রবিবার, ২৫ অগাস্ট ২০১৯ | বাংলার জন্য ক্লিক করুন
  
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   বিনোদন -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জনপ্রিয় মডেল বিন লাদেনের ভাইঝি ‘ওয়াফা দুফোর’

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক: ‘ওসামা বিন লাদেন’ যুক্তরাষ্ট্র তথা পশ্চিমাদের কাছে সবচেয়ে আতঙ্কের নাম ছিল। তাকে হত্যার জন্য এমন কোনো পরিকল্পনা নেই যা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র করেনি। সেই বিন লাদেনের ভাইঝি মাতাচ্ছেন মার্কিন মুলুক। বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে জনপ্রিয় মডেলদের একজন বিন লাদেনের ভাইঝি ওয়াফা দুফোর।

বিশ্বজুড়ে বিন লাদেনের ভাইপো-ভাইঝির সংখ্যা চার শতাধিক। এছাড়া বিন লাদেনের স্ত্রী ও সন্তানের সংখ্যাও একাধিক।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে তার জনপ্রিয়তা দিন দিন বেড়েই চলেছে। এমন অবস্থায় সম্প্রতি একটি মার্কিন গণমাধ্যমে তার আসল পরিচয় উঠে এসেছে। এরপরই ওয়াফা জানিয়েছেন, তার এই পরিচয়ে তিনি মোটেই বিরক্ত নন।

২০১১ সালে পাকিস্তানের অ্যাবোটাবাদের একটি বাড়িতে থাকা বিন লাদেনকে হত্যা করে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিশেষ বাহিনী।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জনপ্রিয় মডেল বিন লাদেনের ভাইঝি ‘ওয়াফা দুফোর’
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক: ‘ওসামা বিন লাদেন’ যুক্তরাষ্ট্র তথা পশ্চিমাদের কাছে সবচেয়ে আতঙ্কের নাম ছিল। তাকে হত্যার জন্য এমন কোনো পরিকল্পনা নেই যা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র করেনি। সেই বিন লাদেনের ভাইঝি মাতাচ্ছেন মার্কিন মুলুক। বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে জনপ্রিয় মডেলদের একজন বিন লাদেনের ভাইঝি ওয়াফা দুফোর।

বিশ্বজুড়ে বিন লাদেনের ভাইপো-ভাইঝির সংখ্যা চার শতাধিক। এছাড়া বিন লাদেনের স্ত্রী ও সন্তানের সংখ্যাও একাধিক।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে তার জনপ্রিয়তা দিন দিন বেড়েই চলেছে। এমন অবস্থায় সম্প্রতি একটি মার্কিন গণমাধ্যমে তার আসল পরিচয় উঠে এসেছে। এরপরই ওয়াফা জানিয়েছেন, তার এই পরিচয়ে তিনি মোটেই বিরক্ত নন।

২০১১ সালে পাকিস্তানের অ্যাবোটাবাদের একটি বাড়িতে থাকা বিন লাদেনকে হত্যা করে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিশেষ বাহিনী।

ভালো কিছু প্রত্যাশা করছি : মাহি
                                  

বিনোদন প্রতিবেদক : ঢাকাই চলচ্চিত্রের অন্যতম চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহি। রুপালি পর্দায় তার শুরুটা জমকালো ভাবে হলেও কয়েক বছর ধরে দর্শকরা তাকে আগের মত পাচ্ছেন না। গত বছরে তার অভিনীত একাধিক ছবি মুক্তি পেলেও তা দর্শক হৃদয়ে সাড়া জাগাতে পারেনি। চলতি বছরের এই সময় পর্যন্ত তার অভিনীত মাত্র একটি ছবি ‘অন্ধকার জগত’ মুক্তি পেয়েছে। মুক্তির আগে ছবিটি আলোচনায় আসলেও ফলাফল প্রত্যাশিত হয়নি। তবে মাহির একাধিক ছবি মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে। ছবিগুলো নিয়ে তার প্রত্যাশাও অনেক।

মাহি বলেন, একজন শিল্পীর ক্যারিয়ারে আপ-ডাউন আসে। সবার সব ছবিই যে ব্যবসা সফল হয় না। দেশ-বিদেশের অনেক বড় বড় শিল্পীর সিনেমা কখনো কখনো ফ্লপ হয়। আমার বেলাতেও তাই হয়েছে। তবে সামনে ভালো কিছু প্রত্যাশা করছি। মুক্তি প্রতিক্ষিত ছবিগুলো দর্শকদের ভালো লাগবে। আগামী মাসে মাহি অভিনীত ‘অবতার’ ছবিটি মুক্তি পাচ্ছে। মাহমুদ হাসান পরিচালিত এই ছবিতে মাহিয়া মাহির বিপরীতে অভিনয় করেছেন নবাগত রুশো। আগামি ১৩ সেপ্টম্বর সারাদেশে ছবিটি মুক্তি পাবে বলে জানিয়েছেন পরিচালক। গত সপ্তাহে সিনেমাটির আইটেম গান ‘রঙিলা বেবি’ ইউটিউবে মুক্তি পেয়েছে। এরইমধ্যে গানটির ভিউ দেড় মিলিয়ন ছাড়িয়েছে। গানটিতে মাহির পারফর্ম দর্শক মহলে ব্যাপক সাড়া জাগিয়েছে।

বন্ধ যত মনের দুয়ার খুলে দে আজ/ নাচতে নেমে ঘোমটা কিসের/ কিসের এত লাজ?/ রঙিলা এই রং মহলে রঙে গা ভাসাবি আয়/ আমি রঙিলা বেবি’-এমন কথার গানটি লিখেছেন তারিক তুহিন। সুর ও সংগীতায়োজন করেছেন আহমেদ হুমায়ূন। এতে কণ্ঠ দিয়েছেন ঐশী ফাতেমা তুজ জাহরা। গানটির কোরিওগ্রাফি করেছেন রোহান মাহমুদ ও বেলাল। গানটির চিত্রায়ণ করেছেন মেহেদী রনি। ছবির পরিচালক মাহমুদ হাসান শিকদার বলেন, ‘আসলে ঠিক এতটা চাইনি।

দর্শক আগ্রহ এবং প্রশংসা দেখে মনে হয়, আমি হয়তো তাদের বিনোদিত করার জন্য কিছু একটা করতে পেরেছি। আশা করছি, দর্শক সিনেমাটিও এভাবে লুফে নেবেন। কারণ দর্শক বিনোদনের কথা মাথায় রেখেই সিনেমাটি নির্মাণ করেছি। তবে এ কথা আমি জোর দিয়ে বলতে পারি, অবতার দর্শক বিনোদনের একটি পূর্ণাঙ্গ চলচ্চিত্র।’ সমকালীন সমাজের অবক্ষয়ের বাস্তবতায় নির্মিত হয়েছে ‘অবতার’। ছবিতে মাহিকে দেখা যাবে নতুন রূপে।

ছবিটি নিয়ে মাহি বলেন, ‘গল্পে দেখা যাবে আমি খুবই সাধারণ একটি মেয়ে। অনেক শান্ত স্বভাবের, কিন্তু সমাজের কিছু ঘটনায় আমি অশান্ত হয়ে উঠি। যতটা শান্ত ছিলাম, ঠিক ততটাই তার উল্টো হয়ে যাই। সেই হিসেবে বলব, নিজের চরিত্রের মধ্যেও একটা ভেরিয়েশন আছে, দর্শকদের কাছে একঘেয়ে লাগবে না।’ মাহি ছাড়াও এই ছবিতে অভিনয় করছেন নায়ক আমিন খান, মিশা সওদাগর, সুব্রত প্রমুখ।  

ছবি পরিচালনার পাশাপাশি কাহিনী, চিত্রনাট্য ও সংলাপ রচনা করেছেন মাহমুদ হাসান। মানহীন কাজের চেয়ে ভালোমানের কম কাজ করাকে প্রাধান্য দিচ্ছেন মাহি। এরই ধারাবাহিকতায় কাজ করছেন ‘আনন্দ অশ্রম্ন’ সিনেমায়। ছবিটি পরিচালনা করছেন মোস্তাফিজুর রহমান মানিক। ছবিটির কাজ শেষের দিকে। চলতি বছরেই ছবিটি মুক্তির সম্ভবনা রয়েছে। এতে মাহির বিপরীতে অভিনয় করেছেন সাইমন সাদিক। এ ছবি নিয়ে মাহি বলেন, ‘আনন্দ অশ্রম্ন’ ছবির গল্প খুবই সুন্দর। পরিচালকও গুছিয়ে কাজটি করছেন। নিজের চরিত্রটি ফুটিয়ে তুলতে শতভাগ চেষ্টা করছি। আমার বিশ্বাস ছবিটি দেখে দর্শকরা মুগ্ধ হবেন।

এদিকে মাহি ‘স্বপ্নবাজি’ শিরোনামের একটি ভিন্ন ধর্মী চলচ্চিত্রেও কাজ করছেন। এর চিত্রনাট্য ও সংলাপ করেছেন শাহজাহান সৌরভ। চলচ্চিত্র ছাড়াও মাহি রায়হান রাফির পরিচালনায় ‘দাগা’ নামে একটি ওয়েব সিরিজে কাজ করছেন। এতে তার বিপরীতে কাজ করেছেন ইয়াশ রোহান।

দর্শকদের সাথে সহমত
                                  

বিনোদন প্রতিবেদক : ঈদে এবার ছয় শতাধিকের মতো নাটক প্রচার হয়েছে বিভিন্ন টিভি চ্যানেল ও ইউটিউবে। কিন্তু এত নাটকের মধ্যে ভালো নাটকের সংখ্যা খুব বেশি নয়। বিষয়টি নিয়ে সাধারণ দর্শকের মতোই সহমত প্রকাশ করেন জনপ্রিয় টিভি অভিনেত্রী মেহজাবিন চৌধুরী। তার মতে, একটি ঈদে যদি ৬০০ নাটক হয় তাহলে দুই ঈদে প্রায় ১২০০ নাটক নির্মাণ হচ্ছে। দুই ঈদসহ পুরো বছরে নাটক নির্মাণ হচ্ছে প্রায় দুই হাজারের মতো।

দুই হাজার নাটক নির্মাণের জন্য আমাদের কতজন ভালো স্ক্রিপ্ট রাইটার আছেন? সব মিলিয়ে বিশ জনের বেশি নয়। বিশ জন স্ক্রিপ্ট রাইটার বছরে কতগুলো ভালো গল্প দিতে পারবেন এটি সহজেই অনুমেয়।  দুই হাজার নাটকের জন্য স্ক্রীপ্ট রাইটার আরো বেশি প্রয়োজন আমাদের। যার অভাবে আমাদের ভালো নাটকের সংখ্যা কম হচ্ছে। আমাদের শিল্পীদেরও এসব নাটকে অভিনয় করতে হচ্ছে বাধ্য হয়ে।

এই সংকট থেকে উত্তরণের পথ কি? এই প্রশ্নের উত্তরে মেহজাবিন বলেন, সব কিছুর সমাধান আছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় আমরা সবাই এখন সক্রিয়। অনেকে সোশ্যাল মিডিয়ায় নাটকের রিভিউ লেখেন। নাটক ভালো হচ্ছে না জানান। আমি তাদের কাছে অনুরোধ করি আপনারা নাটকের সমালোচনা করুন। একইসঙ্গে ছোট একটা গল্প লিখে আমাকে দেন। ভালো গল্প হলে আমি সেই গল্পে কাজ করবো। আমাদের নির্মাতারা এখন ফেসবুকে সব সময় থাকেন। তাদেরও গল্প দিতে পারেন। আপনাদের গল্প থেকেই অনেক ভালো নাটক নির্মাণ হতে পারে। তাহলেই মানহীন নাটকের সংখ্যা কমে যাবে। যারা নিয়মিত গল্প লিখছেন তাদের ওপর চাপ অনেক কমবে। ভালো গল্প পাচ্ছি না বলেই আমাদের বারবার একইরকম চরিত্রে-গল্পে অভিনয় করতে হচ্ছে।

এদিকে এখনো এই অভিনেত্রী ঈদের ছুটিতে আছেন। আগামি সপ্তাহ থেকে ঈদের ছুটি কাটিয়ে শুটিংয়ে ফিরবেন বলে জানান। ঈদে এই অভিনেত্রীকে দেখা গেছে ২২টি নাটকে। তার অভিনীত ‘এই শহরে’, ‘মায়া সবার মতো না’, ‘প্রশংসায় পঞ্চমুখ’, ‘বিউটিফুল’, ‘রিলেশনশিপ, ‘হ্যাশটেগ’, ‘পারফেক্ট ওয়াইফ’, ‘গোলাপি কামিজ’ ও ‘পতঙ্গ’সহ কয়েকটি ভিন্নধর্মী গল্পের নাটক দর্শকের মধ্যে দারুণ সাড়া ফেলেছে।

ঈদে চমক নিয়ে আসছেন মাহি
                                  

বিনোদন প্রতিবেদক : বড়পর্দার তারকা হলেও মাঝেমধ্যে ছোটপর্দাতেও দেখা মেলে এ সময়ের আলোচিত অভিনেত্রী মাহিয়া মাহির। তবে সবসময় নয়, বিশেষ দিবস উপলক্ষে বিভিন্ন তারকা অনুষ্ঠানে। এরই ধারাবাহিকতায় আসছে কোরবানির ঈদেও দেখা যাবে এ অভিনেত্রীকে। তবে এবার আসছেন ভিন্ন চমকে। একুশে টেলিভিশনের পর্দায় উপস্থাপনা করবেন এ গ্ল্যামার নায়িকা। এতে মাহি অভিনীত ছবির গান দেখানো হবে। সঙ্গে প্রতিটি গানের শুটিং সেটের মজার মজার সব গল্প দর্শকের সঙ্গে ভাগাভাগি করবেন তিনি।

এ বিষয়ে মাহি বলেন, সারা বছর বড়পর্দায় কাজ করতে হয় বলে নিয়মিত ছোটপর্দায় আসার সুযোগ হয় না। তবে ঈদে না এসে পারি না। তাই সবসময়ই চাই আগের চেয়ে একটু আলাদা কিছু নিয়ে দর্শকের সামনে হাজির হতে। গতবার তো শুধু নাচ নিয়ে এসেছিলাম। এবার তাই অন্য ঢঙে এলাম। এটা গতানুগতিক কোনো অনুষ্ঠানের উপস্থাপনা নয়। এতে আমার ছবির গান দেখানো হবে। আর প্রতিটি গান প্রচারিত হওয়ার আগে এ গানের শুটিংয়ের মজার স্মৃতি আমি তা দর্শকের সঙ্গে শেয়ার করব।

‘ঈদ আনন্দমেলা’র উপস্থাপনায় পপি
                                  

বিনোদন প্রতিবেদক : বড়পর্দার তারকাদের ছোটপর্দায় দেখা যায় বিশেষ দিনগুলোতে। এবার ঈদেও বিভিন্ন টিভি অনুষ্ঠানে হাজির হবেন অনেকেই। কেউ অতিথি হিসেবে, আবার কেউ উপস্থাপনায়। বিটিভির জনপ্রিয় ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ‘ঈদ আনন্দমেলা’। এবারের আয়োজনে উপস্থাপনা করবেন চিত্রনায়িকা পপি। সঙ্গে থাকবেন চিত্রনায়ক ফেসদৌস।

ফেরদৌসের সঙ্গে প্রথমবারের মতো উপস্থাপনায় পপি। উপস্থাপনার পাশাপাশি দু’জনই দুটি গানের সঙ্গে পারফর্ম করেছেন। পপি নেচেছেন তার অভিনীত ‘রানি কুঠির বাকি ইতিহাস’ ছবির ‘আমার মাঝে নেই এখন আমি’ গানের সঙ্গে। আর ফেরদৌস পারফর্ম করেছেন তার অভিনীত ‘হঠা বৃষ্টি’ ছবির ‘সোনালি প্রান্তরে’ গানটির সঙ্গে। একই অনুষ্ঠানে একটি গুজরাটি গানের সঙ্গে প্রায় ১৫ বছর পর বিটিভির ঈদ আনন্দমেলায় নৃত্য পরিবেশন করবেন অভিনেত্রী তারিন। ৩টি গানেরই কোরিওগ্রাফি করেছেন ইভান শাহরিয়ার সোহাগ।

উপস্থাপনা প্রসঙ্গে পপি বলেন, এবারই প্রথম উপস্থাপনা করলাম। প্রথমে একটু ভয় ভয় করলেও পরে দারুণ মানিয়ে নিয়েছি আমি আর ফেরদৌস। পুরো অনুষ্ঠানটি আমরা বেশ উপভোগ করেছি। আমার বিশ্বাস দর্শকরাও এবারের ঈদ আনন্দমেলা দারুণ উপভোগ করবেন।

ফেরদৌস বলেন, আনন্দমেলার উপস্থাপনা আগেও করেছি। পারফর্মেন্সও করেছি। প্রতিবার চেষ্টা করেছি ভিন্নধর্মী পারফর্মেন্স করার। এবারো সেই চেষ্টা অব্যাহত ছিল। পপির সঙ্গে উপস্থাপনাটাও দারুণ উপভোগ করেছি। নিশ্চয় দর্শকদেরও ভালো লাগবে এবারের ঈদ আনন্দমেলা।

ঈদ আনন্দমেলা প্রচার হবে ঈদের দিন রাত ১০টার ইংরেজি সংবাদের পর। অনুষ্ঠানটি প্রযোজনা ও পরিচালনা করেছেন মাহফুজা আক্তার।

 

অভিনেতা দেবদাসের মৃত্যু
                                  

বিনোদন ডেস্ক: দীর্ঘ অসুস্থতায় ভুগে অবশেষে না ফেরার দেশে চলে গেলেন প্রবীণ অভিনেতা দেবদাস কনকলা। শুক্রবার কেআইএমএস হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়। এই সময় তার বয়স হয়েছিল ৭৪ বছর। গ্যাং লিডার, শ্রীরাম-সহ ৪০টিরও বেশি তেলুগু ছবিতে অভিনয় করেছেন। বড়পর্দার অভিনেতা হিসেবে তিনি খ্যাতিমান হলেও, তার জীবনের শুরুটা হয়েছিল মঞ্চ পরিচালক হিসেবে। তিনি অভিনয়ে প্রশিক্ষণ নিয়েছিলেন পুণের ফিল্ম অ্যান্ড টেলিভিশন ইনস্টিটিউটে।

একটি অভিনয় শিক্ষার স্কুলও খুলেছিলেন এই অভিনেতা। রজনীকান্ত, চিরঞ্জীবী, রাজেন্দ্র প্রসাদ,রঘুবরণ-সহ তেলুগু ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির অনেক অভিনেতা একটা সময় তার কাছে প্রশিক্ষণ নিয়েছে। অসংখ্য গুণগ্রাহি রেখে তিনি চলে গেলেন। জানা গেছে, দেবদাসের ছেলে রাজীব কনকলাও তেলুগু সিনেমার জনপ্রিয় অভিনেতা। মেয়ে শ্রীলক্ষ্মীও অভিনেত্রী হিসেবে সুনাম অর্জন করেছেন।

শাবনূরের মৃত্যুর গুজব
                                  

বিনোদন ডেস্ক: বছর দুয়েক আগে গুজব ছড়িয়ে ছিল নব্বই পরবর্তী বাংলা চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় নায়িকা শাবনূর এক ভয়ংকর রোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছেন। এবার আর সেই রকম কিছু নয়, এবার নায়িকা শাবনূর মারা গেছেন বলে খবর ছড়িয়েছে। সোমবার সন্ধ্যার পর সোশ্যাল মিডিয়াতে ছড়িয়ে পড়ে খ্যাতিমান এই নায়িকার মৃত্যুর খবর।
এমন উড়ো খবরে আতঙ্কিত ঢাকার সিনেপাড়া। স্নিগ্ধ চেহারা, মায়াবী হাসি, চিরায়ত বাঙালি নারীর মধুমাখা চাহনির অধিকারী এই নায়িকা বর্তমানে স্বামী-সন্তান নিয়ে অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে বসবাস করছেন।
যখন শাবনূরের মৃত্যুর খবরে সয়লাব সোশ্যাল মিডিয়া, তখন শাবনূরের বোন ঝুমুরের সঙ্গে যোগাযোগ করে জাগো নিউজ। তিনিই জানান, শাবনূরের মৃত্যুর খবরটি মিথ্যে। এমন গুজব রটনাকারীদের ওপর চটেছেন শাবনূরের পরিবার। ঝুমুর বলেন, ‘কিছুদিন পর পর বিভিন্ন শিল্পীদের মৃত্যুর গুজব ছড়ানো হয়। কে বা কারা কোন উদ্দেশ্য নিয়ে এটা করে আমার জানা নেই। শাবনূর আপার কিছুই হয়নি। তিনি ভালো আছেন, সুস্থ আছেন, বেঁচে আছেন। অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতেই আছেন তিনি। শিগগিরই বাংলাদেশে ফিরবেন। কেউ দুশ্চিন্তা করবেন না। আর দয়া করে এমন গুজব ছড়াবেন না কেউ।’

১৯৭৯ সালের ১৭ ডিসেম্বর যশোর জেলার শার্শা উপজেলার নাভারণে জন্মগ্রহণ করেন শাবনূর। তার পর্দার পেছনের নাম নুপুর। প্রথম চলচ্চিত্র কিংবদন্তি পরিচালক এহতেশামের ‘চাঁদনী রাতে’। ১৯৯৩ সালের ১৫ অক্টোবর ‘চাঁদনী রাতে’ মুক্তি পায়। সাব্বিরের বিপরীতে অভিনীত চলচ্চিত্রটি ব্যবসায়িকভাবে ব্যর্থ হয়।

তবে শাবনূরের মুগ্ধতার ইতিহাস শুরু হয় ১৯৯৪ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত জহিরুল হক পরিচালিত ‘তুমি আমার’ ছবিটি দিয়ে। সালমান শাহের সঙ্গে জুটি বেঁধে এই নায়িকা ১৪টি ছবি করেন। তার সবগুলোই রেকর্ড সংখ্যকভাবে ব্যবসায়িক সাফল্য পায়। এটি বাংলাদেশের চলচ্চিত্রে সফল জুটিগুলোর অন্যতম। বলা হয়ে থাকে সালমান-শাবনূর জুটি ইন্ডাস্ট্রির মিথ।

পরবর্তীতে এদের আদর্শ মেনেই এখানে নায়ক-নায়িকার জুটি গড়ে উঠেছে। তবে সালমানের যুগে ওমর সানী, অমিত হাসান, আমিন খান, বাপ্পারাজদের সঙ্গেও অভিনয় করে সফলতা পান শাবনূর।
সালমান মৃত্যু পরবর্তী সময়ে রিয়াজ, শাকিব খান ও ফেরদৌসসহ অনেক নায়কের সঙ্গেই অভিনয় করে সফল হন শাবনূর। তবে রিয়াজের সঙ্গে প্রায় অর্ধশত চলচ্চিত্রে জুটি বাঁধেন তিনি। এবং সবগুলো ছবিই ছিল ব্যবসায়িকভাবে সফল এবং আলোচিত। বলা হয়ে থাকে, রিয়াজ-শাবনূর জুটির পর ঢাকাই চলচ্চিত্রে সর্বজনীনভাবে জনপ্রিয় সুপারহিট আর কোনো জুটি আসেনি।

এই জুটির ‘শ্বশুরবাড়ি জিন্দাবাদ’, ‘মোল্লাবাড়ির বউ’, ‘প্রেমের তাজমহল’, ‘বুক ভরা ভালোবাসা’, ‘ও প্রিয়া তুমি কোথায়’, ‘এ বাঁধন যাবে না ছিড়ে’, ‘মন মানে না’ ইত্যাদি ছবিগুলো মাইলফলক হয়ে আছে এদেশীয় চলচ্চিত্রে ব্যবসায়িক সাফল্যের ইতিহাসে।

দীর্ঘ অভিনয় জীবনে শাবনূরের সবচেয়ে বড় অর্জন ভক্ত-দর্শকের ভালোবাসা। পাশাপাশি অভিনয়ের স্বীকৃতিস্বরূপ মোস্তাফিজুর রহমান মানিক পরিচালিত দুই নয়নের আলো চলচ্চিত্রের জন্য পেয়েছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার। এছাড়া পেয়েছেন বাচসাস পুরস্কার ও সর্বাধিক ১০ বার মেরিল-প্রথম আলো পুরস্কার।

ব্যক্তি জীবনে ২০১১ সালের ৬ ডিসেম্বর ব্যবসায়ী অনিক মাহমুদের সঙ্গে শাবনূরের আংটি বদল হয় এবং ২০১২ সালের ২৮ ডিসেম্বর তাকে বিয়ে করেন। তিনি অস্ট্রেলিয়ায় বসবাস শুরু করেন ও নাগরিকত্ব লাভ করেন। ২০১৩ সালের ২৯ ডিসেম্বর তিনি ছেলে সন্তানের মা হন। তার ছেলের নাম আইজান নিহান।

বিশ্বসুন্দরী হলেন বিদিশা
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক: ২১ বছর বয়সী বিদিশা ভারতের উত্তরপ্রদেশের মুজফ্ফরনগরের বাসিন্দা। ছোটবেলা থেকেই তিনি কানে শুনতে পান না। কথাও বলতে পারেন না ঠিকভাবে। মূক-বধির হওয়ার জন্য ছোটবেলা থেকেই লড়াই করে বাঁচতে হয়েছে তাকে। বিদিশার এই শারীরিক ত্রুটিকে তিনি কোনও দিন স্বপ্নের চেয়ে বড় করে দেখেননি।

ছোট বিদিশার স্বপ্নগুলো কিন্তু ছোট্ট ছিল না। স্বপ্ন দেখতেন এক দিন মিস ওয়ার্ল্ড হবেন। কিন্তু কীভাবে সেই স্বপ্নকে সত্যি করা যায়? এ জন্য ছোটবেলা থেকেই বিভিন্ন ধরনের বিষয় নিয়ে চর্চা করতেন। আগ্রহ ছিল জানার।

তার সব থেকে বড় সঙ্গী ছিল বই। সুন্দরী প্রতিযোগিতাবিষয়ক বিভিন্ন ম্যাগাজিন বই বারবার পড়তেন। সময়, সুযোগ পেলেই দেখতেন টিভি।

ছোটবেলা থেকেই নাচ-গানের প্রতি ছিল ভীষণ আগ্রহ। মেয়ের উৎসাহ দেখে তার বাবা বিদিশাকে টেনিসে ভর্তি করে দেন। এটা ছিল তার স্বপ্নপূরণের প্রথম পদক্ষেপ। বিদিশাই প্রথম আন্তর্জাতিক স্তরের টেনিস প্রতিযোগিতায় (ডিফ অলিম্পিক) ভারতের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করেছেন।

প্রথমে বাবা-মায়ের সঙ্গে মুজফ্ফরনগরে থাকতেন বিদিশা। কিন্তু পরে কোমরে আঘাত পাওয়ায় মুজফ্ফরনগর, টেনিস— সব ছেড়ে সপরিবারে নয়ডায় চলে আসেন। সেখানেই এশিয়ান অ্যাকাডেমি অব ফিল্ম অ্যান্ড টেলিভিশন ইনস্টিটিউশনে ভর্তি হন।

এরপর গুরুগ্রাম ও নয়ডায় সৌন্দর্য প্রতিযোগিতায় অংশ নেন। সেখান থেকেই জয়ী হয়ে ‘মিস ডিফ ওয়ার্ল্ড ২০১৯’ প্রতিযোগিতায় যান। গত ২২ জুলাই দক্ষিণ আফ্রিকার মোম্বেলা শহরে মূল পর্বে আরও ১১ জন প্রতিদ্বন্দ্বীর সঙ্গে তুখোড় লড়াইয়ের পর ‘মিস ডিফ ওয়ার্ল্ড ২০১৯’-এর মুকুট জিতে নেন বিদিশা।

ইনস্টাগ্রামে ছবি শেয়ার করে বিদিশা জানিয়েছেন, তার ‘তাণ্ডব নৃত্য’ দেখে মুগ্ধ হয়ে গিয়েছিলেন বিচারকেরা। বিদিশার তাল কিন্তু ‘বেতাল’ হয়নি। হিন্দু শাস্ত্রে ‘তাণ্ডব নৃত্য’কে শিবের তাণ্ডবলীলা বলে মনে করা হয়। ওইদিন বিদিশাকে দেখে মুগ্ধ হয়ে গিয়েছিলেন সবাই।

bidisha

সোশ্যাল মিডিয়ায় অনেক ছবি শেয়ার করে বিদিশা সেখানে লিখেছেন, ‘এক দিন স্বপ্ন দেখেছিলাম। আজ সেই স্বপ্ন পূরণ হলো।’ মাথায় মুকুট তুলে দেয়ার সময় দু’চোখ জলে ভরে উঠেছিল।

তিনি লিখেছেন, ‘এই তো সবে শুরু। এখনও অনেক পথ চলতে হবে। সে জন্য আমি তৈরি।’

কবি রবার্ট ফ্রস্টকে উল্লেখ করে তিনি লিখেছেন, ‘মাইলস টু গো বিফোর আই স্লিপ’।

আন্তর্জাতিক স্তরে এই প্রতিযোগিতা শুরু হয় ২০০১ সাল থেকে। প্রতিযোগিতার আয়োজক ‘মিস অ্যান্ড মিস্টার ডিফ ওয়ার্ল্ড’। এটি একটি অলাভজনক সংস্থা। শুরুর বছরে প্রতিযোগিতাটি হয়েছিল স্পেনের ম্যালোরকাতে।

উত্তম কুমারের ৩৯তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ
                                  

বিনোদন ডেস্ক: বাংলা ছায়াছবির মহানায়ক উত্তম কুমার। আসল নাম অরুণ কুমার চট্টোপাধ্যায়। ১৯৮০ সালের আজকের এ দিনে কোটি ভক্তকে কাঁদিয়ে চির বিদায় নিয়েছিলেন এই মহানায়ক। এখনো বাংলা সিনেমার নায়কদের আইডল হয়ে আছেন তিনি। আজ তার ৩৯তম মৃত্যুবার্ষিকী।


এই মহানয়কের জন্ম ১৯২৬ সালের ৩ সেপ্টেম্বর আহিরিটোলা স্ট্রিটে। চলচ্চিত্র জীবনে অসংখ্য ছবিকে নতুন মাত্রা দিয়েছেন উত্তম। সুচিত্রা সেনকে নিয়ে প্রেম-জুটি হিসেবে পর্দায় এঁকেছেন স্বর্গীয় জুটি। তাদের ৩০টা ছবির মধ্যে ২৯টাই হিট। পর্দার বাইরেও তাকে ঘিরে ছিলো নানা গুঞ্জণ। ৫৪ বছর বয়সী এ অভিনেতার মহাপ্রয়াণের পর দীর্ঘ সময় অতিক্রান্ত হলেও এখনো তাকে অতিক্রম করতে পারেননি কোন অভিনেতা।

কলকাতার সাউথ সুবারবন স্কুল থেকে ম্যাট্রিক পাস করেন উত্তম। ভর্তি হন গোয়েফা কলেজে। কলকাতার পোর্টে চাকরি নিয়ে কর্মজীবন শুরু করলেও গ্র্যাজুয়েশন শেষ করতে পারেননি। তবে তার অভিনয় পঞ্চাশের দশক থেকে শুরু করে এই আজকের দিনটি পর্যন্ত মন্ত্রমুগ্ধ করে রেখেছে দর্শককে। দুই বাংলার কোটি কোটি ভক্ত তাকে খুব ভালবেসে হৃদয় আসনে স্থান দিয়েছেন। সযত্নে লালন করে চলেছেন যুগের পর যুগ ধরে।

উত্তম কুমারের প্রথম মুক্তিপ্রাপ্ত চলচ্চিত্র ছিল ‘দৃষ্টিদানদ। এর আগে উত্তম কুমার ‘মায়াডোরদ ছবিতে কাজ করেছিলেন কিন্তু সেটি মুক্তিলাভ করেনি। ‘বসু পরিবারদ ছবিতে তিনি প্রথম দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। এরপর ‘সাড়ে চুয়াত্তরদ মুক্তি পেলে তিনি চলচ্চিত্র জগতে স্থায়ী আসন লাভ করেন৷ ‘সাড়ে চুয়াত্তরদ ছবিতে তিনি প্রথম অভিনেত্রী সুচিত্রা সেনের বিপরীতে অভিনয় করেন। এই ছবির মাধ্যমে বাংলা চলচ্চিত্র জগতের সবথেকে জনপ্রিয় এবং সফল উত্তম-সুচিত্রা জুটির সূত্রপাত হয়। উত্তমকুমার এবং সুচিত্রা সেন বাংলা চলচ্চিত্রে পঞ্চাশ এবং ষাটের দশকে অনেকগুলি ব্যবসা সফল চলচ্চিত্রে একসঙ্গে অভিনয় করেন।

এগুলির মধ্যে প্রধান হল হারানো সুর, পথে হল দেরী, সপ্তপদী, চাওয়া পাওয়া, বিপাশা, জীবন তৃষ্ণা এবং সাগরিকা। ১৯৫৭ সালে অজয় কর নির্মিত দহারানো সুরদ ছবিটি পুরো ভারতের দর্শকদের মনে নদীর ঢেউয়ের মতো দোলা দেয়৷ অর্জন করে রাষ্ট্রপতির সার্টিফিকেট অব মেরিট পুরস্কার।

পাড়ার অভিনেতা থেকে অরিন্দমের নায়ক হওয়ার গল্প নিয়ে ছবিতে উত্তম অভিনয় করতে গিয়ে খুঁজে পেয়েছিলেন নিজেকে। তবে উত্তম কুমার নিজেকে সুঅভিনেতা হিসেবে প্রমাণ করেন দঅ্যান্টনি ফিরিঙ্গিদ ছবিতে অভিনয়ের মধ্য দিয়ে। ১৯৬৭ সালে দঅ্যান্টনি ফিরিঙ্গিদ ও দচিড়িয়াখানাদ ছবির জন্য জাতীয় পুরস্কার পেয়েছিলেন।

অভিনয়ে সরব ঐন্দ্রিলা
                                  

বিনোদন প্রতিবেদক : প্রয়াত নায়ক বুলবুল আহমেদের যোগ্য উত্তরসূরি মডেল-অভিনেত্রী ঐন্দ্রিলা আহমেদ অভিনয় থেকে বিরতি নিয়েছিলেন । মাত্র ৪ বছর বয়সে মডেল হিসেবে কাজ শুরু করেছিলেন প্রাইজ বন্ডের বিজ্ঞাপনের মডেল হয়ে। এরপর তিনি সানক্রেস্ট, ফেয়ার অ্যান্ড লাভলী, তিব্বত লিপজেল, ক্যামেলিয়া সাবান, অ্যারোমেটিক সাবানসহ ১৫টি বিজ্ঞাপনে মডেল হয়েছেন।

এছাড়াও অভিনয় করেছেন দেড় শতাধিক নাটকে। গত বছর বিরতি থেকে ফিরে কাজ করেছেন বেশকিছু নাটক ও বিজ্ঞাপনে। এখন পুরোদমে কাজ নিয়ে ব্যস্ত তিনি। নাটক ও বিজ্ঞাপনের পাশাপাশি উপস্থাপনা করছেন বিভিন্ন শো।

সম্প্রতি নাগরিক টেলিভিশনের ‘রান্নার এক্সপার্ট নামের একটি শো উপস্থাপনা করছেন ঐন্দ্রিলা। গত দুই দিন ধরে এর শুটিং করছেন তিনি। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করছেন আনিসুর রহমান।

ঐন্দ্রিলা আহমেদ বলেন, এটা হচ্ছে নাগরিক টেলিভিশনের সাপ্তাহিক রান্নার শো। দুইদিন শুটিং করেছি, আরও কিছুদিন চলবে। যেহেতু আমি রান্না করতে খুব বেশি পছন্দ করি তাই এই অনুষ্ঠানটিতে উপস্থাপনা করতে পেরে খুব ভালো লাগছে। আমি খুব উপভোগ করছি। এর আগে চ্যানেল আই ও এসএ টেলিভিশনে রান্না নিয়ে ধারাবাহিক শো উপস্থাপনা করেছিলেন ঐন্দ্রিলা।

রুপালি পর্দায় ফিরেছেন পিয়া
                                  

বিনোদন ডেস্ক: ২০১২ সালে রেদওয়ান রনি পরিচালিত ‘চোরাবালি’ ছবির মাধ্যমে চলচ্চিত্রে অভিষেক হয়েছিল জনপ্রিয় মডেল, উপস্থাপিকা ও অভিনেত্রী জান্নাতুল ফেরদৌস পিয়ার। ইন্দ্রনীল সেনগুপ্ত, জয়া আহসান, সোহেল রানা, এটিএম শামসুজ্জামান, শহীদুজ্জামান সেলিম, হিল্লোল ও ইরেশ জাকেরের মতো তারকাদের নিয়ে নির্মিত সে ছবিতে পিয়াকে একটি গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে দেখা গিয়েছিল। সুজানা নামে এক উঠতি মডেলের ভূমিকায় অভিনয় করেছিলেন তিনি। প্রথম ছবিতেই প্রশংসিত হয়েছিল তার অভিনয়।
এরপর ২০১৫ সাল পর্যন্ত আরও চারটি ছবিতে দেখা যায় পিয়াকে। কিন্তু ছাপ ফেলতে পারেননি। এরপর গত চার বছর আর কোনো চলচ্চিত্রে অভিনয় করেননি বহু প্রতিভাধর পিয়া জান্নাতুল। অবশেষে চলতি বছরে নায়িকা ভেঙেছেন সেই মাঝারি বিরতি। চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন ‘স্বপ্নবাজি’ নামে নতুন একটি ছবিতে অভিনয়ের জন্য। যদিও মাসখানেক আগে থেকেই এ ছবিতে অভিনয়ের কথা শোনা যাচ্ছিল পিয়ার। তবে এতদিন চুক্তিবদ্ধ না হওয়ায় সঠিক কোনো খবর পাওয়া যাচ্ছিল না। সেই চুক্তির কাজটি পিয়া সম্পন্ন করেছেন গতকাল।
‘স্বপ্নবাজি’ পরিচালনা করবেন রায়হান রাফি। প্রযোজনার দায়িত্বে রয়েছেন পিয়াল হোসেন। এ ছবিতে পিয়ার বিপরীতে নায়ক হালের অন্যতম সেনসেশন সিয়াম আহমেদ। এটি বাংলাদেশের ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির একটি গল্পনির্ভর চলচ্চিত্র। খবর সত্যি হলে, এ ছবির মাধ্যমে প্রথমবারের মতো সিয়ামের বিপরীতে জুটি বাঁধতে চলেছেন পিয়া। শুটিং শুরু হওয়ার কথা আগামী সেপ্টেম্বর থেকে। কাজেই এবার আরও একটি নতুন জুটি দেখার অপেক্ষায় রুপালি পর্দার দর্শকরা।
মডেল হিসেবে খ্যাতি পাওয়া পিয়া জান্নাতুল ২০০৭ সালে ‘মিস বাংলাদেশ’ খেতাব অর্জন করেন। এরপর ঢুকে পড়েন অভিনয়ে। বেশ কিছু নাটকে ও চলচ্চিত্রে তিনি মুখ দেখিয়েছেন। তবে দেশের মানুষ তাকে সবচেয়ে বেশি চিনেছেন উপস্থাপিকা হিসেবে। বাংলাদেশের ঘরোয়া ক্রিকেট লিগ বিপিএল উপস্থাপনা করে ব্যাপক পরিচিতি পেয়েছেন পিয়া। সদ্য শেষ হওয়া বিশ্বকাপ ক্রিকেটের বাংলা উপস্থাপনার জন্য প্রায় দেড় মাস ইংল্যান্ডের মাঠগুলোতেও গাজি টিভির মাইক্রোফোন হাতে দেখা গেছে তাকে।

মাসুদ রানা ছবির বাজেট ৮৩ কোটি টাকা
                                  

বিনোদন ডেস্ক: বাংলা সাহিত্যে জনপ্রিয় এক চরিত্রের নাম মাসুদ রানা। কৈশোরে এই চরিত্র রোমাঞ্চিত করেছে লক্ষ লক্ষ বইপ্রেমীকে। দেশে-বিদেশে মৃত্যুকে চ্যালেঞ্জ করে নানারকম অভিযানে নেমে পড়েন এই গোয়েন্দা। ভেদ করেন রহস্য, দমন করেন ভয়ংকর সব অপরাধীদের।
কাজী আনোয়ার হোসেনের লেখা ‘বাংলার জেমস বন্ড’খ্যাত সেই চরিত্রকে সিনেমায় দেখিয়ে ছিলেন সোহেল রানা। মাসুদ রানা সিরিজের ‘বিস্মরণ’ অবলম্বনে ‘মাসুদ রানা’ নামের চলচ্চিত্র তৈরি করেন। ছবিটি মুক্তি পায় ১৯৭৪ সালে। সেই গোয়েন্দা গল্প নিয়ে গত বছর সিনেমার নির্মাণের ঘোষণা দিয়েছিলো প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান জাজ মাল্টিমিডিয়া।
জাজ মাল্টিমিডিয়া সূত্রেই জানা গেছে, মাসুদ রানার শুটিং হবে মরিশাস, থাইল্যান্ড ও বাংলাদেশে। সিনেমার বাজেট করা হয়েছে প্রায় ১০ মিলিয়ন ডলার বা প্রায় ৮৩ কোটি টাকা। জাজের সঙ্গে ছবিটির সহপ্রযোজক হিসেবে আছে হলিউডের সিলভার লাইন।
মাসুদ রানা চলচ্চিত্রটি পরিচালনা করবেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত হলিউডের ডিরেক্টর আসিফ আকবর। অসাধারণ ট্যালেন্টেড এই নির্মাতা যুক্তরাষ্ট্রের কলম্বিয়া ইউনিভার্সিটি থেকে ফিল্মমেকিং এর উপর উচ্চতর পড়াশোনা করেছেন। ইতিমধ্যে তিনি হলিউডে ৩টি সিনেমা পরিচালনা ও বেশ কিছু নামকরা সিনেমা প্রযোজনা করে যথেষ্ট সুনাম কুড়িয়েছেন।
জাজ মাল্টিমিডিয়ার সিইও আলিমুল্লাহ খোকন জানান, বর্তমানে সিনেমাটির লোকেশন খোঁজার কাজ চলছে। শিগগিরই বড় আয়োজন করে ছবিটির ব্যাপারে বিস্তারিত জানানো হবে।
প্রতিষ্ঠানটির ডিজিটাল মার্কেটিং ম্যানেজার শাকিব সৌখিন বলেন, ‘ছবিটির প্রি প্রডাকশনের কাজ এখন পুরোদমে চলছে। বাজেটও নির্ধারণ হয়েছে। শিগগিরই এটি শুটিং ফ্লোরে যাবে। সিআইয়ের প্রাক্তন এক স্পাই মাসুদ রানার প্রজেক্ট উপদেষ্টা হিসাবে কাজ করেছেন। যাতে মাসুদ রানার লুক সত্যিকারের একজন স্পাইয়ের মতো হয়।’
আরও জানা যায়, মাসুদ রানা সিরিজের প্রথম পর্ব ‘ধ্বংস পাহাড়’ নিয়ে চলচ্চিত্রটি নির্মিত হচ্ছে। এর ইংরেজি নাম ‘এমআর-৯’ আর বাংলা নাম হবে ‘মাসুদ রানা’। ছবিটি ইংরেজি ও বাংলা ভাষায় আসবে। পরে অন্য ভাষায় ডাবিং বা সাবটাইটেল হবে।
হলিউড, বলিউড, ঢালিউড, টালিউড সহ আরও বিভিন্ন মুভি ইন্ডাস্ট্রির অভিনেতা-অভিনেত্রীরা অভিনয় করতে চলেছেন ছবিটিতে। এতে অভিনয় করতে যাচ্ছেন রেসলিং দুনিয়ার ভয়ংকর তারকা দ্য গ্রেট খালি।
আরও থাকছেন ‘দ্য ম্যাট্রিক্স’ ছবির খলনায়ক ড্যানিয়েল বার্নহার্ড। এছাড়াও আছেন ‘আয়রন ম্যান ২’খ্যাত হলিউডের জাঁদরেল অভিনেতা মিকি রোর্ক, গ্যাব্রিয়েল্লা রাইট, মাইকেল প্যারেসহ বেশ ক’জন তারকা।

যে কারণে দর্শক হারাচ্ছে টিভি নাটক
                                  

বিনোদন ডেস্ক: টিভি নাটকে নেই আগের মতো দর্শক। বলা যায়, এ সময়ে দর্শক খরায় ভুগছে দেশের টিভি নাটক। কিন্তু কেন এই খরা-এমন প্রশ্ন এখন জারালো হয়ে দেখা দিয়েছে আমাদের নাট্যনির্মাতা, অভিনয় শিল্পী ও দর্শকের কাছে। আমাদের টিভি চ্যানেলগুলোতে প্রতিদিন একাধিক নাটক প্রচার হয়। এসব নাটকের বেশির ভাগই উপেক্ষা করে দর্শক ভারতীয় সিরিয়াল দেখে। শহর থেকে শুরু করে গ্রাম অঞ্চলেও টিভি দর্শকেরা বর্তমানে ভারতীয় সিরিয়ালে আসক্ত।  প্রশ্ন থেকে যায়, এমন কি আছে তাদের নাটকে যা আমাদের নাটকে নেই? আমাদের দেশে ভারতীয় সিরিয়ালের প্রভাব বেড়েছে অনেক। সংবাদপত্রে এমন খবরও প্রকাশ হয়েছে যে, মা ব্যাপক মনোযোগ দিয়ে ভারতীয় সিরিয়াল দেখছেন। আর অন্যদিকে তার শিশুসন্তান বিছানা থেকে পড়ে গিয়ে মারাত্মক আঘাত পেয়েছে।

কিন্তু তার প্রতি মায়ের কোনো খেয়াল নেই। এদিকে প্রশ্ন উঠেছে, যে কারণে দর্শক হারাচ্ছে দেশের টিভি নাটক তার জন্য কে দায়ী? একটা সময় আমাদের টিভি নাটকের দর্শক ছিল পার্শ্ববর্তী দেশেও। কিন্তু এখন তার বিপরীত চিত্র। এই প্রসঙ্গে বিশিষ্ট নির্মাতা ও অভিনেতা মামুনুর রশিদ বলেন, বিটিভিতে প্রচারিত নাটকের কথা এখনো দর্শকের মুখে মুখে শোনা যায়। সেই সময় বিটিভির একটি নাটকে অভিনয় করেই আজকের অনেক শিল্পী তারকাখ্যাতি লাভ করেছেন। আমাদের স্যাটেলাইটের শুরুতেও বেসরকারি টিভি চ্যানেলগুলোতে দর্শক অনেক ভালো ভালো নাটক দেখেছে। গেল কয়েক বছরে আমাদের টিভি নাটকের মান কমতে শুরু করেছে। যার কারণে দর্শক ভারতীয় সিরিয়ালে ঝুঁকে পড়েছে। এই মান কমে যাওয়ার পিছনেও বেশ কিছু কারণ আছে। এরমধ্যে একটি হলো বাজেট। এছাড়া ভালো নির্মাতা ও রচয়িতাও এখন আগের মতো নেই। এই সময়ের বেশ কয়েকজন তরুণ নির্মাতা ভালো নাটক নির্মাণ করছেন। তবে তারা আমাদের নাটকের ঐতিহ্যের বাইরে সেসব নির্মাণ করছেন। এই সময়ে নাটকে পারিবারিক গল্প পাওয়া যায় না। দর্শক কিন্তু পারিবারিক গল্পের নাটক দেখতে পছন্দ করে। এছাড়া চ্যানেলগুলো ভালো বাজেট না দেয়ায় অনেক দক্ষ নির্মাতা নাটক নির্মাণ করছে না। সেই কারণেও দর্শক আগের মতো ভালো নাটক পায় না। বর্ষীয়ান অভিনেত্রী ফেরদৌসী মজুমদার বলেন, আমি এখন আগের মতো নাটকে অভিনয় করি না। কারণ অভিনয় করার মতো চরিত্র এখনকার নাটকে নেই। আগে একটা নাটকে অনেক চরিত্রের সমন্বয় থাকতো। এখন নায়ক-নায়িকা ছাড়া নাটকে তেমন আর কাউকে দেখি না। নাটকে যদি কিছু না থাকে দর্শক কেন সেই নাটক দেখবে? বর্তমানে কিছু নাটকে দর্শককে জোর করে হাসানোর চেষ্টা করা হয়। আবার কিছু নাটকের স্ক্রিপ্ট এতটাই দুর্বল, সেগুলো দর্শকের মনে দাগ কাটে না। আমি মনে করি, আমাদের শিল্পীদের সৌভাগ্য এখনো কিছু দর্শক আমাদের নাটক দেখে। দর্শকদের ফিরিয়ে আনতে হলে ভালো গল্প-শিল্পী নিয়ে কাজ করতে হবে। নাটকে সিনিয়র  শিল্পীদের অংশগ্রহণ বাড়াতে হবে। অভিনেত্রী আফরোজা বানু বলেন, আমাদের নাটক দেখার জন্য একটা সময় ভারতীয় দর্শক অপেক্ষা করতো। এখন আমাদের দর্শক তাদের নাটক দেখার জন্য অপেক্ষা করে। আমাদের এই সময়ে নাটকে কোনো বৈচিত্র্য নেই। সব প্রেম-ভালোবাসার নাটক। নাটকগুলোতে পরিবারের গল্প থাকে না। পারিবারিক ড্রামা বলতে যা বোঝায় সেটির সব চরিত্র দর্শক আগে একটি নাটকে দেখতে পেত। এখন এর দারুণ অভাব। একদিকে ফ্যামিলি ড্রামা নির্মাণের সংখ্যা কম। অন্যদিকে এই সময়ের নাটকে গল্পের প্রাধান্য কম থাকে। নায়িকাদের গ্ল্যামারাস উপস্থাপনে বেশি ব্যস্ত নির্মাতারা। দর্শক খোঁজে বৈচিত্র্য। এই বৈচিত্র ভারতীয় সিরিয়ালে তারা দেখতে পায় বলেই সেগুলো দেখছে। দর্শকের ভারতীয় সিরিয়ালে আকৃষ্ট হওয়া আমাদের দেশিয় নাটকের জন্য হুমকি বলে মনে করছেন নাটক সংশ্লিষ্টরা। এভাবে চলার কারণে টেলিভিশন চ্যানেলগুলো যেমন দর্শক হারাচ্ছে তেমনি নাটকেও আসছে না কোনো পরিবর্তন। নাটকের সংগঠনগুলোকে এই বিষয়গুলোর জন্য কার্যকরী ভূমিকা নেয়ার আহ্বানও জানান তারা।

সমালোচনার শিকার প্রিয়াংকা
                                  

বিনোদন ডেস্ক: প্রিয়াংকা চোপড়ার জন্মদিন গিয়েছে ১৮ই জুলাই। তবে ক্যালেন্ডারের পাতায় জন্মদিন শেষ হলেও এখনও কাটেনি তার রেশ। এখনও চলছে জন্মদিন উদযাপন। বিয়ের পর স্বামী নিক জোনাসের সঙ্গে এই প্রথম জন্মদিন। তাই এই বিশেষ দিনটিকে উপভোগ করতে প্রিয়াংকা চোপড়া পৌঁছে গিয়েছিলেন মায়ামিতে। আর সেখান থেকেই সম্প্রতি তার এক ছবি নিয়ে নেটদুনিয়ায় শুরু হয়েছে শোরগোল। না, প্রশংসিত হননি, বরং নেটিজেনদের কাছে ব্যাপক সমালোচনার শিকার হয়েছেন তিনি। মায়ামিতে গিয়ে নৌকাবিহার না সারলে হয়? একটু ও-দেশি ভাষা ঘেঁষে বললে, ‘ইয়চ পার্টি’ বলতে যা বোঝায় আর কী! তা প্রিয়াংকাও তার অন্যথা করেননি।
মায়ামিতে গিয়ে মা মধু চোপড়ার সঙ্গে নৌকাবিহারে মজেছিলেন। সঙ্গে ছিলেন স্বামী নিক জোনাস। আর সেই মুহূর্তই ক্যামেরাবন্দি হয়ে বর্তমানে ভাইরাল ওয়েবদুনিয়ায়। তবে ‘ইয়চ পার্টি’ নয়, বরং নেটিজেনদের নজর কেড়েছে প্রিয়াংকার সিগারেট খাওয়ার দৃশ্য।

আসলে এই ছবিতে তাকে দেখা গিয়েছে ধূমপান করতে। পাশে নিক জোনাস এবং প্রিয়াংকার মা মধু চোপড়াও ধূমপান করছেন। আর এতেই বেজায় চটেছেন নেটিজেনরা। কারণ, গত বছর দীপাবলিতে নায়িকা নিজেই সবাইকে অনুরোধ জানিয়েছিলেন বাজি পুড়িয়ে পরিবেশ দূষণ না করার। কারণ তিনি দাবি করেছিলেন, তার শ্বাসকষ্টের সমস্যা রয়েছে। গতবছর দীপাবলিতে তিনি ভক্তদের উদ্দেশে সোশ্যাল মিডিয়ায় লিখেছিলেন, ‘দয়া করে আমায় শ্বাস নিতে দিন। এই দীপাবলিতে বর্জন করুন বাজি পোড়ানো। এবার উৎসব দূষণের নয়, বরং উৎসব হোক আলোর, ভালবাসার এবং লাড্ডুর।’ আর প্রিয়াংকার এই ‘জ্ঞান’কেই ঠুকেছেন নেটিজেনরা। তাদের মতে, ‘ও, বাজি পোড়ালেই শুধু দূষণ আর শ্বাসকষ্ট হয় বুঝি? আর ধূমপান করার বেলায় আপনার শ্বাসকষ্ট হয় না?’

বেশ সুখেই আছি : মুনমুন
                                  

বিনোদন প্রতিবেদক : ১৯৯৭ সালে ক্যাপ্টেন এহতেশামের পরিচালনায় ‘মৌমাছি’ ছবির মাধ্যমে চলচ্চিত্রে যাত্রা শুরু করেন চিত্রনায়িকা মুনমুন। তখন সবে এসএসসি পাস করেছেন মুনমুন। মাত্র ১৪ বছর বয়সে ক্যামেরার সামনে আসেন তিনি। ‘মৌমাছি’ মুনমুন অভিনীত প্রথম ছবি হলেও বড়পর্দায় তার জীবন রহমান পরিচালিত ‘আজকের সন্ত্রাসী’  ছবিটি প্রথম মুক্তি পায়।

এ ছবির পর ‘দুই নাগিন’, ‘বিষে ভরা নাগিন’, ‘টারজান কন্যা’, ‘রানী কেনো ডাকাত’, ‘লেডি রংবাজ’, ‘বিষাক্ত নাগিন’, ‘রাজা রানী’, ‘রাজা’, ‘মৃত্যুর মুখে’, ‘জানের জান’সহ ৮০টি ছবি মুক্তি পায়। মারপিটে পারদর্শী মুনমুনকে নিয়ে নির্মাতারা নির্মাণ করেন অ্যাকশন ধাঁচের সিনেমা। খুব তাড়াতাড়ি সাফল্য ধরা দেয় এ অভিনেত্রীর হাতে।

উপহার দেন একের পর এক সফল সিনেমা। তবে চলচ্চিত্রের দুঃসময়ের সূচনালগ্নে তাল মেলাতে না পেরে তিনি শিকার হন ফিল্ম পলিটিক্সের। তার বিরুদ্ধে অশ্লীলতার অভিযোগ ওঠায় চলচ্চিত্র জগৎ ছেড়ে দেন তিনি। মুনমুন বলেন, আমার নামে অশ্লীলতার বদনাম আনা হয়েছিল! আমার চেয়ে অনেক বেশি অশ্লীলতায় ভরা ছবিতে অভিনয় করেছেন অনেকে। কিন্তু বিভিন্নভাবে নাম হয়েছে আমার। অথচ যখন অশ্লীলতার সময় তখন আমি ফিল্ম ছেড়ে দিয়েছিলাম। আমি তো চাইলে তখন টাকা কামানোর জন্য একের পর এক ছবি করতে পারতাম। তা করিনি।

বিষয়টি আরেকটু পরিষ্কারভাবে জানতে চাইলে এই নায়িকা বলেন, এনায়েত করিমসহ সে সময় বেশ কয়েকজন চলচ্চিত্র পরিচালক অশ্লীল ছবি নির্মাণ করেছেন। সবশেষ স্বপন চৌধুরী পরিচালিত ‘মহিলা হোস্টেল’ ছবিতে নায়িকা চরিত্রে কাজ করেছিলাম। এ ছবির সেটে গিয়ে পরিচালকের সঙ্গে ঝগড়া করেছিলাম আমি। কারণ অশ্লীল দৃশ্যে অভিনয়ে আপত্তি ছিল আমার। এমন পর্যায়ে যখন দেখলাম চারদিকে একই অবস্থা তখন অশ্লীলতা থেকে রেহাই পাওয়ার জন্য ফিল্মি ক্যারিয়ারকে বিদায় জানালাম। সে সময় সংক্ষিপ্ত পোশাকে অভিনয় বা গান কে করে নাই? অনেকেই এমন পোশাকে ক্যামেরার সামনে এসেছেন। তবে আমি ফিল্ম পলিটিক্সের শিকার হয়েছি। এখনো সেই সময়ের কথা মনে পড়ে। ২০০৩ মাসের জুন মাসে ইন্ডাস্ট্রি ছেড়েছিলাম আমি। দীর্ঘদিন পর কয়েকটি ছবিতে আবার কাজ করলাম। এখন সময়টা ভালো। তাই আবার অভিনয়শিল্পী হিসেবে কয়েকটি কাজ শুরু করেছি।

এসব ছবি প্রসঙ্গে মুনমুন বলেন, আমি নাচ, ফাইট না শিখে চলচ্চিত্রে কাজ শুরু করেছিলাম। আমার নিজের নামে ছবি চলেছে। অ্যাকশন লেডি চরিত্রে অভিনয় করে নাম পেয়েছিলাম। অনেক পরিশ্রম করতে হয়েছে আমাকে। দর্শকের গ্রহণযোগ্যতাতেই টিকে ছিলাম। তখন টিকে থাকা বেশ চ্যালেঞ্জিং ছিল। আর এই সময়ে নায়িকা চরিত্রে না, লেডি খলনায়িকার ভূমিকায় ‘রাগী’ ও ‘তোলপাড়’ নামে দুটি ছবিতে কাজ করেছি। যারা আমাকে কাজের সুযোগ করে দিয়েছেন তাদেরকে অসংখ্য ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

আর অনুদানের ‘কাসার থালায় রুপালী চাঁদ’ ও হারুন-উজ-জামানের ‘পদ্মার প্রেম’  ছবিগুলিতে আমাকে বিশেষ চরিত্রে দর্শকরা দেখতে পাবেন। আমি শিল্পী। অবশ্যই কাজটা ভালোভাবে চালিয়ে যাবো। যতদিন সম্ভব অভিনয়টা করে যেতে চাই। তবে  আমার অভিনীত এ ছবিগুলো চললে আমি সিনেমাতে নিয়মিত কাজ করবো, আর না চললে অভিনয় জগৎ থেকে বিদায় নেব। এটাই আমার সিদ্ধান্ত। বর্তমানে আমি স্বামী, দুই ছেলে যশ ও শিবুকে নিয়ে ভালো আছি। যশের বয়স ১৩ এবং শিবুর বয়স ৬ বছর পার হয়েছে। তাদেরকে নিয়ে বেশ সুখেই আছি আমি।

অনন্ত জলিলের চুরি হওয়া টাকা উদ্ধার
                                  

বিনোদন ডেস্ক: সাভারের হেমায়েতপুর থেকে চিত্রনায়ক অনন্ত জলিলের ৫৫ লাখ টাকা নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার ঘটনায় গাড়িচালকসহ চারজনকে গ্রেফতার করেছে গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। তাদের কাছ থেকে ২৭ লাখ ৫০ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়েছে।

তথ্যপ্রযুক্তির সহায়তায় ঢাকা জেলা উত্তরের গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল ভোলা জেলার দৌলতখান থানার জয়নগর গ্রাম থেকে আসামিদের গ্রেফতার করে।গতকাল বুধবার দুপুরে গ্রেফতারকৃতদের রিমান্ড চেয়ে আদালতে পাঠানো হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- দৌলতখান থানার জয়নগর গ্রামের মৃত বারেক বিশ্বাসের ছেলে গাড়িচালক মো. শহীদ বিশ্বাস (৩৭), তার স্ত্রী আরজু বেগম (২৬), মধ্য জয়নগর গ্রামের আবু তাহেরের ছেলে মো. জুয়েল (২১) ও কলাকোপা গ্রামের মৃত মান্নানের ছেলে মো. শাহবুদ্দিন (৩৩)।

ঢাকা জেলা উত্তর গোয়েন্দা পুলিশের কর্মকর্তা মো. আবুল বাসার বলেন, ঢাকা জেলার পুলিশ সুপার শাহ মিজান শাফিউর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) মো. সাঈদুর রহমানের দিকনির্দেশনায় মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই মো. আশরাফুল আলম, এসআই মো. নজরুল ইসলাম, এএসআই জাহিদ ও এএসআই আজহারুলসহ একটি বিশেষ দল নিয়ে আমরা টাকা উদ্ধারে অভিযান পরিচালনা করি।

তিনি বলেন, মামলার প্রধান আসামি শহীদ, তার স্ত্রী আরজু বেগম, সহযোগী আসামি জুয়েল ও শাহাবুদ্দিনকে দৌলতখান থানার জয়নগর গ্রাম থেকে গ্রেফতার করা হয়। পরে আসামিদের স্বীকারোক্তি ও দেখানো মতে মূলহোতা শহীদের নির্মাণাধীন বাড়ির সামনে মাটির নিচ থেকে ২০ লাখ টাকা এবং তার স্ত্রী আরজুর কাছ থেকে সাত লাখ ৫০ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়।

উল্লেখ্য, গত ৭ এপ্রিল চিত্রনায়ক অনন্ত জলিলের গাড়িচালক শহীদ ৫৫ লাখ টাকা নিয়ে পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় সাভার মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করা হলে টাকা উদ্ধারে কাজ শুরু করে পুলিশ।


   Page 1 of 63
     বিনোদন
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জনপ্রিয় মডেল বিন লাদেনের ভাইঝি ‘ওয়াফা দুফোর’
.............................................................................................
ভালো কিছু প্রত্যাশা করছি : মাহি
.............................................................................................
দর্শকদের সাথে সহমত
.............................................................................................
ঈদে চমক নিয়ে আসছেন মাহি
.............................................................................................
‘ঈদ আনন্দমেলা’র উপস্থাপনায় পপি
.............................................................................................
অভিনেতা দেবদাসের মৃত্যু
.............................................................................................
শাবনূরের মৃত্যুর গুজব
.............................................................................................
বিশ্বসুন্দরী হলেন বিদিশা
.............................................................................................
উত্তম কুমারের ৩৯তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ
.............................................................................................
অভিনয়ে সরব ঐন্দ্রিলা
.............................................................................................
রুপালি পর্দায় ফিরেছেন পিয়া
.............................................................................................
মাসুদ রানা ছবির বাজেট ৮৩ কোটি টাকা
.............................................................................................
যে কারণে দর্শক হারাচ্ছে টিভি নাটক
.............................................................................................
সমালোচনার শিকার প্রিয়াংকা
.............................................................................................
বেশ সুখেই আছি : মুনমুন
.............................................................................................
অনন্ত জলিলের চুরি হওয়া টাকা উদ্ধার
.............................................................................................
বলিউডকে বিদায় জানাচ্ছেন সোনম
.............................................................................................
জ্যাকলিনের মেকআপবিহীন ছবি পোস্ট
.............................................................................................
নতুন ছবি নিয়ে ফিরছেন স্পর্শিয়া
.............................................................................................
ঈদে ‘আয়নার গল্প’ নিয়ে মৌ
.............................................................................................
মুগ্ধতা ছড়াচ্ছেন শ্রদ্ধা কাপুর
.............................................................................................
মেহজাবিন এবার কাজের বুয়া
.............................................................................................
আমি বিজয়ী হব : ববি
.............................................................................................
লিজার স্বপ্নপূরণ
.............................................................................................
গানে ব্যস্ত বেলী আফরোজ
.............................................................................................
আগ্রহের কথা জানালেন মুনমুন
.............................................................................................
অভিনয়কে গুডবাই বললেন নওশীন
.............................................................................................
অভিমানে সংগীত থেকে দূরে শাকিলা
.............................................................................................
নায়িকা হয়ে ফিরছেন জুহি চাওলা
.............................................................................................
‘শান’ নিয়ে ব্যস্ত পূজা চেরি
.............................................................................................
ঈদের ছুটিতে আছি : মাহী
.............................................................................................
অভিনয়ে অনেক বেশি সিরিয়াস
.............................................................................................
জাতীয় চলচ্চিত্র দিবসের আয়োজনে প্যানেল বৈঠক
.............................................................................................
দ্যূতি ছড়াচ্ছেন মেহজাবিন
.............................................................................................
মৌলিক গল্পকে সব সময় এগিয়ে রাখি : ববি
.............................................................................................
‘নাকফুল’ নাটকে সজল-ফারিয়া
.............................................................................................
ক্লাস নাইনে প্রেমপত্র পেয়েছেন পাওলি
.............................................................................................
ফের বিয়ের পিঁড়িতে বসছেন সালমা
.............................................................................................
হৃতিকের সাবেক স্ত্রী এখন ‘বিশেষ বান্ধবী’
.............................................................................................
নতুন সিনেমায় আসছেন সামান্থা-নানি
.............................................................................................
ব্যাটিংয়ে সিলেট সিক্সার্স
.............................................................................................
সংরক্ষিত আসনে মনোনয়ন প্রত্যাশি অপু বিশ্বাস
.............................................................................................
সালমানের সামনে ক্যাটরিনাকে বিয়ের প্রস্তাব
.............................................................................................
বাঙালি মেয়ে অভিনেত্রী শ্রদ্ধা
.............................................................................................
মুক্তির অপেক্ষায় ‘লিডার’
.............................................................................................
শাহরুখ খানের জন্মদিনের পার্টি করতে দেয়নি পুলিশ
.............................................................................................
যৌন হেনস্থা নিয়ে এবার সরব অভিনেত্রী পার্বতী
.............................................................................................
মৌসুমীর ‘ভেল্কি’
.............................................................................................
রণবীর-আলিয়ার বিয়ে ২০২০ সালে
.............................................................................................
আইয়ুব বাচ্চু আর নেই
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আখলাকুল আম্বিয়া
নির্বাহী সম্পাদক: মাে: মাহবুবুল আম্বিয়া

সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: স্বাধীনতা ভবন (৩য় তলা), ৮৮ মতিঝিল বাণিজ্যিক এলাকা, ঢাকা-১০০০। Editorial & Commercial Office: Swadhinota Bhaban (2nd Floor), 88 Motijheel, Dhaka-1000.
সম্পাদক কর্তৃক রঙতুলি প্রিন্টার্স ১৯৩/ডি, মমতাজ ম্যানশন, ফকিরাপুল কালভার্ট রোড, মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত ।
ফোন : ০২-৯৫৫২২৯১ মোবাইল: ০১৬৭০৬৬১৩৭৭

Phone: 02-9552291 Mobile: +8801670 661377
ই-মেইল : dailyswadhinbangla@gmail.com , editor@dailyswadhinbangla.com, news@dailyswadhinbangla.com

 

    2015 @ All Right Reserved By dailyswadhinbangla.com

Developed By: Nytasoft