বুধবার, ১৯ জুন ২০১৯ | বাংলার জন্য ক্লিক করুন
  
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   আইন - অপরাধ -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
মানহানির দুই মামলায় খালেদা জিয়ার ছয় মাসের জামিন

স্টাফ রিপোর্টার : মানহানির অভিযোগে করা দুই মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে ছয় মাসের জামিন দিয়েছেন হাইকোর্ট। মঙ্গলবার বিচারপতি মুহাম্মদ আবদুল হাফিজ ও বিচারপতি আহমেদ সোহেলের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে খালেদা জিয়ার পক্ষে ছিলেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী এ জে মোহাম্মদ আলী, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, জয়নুল আবেদীন, এ কে এম এহসানুর রহমান প্রমুখ। আর রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ফজলুর রহমান খান।

২০১৪ সালে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত ও ২০১৬ সালে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কটূক্তি করার অভিযোগে ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে মামলা দুটি বিচারাধীন রয়েছে। এ মামলায় গত ২০ মার্চ খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়। এ অবস্থায় ওই দুই মামলায় হাইকোর্টে জামিন আবেদন উপস্থাপন করা হয়। পরে গত ২২ মে শুনানির জন্য ১৭ জুন দিন ধার্য করেছিলেন। ১৭ জুন শুনানি শেষে আদালত মঙ্গলবার আদেশের জন্য দিন ঠিক করেন।

মানহানির দুই মামলায় খালেদা জিয়ার ছয় মাসের জামিন
                                  

স্টাফ রিপোর্টার : মানহানির অভিযোগে করা দুই মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে ছয় মাসের জামিন দিয়েছেন হাইকোর্ট। মঙ্গলবার বিচারপতি মুহাম্মদ আবদুল হাফিজ ও বিচারপতি আহমেদ সোহেলের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে খালেদা জিয়ার পক্ষে ছিলেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী এ জে মোহাম্মদ আলী, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, জয়নুল আবেদীন, এ কে এম এহসানুর রহমান প্রমুখ। আর রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ফজলুর রহমান খান।

২০১৪ সালে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত ও ২০১৬ সালে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কটূক্তি করার অভিযোগে ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে মামলা দুটি বিচারাধীন রয়েছে। এ মামলায় গত ২০ মার্চ খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়। এ অবস্থায় ওই দুই মামলায় হাইকোর্টে জামিন আবেদন উপস্থাপন করা হয়। পরে গত ২২ মে শুনানির জন্য ১৭ জুন দিন ধার্য করেছিলেন। ১৭ জুন শুনানি শেষে আদালত মঙ্গলবার আদেশের জন্য দিন ঠিক করেন।

আজ সাইবার ট্রাইব্যুনালে হাজির করা হবে মোয়াজ্জেমকে
                                  

স্টাফ রিপোর্টার : মাদরাসাছাত্রী নুসরাত হত্যা মামলায় গ্রেফতার ওসি মোয়াজ্জেম হোসেনকে ফেনীর সোনাগাজী পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। আজ সোমবার সকাল সাড়ে নয়টার দিকে তাকে সোনাগাজী পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে শাহবাগ থানা পুলিশ। আজই তাকে ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনালে হাজির করা হবে।

উল্লেখ্য, পরোয়ানা জারির ২০ দিন পর গতকাল রোববার ওসি মোয়াজ্জেম হোসেনকে হাইকোর্ট এলাকা থেকে গ্রেফতার করে শাহবাগ থানা পুলিশ।

সোনাগাজী থানার ওসি মাঈন উদ্দিন জানান, একজন সাব ইন্সপেক্টরের নেতৃত্বে সোনাগাজী থানা পুলিশের একটি টিম ঢাকায় অবস্থান করছে। তাদের কাছে  সাবেক ওসি মোয়াজ্জেম হোসেনকে হস্তান্তর করা হয়েছে। তারাই তাকে আদালতে নিয়ে যাবে।

ফেনীতে হত্যাকাণ্ডের শিকার মাদরাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফির জবানবন্দির ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়ানোর অভিযোগে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে সোনাগাজী থানার সাবেক ওসি মোয়াজ্জেম হোসেনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়।

শাহবাগ থানার ওসি আবুল হাসান বলেন, ফেনীর সোনাগাজী থানায় তার গ্রেফতারি পরোয়ানা থাকায় সেই থানার পুলিশের একটি প্রতিনিধি দল সকালে ঢাকায় আসে। সকাল ৯টা ৩০ মিনিটে মোয়াজ্জেমকে ফেনী পুলিশের কাছে তাকে হস্তান্তর করা হয়েছে।

মাদরাসাছাত্রী নুসরাত জাহানকে গত ৬ এপ্রিল পুড়িয়ে হত্যার চেষ্টা করা হয়। তার দিন দশেক আগে মাদরাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলার বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগ জানাতে সোনাগাজী থানায় যান নুসরাত। থানার তৎকালীন ওসি মোয়াজ্জেম হোসেন সে সময় নুসরাতকে আপত্তিকর প্রশ্ন করে বিব্রত করেন এবং তা ভিডিও করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেন।

ওই ঘটনায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হলে আদালতের নির্দেশে সেটি তদন্ত করে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।

পিবিআই গত ২৭ মে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দিলে ওই দিনই গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি হয়। পরোয়ানা জারির দুদিন পর মোয়াজ্জেম হোসেন হাইকোর্টে জামিন আবেদন করেন।

ভেজাল ও মানহীন পণ্যের বিরুদ্ধে অভিযান চালানোর নির্দেশ হাইকোর্টের
                                  

স্টাফ রিপোর্টার : নিরাপদ পণ্য ও খাদ্যের মান নির্ণয়ের জন্য ভোক্তা অধিকার কর্তৃপক্ষকে আগামী দুই মাসের মধ্যে হটলাইন কার্যক্রম চালু করার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে শুধু বিশেষ কোনও মাস বা উপলক্ষকে কেন্দ্র করে নয়, সারাবছরই ভেজাল ও মানহীন পণ্যের বিরুদ্ধে অভিযান চালানোর আদেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

আজ রোববার হাইকোর্টের বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি রাজিক আল জলিলের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এই আদেশ দেন।

আদালতে রিটের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন আইনজীবী শিহাব উদ্দিন খান। বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী ফরিদুল ইসলাম ও বিএসটিআইয়ের পক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার এম আর হাসান। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোখলেছুর রহমান। এছাড়া তলব আদেশের পরিপ্রেক্ষিতে আদালতে ব্যাখ্যা দিতে হাজির হয়ে নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনা করেছেন নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মাহফুজুল হক।

বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস অ্যান্ড টেস্টিং ইনস্টিটিউশনের (বিএসটিআই) পরীক্ষায় মানহীন ৫২টি পণ্য বাজার থেকে তুলে নিতে ও জব্দে হাইকোর্টের দেয়া নির্দেশনা প্রতিপালন না করায় গত ২৩ মে মাহফুজুল হককে তলব করেছিলেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে তার বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার রুলও জারি করেছিলেন হাইকোর্ট।

এর আগে এক রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ১২ মে হাইকোর্ট এক আদেশে রুল দিয়ে মানহীন পণ্য অবিলম্বে সরাতে ও জব্দে ব্যবস্থা নিতে বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান ও জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের মহাপরিচালককে নির্দেশ দিয়েছিলেন।

সেই সঙ্গে নির্দেশনা বাস্তবায়নের অগ্রগতি জানিয়ে ওই দুই কর্তাব্যক্তিকে আদালতে প্রতিবেদন দিতেও বলা হয়। ২৩ মে অগ্রগতিবিষয়ক প্রতিবেদন দাখিলের জন্য দিন ধার্য ছিল।

প্রসঙ্গত সম্প্রতি বিএসটিআই ২৭ ধরনের ৪০৬টি খাদ্যপণ্যের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা করে, যার মধ্যে ৩১৩টি পণ্যের পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়। এতে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ৫২টি নিম্নমানের পণ্য রয়েছে। গত ২ মে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এ প্রতিবেদন প্রকাশ করে বিএসটিআই।

৫২টি পণ্য হলো- ১. সিটি অয়েলের সরিষার তেল (তীর), ২. গ্রিন ব্লিচিংয়ের সরিষার তেল (জিনি), ৩. শমনমের সরিষার তেল (পুষ্টি), ৪. বাংলাদেশ এডিবল অয়েলের সরিষার তেল (রূপচাঁদা), ৫. কাশেম ফুডের চিপস (সান), ৬. আররা ফুডের ড্রিংকিং ওয়াটার (আরা), ৭. আল সাফির ড্রিংকিং ওয়াটার (আল সাফি), ৮. মিজানের ড্রিংকিং ওয়াটার, ৯. মর্ন ডিউয়ের ড্রিংকিং ওয়াটার, ১০. ডানকানের ন্যাচারাল মিনারেল ওয়াটার, ১১. আরার ডিউ ড্রিংকিং ওয়াটার, ১২. দীঘির ড্রিংকিং ওয়াটার, ১৩. প্রাণের লাচ্ছা সেমাই, ১৪. ডুডলি নুডুলস, ১৫. শান্ত ফুডের সফট ড্রিংক পাউডার (টেস্টি, তানি, তাসকিয়া), ১৬. জাহাঙ্গীর ফুড সফট ড্রিংক পাউডার, ১৭. ড্যানিশের হলুদের গুঁড়া, ১৮. প্রাণ এগ্রো লিমিটেডের হলুদের গুঁড়া (প্রাণ), ১৯. তানভীর ফুড লিমিটেডের হলুদের গুঁড়া ফ্রেশ, ২০. এসিআইয়ের ধনিয়ার গুঁড়া, ২১. কারি পাউডার (প্রাণ), ২২. কারি পাউডার ড্যানিস, ২৩. বনলতার ঘি, পিওর হাটহাজারী মরিচ গুঁড়া, ২৪. মিষ্টিমেলার লাচ্ছা সেমাই, ২৫. মধুবনের লাচ্ছা সেমাই, ২৬. মিঠাইয়ের লাচ্ছা সেমাই, ২৭. ওয়েল ফুডের লাচ্ছা সেমাই, ২৮. এসিআইয়ের আয়োডিনযুক্ত লবণ, ২৯. কিংয়ের ময়দা, ৩০. রূপসার দই, ৩১. মক্কার চানাচুর, ৩২. মেহেদীর বিস্কুট, ৩৩.বাঘাবাড়ীর স্পেশাল ঘি, ৩৪. নিশিতা ফুডসের সুজি, ৩৫. মধুবনের লাচ্ছা সেমাই, ৩৬. মঞ্জিলের হলুদ গুঁড়া, ৩৭. মধুমতির আয়োডিনযুক্ত লবণ, ৩৮. সান ফুডের হলুদ গুঁড়া, ৩৯. গ্রিন লেনের মধু, ৪০. কিরণের লাচ্ছা সেমাই, ৪১. ডলফিনের মরিচের গুঁড়া, ৪২. ডলফিনের হলুদের গুঁড়া, ৪৩. সূর্যের মরিচের গুঁড়া, ৪৪. জেদ্দার লাচ্ছা সেমাই, ৪৫. অমৃতের লাচ্ছা সেমাই, ৪৭. দাদা সুপারের আয়োডিনযুক্ত লবণ, ৪৮. তিন তীরের আয়োডিনযুক্ত লবণ, ৪৯. মদিনা স্টারশিপ আয়োডিনযুক্ত লবণ, ৫০. তাজ আয়োডিনযুক্ত লবণ, ৫১. নুরের আয়োডিনযুক্ত লবণ ও ৫২. মোল্লা সল্ট।

এর পর ৯ মে ৫২টি পণ্য বাজার থেকে প্রত্যাহার বা জব্দ চেয়ে কনসাস কনজ্যুমার সোসাইটির (সিসিএস) পক্ষে সংগঠনের নির্বাহী পরিচালক রিট করেন।

আজহার-কায়সারের আপিল শুনানি ১৮ জুন
                                  

স্টাফ রিপোর্টার :  একাত্তরে মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে মৃত্যুদণ্ডাদেশ পাওয়া জামায়াতে ইসলামীর নেতা এটিএম আজহারুল ইসলাম এবং সাবেক কৃষি প্রতিমন্ত্রী সৈয়দ মোহাম্মদ কায়সারের আপিলের বিষয়ে শুনানি শুরু হবে আগামী ১৮ জুন।

বুধবার সকালে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন চার সদস্যের আপিল বেঞ্চ এ আদেশ দেন। এই বেঞ্চের অপর তিন বিচারক হলেন বিচারপতি হাসান ফয?েজ সিদ্দিকী, বিচারপতি জিনাত আরা ও বিচারপতি মো. নুরুজ্জামান।

যুদ্ধাপরাধের বিচারে গঠিত আন্তর্জাতিক অপরধ ট্রাইব্যুনালে আজহারের মৃত্যুদণ্ডের রায় আসে ২০১৪ সালে। আর কায়সারের সর্বোচ্চ সাজার রায় হয় তার পরের বছর।

আইন অনুযায়ী ট্রাইব্যুনালের রায়ের এক মাসের মধ্যে খালাস চেয়ে আপিল করেন দণ্ডিত দুই যুদ্ধাপরাধী। এরপর ২০১৭ সালের ১৩ অগাস্ট এক আদেশে আপিল বিভাগ এ দুটি আপিলের সার সংক্ষেপ দাখিলের নির্দেশ দেয়।

ওই বছর ১০ অক্টেবর দুই আপিলের ওপর শুনানি শুরু হওয়ার কথা থাকলেও আসামিপক্ষের সময়ের আবেদনে তা পিছিয়ে যায়। প্রায় দেড় বছর পর বুধবার মামলা দুটি সর্বোচ্চ আদালতের কার্যতালিকায় আসে।

আসামিদের পক্ষে এদিন আদালতে ছিলেন আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন, এস এম শাজাহান ও শিশির মনির। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।

দুই মামলার আপিল শুনানির জন্য ১৮ জুন দিন ঠিক করে দিয়ে প্রধান বিচারপতি বলেন, সেদিন কার্যতালিকার ১ নম্বরে এটিএম আজহারুল ইসলাম এবং ২ নম্বরে সৈয়দ মোহাম্মদ কায়সার আপিল মামলা থাকবে।

প্রধান বিচারপতি বলেন, আমরা দুটো একসঙ্গে দেখব, একটার পর একটা।

এ সময় খন্দকার মাহবুব ৮ সপ্তাহ সময় চাইলে তা নাকচ করে দেন প্রধান বিচারপতি।

তিনি বলেন, সময় তো আট সপ্তাহের বেশিই দেওয়া হল, ১৮ জুন শুনানি। এ মামলাগুলো দেরি করা যাবে না, তাতে (কার্যতালিকার) নিচে চলে যায়।

এই বেঞ্চের অপর তিন বিচারক হলেন বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী, বিচারপতি জিনাত আরা ও বিচারপতি মো. নুরুজ্জামান।

শাহজাদপুরে সরকারি গাছ সাব রেজিস্ট্রারের বাড়িতে
                                  

টি.এম.এ হাসান: সিরাজগঞ্জ জেলার শাহজাদপুর উপজেলা সাব রেজিস্ট্রার সুব্রত কুমার দাস অফিসের সামেন থেকে ৩টি মেহগনি গাছ কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়াই কেটে ফেলেছেন। এর মধ্য থেকে একটি গাছ উনার বাড়িতে নিয়ে গেছেন অপর একটি গাছ বিক্রি করে দিয়েছে এবং অপর গাছটি অফিসের পেছনে ফেলে রেখেছেন। গাছ কাটার পূর্বে কোন অনুমোদন বা নিয়ম নীতির তোয়াক্কা করেননি। এ ব্যাপারে একজন সিনিয়র সাংবাদিক জেলা প্রশাসক বরাবর অভিযোগ দায়ের করেছেন।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় যে, সাব রেজিস্ট্রার সুব্রত কুমার দাস ৩টা গাছ কর্তন করেছেন। ১টা গাছ কর্তন করে বিক্রি করেছেন, ২য় টা কর্তন করে কাঠ চেরাই করে ও নিজ বাড়িতে নিয়ে গেছে এবং কিছু অফিসের মাঠে ফেলে রেখেছে, ৩য় টা কর্তন করে অফিসের পিছনে ফেলে রেখেছে। অভিযুক্ত সাবরেজিষ্ট্রারকে এ বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি জানান, ‘আমি গাছ কাটার অনুমোদন নেওয়ার প্রয়োজন মনে করি নাই। কারণ অফিসের প্রয়োজনে আমি গাছ কর্তন করেছি, এর বেশি কিছু আমি বলতে পারব না। উপজেলায় কর্মরত দলিল লেখকগণ নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকে এই সাব রেজিস্ট্রার দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকে ৫ জন দলিল লেখককে সাময়িক বরখাস্ত করে রেখেছেন। ভয়ে উনার সাথে কোন কথা বলা যায় না।
এলাকাবাসী এই মূল্যবান গাছ কর্তন করার বিষয়ে আইনী কোন নিয়ম-কানুন মানা হয়নি বলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করছি।

কোকাকোলার বোতলে বিকৃত বাংলা শব্দের ব্যবহার বন্ধে রিট
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক : কোমল পানীয় কোম্পানি কোকাকোলার (কোক) বোতলে অশালীন ও বিকৃত বাংলা শব্দের ব্যবহার কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না এবং সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে কেন শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেওয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে এসব অশালীন শব্দের ব্যবহার বন্ধে কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না, রুলে তাও জানতে চেয়েছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহাসান এবং বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রুল জারি করেন। আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন রিটকারী আইনজীবী মো. মনিরুজ্জামান রানা।

আগামী ৪ সপ্তাহের মধ্যে আইন মন্ত্রণালয়, তথ্য মন্ত্রণালয়, সংস্কৃতি মন্ত্রণালয় ও শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব, বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক এবং বেভারেজ কোম্পানি কোকাকোলাসহ মোট নয় জন বিবাদীকে এই রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।।

এর আগে গত ২৭ ফেব্রুয়ারি কোমল পানীয় কোকা-কোলার বোতলের বিজ্ঞাপনে জটিল, চরম, মাথা নষ্ট, বাবু, ঢিলা, ফাঁপর, জান, গুটি, গাব, আগুন, কড়া, অস্থির, পার্ট, প্যারা, ব্যাপক, যা-তা এর মতো বাংলা শব্দের ব্যবহার নিয়ে হাইকোর্টে রিট করা হয়। আবেদনকারীর আইনজীবী হচ্ছেন চন্দন চন্দ্র সরকার।

মনিরুজ্জামান রানা সাংবাদিকদের বলেন, এ শব্দগুলো বোতলে বিজ্ঞাপন দিয়ে তারা প্রচার করছে। এটা আপত্তিজনক। আমরা চাই এ ধরনের ব্যবহার থেকে বিরত থাকতে। কারণ একটা শিশু দোকানে গিয়ে বলছে ‘আমাকে একটা প্যারা দেন’। ‘একটা মাথা নষ্ট দেন’। এটার তো নেগেটিভ ইম্প্যাক্ট হচ্ছে। তাই এটার ব্যবহার বন্ধ করতে হবে। এ কারণেই রিট আবেদন করা হয়েছে।

ঢাকা জজ আদালতে লিফট ছিঁড়ে আহত ১২
                                  

স্টাফ রিপোর্টার : ঢাকা জেলা দায়রা জজ আদালতে ছয়তলা ভবনের একটি লিফট ছিঁড়ে পড়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার দিকের এই দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন অন্তত ১২ জন। পরে খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের তিনটি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে আহতদের উদ্ধার করে।

ফায়ার সার্ভিসের সদর দপ্তরের ডিউটি অফিসার কামরুল ইসলাম জানান, পুরোনো ঢাকার জজকোর্টের ছয়তলা ভবনের একটি লিফট উপর থেকে ছিঁড়ে নিচে পড়ে যায়। এতে লিফটম্যানসহ সেখানে থাকা ১২ জন আহত হন। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের তিনটি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে আহতদের উদ্ধার করে।

আহতদের প্রথমে ঢাকা ন্যাশনাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পড়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) ও পঙ্গু হাসপাতালে নেয়া হয়েছে।

ঢামেকে ভর্তি আহতের নাম জানা গেছে। তারা হলেন- হাজিরা দিতে আসা আসামি সুজন (২২), আইনজীবী সোয়াদ (৩৫), পেশকার সুমন (২৫), আইনজীবী মিঠু (৩৫), লিফটম্যান জাহাঙ্গীর (৫০), আইনজীবী আইয়ুব আলী (৫৮) ও আইনজীবী সুলতান আহমেদ (৩১)।

পঙ্গ হাসপাতালে ভর্তি একজনের নাম জানা গেছে। তিনি হলেন- আইনজীবী শামসুন্নাহার। তার বাম পায়ে আঘাত পেয়েছেন।

ঢামেক জরুরি বিভাগের চিকিৎসক জানান, আহতদের কেউ মাথায়, কেউ ঘারে কেউ কোমড়ে আঘাত পেয়েছেন।

নির্বাচনী ট্রাইব্যুনালে ঐক্যফ্রন্টের ৭৪ মামলা
                                  

স্টাফ রিপোর্টার : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভোটে অনিয়মের অভিযোগ এনে ভোট বাতিল চেয়ে ঢাকাসহ আটটি বিভাগের জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতারা হাইকোর্টের নির্বাচনী ট্রাইব্যুনালে ৭৪টি মামলা করেছেন। আবেদনে তিনটি বিষয় উল্লেখ করা হয়েছে।

তা হলো- একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন বাতিল ঘোষণা, নির্বাচনে যিনি বিজয়ী হয়ে আসছেন তাকে বাতিল ঘোষণা এবং অপর প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীকে বিজয়ী ঘোষণা চেয়ে আবেদন করা হয়েছে। গত সোমবার থেকে বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৫টা পর্যন্ত হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় ৭৪টি মামলা করেছেন বিএনপি ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থীরা। এ ছাড়া আরো কয়েকটি মামলা করার প্রস্তুতি চলছে বলে জানা যায়। এ বিষয়ে প্রার্থীদের প্যানেল আইনজীবী এ কে এম এহসানুর রহমান বলেন, বিকেল ৬টা পর্যন্ত ৭৪টি আবেদন দায়ের করা হয়েছে।

এহসানুর রহমান বলেন, আমি মেহেরপুর-১ আসনে বিএনপির প্রার্থী মাসুদ অরুনের পক্ষে আবেদন জমা দিয়েছি। এসব আবেদনের মাধ্যমে নির্বাচনে যে অনিয়ম হয়েছে সে বিষয়ে আমরা আদালতে উপস্থাপন করব। আবেদনগুলোতে কী বলা হয়েছে এমন প্রশ্নের জবাবে বিএনপির আইন বিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার কায়সার কামাল বলেন, গত ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত নির্বাচনে ভোট ডাকাতির মতো ঘটনা বাংলাদেশের ইতিহাসে আর কখনো হয়নি। নির্বাচনের আগের রাতে প্রায় ৮০ ভাগ ভোটের বাক্স পূরণ করে রাখা হয়। এ ছাড়া অনেক কেন্দ্রে শতভাগ ভোট গ্রহণ হয়েছে; যা হাস্যকর। তিনি বলেন,অনেক কেন্দ্রে মৃতলোক ভোট দিয়ে গেছে এ ধরনের তথ্য রয়েছে।

প্রথমে গত সোমবার মামলা করেন ঝিনাইদহ-৪ আসনে বিএনপির প্রার্থী সাইফুল ইসলাম ফিরোজ ও টাঙ্গাইল-৭ আসনে বিএনপির আবুল কালাম আজাদ সিদ্দিকী।  এরপর গত বুধবার হাইকোর্টের নির্বাচনী ট্রাইব্যুনালে মামলা করেন বিএনপির আরো পাঁচজন।

তাঁরা হলেন বরিশাল-১ আসনের জহির উদ্দিন স্বপন, গাজীপুর-৪ আসনের শাহ রিয়াজুল হান্নান, মৌলভীবাজারের-৩ আসনের নাসের রহমান, মুন্সীগঞ্জ-৩ আসনের আবদুল হাই ও ভোলা-২ আসনের মো. হাফিজ ইব্রাহিম। গতকাল বৃহস্পতিবার হাইকোর্টের নির্বাচনী ট্রাইব্যুনালে মামলা করেন বিএনপি ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ৬৬ জন প্রার্থী। এঁদের মধ্যে রয়েছেন ঢাকা-৬ আসনের জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী, ঢাকা-৭ আসনের মোস্তফা মোহসিন মন্টু, ঢাকা-১৯ আসনের বিএনপির প্রার্থী ডা. দেওয়ান মোহাম্মদ সালাউদ্দিন বাবু, কুড়িগ্রাম-৩ আসনের প্রার্থী আসভিরুল ইসলাম, লালমনিরহাট-১ আসনের হাসান রাজীব প্রবীন, দিনাজপুর-৪ আসনের আখতারুজ্জামান মিয়া, দিনাজপুর-২ আসনের মো. সাদিক রিয়াজ, রংপুর-৬ আসনের সাইদুল ইসলাম ও গাইবান্ধা-৫ আসনের মো. ফারুক আলম সরকার।

এসব আবেদনে নির্বাচনে কারচুপি, জালিয়াতি ও ভোট ডাকাতির অভিযোগ আনা হয়েছে। গত ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত জাতীয় সংসদ নির্বাচন বাতিল করে আবারও ভোটের দাবিতে বিএনপি, গণফোরামসহ জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের অন্য প্রার্থীরা হাইকোর্টে এই মামলা করেন। হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট বিভাগ ও বিএনপির আইনজীবীরা এ তথ্য জানিয়েছেন। এরই মধ্যে বিএনপির পক্ষ থেকে এসব মামলা পরিচালনা করার জন্য আইনজীবীদের নিয়ে একটি প্যানেল গঠন করা হয়েছে। কয়েকজন জ্যেষ্ঠ আইনজীবীকে ভাগ করে মামলাগুলো পরিচালনার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

গত ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ বিপুল ভোটে জয়ী হয়ে টানা তৃতীয়বারের মতো ক্ষমতায় এসেছে। ৩০০ আসনের মধ্যে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন জোট পেয়েছে ২৮৬টি এবং বিরোধীপক্ষ বিএনপি নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট পেয়েছে মাত্র আটটি আসন। ঐক্যফ্রন্ট নির্বাচনে ব্যাপক কারচুপির অভিযোগ করেছে এবং পুনরায় নির্বাচনের দাবি তুলে শপথ গ্রহণ করেনি। তাঁরা সংসদের যাবেন না বলে জানিয়েছেন।

ইস্কাটনে জোড়া খুন: সাবেক এমপিপুত্র রনির যাবজ্জীবন
                                  

স্বাধীন বাংলা রিপোর্ট: রাজধানীর ইস্কাটনে জোড়া খুনের মামলায় আওয়ামী লীগের সাবেক সংসদ সদস্য পিনু খানের ছেলে বখতিয়ার আলম রনিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। সেই সঙ্গে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও ছয় মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

বুধবার আলোচিত এ মামলার রায় ঘোষণা করেন ঢাকার দ্বিতীয় অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ মো. মঞ্জুরুল ঈমাম।

রায়ে বলা হয়, গুলির ঘটনার সময় স্বাভাবিক ছিলেন না রনি। তিনি মাতাল ছিলেন। তার মেয়ে হাসপাতালে থাকায় বিষণ্ণতায় ছিলেন। তাই তিনি মদপান করে নেশাগ্রস্ত ছিলেন। মামলার বিচারে তা প্রমাণিত হয়েছে।

রায়ে আরো বলা হয়, এ ঘটনায় তার (রনি) মৃত্যুদণ্ড শাস্তি হয়, কিন্তু শারীরিক ও মানসিক অবস্থা বিবেচনা করে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশ দেওয়া হলো।

আরো পড়ুন: পশ্চিমবঙ্গকে বাংলাদেশ তৈরি করছে তৃণমূল: বিজেপি

২০১৫ সালের ১৩ এপ্রিল তিন বন্ধুসহ রনি শেলবারে মদ পান করেন। এরপর গভীর রাতে বাসায় ফেরার পথে নিউ ইস্কাটন রোডে জ্যামে পড়লে রনি তার পিস্তল বের করে এলোপাতাড়ি গুলি ছোড়েন। গুলিতে রিকশাচালক আবদুল হাকিম ও অটোরিকশাচালক ইয়াকুব আলী গুরুতর আহত হন। পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ওই বছরের ১৫ এপ্রিল মারা যান হাকিম। আর ২৩ এপ্রিল মারা যান ইয়াকুব।

পরে হাকিমের মা মনোয়ারা বেগম রমনা থানায় অজ্ঞাত পরিচয়ে কয়েকজনকে আসামি করে মামলা করেন। ২৪ মে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ মামলার দায়িত্ব পাওয়ার পর সুনির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতে ৩১ মে রাজধানীর এলিফ্যান্ট রোডের বাসা থেকে রনিকে গ্রেফতার করে।

পরে ২০১৫ সালের ২১ জুলাই রনিকে একমাত্র আসামি করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন ঢাকা ডিবি পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) দীপক কুমার দাস।

রনির গাড়ির চালক ইমরান ফকির এবং ঘটনার দিন তার সঙ্গে থাকা কামাল মাহমুদ, টাইগার কামাল ও জাহাঙ্গীর আলম আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেন। সাক্ষীদের সাক্ষ্য পর্যালোচনায় দেখা যায়, রনি তার পিস্তল দিয়েই গুলি ছোড়েন। এই গুলিতেই হাকিম ও ইয়াকুব গুলিবিদ্ধ হয়ে হাসপাতালে মারা যান।

ঘটনার দিন কালো রঙের যে প্রাডো গাড়ি থেকে রনি গুলি চালিয়েছিলেন সেটি সাবেক সংসদ সদস্য পিনু খানের বলে গণমাধ্যমে খবর আসে সে সময়।

সবশেষ আলোচিত এই মামলার রায়ে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয় বখতিয়ার আলম রনিকে। এর আগে তিন দফা পেছায় রায়।

ঘুষের মামলায় জামিন পেলেন নাজমুল হুদা
                                  

স্বাধীন বাংলা রিপোর্ট: ঘুষ গ্রহণের মামলায় চার বছরের সাজার রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করার অনুমতি পেয়েছেন মন্ত্রী ব্যারিস্টার নাজমুল হুদা। একই সঙ্গে আপিলের নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত তাকে জামিন দেওয়া হয়েছে।

হাইকোর্টের দেওয়া সাজার রায়ের বিরুদ্ধে নাজমুল হুদার করা লিভ টু আপিল (আপিলের অনুমতি চেয়ে আবেদন) মঞ্জুর করে সোমবার এই আদেশ দেওয়া হয়। প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ এই আদেশ দেন।

হাইকোর্টের দেয়া সাজার রায়ের বিরুদ্ধে নাজমুল হুদার করা লিভ টু আপিল (আপিলের অনুমতি চেয়ে আবেদন) মঞ্জুর করে সোমবার এ আদেশ দেয়া হয়।

আপিল বিভাগের এ আদেশের ফলে কারাগারে থাকা নাজমুল হুদার কারামুক্তিতে আইনগত কোনো বাধা নেই বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট আইনজীবীরা। আদালতে নাজমুল হুদার পক্ষে ছিলেন আইনজীবী এএফ হাসান আরিফ, মুনসুরুল হক চৌধুরী, সিগমা হুদা ও আশানুর রহমান।

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) পক্ষে ছিলেন আইনজীবী খুরশীদ আলম খান।

হলি আর্টিজান হামলার পলাতক আসামি গ্রেফতার
                                  

স্বাধীন বাংলা রিপোর্ট: হলি আর্টিজান জঙ্গি হামলার অর্থ, অস্ত্র ও বিস্ফোরক সরবরাহকারী এবং ওই হামলা মামলার চার্জশিটভূক্ত আসামি মো. মামুনুর রশিদ ওরফে রিপন ওরফে রেজাউল করিমকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। এ সময় তার কাছ থেকে নগদ দেড় লাখ টাকা উদ্ধার করা হয়।

শনিবার মধ্যরাতে গাজীপুরের বোর্ডবাজার এলাকায় একটি বাস থেকে তাকে আটক করা হয়।

র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক মুফতি মাহমুদ খান বলেন, গোপন তথ্যের ভিত্তিতে বোর্ডবাজার এলাকায় রাত ১টার দিকে ঢাকামুখী একটি বাস থেকে রিপনকে আটক করা হয়। তিনি হালুয়াঘাট থেকে ঢাকার দিকে আসছিলেন।

তিনি আরও জানান, রিপন হলি আর্টিজানে জঙ্গি হামলায় অর্থ, অস্ত্র ও বিস্ফোরক সরবরাহকারী ছিলেন। এ ছাড়া হলি আর্টিজান হামলা মামলার চার্জশিটভুক্ত এ আসামি জেএমবির অন্যতম শূরা সদস্য বলে জানান মুফতি মাহমুদ। গ্রেফতারের সময় রিপনের কাছে দেড় লাখ টাকা পাওয়া গেছে বলে জানান তিনি।

রোববার কারওয়ানবাজারে র‌্যাবের মিডিয়া সেন্টারে সংবাদ সম্মেলন করে এ বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরা হবে বলে জানান র‌্যাবের এ কর্মকর্তা।

প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালের ১ জুলাই রাতে কূটনীতিক পাড়া গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে হামলা চালিয়ে ১৭ বিদেশিসহ ২০ জনকে হত্যা করে জঙ্গিরা। তাদের ঠেকাতে গিয়ে দুই পুলিশ কর্মকর্তাও নিহত হন। ওই ঘটনায় গুলশান থানায় সন্ত্রাস বিরোধী আইন, হত্যাকাণ্ড ও তথ্য গোপনের অভিযোগে তিনটি মামলা করে পুলিশ।

নোয়াখালীতে ফের গণধর্ষণ
                                  

নোয়াখালী প্রতিনিধি: নোয়াখালীর কবির হাটে এক গৃহবধু ধর্ষণের শিকার হয়েছেন। ধর্ষিতার অভিযোগের প্রেক্ষিতে জাকির হোসেন নামে একজনকে আটক করেছে পুলিশ।

এ ঘটনায় ধর্ষণের শিকার ওই নারী বাদী হয়ে আটক জাকির হোসেনসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন।
 
জানা গেছে, ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার মধ্যরাতে। পুলিশ ভিকটিমকে আজ (শনিবার) দুপুরে তার বাড়ি থেকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে।

রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত তাকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নেওয়ার প্রস্তুতি চলছিলো।

কবির হাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মির্জা হাসান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলনে, ঘটনাটি শুনে ধর্ষণের শিকার নারীকে থানায় এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী জাকির হোসেন নামে একজনকে আটক করা হয়েছে। গৃহবধুর স্বামী একজন রাজ মিস্ত্রী। বর্তমানে তিনি কারাগারে আছেন। আটক ব্যক্তি একই এলাকার দোকানদার। বিষয়টি গভীরভাবে তদন্ত করা হচ্ছে।

ঢাকা উত্তর সিটির মেয়র নির্বাচনে বাধা নেই
                                  

স্বাধীন বাংলা রিপোর্ট: ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র পদে উপনির্বাচন হতে বাধা নেই। এই নির্বাচনের উপর দেয়া স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার করে নিয়েছে হাইকোর্ট। বিচারপতি গোবিন্দ চন্দ্র ঠাকুর ও বিচারপতি মোহাম্মদউল্লাহর ডিভিশন বেঞ্চ আজ বুধবার এ রায় দেন।

এর আগে গত বছরের গত ৯ জানুয়ারি ওই নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। ঘোষিত তফসিলের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে পৃথক দুটি রিট করেন দুই ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান।

একজন হলেন ভাটারা ইউপির চেয়ারম্যান আতাউর রহমান। অপরজন হলেন বেরাইদ ইউপির চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম।

রিটের একটিতে প্রধান নির্বাচন কমিশন, স্থানীয় সরকার সচিব ও উত্তর সিটি কর্পোরেশনের ভারপ্রাপ্ত মেয়রকে বিবাদী করা হয়েছে। আরেকটিতে প্রধান নির্বাচন কমিশন, নির্বাচন কমিশন সচিব, স্থানীয় সরকার সচিব ও নির্বাচন কমিশনের যুগ্ম সচিবকে বিবাদী করা হয়েছে।

আতাউর রমানের পক্ষে হাইকোর্টে শুনানি করেন মোস্তাফিজুর রহমান খান ও আহসান হাবিব ভূঁইয়া। জাহাঙ্গীর আলমের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী কামরুল হক সিদ্দিকী ও মো. জাহাঙ্গীর হোসাইন সেলিম। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মো. মোখলেছুর রহমান।

আইনজীবীরা জানান, গত ৯ জানুয়ারির ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী ১৮ জানুয়ারি মনোনয়নপত্র দাখিল করতে হবে। কিন্তু এখন পর্যন্ত ভোটার তালিকা প্রকাশ করা হয়নি। এখন যিনি প্রার্থী হবেন তিনি কিন্তু জানেন না তিনি ভোটার কিনা।

তাছাড়া মনোনয়নপত্রে ৩০০ ভোটারের স্বাক্ষর থাকতে হবে। ভোটার তালিকা প্রকাশ না হলে এটা সম্ভব হচ্ছে না।

এছাড়া স্থানীয় সরকার (সিটি কর্পোরেশন) আইন, ২০০৯-এর ৫ (৩) উপধারা অনুযায়ী ‘মেয়রের পদসহ কর্পোরেশনের শতকরা ৭৫ ভাগ ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হইলে এবং নির্বাচিত কাউন্সিলরদের নাম সরকারি গেজেটে প্রকাশিত হইলে, কর্পোরেশন, এই আইনের অন্যান্য বিধান সাপেক্ষে, যথাযথভাবে গঠিত হইয়াছে বলিয়া গণ্য হইবে।’

এ আইন মতে, উত্তর সিটি কর্পোরেশনে নতুন যুক্ত হওয়া ১৮টি মিলে কাউন্সিলর শতকরা ৭৫ ভাগ হয় না। কারণ নতুন ১৮টিতে তো নির্বাচনই হয়নি।

সে হিসেবে মেয়র পদই তো গঠিত হচ্ছে না। তাছাড়া, সম্প্রসারিত ১৮টি ওয়ার্ডে যারা কাউন্সিলর হবেন তারা কত দিনের জন্য নির্বাচিত হবেন। তারা কি পাঁচ বছরের জন্য হবেন, না আড়াই বছরের জন্য নির্বাচিত হবেন।

এর আগে ৯ জানুয়ারি নির্বাচন কমিশন (ইসি) ডিএনসিসির মেয়র পদে উপনির্বাচন এবং নতুন সংযোজিত ১৮টি ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে।

একই সঙ্গে ওই দিন ডিএসসিসির নতুন সংযোজিত ১৮টি ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে, এবং দুই কর্পোরেশনের ৬টি করে ১২টি সংরক্ষিত মহিলা আসনে নির্বাচনেরও তফসিল ঘোষণা করা হয়।

তফসিল অনুযায়ী মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন ১৮ জানুয়ারি, এবং ২৬ ফেব্রুয়ারি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল।

পরে ১৭ জানুয়ারি হাইকোর্ট নির্বাচন তিন মাসের জন্য স্থগিত করেন। এছাড়া এ নির্বাচনের জন্য নির্বাচন কমিশনের ঘোষিত তফসিল কেন ‘আইনগত কর্তৃত্ব বহির্ভূত’ ঘোষণা করা হবে না- তা জানতে চেয়ে রুল জারি করা হয়

পায়ে ফোঁড়া, আদালতে যাননি খালেদা জিয়া
                                  

স্বাধীন বাংলা রিপোর্ট: পায়ে ফোঁড়া উঠার কারণে গ্যাটকো দুর্নীতি মামলায় কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে আদালতে হাজির করতে পারেনি কারা কর্তৃপক্ষ।

তবে তাকে আদালতে হাজির না করে আদালতে কাস্টরি ওয়ারেন্ট পাঠায় কারা কর্তৃপক্ষ। কাস্টরি ওয়ারেন্টে উল্লেখ করা হয়, খালেদা জিয়া শারীরিকভাবে অসুস্থ, তাই তাকে আদালতে উপস্থিত করানো যায়নি।

এ বিষয়ে আদালতের শুনানিতে দুদকের আইনজীবী মোশাররফ হোসেন কাজল বলেন, খালেদা জিয়ার পায়ে ফোঁড়া ওঠায় তাকে আদালতে আনা সম্ভব হয়নি। তাই কারা কর্তৃপক্ষ কাস্টরি ওয়ারেন্ট পাঠিয়েছে।

ভিকারুননিসায় অভিযানে দুদক
                                  

স্বাধীন বাংলা রিপোর্ট: অবৈধভাবে ভর্তির অভিযোগে ভিকারুননিসা নূন স্কুল এন্ড কলেজে অভিযান চালাচ্ছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। বুধবার (১৬ জানুয়ারি) বেলা সোয়া ১১টায় দুর্নীতি বিরোধী সংস্থাটির দুই সদস্যের টিম অভিযান চালায়। দুদকের হট লাইনে (১০৬) জনৈক ব্যক্তির অভিযোগের ভিত্তিতে এ অভিযান চালাচ্ছে দুদক।

সূত্রে জানা গেছে, প্রতিষ্ঠানের প্রথম শ্রেণির লটারিতে ভর্তি কার্যক্রম শেষ হয়েছে গত ডিসেম্বরে। কিন্তু এরপরও মঙ্গলবার (১৫ জানুয়ারি) নতুন করে ভর্তি কার্যক্রম শুরু করে। সেটিও আজ (বুধবার) অব্যহত ছিল। ঘোষিত আসনের বাইরে অবৈধভাবে এ ভর্তির খবর দুদকের হট লাইনে (১০৬) কে বা কারা জানিয়ে দেয়। এরপরই তাৎক্ষণিকভাবে অভিযানে নামে দুদক। এ রিপোর্ট লেখাকালে প্রতিষ্ঠানটির আইটি রুমে কম্পিউটারে সংরাক্ষিত ভর্তির তথ্যাদি যাচাই করছিলেন সংস্থাটির দুই সদস্যের টিম।

সূত্র জানায়, ভিকারুননিসার ভর্তির অর্থ কলেজ ক্যাম্পাসের পূর্ব দিকে অবস্থিত সোনালী ব্যাংকের শাখায় জমা দিতে হয়। অবৈধ ভর্তি গোপন রাখতে ব্যাংক কর্মকর্তাদের স্কুলের ভেতরে নিয়ে আসা হয় বলেও অভিযোগ রয়েছে। সমাজের বিভিন্ন স্তরের ব্যক্তিদের ম্যানেজ করতে তাদের অনুরোধে ভর্তিসহ নানা সুবিধা নিয়ে ভর্তির এ আয়োজন করা হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ভিকারুননিসা নূন স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ (ভারপ্রাপ্ত) হাসিনা বেগম জাগো নিউজকে বলেন, অভিযান নয়, দুদকের কর্মকর্তারা জানতে এসেছিলেন। আমরা তাদের বোঝাতে সক্ষম হয়েছি। তারা কিছুক্ষণ আগে চলে গেছেন।

তিনি আরও বলেন, কারো অনুরোধে যদি আমরা বাড়তি ভর্তি করি তবে তা অবৈধ ভর্তি বলে গণ্য হবে না। ভিকারুননিসা একটি সুনামধারী প্রতিষ্ঠান, এখানে সকলের আগ্রহ থাকে পড়তে বা পড়াতে। আমাদের সীমাবন্ধতা থাকায় আমরা অতিরিক্ত ভর্তি করতে পারছি না। তবে আমরা এখনো বাড়তি ভর্তি করানো হয়নি।

জামিন পেলেন অভিনেত্রী নওশাবা
                                  

স্বাধীন বাংলা রিপোর্ট: ফেসবুকে গুজব ছড়ানোর অভিযোগে করা মামলায় অভিনেত্রী কাজী নওশাবা আহমেদের স্থায়ী জামিন আবেদন মঞ্জুর করেছেন আদালত। আজ মঙ্গলবার ঢাকা মহানগর হাকিম দিদার হোসাইন তার স্থায়ী জামিনের আবেদন মঞ্জুর করেন।

এদিন স্থায়ী জামিন নিতে আদালতে উপস্থিত হন কাজী নওশাবা। পরে তার আইনজীবী এএইচ ইমরুল হোসেন স্থায়ী জামিনের আবেদন করেন।

শুনানিতে তিনি বলেন, কাজী নওশাবা আজ পর্যন্ত এ মামলায় জামিনে আছেন। এর আগেও তিনি এ মামলায় দুবার অস্থায়ী জামিন নিয়েছেন। তিনি জামিনের কোনো শর্ত ভঙ্গ করেননি। অভিনয়ের কাজে তাকে ব্যস্ত থাকতে হয়। তাই তার স্থায়ী জামিনের আবেদন করছি।

অন্যদিকে মঙ্গলবার মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের দিন ধার্য ছিল। তবে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা (আইও) প্রতিবেদন দাখিল না করায় আদালত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য আগামী ৩ মার্চ দিন ধার্য করেন।

মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, গত ৪ আগস্ট কাজী নওশাবা নিজের ফেসবুক থেকে অত্যন্ত আবেগি কণ্ঠে লাইভ ভিডিও সম্প্রচার করে বলেন, ‘জিগাতলায় আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা করে একজনের চোখ উঠিয়ে ফেলেছে এবং চারজনকে মেরে ফেলেছে। আপনারা যে যেখানে আছেন কিছু একটা করুন।’

জিগাতলায় এ ধরনের ঘটনা নিয়ে তার এ ভিডিও মুহূর্তের মধ্যে ভাইরাল হয়। ওই দিনই রাজধানীর উত্তরার বাসা থেকে তাকে আটক করেন র‌্যাব সদস্যরা।

এ ঘটনায় ৫ আগস্ট তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি আইনে রাজধানীর উত্তরা পশ্চিম থানায় তার বিরুদ্ধে মামলা হয়।


   Page 1 of 72
     আইন - অপরাধ
মানহানির দুই মামলায় খালেদা জিয়ার ছয় মাসের জামিন
.............................................................................................
আজ সাইবার ট্রাইব্যুনালে হাজির করা হবে মোয়াজ্জেমকে
.............................................................................................
ভেজাল ও মানহীন পণ্যের বিরুদ্ধে অভিযান চালানোর নির্দেশ হাইকোর্টের
.............................................................................................
আজহার-কায়সারের আপিল শুনানি ১৮ জুন
.............................................................................................
শাহজাদপুরে সরকারি গাছ সাব রেজিস্ট্রারের বাড়িতে
.............................................................................................
কোকাকোলার বোতলে বিকৃত বাংলা শব্দের ব্যবহার বন্ধে রিট
.............................................................................................
ঢাকা জজ আদালতে লিফট ছিঁড়ে আহত ১২
.............................................................................................
নির্বাচনী ট্রাইব্যুনালে ঐক্যফ্রন্টের ৭৪ মামলা
.............................................................................................
ইস্কাটনে জোড়া খুন: সাবেক এমপিপুত্র রনির যাবজ্জীবন
.............................................................................................
ঘুষের মামলায় জামিন পেলেন নাজমুল হুদা
.............................................................................................
হলি আর্টিজান হামলার পলাতক আসামি গ্রেফতার
.............................................................................................
নোয়াখালীতে ফের গণধর্ষণ
.............................................................................................
ঢাকা উত্তর সিটির মেয়র নির্বাচনে বাধা নেই
.............................................................................................
পায়ে ফোঁড়া, আদালতে যাননি খালেদা জিয়া
.............................................................................................
ভিকারুননিসায় অভিযানে দুদক
.............................................................................................
জামিন পেলেন অভিনেত্রী নওশাবা
.............................................................................................
খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে প্রোডাকশন ওয়ারেন্ট
.............................................................................................
ডেমরায় দুই শিশু খুন: মূল অভিযুক্তসহ আটক ২
.............................................................................................
নাজমুল হুদাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ
.............................................................................................
৭ আসামী ৫ দিনের রিমান্ডে
.............................................................................................
গুজব-উসকানি ছড়ানোয় আটক ৮
.............................................................................................
কুমিল্লার মামলায় খালেদার জিয়ার জামিন বহাল
.............................................................................................
কারাগারে গিয়াস কাদের
.............................................................................................
পুলিশের গাড়িতে আগুন দেওয়া যুবক শনাক্ত: দাবি পুলিশের
.............................................................................................
আদালতে খালেদা জিয়া
.............................................................................................
জামিনে মুক্ত আমীর খসরু
.............................................................................................
লিয়াকত-আমিনুলের মৃত্যুদণ্ড
.............................................................................................
ব্যারিস্টার মইনুলকে ছাত্রলীগের চড়-থাপ্পড়-জুতা নিক্ষেপ
.............................................................................................
ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় শোন অ্যারেস্ট ব্যারস্টিার মইনুল
.............................................................................................
খালেদা জিয়ার সাজা বেড়ে ১০ বছর
.............................................................................................
জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় খালেদা জিয়ার ৭ বছরের কারাদণ্ড
.............................................................................................
খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতেই বিচার চলবে: আদালত
.............................................................................................
মইনুল ও জাফরুল্লাহর জামিন স্থগিতের শুনানি সোমবার
.............................................................................................
ব্যারিস্টার মইনুলকে আজ আদালতে তোলা হবে
.............................................................................................
তৃতীয় মামলাতেও ডা. জাফরুল্লাহ’র জামিন
.............................................................................................
কুড়িগ্রামের মামলায় ব্যারিস্টার মইনুলের জামিন আবেদন
.............................................................................................
খালেদা জিয়ার রায় ২৯ অক্টোবর
.............................................................................................
খালেদার অনুপস্থিতিতেই চলবে বিচার
.............................................................................................
শপথ নিলেন নতুন তিন বিচারপতি
.............................................................................................
দুর্নীতির মামলায় খালাস মায়া চৌধুরী
.............................................................................................
মুন সিনেমার মালিককে ৯৯ কোটি টাকা দেবে সরকার
.............................................................................................
অবৈধভাবে সিম বিক্রির অভিযোগে আটক ২
.............................................................................................
খালাফ হত্যা মামলায় সাইফুলের মৃত্যুদণ্ড বহাল
.............................................................................................
খালাফ হত্যা : সাইফুলের সাজা বহাল থাকবে কি না জানা যাবে রোববার
.............................................................................................
খালেদা জিয়ার বিচার প্রশ্নে আদেশ আজ
.............................................................................................
৫ দিনের রিমান্ডে বিএনপি নেতা সোহেল
.............................................................................................
সাতক্ষীরায় একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পে লুটপাটের অভিযোগ
.............................................................................................
২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলা : রায়ের দিন ধার্য হতে পারে আজ
.............................................................................................
এবি ব্যাংকের সাবেক চেয়ারম্যানকে দুদকে তলব
.............................................................................................
শহিদুল আলমের ডিভিশন বহাল
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আখলাকুল আম্বিয়া
নির্বাহী সম্পাদক: মাে: মাহবুবুল আম্বিয়া

সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: স্বাধীনতা ভবন (৩য় তলা), ৮৮ মতিঝিল বাণিজ্যিক এলাকা, ঢাকা-১০০০। Editorial & Commercial Office: Swadhinota Bhaban (2nd Floor), 88 Motijheel, Dhaka-1000.
সম্পাদক কর্তৃক রঙতুলি প্রিন্টার্স ১৯৩/ডি, মমতাজ ম্যানশন, ফকিরাপুল কালভার্ট রোড, মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত ।
ফোন : ০২-৯৫৫২২৯১ মোবাইল: ০১৬৭০৬৬১৩৭৭

Phone: 02-9552291 Mobile: +8801670 661377
ই-মেইল : dailyswadhinbangla@gmail.com , editor@dailyswadhinbangla.com, news@dailyswadhinbangla.com

 

    2015 @ All Right Reserved By dailyswadhinbangla.com

Developed By: Nytasoft