আরও তিনজন আহত হন।

দিরাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আজিজুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

সুনামগঞ্জে ৭৫০ অসহায় পরিবারকে প্রধানমন্ত্রীর উপহার প্রদান
                                  

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি :
সুনামগঞ্জ জেলার পৌর এলাকায় করোনা ভাইরাসের কারণে চলমান লকডাউনের ফলে কর্মহীন ও অসহায় মানুষের মাঝে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেয়া উপহার বিতরণ করা হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল ১১ টার সময় সুনামগঞ্জ জেলা স্টেডিয়ামে স্বাস্থ্যবিধি মেনে জেলা প্রশাসনের আয়োজনে চাল ও নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী উপহার হিসেবে বিতরণ করা হয়।

প্রথম দফায় পৌর এলাকায় ৭৫০টি কর্মহীন পরিবারের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে ১৫ কেজি চাল, ১ কেজি আটা, ২ কেজি আলু, ১ কেজি ডাল, ১ কেজি পিয়াজ, ১ কেজি লবন, ১/২ কেজি চিড়া, ১/২ কেজি মুড়ি, ১ লিটার সোয়াবিন তেল ও সাবান বিতরণ করা হয়েছে। এ পর্যায়ে জেলার মোট ২ হাজার পরিবারকে প্রধানমন্ত্রীর উপহার প্রদান করা হবে।

উপহার সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন- জেলা প্রশাসক, সুনামগঞ্জ মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন; চেয়ারম্যান, জেলা পরিষদ, সুনামগঞ্জ  নূরুল হুদা মুকুট; পুলিশ সুপার, সুনামগঞ্জ মো: মিজানুর রহমান, বিপিএম; উপ-পরিচালক, স্থানীয় সরকার, সুনামগঞ্জ মোহাম্মদ রাশেদ ইকবাল চৌধুরী; মেয়র, সুনামগঞ্জ পৌরসভা নাদের বখ্ত অতিরিক্ত জেলা প্রশাসকবৃন্দসহ অন্যান্যরা।

জেলা প্রশাসক মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন জানান, চলমান লকডাউনের কারণে সুনামগঞ্জের অনেক মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়েছে। এদের মধ্যে তৃতীয় লিঙ্গ, নাপিত, মুচি, রেস্তোরা কর্মচারী, পরিবহন শ্রমিক, রিক্সাচালক, শ্রমিক, দিনমজুরসহ ৭৫০টি পরিবারের মাঝে আজ ত্রাণ বিতরণ করা হয়। দ্রুততম সময়ের মধ্যে জেলার ১১ টি উপজেলার দরিদ্র ও অসহায় মানুষের মাঝে  প্রধানমন্ত্রীর এ উপহারসামগ্রী পৌছে দেয়া হচ্ছে। করোনাকালে চাল ও নিত্যপ্রয়োজনীয় উপকরণ পেয়ে খুশি অসহায় পরিবারগুলো।

সিলেটে করোনায় আরও ৫ জনের মৃত্যু
                                  

সিলেট প্রতিনিধি:
সারা দেশের ন্যায় সিলেটেও ভয়ঙ্কর রূপ নিচ্ছে করোনাভাইরাস। সর্বশেষ গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসের শিকার হয়েছেন আরও ৫ জন। এছাড়া একইদিনে আরও ৮৮ জনের শরীরে এ ভাইরাস শনাক্ত করা হয়েছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যুবরণকারী ৫ জনের চারজনই সিলেট জেলার বাসিন্দা। অপরজন সুনামগঞ্জের। এনিয়ে বিভাগে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়ালো ৩৩৭ জন।

সোমবার (২৬ এপ্রিল) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সিলেট বিভাগীয় পরিচালক (স্বাস্থ্য) ডা. সুলতানা রাজিয়া গণমাধ্যমে পাঠানো নিয়মিত স্বাস্থ্য প্রতিবেদনে তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়, গেল ২৪ ঘণ্টায় সিলেটের চার ল্যাবে আরও ৮৮ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এনিয়ে সিলেট বিভাগে করোনা শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২০ হাজার ৩২০ জন। এরমধ্যে সিলেট জেলায় ১৩ হাজার ০০২ জন, সুনামগঞ্জে ২ হাজার ৭১৬ জন, হবিগঞ্জে ২ হাজার ৩২০ জন ও মৌলভীবাজারে ২ হাজার ২৮২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছেন।

একইদিনে সিলেট বিভাগে নতুন করে আরও ১৬৬ জন রোগী সুস্থ হয়েছেন। এনিয়ে সুস্থ হওয়া রোগীর সংখ্যা দাঁড়ালো ১৮ হাজার ৬০৯ জনে।

জকিগঞ্জে বিনামূল্যে স্কুল ড্রেস বিতরণ করলো ইফজাল চৌধুরী এডুকেশন ট্রাস্ট
                                  

মোঃ হাবিবুর রহমান :
জকিগঞ্জের মানিকপুর ইউনিয়নে অবস্থিত নতুন প্রতিষ্ঠিত কমর উদ্দিন চৌধুরী উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মধ্যে স্কুল ড্রেস বিতরণ করা হয়েছে। এ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি এ কে এম লোকমান উদ্দিন চৌধুরী। বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা ইফজাল চৌধুরীর পরিচালনয় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান লোকমান উদ্দিন চৌধুরী। তিনি বক্তব্যে বলেন, অত্র অঞ্চলে বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার মধ্য দিয়ে শিক্ষার আলোয় প্রতিটি বাড়ি আলোকিত হবে। বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার সাথে সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ জানান এবং তাঁর পক্ষ থেকে সার্বিক সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

বিশেষ অতিথি হিসেবে এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মাওলানা আব্দুস সবুর, লন্ডন প্রবাসী বীর মুক্তিযোদ্ধা রেজাউল হক চৌধুরী, এবাদুল হক চৌধুরী, ৯নং মানিকপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাহতাব হোসেন চৌধুরী, সাবেক চেয়ারম্যান আবু জাফর মোহাম্মদ রায়হান, জকিগঞ্জ উপজেলা প্রকল্প কর্মকর্তা আতাউর রহমান, কৃষি কর্মকর্তা আরিফুল ইসলাম, ইউ.পি সদস্য জুনেদ আহমদ, জুনেল আহমদ চৌধুরী ফারুক, ময়নুল চৌধুরী আব্বাস, মানিকপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ এর সাধারণ সম্পাদক নুরুল আমিন চৌধুরী রিলন, সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সাবেক মানবসম্পদ উন্নয়ন বিষয়ক সম্পাদক সাবেল মো. রেজা, জকিগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সহ সভাপতি আশরাফুল আম্বিয়া, উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা উদ্দিন, এবাদুল হক চৌধুরী, মাস্টার আব্দুল মান্নান, তোফায়েল চৌধুরী, সজল চৌধুরী, তারেক চৌধুরী, আহমদ কবির চৌধুরী সাহেল, নুরুদ্দীন, সংবাদকর্মী আহমদ হোসাইন আইমান প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে দাতা সদস্য পরিবারের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আব্দুল খালিক চৌধুরী লেচু মিয়া, আব্দুল ফাত্তাহ চৌধুরী বাবু, আহবাব আহমদ চৌধুরী, কামাল আহমদ চৌধুরী, আজমল হোসেন চৌধুরী। ইফজাল চৌধুরী ফাউন্ডেশন এন্ড এডুকেশন ট্রাস্টের দায়িত্বশীলদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সচিব কামাল আহমদ, সদস্য সাকিব আল হাসান, আমিনুল হক চৌধুরী রাদু, জে এফ চৌধুরী ফাহিম, রামীম চৌধুরী, আহমদ আল কায়কোবাদ, সাব্বির আহমদ ফারহানসহ আরো অনেকেই।

এসময় ইফজাল আহমদ চৌধুরী স্কুলের বিভিন্ন কাজে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন, সংসদ সদস্য হাফিজ আহমদ মজুমদার, অর্থনীতিবিদ আহমদ আল কবির, মনসব আলী ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট এর সদস্য বৃন্দসহ সকল দাতা সদস্য ও এলাকার বাসীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

জাফলং সীমান্তে ভারতে পাচারের সময় অভিযানে ১ হাজার বস্তা মটর ডাল জব্দ
                                  

গোয়াইনঘাট (সিলেট) প্রতিনিধি:
সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলার পূর্ব জাফলং ইউনিয়নের মোহাম্মদপুর ও গুচ্ছগ্রাম সীমান্ত এলাকায় ভারতে পাচারের উদ্দেশ্যে মটর ডাল মজুদ করায় টাস্কফোর্সের অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে।

গতকাল শনিবার রাত ৯ টা থেকে ১২ টা পর্যন্ত গোয়াইনঘাটের সহকারী কমিশনার (ভূমি) একেএম নুর হোসেন নির্ঝর’র নেতৃত্বে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়।

অভিযানকালে ভারতে পাচারের উদ্দেশ্যে মজুদকৃত ৯৮০ বস্তা মটর ডাল জব্দ করে তা ১২ লক্ষ টাকায় নিলামে বিক্রি করা হয়। এ অপরাধে অভিযুক্ত একজনকে আটক করে ৫০ হাজার টাকা জরিমানাও আদায় করা হয়।

এ সময় এনএসআই’র সহকারী পরিচালক মোঃ ইমরান হাসান, তামাবিল বিওপির কোম্পানী কমান্ডার জয়নাল আবেদিন, গোয়াইনঘাট থানার এস আই লিটন রায়সহ পুলিশ, এনএসআই ও বিজিবি সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

অভিযানে নেতৃত্ব দেওয়া গোয়াইনঘাটের সহকারি কমিশনার (ভূমি) নূর হোসেন নির্ঝর বলেন, ভারতে পাচারের উদ্দেশ্যে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে মটর ডাল এনে গোয়াইনঘাট উপজেলার সীমান্তে মজুদ করা হয়েছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলা প্রশাসনের তত্ত্বাবধানে একাধিকবার টাস্কফোর্সের অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে।

অভিযানের অংশ হিসেবে আজও টাস্কফোর্সের অভিযান পরিচালনা করে প্রায় ১ হাজার বস্তা মটর ডাল জব্দ করে তা ১২ লক্ষ টাকায় উন্মুক্ত নিলামে বিক্রি করা হয় এবং এ অপরাধে অভিযুক্ত একজনকে আটক করে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

সীমান্তে চোরাচালানসহ সকল ধরনের অপরাধ ঠেকাতে প্রশাসন, পুলিশ ও বিজিবি’র পাশাপাশি স্থানীয়দের এগিয়ে আশার আহ্বান জানিয়ে তিনি আরও বলেন উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ধারাবাহিক এ অভিযান অব্যাহত থাকবে।

জকিগঞ্জে দালালদের হাতে জিম্মি পল্লী বিদ্যুৎ অফিস; সিন্ডিকেটের প্রধান ডিজিএম
                                  

জকিগঞ্জ প্রতিনিধি:
জকিগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ জোনাল অফিসের বিরুদ্ধে দালাল মারফত গ্রাহক হয়রানি অভিযোগের শেষ নেই। প্রতিনিয়ত এ অফিসের বিরুদ্ধে গ্রাহক হয়রানির নানা অভিযোগ করছেন ভুক্তভোগীরা। নতুন মিটার সংযোগে গ্রাহক হয়রানিসহ দালাল চক্রের মাধ্যমে গ্রাহকদের কাছ থেকে বিভিন্ন অংকের অর্থ হাতিয়ে নেয়ার একাধিক অভিযোগ উঠেছে এ অফিসের বিরুদ্ধে। দালাল চক্রের দৌরাত্ম্যে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছেন এ উপজেলার নতুন বিদ্যুৎ সংযোগ আবেদনকারীরা।
 
এ সিন্ডিকেট চক্র অফিস খোলা থাকলে প্রতিদিন সকাল থেকে অফিস ও পানি উন্নয়ন বোর্ডের সামনে চায়ের দোকানে ঘুরাফেরা করতে দেখা যায়। এসকল দালাল কোনো অপরিচিত ব্যক্তিকে দেখলেই তার দিকে দৌঁড়ে আসেন। অভিযুক্ত এ দালাল চক্রকে অফিসের কিছু অসাধু কর্মকর্তা কর্মচারী সুযোগ করে দিচ্ছে বলে গুরুতর অভিযোগ রয়েছে। উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগে অর্থ আদায় সহ গ্রাহক হয়রানির সাথে জড়িত থাকেন এই দালাল চক্রের সদস্যরা। দালালরা নিজস্ব মোটরসাইকেলে লাইনম্যানদের মতো পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের ব্যাগ, প্লাস, ব্যাল্ট লোহার রোড ইত্যাদি নিয়ে বিভিন্ন এলাকায় ঘুরে বেড়ায়। এমনটাই জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

জানা যায়, অফিসের কিছু অসাধু কর্মকর্তারা নির্ধারিত সময়ে অফিসে আসেন না। আবার কেউ কেউ সকালে কিছু সময় অফিসে বসে নিজের ব্যক্তিগত কাজে বাহিরে চলে যান। সামান্য কাজের জন্য গ্রাহকদের ঘন্টার পর ঘন্টা লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে হয়। নতুন মিটারের আবেদন করতে আসলেই দালাল মুখি করে দালালদের ফোন নাম্বার দিয়ে অফিসের বাহিরে চায়ের দোকানে পৌঁছে দেন অফিস কর্তৃপক্ষ। অফিসে গেলেই দেখা যায় ওয়্যারিং পরিদর্শক অফিসারের চেয়ারের পাশে কম্পিউটার নিয়ে বসে আছেন রাজু আহমদ নামের এক কর্মচারী। রাজু আহমদের দায়িত্ব ওয়ান পয়েন্ট বা অনলাইন সিরিয়ালের কাজে দায়িত্ব পালন করা। কিন্তু তার ভাবভঙ্গিতে মনে হয় তিনি পল্লীতের প্রধান কোন দায়িত্বে রয়েছেন। গ্রাহকদের যাবতীয় কগজপত্র হাতিয়ে নিয়ে দালাল চক্রের সাথে যোগাযোগ করিয়ে দেন তিনি। তার মাধ্যম ছাড়া নতুন সংযোগ নিতে গেলই হয়রানি হওয়া ছাড়া কোন উপায় নেই। এতে দীর্ঘদিন থেকে কর্মরত ইলেকট্রিশিয়ানদের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে।

জকিগঞ্জ জোনাল অফিসের অধীনস্থ শাহগলী, ও কালীগঞ্জ অফিস একইভাবে দালাল চক্রের দখলে বলে জানা যায়। দালালরা অফিস থেকে মিটার নিয়ে গ্রাহকদের কাছ থেকে অতিরিক্ত টাকা আদায় করে লাইনম্যান ছাড়া তারাই সংযোগ দিয়ে থাকেন। তাদের ব্যক্তিগত মোটরসাইকেলে অফিসের সকল সরঞ্জামও রয়েছে। অফিসের সকল অবৈধ সংযোগ তাদের মাধ্যমে হয়ে থাকে। জোনাল অফিসের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার সাথে রয়েছে এই দালাল চক্রদের গোপন যোগাযোগ। জকিগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের বিরুদ্ধে এসব অনেক অভিযোগ ভোক্তভোগী গ্রাহকদের।

অনুসন্ধানে জানা যায়, উপজেলার মানিকপুর ইউনিয়নের সাজাপুর এলাকার ব্রিজের পাশে কিছুদিন পূর্বে অর্থের বিনিময়ে একটি দোকানে অবৈধ ট্রান্সফর্মার লাইন স্থাপন করে বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া হয়। দোকানের মালিক আনোয়ার মিয়া বর্তমানে বিদ্যুৎ ব্যবহার করছেন। উপজেলার কাজলসার ইউনিয়নের পশ্চিম গোটারগ্রামের সাজ্জাদ আলীর ছেলে জাহেদ আহমদ অভিযোগ করে বলেন, কয়েকদিন আগে আমি অফিসে গিয়ে একটি নতুন খুঁটির আবেদন করি। সকল তদন্ত শেষ হলেও আজ পর্যন্ত খুঁটি স্থাপন করা হয়নি। কিন্তু উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় খুঁটি ও মিটার সংযোগ থাকা সত্ত্বেও গ্রাহকের সুবিধার্থে খুঁটি স্থাপন করা হচ্ছে। লাইনের কাজের জন্য সরকারের পক্ষ থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা বরাদ্দ থাকলেও  উপজেলার বীরশ্রী ইউনিয়নের উজিরপুর গ্রামের বিজয় পাল, সজিত পাল, চন্দন পাল, রনজীত পাল, নজির আহমদের বাড়ীতে দীর্ঘ ২০ বছর যাবত আর্তিং ছাড়া একটি লাইনের মাধ্যমে বিদ্যুৎ ব্যবহার করছেন। তারা বলেন, আমাদের টিনের চালে হাত দেওয়া যায় না এমন ঝুঁকি নিয়ে দিন যাপন করছি কিন্তু কর্তৃপক্ষকে বারবার অবগত করলে কোনো পদক্ষেপ নেননি।

উপজেলার সুলতানপুর ইউনিয়নের সাতঘরি গ্রামের আব্দুল জলিলের ছেলে আব্দুর রকিব বলেন, গত বছরে বর্ষাকালে ঝড় তুফানে আমার সহ বেশ কয়েকটি ঘর পড়ে যায়। ঘর পড়ে যাওয়ার বিষয়টি এলাকার লোকজন মোবাইল ফোনে অফিসকে অবগত করলে অফিসের লাইনম্যান আমর খুঁটিতে বিদ্যুৎ সংযোগ বিছিন্ন করেন। সংযোগ বিছিন্ন করার পর থেকে আমার বাড়িতে বিদ্যুৎ বিল দেয়ার বিধান নেই বলে দেওয়া হয়নি। এমনকি সপরিবারে প্রায় একবছর আত্মীয়-স্বজনের বাড়িতে দিন যাপন করি। ৯-১০দিন ধরে  নতুন ঘর তৈরির কাজ শুরু করি। এমতাবস্থায় পল্লী বিদ্যুতের কর্মরত লাইনম্যান আমার মিটারটি অফিসে খুলে নিয়ে যায়। পরে অফিসে গেলে অফিস কর্তৃপক্ষ নিজে মিটার ভেঙেছি বলে আমাকে মিটারের মূল্য ১৩৫০ টাকা ও সাধারণ জরিমানা ৫৭৫ টাকা  লিখে দেন। প্রাকৃতিক কারণে মিটার নষ্ট হয়েছে বলে দাবি করলে অফিস কর্তৃপক্ষরা বলেন, তোমার মিটারের কোন তথ্য আমরা দিতে পারবো না। টাকা দিতে হবে। এমনকি মামলার হুমকিও দেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন।

খবর নিয়ে জানা যায়, নতুন মিটার সংযোগ ক্ষেত্রে আবাসিক মিটারের জন্য ৫৬৫ টাকা ও বাণিজ্যিক সংযোগ ক্ষেত্রে ৮৬৫ টাকা অনলাইনের মাধ্যমে জমা করতে হয়। দালালরা তিন চার হাজার টাকা ছাড়া মিটার সংযোগ দেননি। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয় ইলেকট্রিশিয়ানদের মাধ্যমে জানা যায়, তাদের মজুরি ও বৈধ টাকার মাধ্যমে নতুন সংযোগ দিয়ে যাচ্ছেন। অবৈধ টাকা না দেওয়ায়  তারাও হয়রানির শিকার হচ্ছেন। কিন্তু দালালের মাধ্যমে কালো টাকার বিনিময় দ্রুত মিটার সংযোগ দেওয়া হয়। এসব দালালদের একমাত্র আশ্রয়স্থল জকিগঞ্জ জোনাল অফিসের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার আবুল কালাম আজাদ। উনার কারণে অফিসের অন্যান্য কর্মকর্তারাও তটস্থ। অফিসে সিসি ক্যামেরা থাকায় অবৈধ লেনদেন হচ্ছে সিসি ক্যামেরার আওতার বাহিরে। যথাযত প্রক্রিয়ার মাধ্যমে বিদ্যুতের খুঁটির আবেদনকারীরা বঞ্চিত হচ্ছেন। কিন্তু কালো টাকার বিনিময়ে প্রয়োজন ছাড়াও বিদ্যুতের খুঁটি স্থাপন করা হচ্ছে বিভিন্ন জায়গায়।

অভিযোগ রয়েছে, টাকা জমা না নিয়েইর অফিস কর্তৃপক্ষ কসকনকপুর ইউনিয়নে বিয়াবাইল গ্রামের শহীদুল মাস্টারের বাড়ীতে মিটার স্থানান্তর করে এবং কালাকুটা গ্রামের যাত্রী ছাউনির পিছনে অবৈধ খুঁটির স্থাপন করে মিটার সংযোগ দেওয়া হয়। খাশেরা গ্রামের হাসান আহমদের বাড়ির পাশে একটি বাড়িতে অন্য জায়গা থেকে একটি মিটার এনে নতুন বাড়িতে সংযোগ দেয়া হয়েছে।  হানিফগ্রাম সাজাপুর স’মিলের পাশে আনোয়ার মাস্টার এর ছেলে সুয়েব আহমদের নামে অবৈধ বিদ্যুৎ লাইন ও সিট তৈরি করে মিটার সংযোগ দেয়া হয়েছে। চেকপোস্ট রহমানীয়া কমিউনিটি সেন্টার উত্তরের বাড়ীতে পুরাতন খুঁটিতে অবৈধ সিট তৈরি করে মিটার সংযোগ দেয়া হয়েছে।

মানিকপুর ইউনিয়নের দেওয়ানচক গ্রামের মৃত মকদ্দছ আলীর ছেলে হাজী ফারুক আহমদ বলেন, মিটার না দেখে তাদের মনগড়া বিল তৈরি করে আমাকে বারবার হয়রানি করা হচ্ছে। অফিসে গিয়ে বিল সংশোধন করতে হয় নিয়মিত।

একই অভিযোগ উপজেলার কামালপুর গ্রামের আলহাজ্ব মাওলানা ইউসুফ আলীর। তিনি বলেন, আগের মাসের বিল পরিশোধের পরেও পরের মাসের বিলের সাথে উভয় বিল দিয়ে প্রায়ই মানুষকে হয়রানী করা হচ্ছে।

মানিকপুর ইউনিয়নের দরগাবাহারপুর গ্রামের মানিক মিয়ার ছেলে প্রবাসী নাজিম উদ্দিন বলেন, আমার বাড়ির পাঁশে একটি দোকানের বিদ্যুৎ বিল প্রতি মাসে নিয়মিত পরিশোধ করি। কিন্তু সম্প্রতি বিদ্যুৎ অফিস থেকে লোকজন এসে বলে ২০১৯ সালের বিল নাকি দেয়া হয়নি। এ টাকা পরিশোধ না করলে ওরা সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার হুমকি দেয়। ডকুমেন্ট দেখাতে বললে হাতে লেখা একটি কাগজ দেখায়। তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন এসব কোন ধরণের ডাকাতি?

একটি বিলের সাথে অন্য মাসের অনাদায়ী বিল সংযোগ করায় গ্রাহক হচ্ছে প্রতারিত।  গ্রাহক স্থানীয় কোন ব্যাংকে বিল পরিশোধ করেছেন কিন্তু যথা সময়ে বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ তথ্যটি না নিয়ে পরিশোধিত বিল নতুন বিলে সংযোগ করে দিচ্ছে। এতে গ্রাহকের দু’বার একই বিল প্রদান করতে বাধ্য হচ্ছেন।

বাংলাদেশ সরকার করোনাকালীন শিক্ষার্থীদের লেখা-পড়া ও বিনোদনের জন্য সংসদ টেলিভিশনের মাধ্যমে দিনে পাঠদান কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু পিছিয়ে পড়া জকিগঞ্জের শিক্ষার্থীরা বিদ্যুতের অনিয়মের কারনে সে সুযোগ থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। লেখা-পড়া থেকে ঝরে পড়া সহ মানসিক সমস্যায় জর্জরিত হচ্ছে কোমলমতি শিক্ষার্থীরা।

এসব বিষয়ে জানতে জকিগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ জোনাল অফিসের জেনারেল ম্যানেজার আবুল কালাম আজাদকে জিজ্ঞাসা করলে তিনি অফিসে গিয়ে সরাসরি কথা বলার অনুরোধ করেন। মোবাইলে অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি ১/২টি অভিযোগ সঠিক নয় জানালেও বেশ কিছু প্রশ্নের সঠিক উত্তর না দিয়ে অফিসে যাওয়ার অনুরোধ করেন।

কানাইঘাটে আ.লীগ নেতার হেফাজত সমর্থক ছেলে গ্রেফতার
                                  

কানাইঘাট প্রতিনিধি :
সিলেটের কানাইঘাট উপজেলায় স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতার ছেলেকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে সরকার বিরোধী পোস্ট দেওয়ায় তাকে গ্রেফতার করেছে কানাইঘাট থানা পুলিশ। পুলিশ জানায়, গত শুক্রবার দিবাগত রাত ২টার দিকে কানাইঘাট উপজেলার ৮নং ঝিংগাবাড়ী ইউনিয়নের আগতালুক গ্রামের তরিকত উল্লার পুত্র হেফাজত সমর্থক ফয়সল আহমদকে (২৭) তার নিজ বাড়ী থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

ফয়সল আহমদের বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে হেফাজতের পক্ষ নিয়ে রাষ্ট্র বিরোধী উস্কানীমূলক বিভিন্ন ধরনের পোস্ট দেওয়ার অপরাধে তাকে গ্রেফতার হয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে। এ ঘটনায় ফয়সল আহমদের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করেছে পুলিশ।

তবে হেফাজত সমর্থক ফয়সল আহমদের পিতা স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা তরিকত উল্লাহ জানিয়েছেন, তার ছেলে ফয়সল একজন কাতার প্রবাসী। দুই মাস আগে সেখান থেকে ছুটি নিয়ে অসুস্থ জনিত কারনে দেশে চলে আসে। বর্তমানে সে অসুস্থ ও মানসিক সমস্যায় ভোগছে। ছেলে হেফাজতের যে সমথর্ক এ ব্যাপারে তিনি কিছুই জানেন না। তার পুরো পরিবার আওয়ামীলীগের রাজনীতির সাথে জড়িত বলে তরিকত উল্লাহ জানান।

তিনি জানান, এলাকায় আওয়ামীলীগের পক্ষে কাজ করতে গিয়ে অনেকবার তিনি নির্যাতনের শিকার হয়েছেন। তার ছেলে ফেসবুকে হেফাজতে নিয়ে সরকার বিরোধী পোস্ট দেওয়ায় তিনি দুঃখ প্রকাশ করেছেন।  

জকিগঞ্জে বিয়ের আসরে উভয়পক্ষের সংঘর্ষ
                                  

মোঃ হাবিবুর রহমান:
সিলেটের জকিগঞ্জ উপজেলায় বিয়ের আসরে বরকে দেয়া কনে পক্ষের উপহার সামগ্রীর তালিকা নিয়ে কথা কাটাকাটির জের ধরে কনের বাড়িতে মারামারি ঘটনা ঘটেছে। এতে উভয়পক্ষের ১০ জনের মতো আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় জকিগঞ্জ থানায় উভয়পক্ষ পাল্টাপাল্টি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

জানা যায়, জকিগঞ্জ উপজেলার ৯নং মানিকপুর ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের অন্তর্গত কলাকুটা (সারংদেব) গ্রামের আব্দুস সবুরের মেয়ে শাহানা বেগমের সঙ্গে বুধবার (৭ এপ্রিল) উপজেলার ৭নং বারঠাকুরী ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের অন্তর্গত বারগাত্তা গ্রামের শফিকুর রহমানের ছেলে নেজাম উদ্দিনের ইসলামী শরীয়ত মোতাবেক আক্দ হয়। বর নেজাম উদ্দিন করোনাকালীন লকডাউনের কারনে সীমিত পরিসরে লোকজন নিয়ে কনে তুলে নিয়ে যেতে কলাকুটা (সারংদেব) গ্রামে শশুরালয়ে আসেন। এ সময় কনে পক্ষের লোকজন বিবাহে উপহার হিসেবে দেয়া মালামালের তালিকায় বরকে স্বাক্ষর করতে বললে বর মূল কপি নিয়ে আসতে বলেন। এনিয়ে কথা কাটাকাটির এক পর্যায় উভয় পক্ষের মধ্যে মারামারি শুরু হলে স্থানীয়দের সহযোগিতায় কনে ছাড়াই বাড়ি ফেরেন বর নেজাম উদ্দিন ও তার পরিবারের লোকজন।

এতে বর নেজাম উদ্দিন (২৫), বরের পিতা- শফিকুর রহমান (৭০), বরের ভাই কায়েস আহমদ (২৬), রুবেল আহমদ (২০), কাওছার আহমদ, বোনের জামাই দেলোয়ার হোসেন (২৮), ফখর উদ্দিন (৩০) আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। অপরদিকে কনে পক্ষের ৪/৫ জন আহত হয়েছেন বলে স্থানীয় লোকজন জানিয়েছেন। তবে কনে পক্ষের লোকজনের নাম পরিচয় জানা যায়নি। ঘটনার পর স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে জকিগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করেন।

এ ঘটনায় বর নেজাম উদ্দিন বাদী হয়ে শশুর বাড়ির লোকজনকে আসামী করে জকিগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অপরদিকে শশুর আব্দুস সবুর বাদী হয়ে বরের পরিবারের লোকজনকে আসামী করে জকিগঞ্জ থানায় পাল্টা লিখিত অভিযোগ করেন। এনিয়ে এলাকায় তোলপাড় সৃষ্ঠি হয়েছে।

এ বিষয়ে উভয় পক্ষের অভিযোগ তদন্তের দায়িত্বে থাকা জকিগঞ্জ থানার এসআই আমিরুল শিকদার বলেন, আমি উভয় পক্ষের অভিযোগ পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। উভয়পক্ষের মধ্যে বিষয়টি আপোষ নিষ্পত্তি না হলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


   Page 1 of 73
     সিলেট
দক্ষিণ সুনামগঞ্জে কৃষকের মুখে রাজ্য জয়ের হাসি
.............................................................................................
সিলেটে সেই এসআই আকবরসহ ৬ পুলিশের বিরুদ্ধে চার্জশিট
.............................................................................................
জৈন্তাপুরে ভারতীয় খাসিয়ার গুলিতে বাংলাদেশী নিহত
.............................................................................................
জৈন্তাপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহতদের পরিবারকে আর্থিক সহায়তা প্রদান
.............................................................................................
নবীগঞ্জে করোনাকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে ঈদ শপিংয়ে মানুষের ঢল
.............................................................................................
গোয়াইনঘাটে মন্ত্রী ইমরান আহমদের ঈদ উপহার পেল অসহায় পরিবার
.............................................................................................
করোনায় সিলেটে গত ২৪ ঘন্টায় কেউ মারা যায়নি, সুস্থ ৭৭, শনাক্ত ৪১
.............................................................................................
অক্সিজেন সংকটে পড়তে যাচ্ছে সিলেটের হাসপাতালগুলাে
.............................................................................................
হাওরে ধান কাটতে গিয়ে বজ্রপাতে দুই ভাইয়ের মৃত্যু
.............................................................................................
সুনামগঞ্জে ৭৫০ অসহায় পরিবারকে প্রধানমন্ত্রীর উপহার প্রদান
.............................................................................................
সিলেটে করোনায় আরও ৫ জনের মৃত্যু
.............................................................................................
জকিগঞ্জে বিনামূল্যে স্কুল ড্রেস বিতরণ করলো ইফজাল চৌধুরী এডুকেশন ট্রাস্ট
.............................................................................................
জাফলং সীমান্তে ভারতে পাচারের সময় অভিযানে ১ হাজার বস্তা মটর ডাল জব্দ
.............................................................................................
জকিগঞ্জে দালালদের হাতে জিম্মি পল্লী বিদ্যুৎ অফিস; সিন্ডিকেটের প্রধান ডিজিএম
.............................................................................................
কানাইঘাটে আ.লীগ নেতার হেফাজত সমর্থক ছেলে গ্রেফতার
.............................................................................................
জকিগঞ্জে বিয়ের আসরে উভয়পক্ষের সংঘর্ষ
.............................................................................................
সিলেটে আরও ৩ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ছাড়ালো ২০ হাজারের অধিক
.............................................................................................
দক্ষিণ সুনামগঞ্জে গোলায় উঠছে ধান: কৃষকের মুখে সোনালি হাসি
.............................................................................................
গণপরিবহন চালুর দাবিতে সিলেটে পরিবহন শ্রমিকদের বিক্ষোভ
.............................................................................................
গোয়াইনঘাটে ফেন্সিডিলসহ ২ মাদক ব্যাবসায়ী আটক
.............................................................................................
মৌলভীবাজারে আরও ১৪ জন করোনায় আক্রান্ত
.............................................................................................
সিলেটে ভয়াবহ রূপ নিচ্ছে করোনা
.............................................................................................
সিলেটের মসজিদে মসজিদে করোনা মুক্তির প্রার্থনা
.............................................................................................
সিলেটে করোনায় আরও ৩ জনের মৃত্যু
.............................................................................................
কানাইঘাটে আল-খায়ের ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ
.............................................................................................
সিলেটের সম্ভাবনাময় নতুন পর্যটন স্পট আমলশিদ ত্রিমোহনা
.............................................................................................
হবিগঞ্জে গণপিটুনিতে দুই ডাকাত নিহত
.............................................................................................
সুবিধাবঞ্চিত শিক্ষার্থীদের মাঝে ইফজাল চৌধুরী এডুকেশন ট্রাস্ট সেলাই মেশিন বিতরণ
.............................................................................................
গোয়াইনঘাটে প্রতিপক্ষের হামলায় কৃষক নিহত
.............................................................................................
সুনামগঞ্জে জমি নিয়ে সংঘর্ষে চাচা-ভাতিজা নিহত
.............................................................................................
দায়িত্বে অবহেলায় শাল্লা থানার ওসি বরখাস্ত
.............................................................................................
কানাইঘাটে লকডাউন মানতে অনীহা
.............................................................................................
মামুনুল হকের সঙ্গে নারীর আপত্তিকর ছবি পোস্টকারী যুবলীগ নেতার জামিন
.............................................................................................
করোনার প্রভাবে পর্যটক শূন্য জাফলং
.............................................................................................
বিদ্যুৎবিহীন ভুতুড়ে মৌলভীবাজারের রাজনগর
.............................................................................................
সিলেটে কোয়ারেন্টিনে থাকা প্রবাসী নারীর শ্লীলতাহানির অভিযোগ, আটক হোটেল কর্মচারী
.............................................................................................
জাফলংসহ সিলেটের সকল পর্যটন কেন্দ্র বন্ধ ঘোষণা
.............................................................................................
সিলেটে একদিনে ৫ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১০০
.............................................................................................
আন্তর্জাতিক কোরআন প্রতিযোগিতায় সিলেটের হাফিজ জামিল আহমদ
.............................................................................................
জকিগঞ্জে টানা ৪০ দিন নামাজ পড়ে পুরষ্কৃত ৭৮ জন কিশোর
.............................................................................................
সিলেটে মোদী বিরোধী মিছিলে পুলিশের লাটিচার্জ, আটক ৭
.............................................................................................
দক্ষিণ সুনামগঞ্জে শিশুর রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার
.............................................................................................
গোয়াইনঘাটে হ্যান্ড গ্রেনেড উদ্ধার
.............................................................................................
সিলেটে হোটেলে কোয়ারেন্টিনে থাকা যুক্তরাজ্য ফেরত প্রবাসীর বিয়ে নিয়ে তোলপাড়!
.............................................................................................
জকিগঞ্জে রাইড শেয়ারিং অ্যাপ চালুর উদ্যোগ
.............................................................................................
শাল্লায় হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনায় স্বাধীন মেম্বারসহ ৩০ আসামি রিমান্ডে
.............................................................................................
কানাইঘাটের চতুল বাজারে ড্রেন নির্মাণের দাবীতে মানববন্ধন
.............................................................................................
শাল্লার ঘটনায় জড়িত কাউকে ছাড় দেয়া হবে না: র‌্যাব মহাপরিচালক
.............................................................................................
জাফলংয়ে পর্যটন ফটোগ্রাফারদের মাঝে ট্যুরিস্ট পুলিশের টি-শার্ট বিতরণ
.............................................................................................
কানাইঘাটে বিদ্যুৎ পৃষ্টে যুবকের মৃত্যু
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আখলাকুল আম্বিয়া
নির্বাহী সম্পাদক: মাে: মাহবুবুল আম্বিয়া
যুগ্ম সম্পাদক: প্রদ্যুৎ কুমার তালুকদার

সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: স্বাধীনতা ভবন (৩য় তলা), ৮৮ মতিঝিল বাণিজ্যিক এলাকা, ঢাকা-১০০০। Editorial & Commercial Office: Swadhinota Bhaban (2nd Floor), 88 Motijheel, Dhaka-1000.
সম্পাদক কর্তৃক রঙতুলি প্রিন্টার্স ১৯৩/ডি, মমতাজ ম্যানশন, ফকিরাপুল কালভার্ট রোড, মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত ।
ফোন : ০২-৯৫৫২২৯১ মোবাইল: ০১৬৭০৬৬১৩৭৭

Phone: 02-9552291 Mobile: +8801670 661377
ই-মেইল : dailyswadhinbangla@gmail.com , editor@dailyswadhinbangla.com, news@dailyswadhinbangla.com

 

    2015 @ All Right Reserved By dailyswadhinbangla.com

Developed By: Dynamic Solution IT