বুধবার, ১৫ জুলাই 2020 | বাংলার জন্য ক্লিক করুন
  
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   অর্থ-বাণিজ্য -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
দিনাজপুরে করোনায় পশু বিক্রি নিয়ে শঙ্কায় খামারিরা

মো. নূর ইসলাম নয়ন, দিনাজপুর প্রতিনিধি : আসন্ন ঈদুল আযাহাকে কেন্দ্র করে দিনাজপুরে গরু, ছাগল, ভেড়া ও মহিষ মিলে ১ লাখ ৯৪ হাজার ২৭৩টি কোরবানির পশু প্রস্তুত করেছেন খামারিরা। যা জেলার চাহিদা মিটিয়ে উদ্বৃত্ত পশু দেশের বিভিন্ন স্থানে সরবরাহ করা সম্ভব হবে। জেলায় চাহিদার চেয়ে উদ্বৃত্ত রয়েছে ৫৯ হাজার ২৫৩টি গবাদিপশু। এবার দিনাজপুর জেলায় সাড়ে ৭০০ কোটি টাকার কেনা-বেচার জন্য গবাদি পশু প্রস্তুত রয়েছে বলে জানিয়েছেন জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. মো. শাহিনুর আলম।
 
এদিকে, কোরবানির ঈদে করোনা মহামারির কারণে গরু-ছাগল বিক্রি এবং ন্যায্য দাম পাওয়া নিয়ে শঙ্কায় রয়েছেন খামারিরা। যেহেতু করোনায় অনেক পেশার মানুষের আয়-রোজগার কমে গেছে। এরপরেও পশুর হাটগুলোতে কমই দেখা যায় স্বাস্থবিধি মেনে কেনাবেচা করা। তাই করোনা সংক্রমণের ভয়ে কেনা-বেচা কম হতে পারে। তবে এক্ষেত্রে জেলা প্রাণিসম্পদ বিভাগ জেলায় ‘অনলাইন পশুর হাট, দিনাজপুর’ নামে ফেইসবুক পেইজ খুলেছেন। এরপরেও বিভিন্ন উপজেলাতেও অনলাইনে কেনাবেচার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

হাকিমপুরের ছাতনি গ্রামের খামারি সফিকুল ও ডাঙ্গাপাড়া গ্রামের জাহিদুল ইসলামসহ কয়েকজন জানান, কোরবানির জন্য লাভের আশায় গরু-ছাগল প্রস্তুত করা হয়েছে। প্রাণিসম্পদ অফিসের পরামর্শে প্রাকৃতিক উপায়ে খড়, কাঁচা ঘাস, খৈল, ভুষি, খুদের ভাত খাওয়ায়ে গরু-ছাগল মোটাতাজা করা হয়েছে। কেউবা উন্মুক্ত মাঠে চরিয়ে গরু ছাগল লালন পালন করছেন। কিন্তু করোনার কারণে গরু-ছাগল নিয়ে চিন্তিত। বাইরে থেকে ক্রেতা আসতে না পারা, পশুরহাটও জমছে না। যেসব বাইরের ব্যবসায়ী আসছেন, তারা দাম কম বলছেন। এসব কারণে গরু-ছাগল বিক্রি করতে পারছি না।

এদিকে, গো-খাদ্যের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় আমাদের গরু-ছাগল পালনে আগের চেয়ে খরচ বেশি হয়েছে। তাই কোরবানিকে ঘিরে ভারত থেকে কোনোভাবেই বৈধ বা অবৈধপথে দেশে গরু না আসতে পারে, এ ব্যাপারে সরকারকে পদক্ষেপ নেওয়ার অনুরোধ জানাচ্ছি।

হাকিমপুর উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. আব্দুস সামাদ বলেন, করোনাকালীন খামারিদের সবচেয়ে বেশি সমস্যা মার্কেটিং বা বিপণনে। এ জন্য আমাদের দফতর থেকে একটি গ্রুপ পেজ খুলেছি। এতে খামারিদের বিক্রয়যোগ্য পশুর ছবি, ওজন অনুযায়ী মূল্য ও খামারিদের মোবাইল নম্বর আপলোড করা হচ্ছে। ক্রেতারা সংশ্লিষ্ট খামারিদের সঙ্গে কথা বলে বাড়িতে বসেই পশু ক্রয় করতে পারবেন। এতে করে খামারি ও ক্রেতারা উভয়েই লাভবান হবেন বলে আমরা মনে করি।

দিনাজপুর জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. মো. শাহিনুর আলম জানান, গরু ও মহিষসহ ১ লাখ ৯৪ হাজার ২৭৩টি এবং ছাগল-ভেড়া রয়েছে ৭২ হাজার ৪০৯টি। দিনাজপুরে আসন্ন কোরবানির ঈদে প্রয়োজন গরু-মহিষ প্রায় ৮৫ হাজার ৩৬৮টি এবং ছাগল-ভেড়া ৪৯ হাজার ৬৫২টি। শুধু কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে ছোট-বড় খামার ও বাড়িতে গরু মোটাতাজাকরণ করেছে ৬০ হাজারের অধিক পশু।

তিনি আরও জানান, করোনায় গরুর সব হাটেই নজর রাখা হচ্ছে যাতে রোগাক্রান্ত কোনো গবাদিপশু বিক্রি না হয়। এজন্য জেলায় ২৩টি মেডিকেল টিম গঠন করা হয়েছে এবং কাজ শুরু করেছে। ক্রেতা বিক্রেতাদের সচেতনতার জন্য ইতিমধ্যেই বিভিন্ন ধরনের পরামর্শ দেওয়া ও মনিটরিং করা হচ্ছে।

দিনাজপুরে করোনায় পশু বিক্রি নিয়ে শঙ্কায় খামারিরা
                                  

মো. নূর ইসলাম নয়ন, দিনাজপুর প্রতিনিধি : আসন্ন ঈদুল আযাহাকে কেন্দ্র করে দিনাজপুরে গরু, ছাগল, ভেড়া ও মহিষ মিলে ১ লাখ ৯৪ হাজার ২৭৩টি কোরবানির পশু প্রস্তুত করেছেন খামারিরা। যা জেলার চাহিদা মিটিয়ে উদ্বৃত্ত পশু দেশের বিভিন্ন স্থানে সরবরাহ করা সম্ভব হবে। জেলায় চাহিদার চেয়ে উদ্বৃত্ত রয়েছে ৫৯ হাজার ২৫৩টি গবাদিপশু। এবার দিনাজপুর জেলায় সাড়ে ৭০০ কোটি টাকার কেনা-বেচার জন্য গবাদি পশু প্রস্তুত রয়েছে বলে জানিয়েছেন জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. মো. শাহিনুর আলম।
 
এদিকে, কোরবানির ঈদে করোনা মহামারির কারণে গরু-ছাগল বিক্রি এবং ন্যায্য দাম পাওয়া নিয়ে শঙ্কায় রয়েছেন খামারিরা। যেহেতু করোনায় অনেক পেশার মানুষের আয়-রোজগার কমে গেছে। এরপরেও পশুর হাটগুলোতে কমই দেখা যায় স্বাস্থবিধি মেনে কেনাবেচা করা। তাই করোনা সংক্রমণের ভয়ে কেনা-বেচা কম হতে পারে। তবে এক্ষেত্রে জেলা প্রাণিসম্পদ বিভাগ জেলায় ‘অনলাইন পশুর হাট, দিনাজপুর’ নামে ফেইসবুক পেইজ খুলেছেন। এরপরেও বিভিন্ন উপজেলাতেও অনলাইনে কেনাবেচার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

হাকিমপুরের ছাতনি গ্রামের খামারি সফিকুল ও ডাঙ্গাপাড়া গ্রামের জাহিদুল ইসলামসহ কয়েকজন জানান, কোরবানির জন্য লাভের আশায় গরু-ছাগল প্রস্তুত করা হয়েছে। প্রাণিসম্পদ অফিসের পরামর্শে প্রাকৃতিক উপায়ে খড়, কাঁচা ঘাস, খৈল, ভুষি, খুদের ভাত খাওয়ায়ে গরু-ছাগল মোটাতাজা করা হয়েছে। কেউবা উন্মুক্ত মাঠে চরিয়ে গরু ছাগল লালন পালন করছেন। কিন্তু করোনার কারণে গরু-ছাগল নিয়ে চিন্তিত। বাইরে থেকে ক্রেতা আসতে না পারা, পশুরহাটও জমছে না। যেসব বাইরের ব্যবসায়ী আসছেন, তারা দাম কম বলছেন। এসব কারণে গরু-ছাগল বিক্রি করতে পারছি না।

এদিকে, গো-খাদ্যের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় আমাদের গরু-ছাগল পালনে আগের চেয়ে খরচ বেশি হয়েছে। তাই কোরবানিকে ঘিরে ভারত থেকে কোনোভাবেই বৈধ বা অবৈধপথে দেশে গরু না আসতে পারে, এ ব্যাপারে সরকারকে পদক্ষেপ নেওয়ার অনুরোধ জানাচ্ছি।

হাকিমপুর উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. আব্দুস সামাদ বলেন, করোনাকালীন খামারিদের সবচেয়ে বেশি সমস্যা মার্কেটিং বা বিপণনে। এ জন্য আমাদের দফতর থেকে একটি গ্রুপ পেজ খুলেছি। এতে খামারিদের বিক্রয়যোগ্য পশুর ছবি, ওজন অনুযায়ী মূল্য ও খামারিদের মোবাইল নম্বর আপলোড করা হচ্ছে। ক্রেতারা সংশ্লিষ্ট খামারিদের সঙ্গে কথা বলে বাড়িতে বসেই পশু ক্রয় করতে পারবেন। এতে করে খামারি ও ক্রেতারা উভয়েই লাভবান হবেন বলে আমরা মনে করি।

দিনাজপুর জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. মো. শাহিনুর আলম জানান, গরু ও মহিষসহ ১ লাখ ৯৪ হাজার ২৭৩টি এবং ছাগল-ভেড়া রয়েছে ৭২ হাজার ৪০৯টি। দিনাজপুরে আসন্ন কোরবানির ঈদে প্রয়োজন গরু-মহিষ প্রায় ৮৫ হাজার ৩৬৮টি এবং ছাগল-ভেড়া ৪৯ হাজার ৬৫২টি। শুধু কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে ছোট-বড় খামার ও বাড়িতে গরু মোটাতাজাকরণ করেছে ৬০ হাজারের অধিক পশু।

তিনি আরও জানান, করোনায় গরুর সব হাটেই নজর রাখা হচ্ছে যাতে রোগাক্রান্ত কোনো গবাদিপশু বিক্রি না হয়। এজন্য জেলায় ২৩টি মেডিকেল টিম গঠন করা হয়েছে এবং কাজ শুরু করেছে। ক্রেতা বিক্রেতাদের সচেতনতার জন্য ইতিমধ্যেই বিভিন্ন ধরনের পরামর্শ দেওয়া ও মনিটরিং করা হচ্ছে।

হিলি স্থলবন্দর দিয়ে মসলা আমদানি বৃদ্ধি, বাজারে দাম কমেছে
                                  

হিলি (দিনাজপুর) প্রতিনিধি: দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম স্থলবন্দর দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দর দিয়ে ৮ জুন থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে আমদানি-রপ্তানি শুরু হবার পর থেকেই এই বন্দর দিয়ে মসলা জাতীয় পণ্যের আমদানি বৃদ্ধি পেয়েছে। আমদানি বৃদ্ধি পাওয়ায় স্থানীয় আড়ৎ ও খুচরা বাজারে কমেছে এসব মসলা পণ্যের দাম। ঈদে দেশের বাজারে মসলার দাম স্বাভাবিক রাখতে বেশি বেশি আমদানি করা হচ্ছে বলে জানিয়েছে ব্যবসায়ীরা। অন্যদিকে আমদানি বাড়ায় সরকারের রাজস্ব বৃদ্ধি পাচ্ছে ।

আর কিছুদিন পর মুসলমানদের ধর্মীয় উৎসব ঈদুল আযাহা। প্রতিবছর এই ঈদকে সামনে রেখে দেশের বাজারে মসলা জাতীয় পণ্যের যেমন চাহিদা বাড়ে। আমদানি বাড়ায় স্থানীয় আড়ৎ ও খুচরা বাজারে কমেছে আমদানিকৃত আদা, রসুন, জিরা, পেঁয়াজসহ বিভিন্ন ধরনের মসলার দাম। এদিকে বাজারে কম দামে কিনতে পারায় খুশি স্থানীয়রা।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, লকডাউনের আগে হিলির আড়ৎ ও খুচরা বাজারে প্রতি প্যাকেট জিরা বিক্রি হয়েছে ৪৬০ টাকা দরে, এখন তা টাকা কমে প্রতি প্যাকেট বিক্রি হচ্ছে প্রকারভেদে ২৬০ থেকে ২৮০ টাকায়। সাদা এলাচ বিক্রি হয়েছে ৩২০০ টাকা কেজি দরে এখন তা বিক্রি হচ্ছে ২৬০০ টাকা দরে। ৩৮০ টাকার দারুচিনি বিক্রি হচ্ছে ২৯০ টাকায় এবং ৮৫০ টাকার লবঙ্গ বিক্রি হচ্ছে ৭২০ টাকা দরে।

হিলি বাজারের খুচরা বিক্রেতা সিজার ও লেবু জানান, ঈদের বেচা-কেনা শুরু হয়েছে। আমদানি বেশি থাকায় এবার সবধরনের মসলার দাম কম। দাম কম থাকায় ক্রেতারা স্বস্তিতে যেমন কিনছে তেমনি বিক্রিও হচ্ছে আমাদের। আশা করি এবার মসলার দাম বাড়বে না। দাম কমার কারনে বিভিন্ন এলাকা থেকে ক্রেতা মসলা কিনতে আসছে এবং বিক্রি ভালো হচ্ছে।

কথা হয় বেশ কিছু ক্রেতার সাথে তারা বলেন, করোনা ভাইরাসের কারনে কিছুটা আয় কমে গেছে আমাদের।সামনে কোরবানি ঈদ বাজারে মসলা কিনতে আসলাম, দেখি সব মসলার দামই কমছে। এটা আমাদের জন্য খুব ভালো। এরকম কম দাম থাকলে আমরা মসলা কিনতে পারবো।

হিলি স্থলবন্দরের আমদানি-রপ্তানিকারক গ্রুপের সভাপতি হারুন উর রশিদ হারুন জানান, যেহেতু এবার করোনা ভাইরাসের কারনে বহির্বিশ্ব থেকে মসলা আমদানি বন্ধ আছে। এসময় যাতে দেশের বাজারে এই পণ্যের সংকট কিংবা দাম না বাড়ে সেদিকে লক্ষ্য রেখে হিলি স্থলবন্দররের আমদানিকারকরা বেশি বেশি মসলা ভারত থেকে আমদানি করছে। ঈদের আগে আরো বেশি পরিমান মসলা আমরা আমদানির জন্য ইতোমধ্যে ব্যবস্থা গ্রহণ করেছি। আশা করছি এবার ঈদ উপলক্ষে মসলা দাম বাড়বে না ক্রেতার নাগালে থাকবে।

হিলি কাষ্টমসের সহকারী কমিশনার আব্দুল হান্নান জানান, করোনা ভাইরাসের কারনে দীর্ঘ আড়াই মাস বন্ধ থাকার পর স্বাস্থ্যবিধি মেনে এই বন্দর দিয়ে আমদানি রপ্তানি কার্যক্রম চলমান রয়েছে। তবে সম্প্রতি কোরবানি ঈদকে সামনে রেখে মসলা পণ্যের আমদানি বৃদ্ধি পেয়েছে। গেলো ২২ কর্ম দিবসে ভারত থেকে বিভিন্ন প্রকার ১ লক্ষ ২০ হাজার ৬শ ৯২ মেট্রিক টন মসলা আমদানি করা হয়েছে। যা থেকে রাজস্ব আদায় হয়েছে ৫৪ কোটি ৮৫ লক্ষ ৭৫ হাজার টাকা।

কুষ্টিয়ায় অগ্রণী ব্যাংকের কুমারখালী শাখা লকডাউন
                                  

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি : এক সপ্তাহে ব্যাংকের পাঁচ কর্মকর্তা-কর্মচারী করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় কুষ্টিয়ায় অগ্রণী ব্যাংকের কুমারখালী শাখা লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। শুক্রবার সকালে উপজেলা করোনা নিয়ন্ত্রণ কমিটির সভাপতি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রাজীবুল ইসলাম খান ব্যাংকটির সংশ্লিষ্ট শাখা লকডাউনের বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

অগ্রণী ব্যাংক কুমারখালী শাখার ম্যানেজার (এসপিও) হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী জানান, ব্যাংকের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মধ্যে প্রথম করোনায় আক্রান্ত হন সিনিয়র কর্মকর্তা হাসেন আলী। করোনা উপসর্গ থাকায় গত ২ জুলাই হাসেন আলীর করোনা পরীক্ষা করা হয়। পর দিন ৩ জুলাই তার করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসে। এরপর গত ৬ জুলাই ব্যাংকের আরেক কর্মকর্তা প্রিন্সিপাল কর্মকর্তা ইমতিয়াজ জামানের করোনা শনাক্ত হয়। পরপর দুজন কর্মকর্তার করোনা শনাক্ত হওয়ায় ব্যাংকের অন্যান্য সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীর করোনা পরীক্ষা করা হয়।

সর্বশেষ গত বৃহস্পতিবার ওই শাখার আরও তিন জন কর্মকর্তা-কর্মচারীর করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসে। শনাক্ত অপর তিনজন হলেন- কর্মকর্তা ক্যাশ তরুন হোসেন, মাঠ সহকারী মুস্তাক আহমেদ এবং ঝাড়ুদার নাসিমা খাতুন। আক্রান্তদের পাশাপাশি ব্যাংকের আরো দু’একজন কর্মকর্তা-কর্মচারীও অসুস্থ, তাদের শরীরে করোনা উপসর্গ রয়েছে।

জানা যায়, ব্যাংকের ওই শাখায় ৪ জন আনসার সদস্যসহ মোট ১৭ জন কর্মকর্তা-কর্মচারী রয়েছেন। শাখার ৫ জন করোনা আক্রান্ত হওয়ায় অন্য কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। এদিকে শাখার ৫ জন কর্মকর্তা-কর্মচারীর করোনা শনাক্ত হলেও ব্যাংক কর্তৃপক্ষ মুনাফা লাভের আশায় কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে কার্যক্রম চালিয়ে যাওয়ার পক্ষে শক্ত অবস্থান গ্রহণ করে।

অগ্রণী ব্যাংকের কুষ্টিয়া জেলার ডিজিএম ওয়াহেদুল ইসলাম বলেন, আমরা চাই না শাখাটি লকডাউন করা হোক। আমরা সীমিত পরিসরে হলেও শাখা চালু রাখার পক্ষে। কুষ্টিয়ার সিভিল সার্জন ডা. এইচ এম আনোয়ারুল ইসলাম জানান, জনগণের স্বাস্থ্য নিয়ে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ কেন কেউই কোনো ঝুঁকি নিতে পারে না। আর আমরা তা কোনো অবস্থাতেই মেনে নেব না।

কুমারখালী উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আকুল উদ্দিন জানান, ব্যাংক কর্তৃপক্ষ চাচ্ছিল ব্যাংকের শাখাটি সীমিত পরিসরে হলেও চালু রাখতে। কিন্তু ব্যাংক খোলা থাকলে গ্রাহকরা আসবেই। এ ক্ষেত্রে গ্রাহক-কর্মকর্তা-কর্মচারী সবারই স্বাস্থ্য ঝুঁকি রয়েছে। তাই আমরা ব্যাংকের শাখাটি লকডাউনের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এর আগে কয়েকজন কর্মকর্তা-কর্মচারী করোনা আক্রান্ত হওয়ায় কুষ্টিয়ার পূবালী ব্যাংক ও ইসলামি ব্যাংকের পোড়াদহ শাখাটিও লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছিল।

এনআরবিসি ব্যাংকের মাস্ক বিতরণ
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক: প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের বিস্তার রোধ ও মানুষকে সচেতন করার লক্ষ্যে মাস্ক বিতরণ করছে এনআরবি কমার্শিয়াল ব্যাংক লিমিটেড। এনআরবিসি ব্যাংক দেশব্যাপী সব শাখা ও উপশাখার মাধ্যমে সুবিধাবঞ্চিত ও নিম্ন আয়ের মানুষের মাঝে উন্নতমানের এই মাস্ক বিতরণ করে চলেছে। এনআরবিসি ব্যাংক ভবিষ্যতেও এই মাস্ক বিতরণ অব্যাহত রাখবে বলে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

উল্লেখ্য, এনআরবিসি ব্যাংক দেশব্যাপী কোভিড-১৯ বা করোনাভাইরাস প্রতিরোধে নিয়োজিত হাসপাতাল, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য, গণমাধ্যমকর্মি ও জরুরী কাজে নিয়োজিত ব্যক্তিবর্গের কাছে সুরক্ষা সামগ্রী হস্তাস্তর অব্যাহত রেখেছে।

মোবাইল কলরেটে কর বৃদ্ধিতে প্রধানমন্ত্রীর সায় নেই
                                  

স্বাধীন বাংলা রিপোর্ট: করোনা মহামারীর এই দুর্যোগে ২০২০-২১ অর্থবছরের বাজেটে মোবাইল ফোনের কলরেটে বাড়তি সম্পূরক শুল্ক আরোপের প্রস্তাবে প্রধানমন্ত্রী সায় দেননি বলে একটি সূত্র নিশ্চিত করেছে। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে বাড়তি কর প্রত্যাহারের চিন্তাভাবনা করা হচ্ছে, যা আগামীকাল সোমবার অর্থবিলের মাধ্যমে সংসদে পাস হবে। অর্থবিল পাসের মধ্য দিয়ে নতুন বাজেটের কর প্রস্তাবসমূহ কার্যকর হবে।

এরআগে, ‘অর্থনৈতিক উত্তরণ ও ভবিষ্যৎ পথ পরিক্রমা’ শিরোনামে মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে স্থবির হওয়া অর্থনীতি পুনরুদ্ধারের প্রত্যাশা সামনে রেখে ২০২০-২১ অর্থবছরের জন্য ৫ লাখ ৬৮ হাজার কোটি টাকার প্রস্তাবিত বাজেট জাতীয় সংসদে উপস্থাপন করেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। বাজেটে মোবাইল ফোনে কথা বলাসহ অন্যান্য সেবার ওপর বাড়তি ৫ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক আরোপের প্রস্তাব দিয়েছিলেন অর্থমন্ত্রী।

করোনাকালীন দুর্যোগের এ কঠিন মুহুর্তে সাধারণ জনগণের জীবন-যাপন যখন দুর্বিষহ হয়ে উঠেছে, তখন বাজেটে বাড়তি করারোপ করায় ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়ে সরকার। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও দেশের এই ক্রান্তিকালে সাধারণ মানুষের উপর অতিরিক্ত চাপ তৈরী এমন কোন কর বসাতে রাজি নন।

আগামীকাল সোমবার (২৯ জুন) জাতীয় সংসদে ২০২০ সালের অর্থবিল পাস করার সময় মোবাইল ফোনের কলরেটে বাড়তি সম্পূরক শুল্ক আরোপের প্রস্তাব প্রত্যাহার করে নিতে পারেন অর্থমন্ত্রী। এর আগে গত ১১ জুন বাজেট বক্তৃতায় মোবাইল ফোনে কথা বলা, খুদে বার্তা পাঠানো ও ইন্টারনেট ব্যবহারে সম্পূরক শুল্ক ১০ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ১৫ শতাংশ করার প্রস্তাব করেছিলেন অর্থমন্ত্রী।

নিয়ম অনুযায়ী, গত ১১ জুন জাতীয় সংসদে বাজেট প্রস্তাবের পরপরই তা কার্যকরও হয়ে গেছে। কিন্তু বাড়তি সম্পূরক শুল্ক আরোপ করায় গ্রাহক পর্যায়ে তীব্র সমালোচনা হয়। পরের দিন অর্থাৎ ১২ জুন বাজেটোত্তর সংবাদ সম্মেলনে এ বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে কোনো জবাব দেননি অর্থমন্ত্রী।

তবে একই সংবাদ সম্মেলনে সেদিন এনবিআর চেয়ারম্যান আবু হেনা মো. রহমাতুল মুনিম বলেছিলেন, ‘আমাদের দেশের মানুষ অকারণে বেশি কথা বলেন। যে পরিমাণ কর বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়, তাতে দশমিক ৫ শতাংশ খরচ বাড়বে। এতে জনজীবনে তেমন প্রভাব পড়বে না।’ তার এমন বক্তব্যে সারা দেশে সমালোচনার ঝড় ওঠে। তাই সেই অবস্থান থেকে সরে আসছে সরকার।

সূত্র জানায়, বাজেট প্রস্তাবের সঙ্গে সঙ্গেই সব ধরনের সম্পূরক শুল্ক কার্যকর হয়ে যায়। ফলে মোবাইল ফোনে কথা বলা, খুদে বার্তাসহ অন্যান্য সেবায় ১৫ শতাংশ ভ্যাট, এক শতাংশ সারচার্জ, ১৫ শতাংশ প্রস্তাবিত সম্পূরক শুল্ক গ্রাহক পর্যায়ে আরোপ করা হয়। সবমিলিয়ে এখন ১০০ টাকা রিচার্জ করলে সরকার পায় ২৫ টাকা। ফলে গ্রাহকের ব্যবহার করতে পারেন ২৫ টাকা। সম্পূরক শুল্কহার আবার আগের জায়গায় ফেরত গেলে সরকার পাবে ২২ টাকা। আর গ্রাহক ৭৮ টাকা ব্যবহার করতে পারবেন। বাড়তি শুল্ক আরোপ করায় গ্রাহকের ক্রয়ক্ষমতা কমেছে ৩ টাকা।

জানা গেছে, অর্থবিল পাশের দিন সংসদে বাজেটের ওপর সমাপনী বক্তব্য দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এছাড়া সংশোধনী কর প্রস্তাবসমূহ উপস্থাপন করবেন অর্থমন্ত্রী। তারপর কণ্ঠভোটে পাস হবে অর্থ বিল-২০২০। পরদিন ৩০ জুন মঙ্গলবার জাতীয় সংসদে পাস হবে ২০২০-২১ অর্থবছরের বাজেট।

নরসিংদীতে ইসলামী ব্যাংকের ৫ কর্মকর্তা করোনায় আক্রান্ত, ব্যাংক বন্ধ ঘোষণা
                                  

নরসিংদী প্রতিনিধি: নরসিংদীর ইসলামী ব্যাংক শাখার ম্যানেজারসহ উর্ধতন পাঁচ কর্মকর্তার করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। সংস্পর্শে আসা আরো ১৫ কর্মকর্তা-কর্মচারী হোম আইসোলেশনে আছেন। এ অবস্থায় ঝুঁকি বিবেচনা করে বৃহস্পতিবার থেকে পরবর্তী নির্দেশনার আগ পর্যন্ত বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে নরসিংদী বাজারস্থ ব্যাংকের প্রধান শাখাটি।

করোনাভাইরাস কুইক রেসপন্স টিমের আহ্বায়ক ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) শাহআলম মিয়া ব্যাংকটিকে বন্ধ ঘোষণা করেন। সেই সঙ্গে আক্রান্ত ও সন্দেহভাজনসহ সকলের স্বাস্থ্য পরীক্ষার আশ্বাস দেন।

এদিকে বৃহস্পতিবার দুপুরে নরসিংদী জেলা হাসপাতালে করোনা ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় নজরুল ইসলাম (৭০) নামে একজনের মৃত্যু হয়েছে। করোনার উপসর্গ নিয়ে সকালেই হাসপাতালে ভর্তি হন তিনি। তার অবস্থার অবনতি হলে তাকে ঢাকায় রেফায় করা হয়। তবে ঢাকা নেয়ার আগেই তিনি মৃত্যুবরণ করেন।
 
জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের দেয়া তথ্যের প্রেক্ষিতে, গত ২৪ ঘন্টায় নতুন ১৫ জনসহ নরসিংদীতে এ পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১হাজার ২৭১ জন। যার মধ্যে মৃত্যুবরণ করেছেন ২৭ জন। এর মধ্যে ৮০২ জন আইসোলেশন মুক্ত হলেও প্রাতিষ্ঠানিক ও হোম আইসোলেশনে রয়েছেন আরো ৪৪২ জন রোগী।

অনলাইন মার্কেটিং প্লাটফরম তৈরির উদ্যোগ বিসিকের
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক: কুটির, মাইক্রো, ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পখাতের উদ্যোক্তাদের উৎপাদিত পণ্যের বাজারজাতকরণে সহায়তা প্রদানের লক্ষ্যে বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশন(বিসিক) একটি অনলাইন মার্কেটিং প্লাটফরম তৈরির উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। ইতোমধ্যে অনলাইন মার্কেটিংয়ের ওপর বিসিকের পক্ষ হতে একটি অবস্থান পত্র প্রস্তুত করা হয়েছে। উক্ত অবস্থানপত্রের সুপারিশের আলোকে বিসিক অনলাইন মার্কেটিং প্লাটফরম তৈরী ও বাস্তবায়ন কৌশল নির্ধারণের জন্য অনলাইন মার্কেটিং প্লাটফরমের প্রতিনিধিত্বকারী/সহায়তাকারী সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানসমূহের প্রতিনিধিদের সাথে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আজ(২৪ জুন ২০২০) বুধবার একটি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বিসিকের এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানাে হয়েছে।

বিসিক চেয়াররম্যান মোশতাক হাসান এনডিসির সভাপতিত্বে ভার্চুয়াল কনফারেন্সে সংযুক্ত ছিলেন- শিল্পমন্ত্রণালয়ের যুগ্মসচিব মোহাঃ সেলিম উদ্দিন,(বিরা, বেখা ও বিসিক),  বিসিকের পরিচালক(দক্ষতা ও প্রযুক্তি) ড. মোহা: আব্দুস ছালাম, বিসিকের পরিচালক(অর্থ) স্বপন কুমার ঘোষ, পরিচালক (শিল্প উন্নয়ন ও সম্প্রসারণ) মোঃ  খলিলুর রহমান, পরিচালক (বিপণন, নকশা ও কারুশিল্প) মোঃ আলমগীর হোসেন, প্রকৌশলী মোঃ শফিকুল আলম, অধ্যক্ষ, স্কিটি, অখিল রঞ্জন তরফদার, মহাব্যবস্থাপক (বিপণন), মির্জা নূরুল গণী শোভন, সভাপতি, জাতীয় ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প সমিতি (নাসিব), রেজওয়ানুল হক জামি, হেড অব ই-কমার্স, এটুআই, আইসিটি বিভাগ, সারাহ জিতা, পরামর্শক, ইউএনডিপি, মোঃ জাহাঙ্গীর আলম শোভন, চীফ অপারেটিং অফিসার, ই-কমার্স এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ই-ক্যাব), আলী সাবেত, টীম লিভার, প্রিজম প্রকল্প, দেওয়ান মাহফুজুল হক (অপু মাহফুজ), প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান, ঐক্য ফাউন্ডেশন, সুপ্রিয় ভট্টাচার্য, ডেপুটি প্রজেক্ট ম্যানেজার, প্রিজম প্রকল্পসহ বিসিকের অন্যান্য উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ।

সভায় বিসিক চেয়ারম্যান মোঃ মোশতাক হাসান বলেন, সারাদেশে বিসিকের ৭৬ টি শিল্পনগরীতে একটি করে পণ্য প্রদর্শনী ও বিক্রয়কেন্দ্র স্থাপন করা হবে। পরবর্তীতে উক্ত প্রদর্শনী ও বিক্রয়কেন্দ্রগুলোকে অনলাইন মার্কেটিং প্লাটফরমের সাথে সংযুক্ত করা হবে যাতে সারাদেশের উদ্যোক্তাগণ তাদের উৎপাদিত পণ্য অলনাইনে বিক্রয় করতে পারেন।

উক্ত সভায় বিসিকের বিপণন বিভাগের মহাব্যবস্থাপক অখিল রঞ্জন তরফদার মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন।

সভায় অনলাইন মার্কেটিং প্লাটফরমের প্রতিনিধিত্বকারী/সহায়তাকারী সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানসমূহের প্রতিনিধিগণ অনলাইন মার্কেটিং প্লাটফরম তৈরিতে বিসিককে সকল ধরণের সহযোগিতা প্রদানের বিষয়ে আশ্বাস প্রদান করেন।

ভান্ডারিয়ায় এনআরবিসি ব্যাংকের উপশাখার কার্যক্রম শুরু
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক: সব ধরণের আধুনিক ব্যাংকিং সেবা নিয়ে পিরোজপুরের ভান্ডারিয়ায় এনআরবি কমার্শিয়াল ব্যাংক ব্যাংকিং কার্যক্রম শুরু করেছে। আজ ঢাকা থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন ব্যাংকের চেয়ারম্যান পারভেজ তমাল। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে উপশাখার উদ্বোধন করেন পিরোজপুর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন  মহারাজ। এসময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ভান্ডারিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মিরাজুল ইসলাম, ভান্ডারিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ফাইজুর রশিদ খশরু জমাদ্দার, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাজমুল আলম।
এসময় প্রধান কার্যালয় থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত ছিলেন ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী মো. মুখতার হোসেন, অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও এনআরবিসি ইসলামিক ব্যাংকিং উইন্ডো ‘আল আমিন’ এর  প্রধান কাজী  মো. তালহা।
বক্তব্যে পারভেজ তমাল বলেন, করোনাভাইরাসের এ মহামারির সময়ে এনআরবিসি ব্যাংক ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের পাশে থাকবে। তিনি বলেন, করোনাভাইরাস প্রতিরোধে এনআরবিসি সব সময় মাঠে থেকে মানুষকে ব্যাংকিং ও চিকিৎসা সেবা দেবে।
অনুষ্ঠানে ব্যাংকের বরিশাল শাখার প্রধান জে কে এ এম মাকসুদ বিন হারুন, ভান্ডারিয়া উপশাখার ইনচার্জসহ গ্রাহকবৃন্দ, ব্যবসায়ী ও গণ্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে ব্যাংকের সম্মৃদ্ধি কামনায় দোয়া অনুষ্ঠিত হয়।
উল্লেখ্য, এনআরবিসি ব্যাংকের উল্লেখযোগ্য সেবার মধ্যে রয়েছে  এনআরবিসি হোম লোন ৯৯৯, রেমিটেন্স সেবা, নগদ লেনদেন সুবিধা, ফান্ড ট্রান্সফার, ইউটিলিটি বিল (গ্যাস, পানি ও বিদ্যুৎ) বিল গ্রহণ, বিআরটিএ ফি গ্রহণ, ভূমি রেজিস্ট্রেশন সংক্রান্ত ফি গ্রহণ, ডেবিট ও ক্রেডিট কার্ড সেবা, ইন্টারনেট ব্যাংকিং সেবা। এছাড়া, এই সকল সেবা এক সাথে পেতে রয়েছে মোবাইল অ্যাপস ‘এনআরবিসি প্লানেট’। এছাড়া গ্রাহক সহজেই তার একাউন্ট থেকে এনআরবিসি প্লানেটের মাধ্যমে যেকোন  বিকাশ নম্বরে টাকা পাঠাতে পারবেন।

৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত কিস্তি পরিশোধে চাপ দেয়া যাবে না, সার্কুলার জারি
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক: করোনাভাইরাসের প্রভাবে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডে নেতিবাচক পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ক্ষুদ্র ঋণের কিস্তি আদায় স্থগিত থাকবে। ওই সময় পর্যন্ত কোনো ঋণ বা ঋণের কিস্তিকে বকেয়া বা খেলাপি করা যাবে না। একই সঙ্গে ক্ষুদ্র ঋণের গ্রাহকদেরকে ঋণের কিস্তি পরিশোধে বাধ্য করা বা চাপ দেয়া যাবে না।

এ বিষয়ে মাইক্রোক্রেডিট রেগুলেটরি অর্থরিটি (এমআরএ) থেকে মঙ্গলবার একটি সার্কুলার জারি করে ক্ষুদ্র ঋণ দানকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রধান নির্বাহীর কাছে পাঠানো হয়েছে।

ক্ষুদ্র ঋণ দানকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর নিয়ন্ত্রক সংস্থা এমআরএ’র সার্কুলারে বলা হয়, কোনো গ্রাহক নিজ ইচ্ছায় ঋণের কিস্তি পরিশোধ করলে তা নিতে কোনো বাধা থাকবে না। গ্রাহকের কিস্তি পরিশোধের কারণে ঋণের মানের কোনো উন্নতি হলে তা করা যাবে। তবে কোনো ক্রমেই কোনো ঋণকে নতুন করে খেলাপি করা যাবে না।

সার্কুলারে উল্লেখ করা হয়, করোনাভাইরাসের প্রভাবে অর্থনীতির অধিকাংশ খাতই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এ কারণে ক্ষুদ্র ঋণ গ্রহীতারাও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। অনেকের ঋণের কিস্তি পরিশোধের সক্ষমতা হারিয়েছে। করোনার নেতিবাচক প্রভাব দীর্ঘায়িত হওয়ার আশংকা দেখা দিয়েছে। বিশেষ করে শিল্প, সেবা ও ব্যবসা খাত স্বাভাবিক কর্মকাণ্ড পরিচালনা করতে পারছে না। করোনার প্রভাবের কারণে সৃষ্ট পরিস্থিতিতে ঋণ গ্রহীতাদের আর্থিক অক্ষমতার কারণে ক্ষুদ্র ঋণের কিস্তি অপরিশোধিত থাকার আশংকা দেখা দিয়েছে। এ সব বিবেচনায় গ্রামীণ অর্থনীতিকে সচল রাখতে ওই সিন্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

এমআরএ থেকে এর আগে গত ২২ মার্চ জারি করা অপর এক সার্কুলারের মাধ্যমে গত ১ জানুয়ারি থেকে ৩০ জুন পর্যন্ত ঋণের কিস্তি আদায় করা স্থগিত রাখা হয়েছিল। একই সঙ্গে কোনো ঋণকে বকেয়া বা খেলাপি না করার নির্দেশ দেয়া হয়েছিল। করোনার প্রভাব দীর্ঘায়িত হওয়ার এর মেয়াদ আরও তিন মাস বাড়ানো হয়েছে।

মঙ্গলবার জারি করা সার্কুলারে আরও বলা হয়, গ্রামীণ ক্ষুদ্র অর্থনীতির চাকা সচল রাখার স্বার্থে গ্রাহকদের মধ্যে নতুন ঋণ বিতরণ কার্যক্রম অব্যাহত রাখতে হবে। একই সঙ্গে সঞ্চয় নেয়া, জরুরি ত্রাণসামগ্রী বিতরণ, রেমিটেন্স সেবা, এজেন্ট ব্যাংকিং কার্যক্রম পরিচালনা, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন-ভাতা প্রদানসহ বিভিন্ন সামাজিক কার্যক্রম স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরিচালনা করতে হবে। তবে কোনো গ্রাহক যদি তার সঞ্চয় তুলে নিতে চায় সেগুলোও ফেরত দিতে হবে।

এ দিকে ক্ষুদ্র ঋণের কিস্তি আদায় বন্ধ থাকায় ক্ষুদ্র ঋণ দানকারী প্রতিষ্ঠানগুলোতে অর্থ সংকট দেখা দিয়েছে। এ কারণে অনেক প্রতিষ্ঠান নতুন ঋণ দিতে পারছে না। এ সংকট মোকাবেলা করতে বাংলাদেশ ব্যাংক ক্ষুদ্র ঋণ বিতরণের জন্য ৩ হাজার কোটি টাকার একটি তহবিল গঠন করেছে। ক্ষুদ্র ঋণ প্রতিষ্ঠানগুলোর মাধ্যমে এ সব অর্থ মাঠপর্যায়ে বিতরণ করা হবে। ক্ষুদ্র ঋণ প্রতিষ্ঠানগুলো ওই তহবিল থেকে ঋণ পাবে সাড়ে ৩ শতাংশ সুদে। এ অর্থ তারা মাঠপর্যায়ে বিতরণ করবে সর্বোচ্চ ৯ শতাংশ সুদে। বর্তমানে ক্ষুদ্র ঋণ প্রতিষ্ঠানগুলো গ্রাহকদের কাছ থেকে ২৪ শতাংশ সুদ আদায় করে।

সূত্র জানায়, ব্র্যাক, আশাসহ বড় কিছু প্রতিষ্ঠানে রিজার্ভ তহবিল থাকায় তারা এখন নতুন ঋণ বিতরণ করতে পারছে।

সূত্র: যুগান্তর

হিলিতে চালের দাম বেড়েছে কেজি প্রতি ৪ টাকা
                                  

হিলি প্রতিনিধি: হিলির খুচরা ও পাইকারী বাজারে বেড়েছে সব ধরনের চালের দাম।  সপ্তাহের ব্যবধানে প্রকার ভেদে চালের দাম বেড়েছে ৩ থেকে ৪ টাকা। এদিকে চাালের দাম বাড়ায় বিপাকে পরেছে নিম্ন আয়ের মানুষ।  

প্রতি কেজি চাল সপ্তাহের ব্যবধানে ২ থেকে ৪ টাকা বেড়ে বিক্রি হচ্ছে, বিয়ার ২৯ চাল ৪২ টাকা, বিয়ার ২৮ চাল ৪৪ টাকা, মিনিকেট চাল ৪৮ টাকা এবং সম্পা কাটারী অটোরাইস মিলের চাল ৪৮ টাকা।

চাল কিনতে আসা কয়েক জন ক্রেতা জানান, করোনা ভাইরাসের কারনে তাদের একদিকে আয় অনেকটাই কমে গেছে অন্য দিকে চালের দাম বেড়েই যাচ্ছে। এদিকে চালসহ সব ধরনের নিত্যপণ্যের দাম হুহু করে বেড়ে চলেছে। এতে করে তারা অনেকটাই বিপাকে পড়েছে।

সাধারণ ক্রেতারা অভিযোগ করেন যে, মিল মালিক এবং ব্যবসায়ীরা সিন্ডিকেট করে চালের দাম বৃদ্ধি করেছে। যদি প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিয়মিত বাজার মনিটরিং করা হতো তবে সব ধরনের বাজার নিয়ন্ত্রনে থাকতো।

এদিকে চালের দাম বাড়ার কারন হিসেবে হিলি বাজারের চাল ব্যবাসয়ী স্বপনসহ কয়েকজন ব্যবসায়ী জানান, ধানের দাম বৃদ্ধি ও মিল মালিকেরা চালের দাম বৃদ্ধি করায় বেশি দামে চাল কিনতে হচ্ছে। আর যার কারনে এর প্রভাব পড়েছে খুচরা বাজারে। এতে আমাদের কোন সিন্ডিকেট করার সুযোগ নেই। বেশি দামে চাল কিনে খুচরা বাজারে বেশি দামে বিক্রি করতে হচ্ছে তাদের।

অফিসার নিয়োগ পরীক্ষার ফল প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক: বাংলাদেশ ব্যাংকের অফিসার (জেনারেল) পদে নিয়োগের লিখিত পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হয়েছে। গত ২৪ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত লিখিত পরীক্ষায় ৬৫৬ প্রার্থী উত্তীর্ণ হয়েছেন।

বাংলাদেশ ব্যাংকের মহাব্যবস্থাপক কাজী আকতারুল ইসলাম স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

উত্তীর্ণদের মৌখিক পরীক্ষার সময়সূচি পরে জানানো হবে।

বাংলাদেশের শুল্ক পণ্যের ৯৭% শুল্কমুক্ত সুবিধা দিল চীন
                                  

বাংলাদেশের শুল্ক পণ্যের ৯৭% শুল্কমুক্ত সুবিধা দিল চীন সরকার। এ বছরের ১ জুলাই থেকে এ সুবিধা প্রদান করা হবে।

সরকারের অর্থনৈতিক কূটনীতির অংশ হিসেবে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে এ সুবিধা দেওয়ার অনুরোধ করে চীন সরকারকে চিঠি দেওয়া হয়। এ অনুরোধের প্রেক্ষিতে চীনের স্টেট কাউন্সিলের ট্যারিফ কমিশন সম্প্রতি এ সুবিধা প্রদান করে নোটিশ জারি করে। স্বল্পোন্নত দেশ হিসেবে বাংলাদেশকে এ সুবিধা প্রদান করা হচ্ছে। ৫১৬১ বাংলদেশি পণ্য এ শুল্কমুক্ত সুবিধার আওতায় থাকবে। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালেয়র এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বাংলাদেশ ইতোমধ্যে চীন থেকে ‍Asia Pacific Trade Agreement (APTA) এর আওতায় ৩০৯৫ পণ্যের শুল্কমুক্ত সুবিধা ভোগ করে থাকে। সেই সুবিধার বাইরে ৯৭% শুল্কমুক্ত সুবিধা প্রদান করা হলো। ফলে শুল্কমুক্ত সুবিধার আওতায় বাংলাদেশকে চীনের পক্ষ থেকে ৮২৫৬ পণ্যের শুল্কমুক্ত সুবিধা দেওয়া হলো।

এসএসসি পাস করেই বিমান বাহিনীতে চাকরির সুযোগ
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক: বাংলাদেশ বিমান বাহিনীতে ‘মিনিস্ট্রি অব ডিফেন্স কন্সটেবলারি (এমওডিসি)’ পদে জনবল নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা আগামী ২৮ জুলাই পর্যন্ত পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবেন।

আবেদনের নিয়ম: আগ্রহীরা www.joinbangladeshairforce.mil.bd এর মাধ্যমে আবেদন করতে পারবেন।

প্রতিষ্ঠানের নাম: বাংলাদেশ বিমান বাহিনী

পদের নাম: মিনিস্ট্রি অব ডিফেন্স কন্সটেবলারি (এমওডিসি)
শিক্ষাগত যোগ্যতা: এসএসসি/সমমান পরীক্ষায় যে কোন শাখায় ন্যুনতম জিপিএ ২.০০ থাকতে হবে।

শারীরিক যোগ্যতা: উচ্চতা ৫ ফুট ৬ ইঞ্চি, বুকের মাপ ন্যূনতম ৩০ ইঞ্চি ও ২ ইঞ্চি প্রসারণ, ওজন হবে বয়স ও উচ্চতা অনুযায়ী, চোখ ৬/৬ এবং স্বাভাবিক দৃষ্টি সম্পন্ন

বয়স: ০৪ অক্টোবর ২০২০ তারিখে ১৬-২১ বছর
প্রার্থীর ধরন: পুরুষ
বৈবাহিক অবস্থা: অবিবাহিত (তালাকপ্রাপ্ত নয়)
বেতন: প্রশিক্ষণকালীন ৮,৮০০ টাকা

পরীক্ষা শুরু: ২১ জুন ২০২০
পরীক্ষা শেষ: ২৮ জুলাই ২০২০

পরীক্ষা কেন্দ্র: তথ্য ও নির্বাচনী কেন্দ্র, বাংলাদেশ বিমান বাহিনী, পুরাতন বিমানবন্দর, তেজগাঁও, ঢাকা-১২১৫।

সূত্র: জাগোজবস ডটকম

বাংলাদেশ পুলিশ কল্যাণ ট্রাস্টে নিয়োগ
                                  

স্বাধীন বাংলা রিপোর্ট: বাংলাদেশ পুলিশ কল্যাণ ট্রাস্টের প্রতিষ্ঠান পুলিশ প্লাজা কনকর্ডের জন্য বিভিন্ন পদে কর্মকর্তা নিয়োগ দেয়া হবে।

পদের নাম: ম্যানেজার
যোগ্যতা: যে কোনো বিষয়ে স্নাতক/স্নাতকোত্তর ডিগ্রি। বৃহৎ শপিংমল কাম বাণিজ্যিক কমপ্লেক্স এককভাবে পরিচালনা ও ব্যবস্থাপনার কাজে দুই বছরের অভিজ্ঞতাসহ কমপক্ষে ১০ বছরের অভিজ্ঞতা থাকতে হবে।

পদের নাম: এ্যাসিস্টেন্ট ম্যানেজার (এডমিন এন্ড একাউন্টস)
যোগ্যতা: যে কোনো বিষয়ে স্নাতক/স্নাতকোত্তর ডিগ্রি। বৃহৎ শপিংমল কাম বাণিজ্যিক কমপ্লেক্স এককভাবে পরিচালনা ও ব্যবস্থাপনার কাজে ১ বছরের অভিজ্ঞতাসহ কমপক্ষে ৫ বছরের অভিজ্ঞতা থাকতে হবে।

পদের নাম: সাব-এ্যাসিস্টেন্ট ইঞ্জিনিয়ার সিভিল
যোগ্যতা: ডিপ্লোমা ইন সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং ডিগ্রি। বহুতল ভবন/শিল্প কারখানার রক্ষণাবেক্ষণের ৩ বছরের অভিজ্ঞতা থাকতে হবে।

আবেদনের নিয়ম: আগ্রহীদের বিডিজবসের মাধ্যমে আবেদন করতে হবে।

আবেদন করা যাবে ২০ জুন পর্যন্ত।

বাজেট পাশের আগেই বাড়তি কল চার্জ কেন, ৪ অপারেটরকে বিটিআরসির চিঠি
                                  

স্বাধীন বাংলা রিপোর্ট: বাজেটে সম্পূরক শুল্ক বাড়ানোর ঘোষণার পর তা ইতিমধ্যে আরোপ করা শুরু হয়েছে, এটি প্রমাণিত হলে আইন অনুযায়ী কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে জানিয়ে হুশিয়ারি দিয়ে ৪ মোবাইল অপারেটর কোম্পানীকে চিঠি দিয়েছে টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি। বাজেট পাসের আগে মোবাইলের কথা বলা ও ইন্টারনেটে বাড়তি শুল্ক আরোপ করায়  শনিবার ই-মেইলে ওই চিঠি পাঠানো হয়।

কঠোর ব্যবস্থা হিসেবে অনাপত্তিপত্র (এনওসি) দেওয়া বন্ধ করে দেওয়া এবং সব সেবা ও ট্যারিফ অনুমোদন বন্ধ করে দেওয়ার কথা বলা হয়েছে চিঠিতে।

বাজেটে মোবাইল সেবায় যে সম্পূরক শুল্ক বাড়ানো হয়েছে, তা ১ জুলাই থেকে কার্যকর হওয়ার কথা বলেও চিঠিতে উল্লেখ করা হয়।

বিটিআরসি চেয়ারম্যান জহুরুল হক রোববার গণমাধ্যমকে বলেন, এ বিষয়ে জানতে চেয়ে আমরা চিঠি পাঠিয়েছি এবং এ চিঠি দিতেই পারি। নিয়ম অনুযায়ী তারা এর উত্তর দেবে।

অবশ্য জাতীয় সংসদে যেদিন বাজেট ঘোষণা হয়, সেদিন থেকেই নতুন শুল্ক কার্যকর হয়। অর্থবিলের ৮৮ পাতায় কোন কোন দফা অবিলম্বে কার্যকর হবে, তা উল্লেখ করে দেওয়া হয়েছে। এর আওতায় ৮০ নম্বর দফাও আছে। এই দফার অন্তর্ভুক্ত মোবাইল সেবা।

বাজেটে সরকার মোবাইল সেবা, তথা কথা বলা, ইন্টারনেট ব্যবহার ও খুদে বার্তা পাঠানোর ওপর সম্পূরক শুল্ক ৫ শতাংশ বাড়িয়ে ১৫ শতাংশ করে।

নতুন করহারে মোবাইল সেবার ওপর মূল্য সংযোজন কর (মূসক বা ভ্যাট) ১৫ শতাংশ, সম্পূরক শুল্ক ১৫ শতাংশ ও সারচার্জ ১ শতাংশ। ফলে মোট করভার দাঁড়িয়েছে ৩৩ দশমিক ৫৭ শতাংশ।

এতে প্রতি ১০০ টাকা রিচার্জে সরকারের কাছে কর হিসেবে যাবে ২৫ টাকার কিছু বেশি, এত দিন যা ২২ টাকার মতো ছিল।

দেশে পর্যাপ্ত লবণ মজুদ রয়েছে: বিসিক
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক: বর্তমানে দেশে পর্যাপ্ত লবণ মজুদ রয়েছে বলে জানিয়েছে শিল্প মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশন (বিসিক)।  সংস্থাটি জানিয়েছে, সদ্য সমাপ্ত লবণ মওসুমে উৎপাদিত নতুন লবণ এবং গত মওসুম শেষে উদ্বৃত্ত পুরাতন লবণ মিলিয়ে দেশে লবণের মজুদ ২০ লাখ ০৩ হাজার মেট্রিক টন। আজ গণমাধ্যমে পাঠানাে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানানো হয়।

বিসিকের শিল্প উন্নয়ন ও সম্প্রসারণ বিভাগ এবং কক্সবাজারে অবস্থিত বিসিক লবণ শিল্প উন্নয়ন কার্যালয়ের তথ্য অনুযায়ী, ২০১৯-২০২০ অর্থবছরে দেশে ভোজ্য ও শিল্প লবণের মোট চাহিদা নির্ধারণ করা হয়েছিল ১৮ লাখ ৪৯ হাজার মেট্রিক টন। এর মধ্যে সদ্য সমাপ্ত মওসুমে মোট ১৫ লাখ ৭০ হাজার মেট্রিক টন ক্রুড লবণ উৎপাদিত হয়েছে। এছাড়া বিগত মওসুমের উদ্বৃত্ত লবণ ছিল ০৪ লাখ ৩৩ হাজার মে. টন । সব মিলিয়ে মোট জাতীয় চাহিদার বিপরীতে দেশে লবণের মোট মজুদ ২০ লাখ ০৩ হাজার মেট্রিক টন। যা দেশের মোট চাহিদা চেয়ে প্রায় ১.৫০ লক্ষ মে. টন বেশি ।  

এর মধ্যে চলতি অর্থ বছরের মে মাস পর্যন্ত চাহিদা মিটিয়ে ০১ জুন, ২০২০ লবণ মাঠ ও মিল পর্যায়ে লবণের মোট মজুদের পরিমাণ ১৩ লাখ ৬৮ হাজার মে. টন। এছাড়া দেশের সকল জেলার ডিলার, পাইকারী ও খুরচা বিক্রেতা পর্যায়ে আয়োডিনযুক্ত ভোজ্য লবণ মজুদ রয়েছে।

এমনিতেই করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের ফলে শিল্প উৎপাদন ব্যাহত হওয়ায় দেশে শিল্প লবণের চাহিদা তুলনামূলক কম পরিলক্ষিত হচ্ছে। অন্যদিকে প্রতি বছর নভেম্বর মাসে লবণ উৎপাদনের মওসুম শুরু হয়ে থাকে। সে হিসেবে নতুন লবণ মওসুম শুরু হওয়ার আর মাত্র ৫-৬ মাস বাকি। এরপর থেকেই আবারও  বাজারে নতুন লবণ আসতে শুরু করবে।

বর্তমান মজুদকৃত লবণ দিয়েই আসন্ন ঈদুল আযহায় কোরবানির পশুর চামড়া প্রক্রিয়াজাতকরণসহ আগামী ১০ (দশ) মাস লবণের চাহিদা পূরণ করা সম্ভব হবে।

চলতি বছরের নভেম্বরে নতুন মওসুমের লবণ  বাজারে আসবে বিধায় বর্তমান মজুদ দিয়ে  শিল্প ও ভোজ্য লবণের জাতীয় চাহিদা মিটিয়েও উদ্বৃত্ত লবণ থাকবে। ফলে এ বছর লবণ আমদানির কোনো প্রয়োজন হবে না।


   Page 1 of 36
     অর্থ-বাণিজ্য
দিনাজপুরে করোনায় পশু বিক্রি নিয়ে শঙ্কায় খামারিরা
.............................................................................................
হিলি স্থলবন্দর দিয়ে মসলা আমদানি বৃদ্ধি, বাজারে দাম কমেছে
.............................................................................................
কুষ্টিয়ায় অগ্রণী ব্যাংকের কুমারখালী শাখা লকডাউন
.............................................................................................
এনআরবিসি ব্যাংকের মাস্ক বিতরণ
.............................................................................................
মোবাইল কলরেটে কর বৃদ্ধিতে প্রধানমন্ত্রীর সায় নেই
.............................................................................................
নরসিংদীতে ইসলামী ব্যাংকের ৫ কর্মকর্তা করোনায় আক্রান্ত, ব্যাংক বন্ধ ঘোষণা
.............................................................................................
অনলাইন মার্কেটিং প্লাটফরম তৈরির উদ্যোগ বিসিকের
.............................................................................................
ভান্ডারিয়ায় এনআরবিসি ব্যাংকের উপশাখার কার্যক্রম শুরু
.............................................................................................
৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত কিস্তি পরিশোধে চাপ দেয়া যাবে না, সার্কুলার জারি
.............................................................................................
হিলিতে চালের দাম বেড়েছে কেজি প্রতি ৪ টাকা
.............................................................................................
অফিসার নিয়োগ পরীক্ষার ফল প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক
.............................................................................................
বাংলাদেশের শুল্ক পণ্যের ৯৭% শুল্কমুক্ত সুবিধা দিল চীন
.............................................................................................
এসএসসি পাস করেই বিমান বাহিনীতে চাকরির সুযোগ
.............................................................................................
বাংলাদেশ পুলিশ কল্যাণ ট্রাস্টে নিয়োগ
.............................................................................................
বাজেট পাশের আগেই বাড়তি কল চার্জ কেন, ৪ অপারেটরকে বিটিআরসির চিঠি
.............................................................................................
দেশে পর্যাপ্ত লবণ মজুদ রয়েছে: বিসিক
.............................................................................................
প্রস্তাবিত বাজেটকে ‘মানুষ রক্ষা করার’ বাজেট বললেন অর্থমন্ত্রী
.............................................................................................
পার্বতীপুরে এনজিও’র কিস্তি দিতে না পেরে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন অনেকে
.............................................................................................
পায়রা বন্দরে নিয়োগ
.............................................................................................
রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের ৫১৫তম সভা অনুষ্ঠিত
.............................................................................................
আন্তর্জাতিক পুরস্কার পেল শাহ্জালাল ইসলামী ব্যাংক
.............................................................................................
অগ্রণীব্যাংকে ভার্চুয়াল বোর্ড সভাঅনুষ্ঠিত
.............................................................................................
ভিডিও কনফারেন্সে এনআরবিসি ব্যাংক’র বার্ষিক সাধারণ সভা
.............................................................................................
রাজশাহীতে ম্যাঙ্গো স্পেশাল ট্রেনের যাত্রা শুরু
.............................................................................................
হিলিতে কমেছে আমদানিকৃত ভারতীয় পেঁয়াজের দাম
.............................................................................................
রোববার থেকে স্বাভাবিক ব্যাংকিং কার্যক্রম
.............................................................................................
একই অ্যাপে সব সেবা নিয়ে এলো জেনিথ ইসলামী লাইফ
.............................................................................................
ঘুর্ণিঝড় আম্পানে ১১০০ কোটি টাকার ক্ষতি
.............................................................................................
সংকটে মার্কেটিং
.............................................................................................
বিএসইসির চেয়ারম্যান হলেন অধ্যাপক শিবলী
.............................................................................................
রেমিট্যান্স পাঠালে বিনা কাগজে ২% প্রণোদনা
.............................................................................................
ইসলামী বীমা কেনো প্রয়োজন
.............................................................................................
বাংলাদেশের পাশে এডিবি, ঋণ দিচ্ছে আরো ৫০০ মিলিয়ন ডলার
.............................................................................................
একদিনে ৪৭ কোটি টাকার মৎস্য ও প্রাণিজ পণ্য বিক্রি
.............................................................................................
২৫ টাকা কেজিতে পেঁয়াজ বিক্রি করবে টিসিবি : বাণিজ্যমন্ত্রী
.............................................................................................
ব্যাংক লেনদেনের সময় বাড়ল
.............................................................................................
ব্যাংক ঋণের সুদ ২ মাস স্থগিত করলো বাংলাদেশ ব্যাংক
.............................................................................................
মৎস্য ও প্রাণীসম্পদ মন্ত্রণালয়ের ভ্রাম্যমাণ বিক্রয় কেন্দ্রে ব্যাপক সাড়া
.............................................................................................
ব্যাপক হ্যান্ড স্যানিটাইজার উৎপাদন করছে রাজশাহী বিসিক
.............................................................................................
কৃষিযন্ত্রাংশ উৎপাদন হচ্ছে বগুড়া বিসিক শিল্প নগরীতে
.............................................................................................
চট্টগ্রাম বন্দরে ৪ মে পর্যন্ত কন্টেইনারের স্টোর রেন্ট মওকুফ
.............................................................................................
বীমা পেশায় খণ্ডকালীন চাকরি করে সংসার চালানো শিক্ষার্থীদের দুঃসময়
.............................................................................................
বাণিজ্যিক এলাকায় সব ব্যাংক খোলা থাকবে ১০-২টা পর্যন্ত
.............................................................................................
শ্রমিকের বেতন ক্যাশ আউট করতে হাজারে ৪ টাকা চার্জ
.............................................................................................
কৃষি উপকরণে ভর্তুকির ১০০ কোটি টাকা ছাড়
.............................................................................................
করোনায় আক্রান্ত হলে ব্যাংকাররা পাবেন ৫-১০ লাখ টাকা
.............................................................................................
এসিআই-এ নিয়োগ
.............................................................................................
প্রণোদনার অর্থ খেলাপীরা পাবে না dailyswadhinbangla
.............................................................................................
আইএমএফের কাছে ৭০ কোটি ডলারের অর্থ সহায়তা চাইল বাংলাদেশ
.............................................................................................
বিসিক শিল্পনগরীতে তৈরি হচ্ছে পিপিই, স্যানিটাইজার ও মাস্ক
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আখলাকুল আম্বিয়া
নির্বাহী সম্পাদক: মাে: মাহবুবুল আম্বিয়া
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক: প্রদ্যুৎ কুমার তালুকদার

সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: স্বাধীনতা ভবন (৩য় তলা), ৮৮ মতিঝিল বাণিজ্যিক এলাকা, ঢাকা-১০০০। Editorial & Commercial Office: Swadhinota Bhaban (2nd Floor), 88 Motijheel, Dhaka-1000.
সম্পাদক কর্তৃক রঙতুলি প্রিন্টার্স ১৯৩/ডি, মমতাজ ম্যানশন, ফকিরাপুল কালভার্ট রোড, মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত ।
ফোন : ০২-৯৫৫২২৯১ মোবাইল: ০১৬৭০৬৬১৩৭৭

Phone: 02-9552291 Mobile: +8801670 661377
ই-মেইল : dailyswadhinbangla@gmail.com , editor@dailyswadhinbangla.com, news@dailyswadhinbangla.com

 

    2015 @ All Right Reserved By dailyswadhinbangla.com

Developed By: Nytasoft