রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর 2021 বাংলার জন্য ক্লিক করুন
  
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   গ্রাম বাংলা -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
কুমিল্লায় সড়কে ঝরলো ৩ প্রাণ

কুমিল্লা প্রতিনিধি :
কুমিল্লায় যাত্রীবাহী বাসের ধাক্কায় সিএনজি চালিত অটোরিক্সার ৩ যাত্রীর মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। শনিবার বেলা পৌনে ১১টার দিকে কুমিল্লা-নোয়াখালী আঞ্চলিক মহাসড়কের নাথেরপেটুয়া পুরাতন বাজার এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। এ দুর্ঘটনায় শিশুসহ আরো ৩ জন আহত হয়েছেন। তবে তাৎক্ষণিকভাবে নিহতদের পরিচয় নিশ্চিত করা সম্ভব হয়নি।

কুমিল্লা জেলার লাকসাম সার্কেলের সিনিয়র এএসপি মহিতুল ইসলাম জানান, যাত্রীবাহী বাসটি নোয়াখালী থেকে ঢাকা যাচ্ছিল। বেলা পৌনে ১১টার দিকে বাসটি একটি সিএনজিচালিত অটোরিকশাকে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলে তিন অটোরিকশাযাত্রীর মৃত্যু হয়। এসময় আহত হন তিনজন। আহতদের স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

কুমিল্লায় সড়কে ঝরলো ৩ প্রাণ
                                  

কুমিল্লা প্রতিনিধি :
কুমিল্লায় যাত্রীবাহী বাসের ধাক্কায় সিএনজি চালিত অটোরিক্সার ৩ যাত্রীর মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। শনিবার বেলা পৌনে ১১টার দিকে কুমিল্লা-নোয়াখালী আঞ্চলিক মহাসড়কের নাথেরপেটুয়া পুরাতন বাজার এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। এ দুর্ঘটনায় শিশুসহ আরো ৩ জন আহত হয়েছেন। তবে তাৎক্ষণিকভাবে নিহতদের পরিচয় নিশ্চিত করা সম্ভব হয়নি।

কুমিল্লা জেলার লাকসাম সার্কেলের সিনিয়র এএসপি মহিতুল ইসলাম জানান, যাত্রীবাহী বাসটি নোয়াখালী থেকে ঢাকা যাচ্ছিল। বেলা পৌনে ১১টার দিকে বাসটি একটি সিএনজিচালিত অটোরিকশাকে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলে তিন অটোরিকশাযাত্রীর মৃত্যু হয়। এসময় আহত হন তিনজন। আহতদের স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

লক্ষ্মীপুরে স্কুলছাত্রের আত্মহত্যা
                                  

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি :
টাকা না দেয়ায় মায়ের সাথে অভিমান করে আত্মহত্যা করেছে ১৩ বছর বয়সী সপ্তম শ্রেণির ছাত্র। তার নাম আজিম হোসেন। গতকাল সোমবার সন্ধ্যায় লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার লাহারকান্দি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। আজিম লাহারকান্দি গ্রামের মহিন উদ্দিনের ছেলে ও বাইশমারা মডেল একাডেমির শিক্ষার্থী ছিলো।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, আজিমরা তিন ভাই। আজিম সবার বড়। ঘটনার আগে তার মা ছোট ভাইদের টাকা দিচ্ছিলেন। এটি দেখে সেও মায়ের কাছ থেকে টাকা চায়। কিন্তু তাকে টাকা দেওয়া হয়নি। এতে অভিমান করে নিজের কক্ষে গিয়ে দরজা বন্ধ করে গলায় ফাঁস দেয়। তার মায়ের চিৎকার শুনে আশপাশের লোকজন ঘরে আসে। পরে দরজা ভেঙে কক্ষে ঢুকে আজিমের ঝুলন্ত মরদেহ দেখতে পান তারা।

লক্ষ্মীপুর সদর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) ইয়াকুব আলী বলেন, ঘটনাস্থল গিয়ে পরিবারের লোকজনের সঙ্গে কথা বলেছি। অভিমান করেই ছেলেটি আত্মহত্যা করেছে। পরিবারের কোনো অভিযোগ না থাকায় আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ময়নাতদন্ত ছাড়া মরদেহ দাফনের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। এছাড়া থানায় একটি অপমৃত্যুর মামরা হয়েছে।

নবীনগরে খাস জায়গা দখল করে ভবণ নির্মাণ
                                  

নবীনগর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি : সরকারী বাঁধা নিষেধ অমান্য করে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগরে সরকারী খাস জায়গায় ভবন নির্মাণ করাকে কেন্দ্র করে এলাকায় বিরাজ করছে চরম উত্তেজনা।

নবীনগর উপজেলার কাইতলা উত্তর ইউনিয়নের নোয়াগাঁও অলেক শাহ (র.) মাজারের সামনে সরকারের খাস খতিয়ানভূক্ত জায়গাতে ব্যাক্তি মালিকানাধীন ভবন নির্মাণ কাজ শুরু হলে ওই জায়গার কাজ বন্ধ রাখার জন্য নির্দেশ প্রধান করেন নবীনগর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি)।

সরকারী বাঁধা নিষেধ অমান্য করে নোয়াগাঁও গ্রামের মৃত মোতালেব মিয়ার মেয়ের জামাই খোকন মিয়া জোর পূর্বক সরকারী খাস জায়গায় স্থায়ী স্থাপনা নির্মাণ কাজ শুরু করলে বাঁধা প্রধান করেন মাজার কমিটির লোকজন।

সরেজমিনে দেখা যায়, মাজারের সামনের সরকারী খাস জায়গাতে খোকন মিয়া ফাউন্ডেশন দিয়ে ভবনের নির্মাণ কাজ দ্রুত গতিতে চালিয়ে যাচ্ছেন। সাংবাদিকদের উপস্থিতি টের পেয়ে খোকন মিয়া দৌড়ে পালিয়ে যান।

খোকন মিয়ার স্ত্রী নুরজাহান বেগম বলেন, আমাদের জায়গার উপর দিয়ে সরকারী রাস্তা গিয়েছে, সে কারণে আমরা সরকারী খাস জায়গাতে দালান তুলতেছি। আমরা ছাড়াও আরো অনেকে সরকারী জায়গা দখল করে রেখেছে। তাদেরতো কেউ কোন কিছু বলছে না।

মাজার কমিটির সাবেক সভাপতি মোখলেছ মেম্বার বলেন, এখানে সরকারী পরিত্যাক্ত ডোবা ছিলো, সাথে একটি মসজিদ রয়েছে, মাজারের ফান্ডের টাকা দিয়ে আমরা তা ভরাট করি মানুষের সুবিধার জন্য।

স্থানীয় বাসিন্দা মহিউদ্দিন মিয়া জানান, সরকারী খাস জায়গাটি অবৈধভাবে দখল হয়ে গেলে সকলেরই সমস্যা তৈরি হবে। এ নিয়ে মাজারের ভক্তবৃন্দসহ এলাকাবাসীর মাঝে উত্তেজনা তৈরি হচ্ছে। অবিলম্বে খাস জায়গাতে কাজ বন্ধ করার দাবী করছি।

স্থানীয় ইউপি সদস্য জাহাঙ্গীর আলম বলেন, যে স্থানে খোকন মিয়া দালানের কাজ শুরু করছে, এই জায়গাটি সরকারী খাস জায়গা।

এ বিষয়ে, নবীনগর উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভূমি) মোশারফ হোসাইন বলেন, আমি নিজে ঘটনাস্থলে গিয়ে এই স্থানে সকল প্রকার নির্মাণ কাজ বন্ধ রাখার নির্দেশনা দিয়ে এসেছি। কেউ সরকারী আইন অমান্য করলে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যাবস্থা নেওয়া হবে। ওই স্থানে আবারও নির্মাণ কাজ শুরু হওয়ার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ওই এলাকার নায়েবকে পাঠানো হয়েছে।

১২ বছর ধরে শিকলে বাঁধা শহিদুল!
                                  

সখীপুর(টাঙ্গাইল)প্রতিনিধি :
লোহার চাকতি লাগানো শিকল দুই পাঁয়ে পরানো হয়েছে। শিকলে লাগলো হয়েছে ২টি বড় তালা। দিনে বাড়িতে গাছের সাথে আর রাতে ঘরে চৌকির সঙ্গে বেঁধে রাখা হয়। ১২ ফুটের শিকলে এক যুগের বেশি বাঁধা মানসিক প্রতিবন্ধী শহিদুল ইসলামের (৩৫) জীবন। শহিদুল টাঙ্গাইলের সখীপুর উপজেলার কাকড়াজান ইউনিয়নের মহানন্দনপুর গ্রামের মৃত আজিম উদ্দিনের ছেলে।

জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরে বাড়ির পাশে একটি গাছের সঙ্গে শিকলবন্দি অবস্থায় বেধেঁ রাখা হয় শহিদুলকে। মাঝে মাঝে নজরদারি রেখে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়। ছেড়ে দেওয়া হলে স্থানীয় বাজারে সে ঘোরাঘুরি করে। কেউ কাছে গেলে কোন কথাই বলে না।

শহিদুলের বৃদ্ধ মা কাজুলি বেগম জানান, তিন ছেলের মধ্যে শহিদুল সবার ছোট। মেজো ছেলে কয়েক বছর আগে মারা যায়। জন্মের কিছুদিন পর হঠাৎ প্রতিবন্ধীর মতো হয়ে পড়ে শহিদুল। স্থানীয় পল্লীচিকিৎসক ও কবিরাজ দিয়ে তাকে চিকিৎসা করানো হয়। কিন্তু সুস্থ হয়নি। ক্রমেই মানসিক প্রতিবন্ধী হয়ে পড়ে। সুযোগ পেলেই এদিক-সেদিক চলে যায়। এজন্য বাধ্য হয়ে পায়ে শিকল পরিয়ে আটকে রাখা হয়।

তিনি আরও জানান, শহিদুলের বাবা ৫ বছর আগে সড়ক দুর্ঘটনায় মারা যায়। অভাবের সংসারে তিনিই ছিলেন একমাত্র উর্পাজনের উৎস। মারা যাওয়ার পর মানুষের সহযোগিতায় কোন মতে সংসার চালিয়ে যাচ্ছি। বড় ছেলে বিয়ে করে আলাদা সংসার করছে। শহিদুলকে নিয়ে কষ্টে দিনাতিপাত করছি। মায়ের হাতে ছাড়া খাবার খায় না সে।

স্থানীয় ইউপি সদস্য জয়নাল আবেদিন বলেন, তাকে একটি ভাতা কার্ড করে দেওয়া হয়েছে। প্রতিমাসে ৭৫০ টাকা পান শহিদুল। সেই টাকা দিয়েই কোন মতে তার খাবারের ব্যবস্থা করে তার মা।

প্রতিবেশী এবং ওয়ার্ড় আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক আলমগীর হোসেন বলেন, শহিদুল ও তার মা একসঙ্গে থাকে। তারা অসহায়। যা ভাতা দেয়া হয়, তাতে চলে না। অর্থের অভাবে তার চিকিৎসাও হয়নি। চিকিৎসা করাতে পারলে সে সুস্থ হয়ে উঠতে পারে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) চিত্রা শিকারী বলেন, শহিদুলের শিকলবন্দি জীবনের কথা জানা নেই। খোঁজ নিয়ে দেখা হচ্ছে।

তাজমহলের আদলে নির্মিত হচ্ছে দৃষ্টি নন্দন মসজিদ
                                  

বিরামপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি :
দিনাজপুর জেলার বিরামপুর উপজেলার পাশ্ববর্তী নবাবগঞ্জ উপজেলা ও বিরামপুর থেকে ১৫ কিঃ মিঃ উত্তরে আফতাবগঞ্জ বাজারে “আফতাব” পরিবারের নিজস্ব অর্থায়নে তৈরি আগঁরার তাজমহলের আদলে নির্মাণ করা হচ্ছে দৃষ্টিনন্দন বিশাল কারুকার্য সম্পূর্ণ এ মসজিদ। সম্রাট শাহাজাহান তাঁর ভালোবাসার স্মৃতিকে যুগে যুগে মানুষের মনে বেঁচে থাকার জন্য তৈরি করেছেন বিশাল তাজমহল। আর এই তাজমহলের নাম উচ্চারিত হলেই স্মৃতিতে ভেসে ওঠে সম্রাট শাহজাহানের তৈরি করা সেই অমর কীর্তির। বিশ্বব্যাপী এক নামেই যার পরিচিতি। উত্তরবঙ্গের সুনামধন্য বৃহৎ পর্যটন কেন্দ্র ও পিকনিক স্পট স্বপ্নপুরী। প্রবেশের আগেই আফতাবগঞ্জ বাজারে গড়ে উঠছে দৃষ্টিনন্দন বিশাল এই মসজিদটি।

দিনাজপুর জেলার  নবাবগঞ্জে অবস্থিত উত্তরবঙ্গের প্রাচীন ও বৃহৎ বিনোদন কেন্দ্র স্বপ্নপুরী। প্রতিদিনই উত্তরবঙ্গসহ দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে হাজার হাজার বিনোদন প্রেমী মানুষ একটু বিনোদনের আশায় এখানে ছুটে আসেন। সেই “স্বপ্নপুরীর”  স্বত্বাধিকারী দিনাজপুর-৬ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য মরহুম মোস্তাফিজুর রহমান (ফিজু) এর বড় ভাই নবাবগঞ্জ উপজেলা কুশদহ ইউনিয়নের সফল চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোঃ দেলোয়ার হোসেন এবং তাঁর পুত্র দিনাজপুর-৬ আসনের পর-পর দুইবারের নির্বাচিত বর্তমান এমপি মোঃ শিবলী সাদিক এমপি “আফতাব” পরিবারের নিজস্ব অর্থায়নে আফতাবগঞ্জে এবার বিশ্বখ্যাত তাজমহলের আদলে নির্মাণ করছেন দৃষ্টিনন্দন এ মসজিদ।

নির্মাণকাজ শেষ না হলেও এরই মধ্যে মসজিদটি দেখতে ভিড় করছে বিভিন্ন এলাকার ধর্মপ্রাণ মানুষ। জনসংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় আফতাগঞ্জ বাজারের পুরোনো মসজিদে স্থান সংকুলান হওয়ায় সেখানে শুক্রবারে জুমার নামাজ পড়াও শুরু করেছেন এলাকার মুসল্লিরা।

দিনাজপুর-৬ আসনের সংসদ সদস্য ও  সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সদস্য মোঃ শিবলী সাদিক জানান, আমার দাদু মরহুম ডাঃ আফতাব হোসেনের নামে এই বাজারটির নামকরণ করা হয়। তাঁরই নাম অনুসারে এই মসজিদটিও নাম করণ করা হয়েছে “আফতাব” মসজিদ। মসজিদটি নির্মাণের পরিকল্পনা করেন আমার বড় আব্বা দেলোয়ার হোসেন।

চারতলা বিশিষ্ট এই দৃষ্টিনন্দন মসজিদের নির্মাণকাজ শুরু হয়েছে ১৪২১ সালের পয়লা বৈশাখ। দীর্ঘ ৭ বছর ধরে তিল তিল করে নিজের তত্ত্বাবধানে মসজিদটি গড়ে তোলেন স্বপ্নপুরীর স্বত্বাধিকারী ও তাঁর বড় আব্বা আলহাজ্ব মোঃ দেলোয়ার হোসেন। তিনি নিজেই এই মসজিদের উদ্যোক্তা। কোন বিশেষজ্ঞ আর্কিটেকচার বা ইঞ্জিনিয়ার ছাড়াই তাঁর নিজস্ব ডিজাইন ও পরিকল্পনায় গড়ে উঠছে মসজিদটি। নিজ পরিকল্পনায় তাজমহলের আদলে তাঁর নিজস্ব মিস্ত্রিদের দিয়ে মসজিদটির নির্মাণ কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন।

তিনি আরও জানান, চার তলাবিশিষ্ট মসজিদটির নিচ তলায় থাকবে একটি সমৃদ্ধ লাইব্রেরি। যেখানে থাকবে ধর্মীয় বিভিন্ন গবেষণামূলক বই। পাশেই থাকবে সেমিনার কক্ষ। যেখানে ধর্মীয় বিতর্ক কিংবা আলোচনা অনুষ্ঠানের ব্যবস্থা করা যাবে। থাকবে তাবলিগ-জামাত কিংবা জ্ঞান অন্বেষণে আসা লোকদের জন্য থাকার সুব্যবস্থাও।

দ্বিতীয় তলা থেকে চতুর্থ তলা পর্যন্ত তিনটি ফ্লোরে ২০ হাজার স্কয়ার ফিটের এ মসজিদে প্রায় ৫ হাজার লোকের নামাজের ব্যবস্থা রয়েছে। তৃতীয় তলায় মহিলাদের জন্য নামাজের ব্যবস্থা থাকবে। ১৬টি পিলারের ওপর তৈরি এ মসজিদে রয়েছে ৩২টি ছোট মিনার। চার কোনায় রয়েছে চারটি সুউচ্চ গম্বুজ। যেগুলোর প্রতিটির উচ্চতা ৯৭ ফিট। বাংলাদেশ ছাড়াও চীন, ভারত ও ইতালিসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের গ্রানাইট, টাইলস, মার্বেল পাথরসহ বিভিন্ন মূল্যবান সামগ্রী দিয়ে মসজিদটি নির্মাণে ব্যবহার করা হচ্ছে।

সরজমিনে দেখা যায়, পুরো এক বিঘা জমির ওপর মসজিদটি বাইরে থেকে দেখতে মনে হবে যেন তাজমহল। দৃষ্টিনন্দন এই মসজিদের দেয়াল, ছাদসহ গোটা মসজিদ জুড়ে বিভিন্ন নকশা, আরবি ক্যালিগ্রাফি ও চাঁদ-তারাসহ বিভিন্ন ডিজাইন স্থান পেয়েছে। সেখানে প্রতিদিন কাজ করছেন রাজমিস্ত্রি ও টাইলস মিস্ত্রিসহ প্রায় অর্ধ শতাধিক শ্রমিক।

মসজিদটির উদ্যোক্তা আলহাজ্ব মোঃ দেলোয়ার হোসেন জানান, আমার বাবা মৃত ডা. আফতাব হোসেনের নামে এই বাজারটির নামকরণ করা হয় আফতাবগঞ্জ। তাঁর হাত ধরে এখানে মসজিদ, মাদ্রাসা, স্কুল-কলেজসহ বিভিন্ন স্থাপনা নির্মাণ করা হয়েছে। পূর্বের মসজিটি পুরোনো হয়ে যাওয়ায় ও মুসল্লিদের স্থান সংকুলান না হওয়ায় পারিবারিকভাবে নতুন করে একটি মসজিদ নির্মাণের পরিকল্পনা করা হয়েছে।

কয়েক শতাব্দী পেরোলেও তাজমহল নিজস্ব মহিমায় ভাস্কর থাকায় এর আদলে মসজিদটি নির্মাণ করার পরিকল্পনা করা হয়। এ জন্য মসজিদ নির্মাণের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট মিস্ত্রিসহ একাধিক লোককে সঙ্গে নিয়ে একাধিকবার দেশের বিভিন্ন জেলার মসজিদ এবং তাজমহলসহ ভারতের বিভিন্ন মসজিদ পরিদর্শন করা হয়েছে। আগামী বছর পয়লা বৈশাখে মসজিদটি উদ্বোধনের ইচ্ছা থাকলেও এটি নির্মাণে আরও ২-৩ বছর লাগতে পারে বলে জানান তিনি।

মসজিদটির নির্মাণ খরচের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি জানান, মসজিদ নির্মাণে কোন বাজেট নির্ধারণ করা নেই। মসজিদটি নির্মাণে যত টাকা লাগবে তা ব্যয় করা হবে। বাবার মতো আমরাও এই এলাকায় দৃষ্টিনন্দন ধর্মীয় স্থাপনা করতে চাই।

মসজিদটির নির্মাণ কাজে জড়িতদের সঙ্গে কথা হলে তাঁরা বলেন, এ পর্যন্ত প্রায় ১৫ কোটি টাকার মতো খরচ হয়ে গেছে। নির্মাণ কাজ শেষ করতে আরও সমপরিমাণ অর্থের প্রয়োজন হবে।

জাফলং রক্ষার দাবিতে সংবাদ সম্মেলন
                                  

সিলেট প্রতিনিধি :
পরিবেশ সঙ্কটাপন্ন এলাকা বা ইসিএ জোনে চিহ্নিত বালু খেকোরা কোটি কোটি টাকার বালু লুটপাট করছে বলে অভিযোগ করেছেন স্থানীয়রা বাসিন্দারা। শনিবার দুপুরে সিলেট প্রেসক্লাবে এলাকাবাসীর পক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেছেন জাফলং নয়াবস্তি গ্রামের বাসিন্দা খোকন আহমদ। এ সময় খোকন আহমদ চিহ্নিত বালু খেকো চক্রের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহন করে প্রকৃতি কন্যা জাফলংকে রক্ষার দাবি জানিয়েছেন।

সাংবাদিক সম্মেলনে খোকন আহমদ অভিযোগ করেন- জাফলংয়ে গত তিন মাস ধরে ডৌবাড়ি এলাকার লামা দোমকা গ্রামের বাসিন্দা সুভাস দাস, লেঙ্গুরা গ্রামের মুজিবুর রহমান, মামার দোকান মেলার মাঠের বাসিন্দা ইমরান হোসেন সুমন ও বিশ্বনাথের ফয়জুল ইসলাম ও আসামপাড়া গ্রামের শামসুল আলমের নেতৃত্বে নিষেধাজ্ঞা অমান্য বালু উত্তোলন করছে। ইতিমধ্যে পরিবেশ অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা একাধিকবার অভিযান চালালেও বালু উত্তোলন বন্ধ হয়নি। গোয়াইনঘাট উপজেলায় কেবলমাত্র সালুটিকর ব্রিজের উজানে গোয়াইন ১১৭ নামের একটি বৈধ বালু মহাল এবার ইজারায় দেওয়া হয়েছে দাবি করে সংবাদ সম্মেলনে দাবি করা হয়- প্রশাসনকে ম্যানেজ করে ইজারা বর্হিভুত এলাকা জাফলং, হাদারপাড়, আড়কান্দি থেকেও একই চক্র বালু লুটপাট করছে। গত ৩ মাসে প্রায় ১৫ কোটি টাকার বালু লুটপাট করা হয়েছে। প্রতিদিন হাজার হাজার বালুবাহী কার্গো নৌকা চলাচলের কারনে এরই মধ্যে জাফলং ব্রিজ, গোয়াইনঘাট ব্রিজ, সালুটিকর ব্রিজ সহ শত শত কোটি টাকায় নির্মিত সেতু হুমকির মুখে পড়েছে।
 
সংবাদ সম্মেলনে খোকন জানান- জাফলংয়ে তাদের বেপরোয়া লুটপাটের কারনে বোমা ও ড্রেজার মেশিনের শব্দে গোটা এলাকায় শব্দ দুষণ হচ্ছে। ইতিমধ্যে জাফলংয়ের পিয়াইন নদী বাগান এলাকায় অবাধে বালু উত্তোলনের ফলে জাফলং চা বাগান হুমকির পড়ে পড়েছে। কান্দুবস্তু ও নয়াবস্তি এলাকা পড়েছে হুমকির মুখে। ওই দুই গ্রামের বাসিন্দারা ঢল থেকে রক্ষার জন্য যে বাধ দিয়েছিলেন সেটিও বালুখেকোরা লুটেপুটে খেয়ে নিয়ে নিয়েছে। স্থানীয় সাংসদ, প্রবাসী কল্যান ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রনালয়ের মন্ত্রী ইমরান আহমদের একান্ত প্রচেষ্ঠায় শত কোটি টাকা ব্যায়ে গোয়াইনঘাটবাসীর স্বপ্নের সেতু জাফলং ব্রিজও হুমকির মুখে রয়েছে।
 
সংবাদ সম্মেলনে খোকন আরো জানান- জাফলংয়ে বালুখেকো সুভাস দাস, মুজিবুর রহমান, ইমরান হোসেন সুমন, বিশ্বানাথী ফয়জুল ও সামসুল আলম এখন মুর্তিমান ত্রাস। প্রতিদিনই তাদের নিয়োজিত সন্ত্রাসী বাহিনী প্রকাশ্য অস্ত্র নিয়ে মহড়া দেয়। যারাই প্রতিবাদ করে তাদের উপর হুমকি-ধমকি অব্যাহত রাখে। ওই সন্ত্রাসী বাহিনীর কারনে নিরব আতঙ্ক বিরাজ করছে পর্যটনস্পট জাফলংয়ে। যেকোনো সময় ওই সিন্ডিকেটের মাধ্যমে খুনোখুনির আশঙ্কা রয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে তারা চিহ্নিত পাথর ও বালু খেকো চক্রের কবল থেকে জাফলং নয়াবস্তি, কান্দুবস্তি, জাফলং চা বাগান, জাফলং ব্রিজ রক্ষার জন্য উদ্যোগ নিতে প্রধানমন্ত্রী, স্থানীয় এমপি, সিলেটের বিভাগীয় প্রশাসন, ডিআইজি, জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের হস্তক্ষেপ কামনা করেন। সরকারী সম্পদ লুটপাটকারীদের সম্পদের হিসাব নিতে তারা দুনীতি দমন কমিশনের সুনজর কামনা করেন। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন- নয়াবস্তি গ্রামের সুমন আহমদ, নুরু মিয়া, তাজুল ইসলাম, হুমায়ূন আহমদ।

পটুয়াখালীর শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে চলছে খোলার প্রস্তুতি
                                  

দুলাল কৃষ্ণ নন্দী, পটুয়াখালী প্রতিনিধি :
কোভিড মহামারি শুরু হওয়ায় গত বছরের ১৭ ই মার্চ থেকে দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ছুটি ঘোষণা করে সরকার। পরবর্তীতে কোভিড সংক্রমণ বৃদ্ধির কারণে ভিন্ন ভিন্ন সময়ে ছুটির মেয়াদ বৃদ্ধি করে সরকার, প্রায় দেড় বছর পর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার ঘোষণা দেয়ায় শিক্ষক, শিক্ষার্থী যেমন আনন্দিত তেমনি শংকিতও বটে। তদুপরি সরকার ঘোষিত ১২ই সেপ্টেম্বর রোববার স্কুল-কলেজ খুলে দেয়ার নির্দেশে পটুয়াখালী জেলার সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে চলছে ধোয়া মোছা পরিস্কারের কাজ।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলোতে স্যানিটাইজার, মাস্ক, থার্মাল স্ক্যানার রাখা হয়েছে, টানানো হয়েছে স্বাস্থ্যবিধির নিয়মাবলীর ব্যানার। কোনো প্রতিষ্ঠানে শিক্ষকরাই ক্লাসরুম, বেঞ্চ, ফ্লোর পরিস্কার করছেন, আবার কোনো প্রতিষ্ঠানে চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারীরা করছে এই কাজ।

প্রতিষ্ঠান প্রধানগণ জানান আমাদের যতটুকু সামর্থ আছে তাই দিয়েই আমরা স্বাস্থ্যবিধি মানার কাজ চালিয়ে যাব, এ ক্ষেত্রে কোনো রকম অবহেলা করব না। পটুয়াখালী পৌরসভার মধ্যের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহ ও প্রতিষ্ঠানের আশেপাশের ঝোপঝাড়ে গতকাল শুক্রবার পৌর মেয়র মহিউদ্দিন আহমেদের নির্দেশে মশার ওষুধ ছিটানো হয়েছে। তবে কিছু শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ক্লাসরুম সংকটের কারণে এবং নতুন ভবন নির্মাণের কারণে শ্রেণিতে পাঠদানের সমস্যা হবে, সে সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানগণ জানান এ মুহুর্তে তিন ফুট দুরত্বে ছাত্র/ছাত্রীদের বেঞ্চে বসানো কষ্টসাধ্য তারপরেও আমরা চেষ্টা করব রুটিন অনুযায়ী যাতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে শ্রেণিকক্ষের পাঠদান করানো যায়। খুব শীঘ্রই তাদের এ সমস্যা দুর হবে এবং এর মধ্যেই হিসাব করে শ্রেণি কার্যক্রম পরিচালনা করা হবে এ আশা ব্যক্ত করেন। কিছু মাধ্যমিক স্কুল ও মাদ্রাসায় দেখা গেছে ক্লাসরুম এখনও অপরিচ্ছন্ন। কিছু কিছু প্রতিষ্ঠানে গিয়ে প্রতিষ্ঠান প্রধানদের পাওয়া যায়নি।

পটুয়াখালী পৌর এলাকার জেলা প্রশাসক কর্তৃক পরিচালিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পটুয়াখালী কালেক্টরেট স্কুল এন্ড কলেজের সহকারী শিক্ষক মোঃ নাসির উদ্দিন জানান শুধু শিক্ষার্থীরাই স্কুলে প্রবেশ করতে পারবে। কোনো অভিবাবক বা অন্য কোনো ব্যক্তিকে প্রবেশ করতে দেয়া হবে না এবং গেটে থার্মাল স্ক্যানার দিয়ে ছাত্র/ছাত্রীদের শিফট অনুয়ায়ী পরীক্ষা করে প্রবেশ করানো হবে।

পটুয়াখালী জেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন জানান জেলায় মোট স্কুল ২৯৫ টি মাদ্রাসা ২৬১ টি ও কলেজ ৬৩ টি এ সমস্ত প্রতিষ্ঠান প্রধানদেরকে নিয়ে জুম মিটিং করে এবং মোবাইল ফোনেও সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মানার ব্যাপারে বলা হয়েছে এবং উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার দিয়ে সার্বক্ষণিক পরিদর্শন করাবেন বলে জানিয়েছেন এবং এই পরিদর্শন অব্যাহত থাকবে।

কুমিল্লায় ট্রাকচাপায় নিহত ৩
                                  

কুমিল্লা প্রতিনিধি :
কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলায় পাথরবাহী ট্রাকচাপায় অটোরিকশাচালকসহ তিনজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় ট্রাকচালক ও সহকারীসহ তিনজনকে আটক করেছে পুলিশ। শনিবার সকাল ৬টার দিকে কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কে ময়নামতি এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- বুড়িচং উপজেলার ডাকালাপাড়া গ্রামের অটোরিকশাচালক ইকবার হোসেন সাগর (২৮), অটোরিকশাযাত্রী জুড়ি উপজেলার সাহাপুর এলাকার আব্দুল আহাদ (৪০) ও মৌলভীবাজার জুড়ির ইউসুফ (২২)।এদিকে এ দুর্ঘটনার পর প্রায় ঘণ্টা খানেক ওই সড়কে যান চলাচল বন্ধ থাকে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, শনিবার সকালে কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কের ময়নামতি ইউনিয়ন পরিষদের সামনে সিলেট থেকে আসা কুমিল্লামুখী পাথরবোঝাই ট্রাক একটি অটোরিকশাকে পেছন থেকে ধাক্কা দেয়। এতে ওই অটোরিকশাটি দুমড়ে মুচড়ে যায়। এ সময় ঘটনাস্থলেই অটোরিকশাচালক ও দুই যাত্রীর মৃত্যু হয়।

ময়নামতি হাইওয়ে থানার ওসি আনিছুর রহমান জানান, ট্রাক এবং দুর্ঘটনা কবলিত অটোরিকশাটি উদ্ধার করা হয়েছে; পাশাপাশি নিহতদের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় ট্রাকচালকসহ তিনজনকে আটক করা হয়েছে। এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

জুয়া খেলে ফেরার পথে জুয়াড়ির মৃত্যু
                                  

বিরামপুর (দিনাজপুর)প্রতিনিধি :
বিরামপুরে শাখা যমুনা নদীর পাড়ে জুয়া খেলা শেষে ফেরার পথে হৃদক্রিয়া বন্ধ হয়ে মোতালেব হোসেন (৬০) নামের এক জুয়াড়ি মারা গেছেন। এঘটনায় ওই স্থান থেকে স্থানীয়রা তিন জুয়াড়িকে আটক করে পুলিশে দিয়েছেন। বৃহস্পতিবার (৯ সেপ্টেম্বর) বিকালে বিরামপু পৌর শহরের মির্জাপুর এলাকায় শাখা যমুনা নদীর পাড়ে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত ব্যক্তি রংপুর জেলার মিঠাপুকুর উপজেলার খোদ্রগোপালপুর এলাকার রফিকুল ইসলামের ছেলে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিরামপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সুমন কুমার মহন্ত।

স্থানীয় জামাদার পাড়া গ্রামের সাদ্দাম হোসেন বলেন, বৃহস্পতিবার (৯ সেপ্টেম্বর) বিকালে বিরামপুর শাখা যমুনা নদীর পাড়ে নির্জন স্থানে জুয়া খেলছিল বেশ কয়েকজন জুয়াড়ি। খেলা শেষে ফেরার পথে নদীর পাড়ে নিহত মোতালেবকে রেখে নৌকায় করে নদী পার হয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন অন্যান্য জুয়াড়িরা। এসময় নদীর অন্যপাশে বৃদ্ধ মোতালেব পড়ে থাকতে দেখেন।

এ ঘটনায় স্থানীয়রা বেশ কয়েক জুয়াড়িকে ধাওয়া করে তিনজনকে আটক করতে সক্ষম হন। ততক্ষণে নদীর অন্যপাড়ে পড়ে থাকা বৃদ্ধ হৃদক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা যান। পরে, পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ এসে নিহত ব্যক্তির মরদেহ উদ্ধার এবং তিন জুয়াড়িকে আটক করে থানায় নিয়ে যান।

আটককৃত তিন জুয়ড়ি হলেন, পীরগঞ্জ উপজেলার টুকরি দক্ষিণ পাড়া গ্রামের মৃত রমিজ উদ্দিনের ছেলে বাবু মিয়া(৪০), একই উপজেলার বলদি বাতান গ্রামের মহেন্দ্র চন্দ্রের ছেলে রমনি কান্ত(৩৬) ও খালাশপীর এলাকার মতিয়ার রহমানের ছেলে মুশফিকুর রহমান(৩৫)।

বিরামপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সুমন কুমার মহন্ত বলেন, শাখা যমুনা নদীর পাড়ে জুয়াখেলা শেষে ফেরার সময় হৃদক্রিয়া বন্ধ হয়ে মোতালেব হোসেন নামের এক ব্যক্তি মৃত্যু হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, নিহত ব্যক্তির মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সহকর্মীর শ্লীলতাহানির চেষ্টা, অভিযুক্ত শিক্ষক বরখাস্ত
                                  

জামালপুর প্রতিনিধি :
জামালপুর জেলার ইসলামপুর উপজেলায় এক নারী সহকর্মীর শ্লীলতাহানির চেষ্টার অভিযোগে অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক ফারুকুজ্জামান বিপ্লবকে বরখাস্ত করা হয়েছে। গত বুধবার উপজেলার চরপুটিমারি ইউনিয়নের টাবুরচর শেখের পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটেছে।

এ ঘটনায় ভিকটিম উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস ও জেলা শিক্ষা কর্মকর্তার কাছে ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ করেছেন। এর প্রেক্ষিতে অভিযুক্তকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মোহাম্মদ আব্দুর রাজ্জাক এ বিষয়ে বলেন, আমরা তাকে সাময়িক বরখাস্ত করেছি। অভিযোগ তদন্তের জন্য তিন সদস্যের কমিটি করেছি। তদন্তে অভিযোগের সত্যতা মিললে পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

শুক্রবার ( ১০ সেপ্টেম্বর ) দুপুরে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা গেছে, সরকার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার জন্য প্রতিটি বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের প্রস্তুতি নেওয়ার নির্দেশ দেন। তারই ধারাবাহিকতায় গত বুধবার (৮ সেপ্টেম্বর) ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক ফরুকুজ্জামান বিপ্লব নিজ বিদ্যালয়ে আসেন। তখন ওই সহকারী শিক্ষিকাও বিদ্যালয়ে ছিলেন। এ সময় তাকে একা পেয়ে বিদ্যালয়েই শ্লীলতাহানির চেষ্টা করেন ফরুকুজ্জামান বিপ্লব।

উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোহাম্মদ ফেরদৌস বলেন, ওই শিক্ষিকা বুধবার বিকেলে আমার কাছে একটি লিখিত অভিযোগ নিয়ে আসেন। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার প্রাথমিক তদন্ত করে সত্যতা পাওয়ায় বিষয়টি জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে (ডিপিও) জানানো হয়। সেই সঙ্গে ওই শিক্ষিকাকেও ডিপিও’র কাছে পাঠানো হয়।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক ফারুকুজ্জামান ওই সহকারী শিক্ষিকাকে উত্যক্ত করে আসছিলেন। বিষয়টি ভিকটিম কাস্টার এটিওকেও অবহিত করেছিলেন, কিন্তু কোনো বিচার হয়নি।

ঠিকাদারের খামখেয়ালিতে চরম দুর্ভোগে মানুষ: বর্ধিত সময়েও কাজ শেষ হওয়া অনিশ্চিত
                                  

কলাপাড়া(পটুয়াখালী)প্রতিনিধি :
ঠিকাদারের খামখেয়ালিতে দুর্ভোগে পড়েছে পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলার মিঠাগঞ্জ ইউনিয়নের ১০ গ্রামের মানুষ। ইউনিয়নের মধুখালী শাখা নদীতে নির্মানাধীন গার্ডার ব্রিজের কাজ দুই দফা সময় বৃদ্ধি করে শেষ না হওয়ায় দেখা দিয়েছে দুর্ভোগ। কবে নাগাদ কাজ সম্পন্ন হবে তা নিশ্চিত করে বলতে পারেনি ঠিকাদার কিংবা এলজিইডি। ফলে মানুষের দুর্ভোগ ক্রমশ: বাড়ছে। হয়ে উঠেছে ক্ষুব্ধ।
   
উপজেলার মিঠাগঞ্জ ইউনিয়নের মধুখালী শাখা নদীতে গার্ডার ব্রিজের কার্যাদেশ দেয়া হয় ২০১৯ সালে। শেষ হওয়ার কথা ছিল ২০২০ সালের ডিসেম্বরে। ২১ সালের অধিকাংশ সময় এ ব্রিজের কাজ বন্ধ ছিল। বেশ কয়েক দফা চিঠি চালাচালির পর ৬-৭ দিন আগে শুরু হয়েছে এটির র্নিমাণ কাজ।
 
স্থানীয়রা জানায়, যোগাযোগের আয়রণ ব্রিজটি ২০২০ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি সম্পূর্ণভাবে বিধ্বস্ত হয়। এসময় আনেচ প্যাদা নামে এক কৃষক দুর্ঘটনায় মারা যায়। আহত হয় আরও চারজন। এরপরে অস্থায়ী ভিত্তিতে কাঠের পাটাতনের একটি নড়বড়ে সেতু দিয়ে হেঁেট চলাচল করছে মানুষ। সেটিও এখন জীর্নদশায় ভেঙ্গে পড়ার উপক্রম হয়েছে। যানবাহন চলাচল বন্ধ দেড় বছর।
 
প্রায় সাড়ে তিন কোটি টাকা ব্যয় ৪৫ মিটার দীর্ঘ এ ব্রিজের নির্মাণ কাজ সম্পন্ন না হওয়ায় মিঠাগঞ্জের ভোগান্তিতে পড়েছে পূর্বমধুখালী আর পশ্চিম মধুখালীসহ আশপাশের দশ গ্রামের মানুষ। সবচেয়ে বেশি বিপদে পড়েছে শিশু ও বয়োবৃদ্ধ মানুষ। স্কুলগামী শত শত শিশুরা ঝুঁকি নিয়ে কাঠের পাটাতন দিয়ে চলাচল করছে এ পথে। নিত্যকার এ দুর্ভোগ নিয়ে মানুষের দু:শ্চিন্তার শেষ নেই।

স্থানীয়রা আরো জানান, মাত্র সাত দিন আগে ফের কোনমতে ব্রিজের কাজ শুরু করেছে। মাসের পর মাস ব্রিজটির কাজ সম্পুর্ণভাবে বন্ধ ছিল।
 
স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের কলাপাড়ার উপজেলা প্রকৌশলী মো. মহর আলী জানান, লার্জ ব্রিজ কনস্ট্রাকশন (এলভিসি) প্রকল্পের আওতায় এই ব্রিজটির কাজ ঢিমেতালে চলছে। গার্ডার বসানো হয়েছে। স্লাপ ও এপ্রোচ এখনও বাকি আছে। ঠিকাদারকে কয়েক দফা চিঠি দেয়া হয়েছে।

সখীপুরে ৭৯ প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নেই দপ্তরি; শিক্ষকরাই করছেন ধোয়ামোছা
                                  

সখীপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি:
আর মাত্র কদিন পরই খুলছে সারা দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো। চলছে ধোয়ামোছাসহ নানা প্রস্তাতিমূলক কাজ। তবে টাঙ্গাইলের সখীপুর উপজেলায় ১৪৭টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মধ্যে ৭৯টি বিদ্যালয়ে দপ্তরি নেই। এ অবস্থায় কয়েকটি বিদ্যালয়ের শিক্ষকরাই নেমে গেছেন পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা অভিযানে।

উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, করোনাভাইরাস সংক্রমণের কারণে গত বছরের ১৮ মার্চ থেকে সারা দেশে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেওয়া হয়। সরকারি ঘোষণার পর থেকে উপজেলার ৫০টি মাধ্যমিক বিদ্যালয় ২৭টি মাদ্রাসা, কারিগরিসহ ১০টি কলেজ (উচ্চমাধ্যমিক পর্যন্ত) খোলার প্রস্তুতি শুরু হয়েছে।

গতকাল উপজেলার কালিয়া ইউনিয়নের চাম্বলতলা, বেলতলী ধলীপাড়া, দেবলচালা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গিয়ে দেখা যায়, সেখানে শিক্ষকেরা শ্রেণিকক্ষ ধোয়ামোছা করছেন।

চাম্বলতলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মাত্র তিনজন শিক্ষক রয়েছে। এর মধ্যে একজন ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব পালন করছেন। সহকারী শিক্ষক শেফালী আক্তার বলেন, `আমরা নিজেরাই বালতিতে পানি নিয়ে বেঞ্চ পরিষ্কার করছি। শ্রেণিকক্ষ ও আঙিনা ঝাড়ু দিয়েছি। তবে ঝোপঝাড় পরিষ্কারের জন্য দুজন শ্রমিক নেওয়া হয়েছিল।`

ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক শিরিনা আক্তার বলেন, তাঁদের বিদ্যালয়ের ওয়াশ ব্লকের (শৌচাগারে) কাজ চলছে। করোনার কারণে এক বছর ধরে ঠিকাদার কাজ করছে না। ফলে স্কুল খুললে শিক্ষক- শিক্ষার্থীদের বিদ্যালয়ের পাশের গৃহস্থ বাড়িতে যেতে হবে। করোনার সময়ে এটা একটা সমস্যা।

বেলতলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গিয়ে দেখা যায়, সেখানে চারজন শিক্ষক শ্রেণিকক্ষ ঝাড়ু দিচ্ছেন। শিক্ষক কামরুননাহার বলেন, দেড় বছর ধরে বন্ধ থাকায় বিদ্যালয়ের নলকূপটি বিকল হয়ে আছে। দুদিনের ভেতর মেরামতের ব্যবস্থা করতে হবে।

উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ইব্রাহিম খলিল বলেন, ৭৯টি বিদ্যালয়ে দ্রুত দপ্তরি কাম নৈশপ্রহরী নিয়োগের জন্য তিনি জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে জানিয়েছেন। এ ছাড়া তাঁরা বিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজার, তাপমাত্রার মেশিন ও একটি আলাদা আইসোলেশন কক্ষ ঠিক করে রেখেছেন। স্কুল খোলার পর স্বাস্থ্যবিধি মেনে সব কার্যক্রম চালানো হবে।

সখীপুর উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা রাফিউল ইসলাম বলেন, ৮ সেপ্টেম্বরের মধ্যে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো প্রস্তুত রাখতে সব ধরনের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে দপ্তরি কাম নৈশপ্রহরী না থাকার বিষয়টি জানানো হয়েছে। যেসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে লোক নেই, তাদের দৈনিক মজুরির ভিত্তিতে শ্রমিক নেওয়ার জন্য বলা হয়েছে। স্কুল খোলার কাজ এগিয়ে যাচ্ছে।

কলেজ ছাত্রীকে অপহরণ ও ধর্ষণকারীর বিচারের দাবিতে মানববন্ধন
                                  

ফরিদপুর জেলা প্রতিনিধি :
কলেজছাত্রীকে অপহরণ ও ধর্ষণ মামলার আসামি রনিও রানার শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী সদরপুর ফরিদপুর নামক সংগঠন। মঙ্গলবার দুপুরে ফরিদপুর প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন করে তারা।

বক্তব্যে বক্তারা জানান, আসামির রনি ও  রানা  দীর্ঘদিন ধরে নানা ধরনের অপকর্মে জড়িত। সম্প্রতি তারা জেল থেকে জামিনে বেরিয়ে এসে অনুরূপ কার্যক্রমে জড়িয়ে পড়েছে। তারা অবিলম্বে তাদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন। পরে এ ব্যাপারে ফরিদপুর প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

এতে সভাপতিত্ব করেন ফরিদপুর প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি শেখ ফয়েজ আহমেদ। সঞ্চালনা করেন ফরিদপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মশিউর রহমান খোকন। সংবাদ সম্মেলনে রনিও রানার গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করা হয়। এতে লিখিত অভিযোগ পাঠ করেন  হেলেনা পারভীন।

আ.লীগ-যুবলীগ নেতার দ্বন্দ্বে পচে গেলো ১০ টাকা দরের চাল
                                  

মাগুরা প্রতিনিধি :
মাগুরার শ্রীপুরে ইউনিয়ন যুবলীগ সহ-সভাপতি আর আওয়ামী লীগ সভাপতির দ্বন্দ্বের জেরে পচে গেলো প্রধানমন্ত্রীর বরাদ্দকৃত ১০ টাকা কেজি দরের চাল। রোববার দুপুরে  শ্রীপুর উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তা ইসরাত জাহান উপজেলার রাধানগর বাজারের একটি বন্ধ দোকান থেকে পচে যাওয়া ওই ৬ বস্তা চাল উদ্ধার করেছেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, শ্রীপুর উপজেলার কাদিরপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী যুবলীগের সহ-সভাপতি সাইফুল মন্ডল ওই ইউনিয়নের তালিকাভূক্ত ডিলার। তিনি রাধানগর বাজারে ওই ইউনিয়নের আওয়ামীলীগ সভাপতি পরেশ চন্দ্র রাউতের ঘর ভাড়া নিয়ে অতি দরিদ্রদের জন্যে প্রধানমন্ত্রীর বরাদ্দকৃত ১০ টাকা কেজি দরের চাল বিক্রি করছিলেন। কিন্তু ঘর ভাড়া লেনদেন নিয়ে উভয়ের মধ্যে বিরোধ তৈরি হলে গত বছরের নভেম্বর মাসের শেষ দিকে পরেশ রাউত ঘরে তালা মেরে দেন। তখন ঘরে ৫০ কেজি ওজনের ৬ বস্তা চাল অবিক্রিত অবস্থায় পড়ে ছিল। যা গত ৯ মাসে পচে বিনষ্ট হয়ে গেছে। অন্যদিকে বরাদ্দকৃত এসব চাল ক্রয় থেকে বঞ্চিত হয়েছেন অতি দরিদ্র মানুষেরা। স্থানীয় অনেকেই ডিলারের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানিয়ে ডিলারশিপ বাতিলের দাবি জানিয়েছেন।

এ বিষয়ে দায়িত্ব প্রাপ্ত ডিলার যুবলীগ নেতা সাইফুল মন্ডল বলেন, রাজনৈতিকভাবে আমাকে বিপদে ফেলার জন্যে ঘরে তালা মেরে দেওয়া হয়েছে। তবে বন্ধ ঘরে থাকা সমপরিমাণ চাল বাজার থেকে ক্রয় করে বিতরণ করেছি। কাউকে বঞ্চিত করা হয়নি।

অন্যদিকে ঘর মালিক আওয়ামী লীগ নেতা পরেশ রাউত ওই অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, এই ডিলারের বিরুদ্ধে চাউল বিতরণে আরও অনেক অনিয়মের অভিযোগ রয়েছে। শ্রীপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে সেসব অভিযোগ লিখিত আকারে জানানো হয়েছে। অবিলম্বে তার ডিলারশীপ বাতিল করা প্রয়োজন।

শ্রীপুর উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তা ইসরাত জাহান বলেন, স্থানীয়দের কাছ থেকে অভিযোগ পেয়ে সরজমিনে পরিদর্শন করে পচে যাওয়া ৬ বস্তা চাল পাওয়া গেছে। তবে তালিকাভূক্ত দরিদ্র মানুষ চাল ক্রয় থেকে বঞ্চিত হয়েছেন কিনা সেটি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

তবে প্রধানমন্ত্রীর চাল বিতরণে ডিলারের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ প্রমাণিত হলে তার বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও তিনি জানান।

রাঙ্গাবালীতে চালু হতে যাচ্ছে স্বপ্নের বিদ্যুৎ
                                  

দুলাল কৃষ্ণ নন্দী, পটুয়াখালী প্রতিনিধি :
পটুয়াখালী জেলার দক্ষিণাঞ্চলের রাঙ্গাবালী উপজেলায় অবশেষে দীর্ঘ প্রতিক্ষার অবসান ঘটতে চলেছে। সাবমেরিন ক্যাবলের মাধ্যমে নদীর তলদেশ দিয়ে বিদ্যুৎ পেতে যাচ্ছে নদী ও সাগর বেষ্টিত এই জনপদের মানুষ। সেই মাহেন্দ্রক্ষণের প্রতীক্ষায় সবাই। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে এ মাসের মাঝামাঝি সময়ের মধ্যেই বিদ্যুৎ সুবিধা পেতে যাচ্ছে দক্ষিণাঞ্চলীয় পটুয়াখালী জেলা থেকে চল্লিশ কিলোমিটার দুরে অবস্থিত রাঙ্গাবালী উপজেলার মানুষ। প্রাথমিক পর্যায়ে সাড়ে ঊনত্রিশ হাজার পরিবার বিদ্যুৎ সুবিধার আওতায় আসবে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়।

পল্লী বিদ্যুৎ সূত্রে জানা যায়, কোনো প্রতিবন্ধকতা না থাকলে আগামী কয়েকদিনের মধ্যে উপকেন্দ্র পর্যন্ত বিদ্যুৎ সংযোগ সঞ্চালন পৌছাবে। প্রথম সপ্তাহে বাতি জ্বলবে সংযোগ পাওয়া প্রত্যেকটি ঘরে ঘরে। জাতীয় গ্রীডের মাধ্যমে উপজেলায় বিদ্যুৎ সেবা দিতে দশ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন উপকেন্দ্র নির্মান করা হয়েছে। এই উপকেন্দ্র থেকে রাঙ্গাবালী, ছোটবাইশদিয়া, বড়বাইশদিয়া ও মৌডুবি ইউনিয়নের ষোল হাজার পরিবার বিদ্যুৎ সুবিধার আওতায় আসবে। ভোলার চরফ্যাশন থেকে চরমোন্তাজ হউনিয়নের নয় হাজার ও গলাচিপা থেকে চালিতাবুনিয়া ইউনিয়নের সাড়ে চার হাজার পরিবারকে বিদ্যুৎ সুবিধার আওতায় আনা হবে। ১১৯৪ কিলোমিটার সংযোগ লাইনের কাজ চলমান রয়েছে। ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার বাবুরহাট থেকে মুজিবনগর হয়ে চরকাজল-চরবিশ্বাস অতিক্রম করে বুড়াগৌরাঙ্গ নদীর তলদেশ দিয়ে দুই কিলোমিটার সাবমেরিন ক্যাবলের মাধ্যমে রাঙ্গাবালী উপকেন্দ্রে জাতীয় গ্রীডের বিদ্যুৎ সংযোগ নেয়া হয়েছে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, উপকেন্দ্রে বিদ্যুৎ সংযোগ পৌছতে বুড়াগৌরাঙ্গ নদীতে সাবমেরিন ক্যাবলের মাধ্যমে সংযোগ স্থাপনের কাজ শেষ হয়েছে। পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার (গলাচিপা-রাঙ্গাবালী) প্রকৌশলী মাইনউদ্দিন আহম্মেদ বলেন, আমাদের টার্গেট চলতি মাসের মধ্যে সাব স্টেশন পর্যন্ত বিদ্যুৎ নিয়ে আসা ও সকল ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌছে দেয়া। সাব স্টেশন চালু হয়ে গেলে যে কয়জন গ্রাহককে সংযোগ দিয়ে মিটার লাগানো যাবে তাদের দিয়েই পরীক্ষামূলক বিদ্যুৎ সেবা শুরু করব। ওয়্যারিং ও মিটার লাগানোর কাজ প্রায় শেষ পর্যায়।

তিনি আরও বলেন, বড় ধরনের কোন প্রতিকুলতা বা প্রাকৃতিক কোনো দুর্যোগ না থাকলে এ মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে আনুষ্ঠানিকভাবে বিদ্যুৎ বিতরণের কাজ শুরু হবে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মাসফাকুর রহমান বলেন, বিদ্যুৎ এ চরাঞ্চলের মানুষের কাছে স্বপ্নের মতো সেই স্বপ্ন আজ বাস্তবে রুপান্তরিত হতে যাচ্ছে। এ অঞ্চলে বিদ্যুৎ পৌছলে মানুষের অর্থনীতি সমৃদ্ধ হবে ফলে সম্ভাবনার এ হাতছানিতে আনন্দিত চরাঞ্চলের মানুষ।

পটুয়াখালী-৪ (কলাপাড়া-রাঙ্গাবালী) আসনের সংসদ সদস্য মহিবুর রহমান মহিব বলেন, রাঙ্গাবালীতে বিদ্যুতের জন্য ২০১৯ সালের ৪ ফেব্রুয়ারীতে বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রিকে ডিও লেটার দিয়েছি, প্রধানমন্ত্রীর জ্বালানী উপদেষ্টাকে অবহিত করেছি। জাতীয় সংসদে একাধিকবার বিষয়টি উত্থাপন করেছি, মুজিববর্ষে শতভাগ বিদ্যুতায়নের লক্ষ্যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্যোগ ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ বাস্তবায়ন হতে যাচ্ছে এই চরাঞ্চল রাঙ্গাবালীতে। তাই এই দুর্গম এ জনপদে বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়ার উদ্যোগ গ্রহণ করায় প্রধানমন্ত্রীর প্রতি আজীবন কৃতজ্ঞ থাকবে এই চরাঞ্চলের জনগণ।

কুষ্টিয়ায় আবারও বন্যা দেখা দিয়েছে, হতাশায় কৃষক
                                  

আকরামুজ্জামান আরিফ, কুষ্টিয়া প্রতিনিধি :
কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে বন্যার পানি কমতে থাকায় পানিবন্দি মানুষের দুর্ভোগ কিছুটা লাঘব হলেও আবারও পদ্মা নদীতে পানি বৃদ্ধি পাচ্ছে। ফলে নতুন করে বন্যাকবলিতদের মাঝে আতঙ্ক, উদ্বেগ ও উৎকন্ঠা দেখা দিয়েছে। গত পাঁচদিন ধরে পানি বৃদ্ধির ফলে বন্যা কবলিত রামকৃষ্ণপুর ও চিলমারী ইউনিয়নের ৩৭ গ্রামের পানিবন্দি অর্ধলক্ষ মানুষের আবারও দুর্ভোগ বাড়ছে।

এমনিতেই দীর্ঘদিন ধরে বন্যাকবলিত রামকৃষ্ণপুর ও চিলমারী ইউনিয়নের পানিবন্দি অর্ধলক্ষ মানুষ চরম দুর্ভোগ দুদর্শায় রয়েছে। পদ্মা নদীতে পানি বৃদ্ধির ফলে চরাঞ্চলের রামকৃষ্ণপুর ও চিলমারী ইউনিয়নের ৩৭টি গ্রাম বন্যা কবলিত হওয়ায় পানিবন্দী হয়ে পড়ে ওই সকল গ্রামের অর্ধলক্ষ মানুষ। পড়ে চরম দুর্ভোগে।

পানি কমতে থাকায় কোমর অথবা হাঁটু পানির মধ্যে বসবাস করতে হচ্ছিল বন্যাকবলিতদের। গত পহেলা সেপ্টেম্বর থেকে আবারও পদ্মা নদীতে পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় নতুন করে উদ্বেগ উৎকন্ঠা ছড়িয়ে পড়েছে বানভাসীদের মাঝে। এমনিতেই প্রায় একমাস ধরে বন্যাকবলিত অর্ধলক্ষ মানুষ পানিবন্দি থাকায় তাদের মাঝে দেখা দিয়েছে পানিবাহিত নানা ধরণের রোগ।

বিশুদ্ধ পানি, খাবার ও পশু খাদ্যেরও খাদ্য সংকট রয়েছে। এদিকে পানিবন্দি অর্ধলক্ষ অসহায় মানুষের অনাহারে অর্ধাহারে দিন কাটলেও দুই ইউনিয়নে ১৬০০ প্যাকেট করে মাত্র ৩ হাজার ২০০ পরিবারকে ত্রাণ সহায়তা দেওয়া হয়েছে যা প্রয়োজনের তুলনায় অপ্রতুল।

দৌলতপুর উপজেলার রামকৃষ্ণপুর ইউপি চেয়ারম্যান সিরাজ মন্ডল জানান, গত দু’দিন ধরে বন্যার পানি আবারও বাড়ছে। প্রতিদিনই প্রায় দুই ইঞ্চি করে পানি বৃদ্ধি পাচ্ছে। ফলে পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় আবারও বন্যাকবলিত মানুষের মাঝে শঙ্কার সৃষ্টি হয়েছে।

দৌলতপুর উপজেলার চিলমারী ইউপি চেয়ারম্যান সৈয়দ আহমেদ জানান, গত ক’দিন ধরে বন্যার পানি আবারও বৃদ্ধি পাচ্ছে। ফলে চিলমারীবাসীর মাঝে বেড়েছে উদ্বেগ উৎকন্ঠা। পানি কমতে থাকায় জেগে উঠা চরে মাসকলাইসজহ বিভিন্ন ধরণের ফসল বপনের প্রস্তুতি নিচ্ছিল কৃষকরা। এসময়ে আবারও বন্যার পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় কৃষকরা চাষাবাদ নিয়ে চরম উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন।


   Page 1 of 309
     গ্রাম বাংলা
কুমিল্লায় সড়কে ঝরলো ৩ প্রাণ
.............................................................................................
লক্ষ্মীপুরে স্কুলছাত্রের আত্মহত্যা
.............................................................................................
নবীনগরে খাস জায়গা দখল করে ভবণ নির্মাণ
.............................................................................................
১২ বছর ধরে শিকলে বাঁধা শহিদুল!
.............................................................................................
তাজমহলের আদলে নির্মিত হচ্ছে দৃষ্টি নন্দন মসজিদ
.............................................................................................
জাফলং রক্ষার দাবিতে সংবাদ সম্মেলন
.............................................................................................
পটুয়াখালীর শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে চলছে খোলার প্রস্তুতি
.............................................................................................
কুমিল্লায় ট্রাকচাপায় নিহত ৩
.............................................................................................
জুয়া খেলে ফেরার পথে জুয়াড়ির মৃত্যু
.............................................................................................
সহকর্মীর শ্লীলতাহানির চেষ্টা, অভিযুক্ত শিক্ষক বরখাস্ত
.............................................................................................
ঠিকাদারের খামখেয়ালিতে চরম দুর্ভোগে মানুষ: বর্ধিত সময়েও কাজ শেষ হওয়া অনিশ্চিত
.............................................................................................
সখীপুরে ৭৯ প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নেই দপ্তরি; শিক্ষকরাই করছেন ধোয়ামোছা
.............................................................................................
কলেজ ছাত্রীকে অপহরণ ও ধর্ষণকারীর বিচারের দাবিতে মানববন্ধন
.............................................................................................
আ.লীগ-যুবলীগ নেতার দ্বন্দ্বে পচে গেলো ১০ টাকা দরের চাল
.............................................................................................
রাঙ্গাবালীতে চালু হতে যাচ্ছে স্বপ্নের বিদ্যুৎ
.............................................................................................
কুষ্টিয়ায় আবারও বন্যা দেখা দিয়েছে, হতাশায় কৃষক
.............................................................................................
ঢাকায় মোটলসাইকেল দুর্ঘটনায় মারা গেল হাজীগঞ্জের মিঠু
.............................................................................................
কুমিল্লায় গভীর রাতে স্বামী-স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যা
.............................................................................................
পটুয়াখালী বিআরটিএ অফিসে ৩ দালাল আটক
.............................................................................................
মির্জাগঞ্জে পিপঁড়াখালী পরিবারের উদ্যোগে রাস্তা মেরামত
.............................................................................................
দিরাইয়ে রাস্তা থেকে রক্তাক্ত যুবতীকে উদ্ধার
.............................................................................................
রামেক হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে আরও ১০ জনের মৃত্যু
.............................................................................................
কুষ্টিয়ায় দুস্থদের মাঝে দানবীর আলাউদ্দিনের খাদ্য সহায়তা
.............................................................................................
সাভারে সাংবাদিককে মামলার হুমকি
.............................................................................................
ভাসানচর থেকে সাঁতার কেটে পালাতে গিয়ে রোহিঙ্গা আটক
.............................................................................................
কালিহাতীতে বালু ব্যবসায়ীদের কারণে হুমকির মুখে বুড়িগঙ্গা নদী পুনরুদ্ধার প্রকল্প
.............................................................................................
প্রেমিকাকে আত্মহত্যায় প্ররোচিত করায় ভাইকে খুন
.............................................................................................
ফরিদপুরে নিখোঁজ দুই শিক্ষকের মধ্যে একজনের লাশ উদ্ধার
.............................................................................................
সরকারী ঘর দেয়ার নামে প্রতারণাকারী আটক
.............................................................................................
হু হু করে বাড়ছে যমুনার পানি, জামালপুরের নিম্মাঞ্চল প্লাবিত
.............................................................................................
কাহালুতে বৃদ্ধাকে ধর্ষণের চেষ্টা, বৃদ্ধ আটক
.............................................................................................
পটুয়াখালীতে জমি নিয়ে বিরোধ: প্রতিপক্ষের হামলায় আহত ১০
.............................................................................................
পূর্ণিমায় মিলবে ইলিশ,অপেক্ষায় বোরহানউদ্দিনের জেলেরা
.............................................................................................
উন্নত জাতের গম ও ভুট্টার আবাদই দেশকে খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ করবে: ড. আমিরুজ্জামান
.............................................................................................
ট্রাকচাপায় মোটরসাইকেল আরোহী ২ ভাই নিহত
.............................................................................................
কুমারখালীতে পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু
.............................................................................................
নাগরপুরে বানের পানিতে ভেসে যাচ্ছে কৃষকের স্বপ্ন
.............................................................................................
চট্টগ্রামে ফ্লাইওভার থেকে পড়ে আহত জবি শিক্ষার্থীর মৃত্যু
.............................................................................................
নোয়াখালীতে নারী পাচারকারী পিতা-পুত্র গ্রেফতার
.............................................................................................
বিরামপুরে কবর থেকে গৃহবধুর লাশ উত্তোলোন
.............................................................................................
মঠবাড়িয়ায় আমন বীজের মহা সংকট, কৃষকরা দিশেহরা
.............................................................................................
মাদারীপুরে অস্ত্র, কার্তুজ, ইয়াবাসহ ৬ ডাকাত গ্রেফতার
.............................................................................................
সাঁকো দিয়ে উঠতে হয় দেড় কোটি টাকার ব্রিজে !
.............................................................................................
আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে আহত ২০
.............................................................................................
রাস্তার পাশে ডোবায় মিলল যুবকের পা বাধা মরদেহ
.............................................................................................
হাজীগঞ্জে পানিতে ডুবে শিশুর করুণ মৃত্যু
.............................................................................................
সরাইলে ডেঙ্গু প্রতিরোধে মশারি বিতরণ
.............................................................................................
কুমারখালীতে জলাশয় থেকে অজ্ঞাত লাশ উদ্ধার
.............................................................................................
জোরপূর্বক বাড়ীতে পাকা দেয়াল নির্মাণের অভিযোগ
.............................................................................................
কালিহাতীতে শতাধিক বসতভিটা যমুনার গর্ভে বিলীন
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আখলাকুল আম্বিয়া
নির্বাহী সম্পাদক: মাে: মাহবুবুল আম্বিয়া
যুগ্ম সম্পাদক: প্রদ্যুৎ কুমার তালুকদার

সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: স্বাধীনতা ভবন (৩য় তলা), ৮৮ মতিঝিল বাণিজ্যিক এলাকা, ঢাকা-১০০০। Editorial & Commercial Office: Swadhinota Bhaban (2nd Floor), 88 Motijheel, Dhaka-1000.
সম্পাদক কর্তৃক রঙতুলি প্রিন্টার্স ১৯৩/ডি, মমতাজ ম্যানশন, ফকিরাপুল কালভার্ট রোড, মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত ।
ফোন : ০২-৯৫৫২২৯১ মোবাইল: ০১৬৭০৬৬১৩৭৭

Phone: 02-9552291 Mobile: +8801670 661377
ই-মেইল : dailyswadhinbangla@gmail.com , editor@dailyswadhinbangla.com, news@dailyswadhinbangla.com

 

    2015 @ All Right Reserved By dailyswadhinbangla.com

Developed By: Dynamic Solution IT