বুধবার, ৮ এপ্রিল 2020 | বাংলার জন্য ক্লিক করুন
  
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   শিক্ষা -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি বাড়ছে

স্টাফ রিপোর্টার : নভেল করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে আতঙ্কের মধ্যে সারাদেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ৩১ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।  কিন্তু সরকার ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত ছুটি ঘোষণা করায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানেও ছুটি বাড়ানো হচ্ছে।

এ বিষয়ে আজ মঙ্গলবার শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় একটি বৈঠকের আয়োজন করেছে। বৈঠক শেষে সম্মিলিতভাবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নতুন করে ছুটি বাড়ানোর সিদ্ধান্ত আসতে পারে।

তবে জনসমাগম এড়াতে আর সংবাদ সম্মেলন করতে চায় না উভয় মন্ত্রণালয়। সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এই ছুটি বাড়ানোর ঘোষণা গণমাধ্যমে জানিয়ে দেয়া হবে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন বলেন, যেহেতু ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সরকারি অফিসে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে, তাই আমরা প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে বৈঠক করে সম্মিলিতভাবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবো।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের বর্ষপঞ্জি অনুসারে রমজান, ঈদুল ফিতরসহ বেশ কিছু ছুটি মিলিয়ে ২৫ এপ্রিল থেকে ৩০ মে পর্যন্ত ছুটি রয়েছে। এছাড়া এপ্রিল মাসে শবেবরাত, স্টার সানডে ও পহেলা বৈশাখের ছুটি রয়েছে। সাপ্তাহিক ছুটি ও সরকারি ছুটি বাদে ৪ থেকে ২৪ এপ্রিল পর্যন্ত মাত্র ১৪ দিন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা রয়েছে। তাই করোনাভাইরাস রোধে এই ১৪ দিনও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখতে চায় উভয় মন্ত্রণালয়। করোনাভাইরাস পরিস্থিতির উন্নয়ন হলেও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আগামী ঈদুল ফিতরের আগে আর খুলছে না বলে জানা গেছে।

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি বাড়ছে
                                  

স্টাফ রিপোর্টার : নভেল করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে আতঙ্কের মধ্যে সারাদেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ৩১ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।  কিন্তু সরকার ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত ছুটি ঘোষণা করায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানেও ছুটি বাড়ানো হচ্ছে।

এ বিষয়ে আজ মঙ্গলবার শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় একটি বৈঠকের আয়োজন করেছে। বৈঠক শেষে সম্মিলিতভাবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নতুন করে ছুটি বাড়ানোর সিদ্ধান্ত আসতে পারে।

তবে জনসমাগম এড়াতে আর সংবাদ সম্মেলন করতে চায় না উভয় মন্ত্রণালয়। সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এই ছুটি বাড়ানোর ঘোষণা গণমাধ্যমে জানিয়ে দেয়া হবে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন বলেন, যেহেতু ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সরকারি অফিসে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে, তাই আমরা প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে বৈঠক করে সম্মিলিতভাবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবো।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের বর্ষপঞ্জি অনুসারে রমজান, ঈদুল ফিতরসহ বেশ কিছু ছুটি মিলিয়ে ২৫ এপ্রিল থেকে ৩০ মে পর্যন্ত ছুটি রয়েছে। এছাড়া এপ্রিল মাসে শবেবরাত, স্টার সানডে ও পহেলা বৈশাখের ছুটি রয়েছে। সাপ্তাহিক ছুটি ও সরকারি ছুটি বাদে ৪ থেকে ২৪ এপ্রিল পর্যন্ত মাত্র ১৪ দিন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা রয়েছে। তাই করোনাভাইরাস রোধে এই ১৪ দিনও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখতে চায় উভয় মন্ত্রণালয়। করোনাভাইরাস পরিস্থিতির উন্নয়ন হলেও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আগামী ঈদুল ফিতরের আগে আর খুলছে না বলে জানা গেছে।

ঢাবি শিক্ষার্থীদের হল ছাড়ার নির্দেশ
                                  

ঢাবি প্রতিনিধি : মহামারী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়-ঢাবি বন্ধের পর এবার আবাসিক হলগুলোও খালি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টার মধ্যে সব শিক্ষার্থীকে হল ছাড়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। একইসঙ্গে ক্লাস-পরীক্ষা বন্ধের সিদ্ধান্ত ৩১ মার্চ পর্যন্ত বৃদ্ধি করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সিন্ডিকেটের জরুরি সভায় এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। ঢাবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. আখতারুজ্জামানের সভাপতিত্বে সিন্ডিকেটের এই সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সিন্ডিকেট সদস্য ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মো. হুমায়ুন কবির এই তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি জানান, হল বন্ধের সিদ্ধান্ত ছাড়াও আগে ২৮ মার্চ পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধের যে সিদ্ধান্ত ছিল এখন সেটা বাড়িয়ে ৩১ মার্চ পর্যন্ত নেয়া হয়েছে।

নভেল করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের মধ্যে বাংলাদেশে এ পর্যন্ত ১৭ জন আক্রান্ত হয়েছেন, মৃত্যু হয়েছে সত্তরোর্ধ্ব এক বৃদ্ধের।  করোনাভাইরাস নিয়ে উদ্ভূত পরিস্থিতির কারণে গত মঙ্গলবার থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার ঘোষণা দিয়েছে সরকার। এছাড়া দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করে কর্তৃপক্ষ।

ঢাবিতে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ
                                  

এ কে সাইফুল ইসলাম : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে মৌলবাদী অপশক্তির বিরুদ্ধে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ। সোমবার বিকাল ৩ ঘটিকায় ঐতিহাসিক মধুর রেস্তোরাঁ থেকে কেন্দ্রীয় কমিটির সংগ্রামী সভাপতি আমিনুল ইসলাম বুলবুল ও বিপ্লবী সাধারণ সম্পাদক আল মামুন নেতৃত্ব শুরু হওয়া মিছিলটিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা, ঢাকা মহানগর উত্তর ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণসহ সকল ইউনিটের নেতাকর্মীদের উপস্থিতে শুরু হয় মিছিলটি। ভিসি চত্ত্বর টিএসসি শাহাবাগ প্রদক্ষিণ করে সন্ত্রাস বিরোধী রাজু ভাস্কর্যের সামনে সমাবেশ করে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের নেতারা।

সমাবেশের সভাপতিত্বে করেন মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি আমিনুল ইসলাম বুলবুল এবং সঞ্চালনা করেন কেন্দ্রীয় কমিটির বিপ্লবী সাধারণ সম্পাদক আল মামুন।

বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিপ্লবী সাধারণ সম্পাদক ইয়াসির আরাফাত তূর্য। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের সভাপতি সোহেল রানা, ঢাকা মহানগর উত্তর মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের সভাপতি আহমেদ হাসনাইন, গাজীপুর জেলা মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ শাখা, নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখা মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের নেতাকর্মীরাসহ ঢাকা জেলার নানান ইউনিট সমূহ।

পরীক্ষার সময় রাজনৈতিক কর্মসূচি না দেওয়ার আহ্বান শিক্ষামন্ত্রীর
                                  

স্টাফ রিপোর্টার : সারাদেশে একযোগে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হয়েছে। সোমবার সকাল ১০টায় পরীক্ষা শুরু হয়ে শেষ হয় দুপুর ১টায়। দেশের নয়টি সাধারণ শিক্ষাবোর্ড, মাদ্রাসা ও কারিগরি বোর্ডের আওতায় এই পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

এদিকে, তেজগাঁও সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ে এসএসসি পরীক্ষা কেন্দ্রে পরিদর্শন করে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি বলেছেন, পরীক্ষার্থীদের ভোগান্তি কমাতে আরও আগে প্রবেশপত্র বিতরণের উদ্যোগ নেওয়া হবে।

পাবলিক পরীক্ষার সময় শিক্ষার্থীদের মধ্যে উদ্বেগ তৈরি করে এমন কোন রাজনৈতিক কর্মসূচি না দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী।

কোনো কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের কারণে অনেক শিক্ষার্থী প্রবেশপত্র পায়নি জানানোর পর দীপু মনি বলেন, কোনো কোনো প্রতিষ্ঠানের গাফিলতি আছে। তারা ‘রেজিস্ট্রশেন ফি’ জমা দিয়েছে কিন্তু তারপরে দেখা যায় ‘রেজিস্ট্রেশন’ ঠিকমত হয়নি, এরকম অনেক ঘটনা ঘটে। এ বছর কতগুলো জিনিস নজরে এসেছে। আমরা এর প্রত্যেকটির ব্যাপারে ব্যবস্থা গ্রহণ করেছি, আগামীতেও করব যেন এ ধরনের ঘটনা কোনোভাবেই না ঘটে।

তিনি বলেন, পরীক্ষার্থী পরীক্ষার আগে প্রস্তুত হবে। প্রবেশপত্র নিয়ে দুশ্চিন্তা কোনোভাবেই কাম্য নয়। এটি তো হতেই পারে না। প্রবেশপত্র যেন আরও আগে পায় আমরা সেটির ব্যাপারে ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে জবি শিক্ষক সমিতির শ্রদ্ধা
                                  

জবি প্রতিনিধি: বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) শিক্ষক সমিতির নব-নির্বাচিত কমিটি।  আজ বুধবার সকাল সাড়ে ১১ টার দিকে শিক্ষক সমিতির নেতারা এ শ্রদ্ধা জানান।

 এ সময় উপস্থিত ছিলেন শিক্ষক সমিতির নব-নির্বাচিত সভাপতি অধ্যাপক ড. নূরে আলম আব্দুল্লাহ, সহ-সভাপতি অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আব্দুল বাকি, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক জহির উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. শামীমা বেগম, যুগ্ম-সাধারণ অধ্যাপক ড. মনিরুদ্দিন, সদস্যপদ ড. জি এম আলামিন, ড. মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন, ড. আবুল হোসেন, নোমান মাহফুজ, মোহাম্মদ ইলিয়াস, ড. মোহাম্মদ রেজায়ুল হোসাইন, মোহাম্মদ ইমরান হোসাইন, সাহানা আক্তার, ড. প্রতিভা রানী কর্মকার এবং লুৎফর নাহারসহ বিভিন্ন বিভাগের আরও অনেক শিক্ষকবৃন্দ।
পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে সভাপতি অধ্যাপক নুরে আলম আব্দুল্লাহ বলেন, মুজিববর্ষে আমাদের নীলদলের বিজয়ে আমরা খুবই আনন্দিত। আমরা শিক্ষকদের অধিকার নিয়ে কাজ করব এবং ছাত্র শিক্ষকদের অধিকার রক্ষার্থে সকল ধরনের কার্যকরী পদক্ষেপ নিব।
অধ্যাপক ড. আনোয়ার হোসেন তার বক্তব্যে বলেন, শিক্ষক সমিতি আগামী এক বছরে যে পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করবে তা তুলে ধরেন। ১) সরকারি নীতিমালার আলোকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রভিডেন্ট ফান্ড সুনিশ্চিতকরণ (২) শিক্ষকদের স্বাস্থ্যবীমা নিশ্চিতকরণ এবং ইন্সুইরেন্স প্রতিষ্ঠাকরণ সরকারের নীতিমালার ভিত্তিতে (৩) সেমিনার/ওয়ার্কশপে অংশগ্রহণের ভাতা যৌক্তিক পর্যায়ে বৃদ্ধি (৪) ভাতা বৃদ্ধিসহ, গবেষণা ও অন্যান্য সুযোগ বৃদ্ধি (৫) বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের পেনশন নীতিমালা প্রণয়নে ব্যবস্থাকরণ এবং কল্যাণ তহবিল নীতিমালা চূড়ান্তকরণ (৬) কোন শিক্ষক কর্মচারী চাকরি অবস্থায় মৃত্যুবরণ করলে, তার নগত ক্ষতিপূরণের ব্যবস্থা করা (৭) অডিট আপত্তি ও দেনা পাওনার বিষয়ে প্রতিবছর হিসাব দপ্তর কর্তৃক প্রত্যায়নপত্র প্রদানের ব্যবস্থাকরণ (৮) শিক্ষক ডরমেটরির জন্য প্রয়োজনীয় সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিতকরণ (৯) বিভাগগুলোর ল্যাবরেটরির জন্য বরাদ্দকৃত অর্থ বছরের শুরুতে বিভাগে পৌছে দেওয়া এবং সেগুলোর বাস্তবায়নে তদারকি করা।

গ্রিন ইউনিভার্সিটিতে ‘রিয়েল এস্টেট সেল্স এ্যান্ড মার্কেটিং’ শীর্ষক ওয়ার্কশপ
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক: খাদ্য-বস্ত্রের পরেই তৃতীয় মৌলিক চাহিদা বাসস্থানের চাহিদা পূরণে সরকারিভাবে যেমন নানা উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে, তেমনি গড়ে উঠছে বেসরকারি অনেক বাণিজ্যিক প্রকল্প। মূলত অপার সম্ভাবনাময় এ খাতের ভবিষ্যৎ উন্নতির বিষয়টি মাথায় রেখেই দিনব্যাপী ‘রিয়েল এস্টেট সেলস্ এ্যান্ড মার্কেটিং’ শীর্ষক ওয়ার্কশপের আয়োজন করেছে গ্রিন ইউনিভার্সিটির অব বাংলাদেশ।

গতকাল শুক্রবার (২৪ জানুয়ারি) পূর্বাচল আমেরিকান সিটিস্থ বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থায়ী ক্যাম্পাসে এই ওয়ার্কশপের আয়োজন করা হয়। এতে বিভিন্ন কোম্পানীর তিন শতাধিক সেল্স এক্সিকিউটিভরা অংশ নেন।

ওয়ার্কশপে গ্রিন ইউনিভার্সিটির উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. গোলাম সামদানী ফকিরের সভাপতিত্বে আইইউবিএটি উপাচার্য অধ্যাপক ড. আব্দুর রব এতে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, রাজধানীতে আবাসন খাতের চাহিদা যেমন বাড়ছে, তেমনি বাড়ছে রিয়েল এস্টেট কোম্পানির সংখ্যা। তারা বলেন, রাজধানীর জীবনযাত্রার মানে নগরায়নের নেতিবাচক প্রভাব পড়ায় মানুষ অনেক ক্ষেত্রেই নিকটস্থ আবাসন প্রকল্পের দিকে ঝুঁকছে। উচ্চবিত্তের পাশাপাশি নি¤œবিত্তরাও এসব প্রকল্পে প্লট-ফ্ল্যাট কিনছে।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে আইইউবিএটি উপাচার্য অধ্যাপক ড. আব্দুর রব বলেন, সবাই মাথা খোঁজার ঠাঁই চায় এবং এটা প্রয়োজন। আর এ কারণেই সময়ের সঙ্গে তাল মিলিয়ে আবাসন সেক্টর খাতটি এগিয়ে যাচ্ছে। শুধু তাই নয়, অর্থনীতিতে আয়ের বড় একটি অংশ রিয়েল এস্টেট থেকে আসছে। এ সময় তিনি এস্টেট কোম্পানীগুলোকে শহরের পাশাপাশি গ্রামেও বিনিয়োগ করার আহ্বান জানান।

সভাপতির বক্তব্যে গ্রিন ইউনিভার্সিটির উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. গোলাম সামদানী ফকির বলেন, বাংলাদেশের ক্রমবর্ধমান মানুষের জন্য আবাসন প্রকল্প অবশ্যই গুরুত্বপূর্ণ। তবে এ ক্ষেত্রে সব পর্যায়ের মানুষের কথা বিবেচনা করতে হবে। আবাসন প্রকল্প যেন শুধু উচ্চবিত্ত মানুষের জন্য গড়ে না ওঠে। কারণ, এটা মৌলিক অধিকার।

ওয়ার্কশপে গ্রিন ইউনিভার্সিটির বিজনেস অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. গোলাম আহমেদ ফারুকী, সহকারী অধ্যাপক মাহমুদ ওয়াহিদ রিয়েল এস্টেট সেল্স স্ট্র্যাটেজি ও অনলাইন মার্কেটিংয়ের নানা দিক নিয়ে বক্তৃতা করেন।

ওয়ার্কশপ শেষে অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে সার্টিফিকেট বিতরণ করা হয়। এছাড়াও সবার অংশগ্রহণে আয়োজিত র‌্যাফেল ড্র-তে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনসের সৌজন্যে ঢাকা-সিঙ্গাপুর, ঢাকা-কুয়ালালামপুর ও ঢাকা-ব্যাংকক টিকেট প্রদান করা হয়।

উৎসবমুখর পরিবেশে স্টুডেন্ট কেবিনেট নির্বাচন চলছে
                                  

স্টাফ রিপোর্টার : দেশের মোট ২২ হাজার ৯২৬টি মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও মাদ্রাসায় উৎসবমুখর পরিবেশে চলছে স্টুডেন্ট কেবিনেট নির্বাচন। শিশুকাল থেকে গণতন্ত্রের চর্চা এবং গণতান্ত্রিক মূল্যবোধ জাগ্রত করার লক্ষ্যে প্রতি বছরের মতো এবারও স্টুডেন্ট কেবিনেট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

শনিবার সকাল ৯টায় শুরু হওয়া এ ভোটগ্রহণ বিরতিহীনভাবে চলবে দুপুর ২টা পর্যন্ত। বিকেলে বিজয়ীদের তালিকা প্রকাশ করা হবে। ভোট শুরুর পর থেকে স্বতঃস্ফূর্তভাবে পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিচ্ছে ৬ষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণির ক্ষুদে শিক্ষার্থীরা। তাদের প্রত্যক্ষ ভোটে নির্বাচিত হবে স্কুল কেবিনেট।

ঢাকার মতিঝিল সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে সরেজমিনে দেখা যায়, বিদ্যালয় প্রাঙ্গণ জুড়ে সাদাকালো ও রঙিন কাগজে হাতে লেখা পোস্টার ঝোলানো হয়েছে। সেসব পোস্টারে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করা প্রার্থীদের পক্ষে ভোট চাওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে এসব পোস্টারে প্রার্থীরা তাদের নির্বাচনী নানা ইশতেহার তুলে ধরেছে।

নির্বাচন উপলক্ষে সকাল ৭টা থেকে স্কুল ড্রেস পড়ে শিক্ষার্থীরা বিদ্যালয়ে প্রবেশ করতে শুরু করে। বিদ্যালয়ের মাঠে লাইনে সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে একে একে ক্লাস রুমে গিয়ে সেখানে বসানো ভোট বক্সে ভোটাধিকার প্রয়োগ করে বেরিয়ে আসছে শিক্ষার্থীরা।

শিক্ষার্থীদের এ নির্বাচন কার্যক্রম পরিদর্শন করতে সকালে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি মতিঝিল সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে আসেন। এ সময় তিনি বিভিন্ন ভোট কেন্দ্র ঘুরে দেখেন।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, শিক্ষার্থীদের মাঝে গণতান্ত্রিক চর্চা, নিজেদের অধিকার সম্পর্কে ধারণা, অন্যের মতামতের প্রতি সহিষ্ণুতা ও শ্রদ্ধা প্রদর্শন, শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের মধ্যে আন্তরিকতা তৈরি, শিক্ষার্থী ঝরে পড়ার হার রোধসহ নিজেদের মূল্যবোধ ও দায়িত্ব সর্ম্পকে শিক্ষা প্রদানে স্কুল কেবিনেট নির্বাচন আয়োজন করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, আজকের শিক্ষার্থীরা নানা ধরনের উন্নয়নমূলক কর্মকা-ে অংশগ্রহণের সুযোগ পাচ্ছে। শিক্ষার্থীরা নিজেদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করে নেতা নির্বাচন করছে। সেই নেতার নির্দেশনা মেনে চলছে। পড়ালেখার পাশাপাশি বিদ্যালয়ের নানা ধরনের কর্মকা- যুক্ত হচ্ছে। এতে করে ওই ছাত্র-ছাত্রীর নিজের দায়িত্ব সর্ম্পকে সচেতন, নিজের মূল্যবোধ তৈরিসহ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানেরও উন্নয়ন হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, সকল স্থানে একজন দলনেতা মানতে হয়, শিক্ষার্থীরা বিদ্যালয়ে সেই জ্ঞানার্জন করতে পারছে। শিশুকাল থেকে গণতন্ত্রের চর্চা এবং গণতান্ত্রিক মূল্যবোধের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হতে পারছে। অন্যের মতের প্রতি সহিষ্ণুতা ও শ্রদ্ধা প্রদর্শন, শিখন শেখানোর কার্যক্রমে শিক্ষকদের সহায়তা, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শতভাগ ভর্তি ও ঝরে পড়া রোধে সহায়তা, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পরিবেশ উন্নয়ন কর্মকা-ে অংশগ্রহণ ও ক্রীড়া, সাংস্কৃতিকসহ সহশিক্ষা কার্যক্রমে শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে শিখছে।

দীপু মনি বলেন, এ নির্বাচনে যারা নির্বাচিত হবে তারা নিজেদের দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করবে, আর যারা নির্বাচিত হবে না তারা মন খারাপ না করে বিজয়ীদের সঙ্গে থেকে নিজেদের দায়িত্ব পালন করবে।

দেশের মাধ্যমিক বিদ্যালয় (৬ষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণি) ও দাখিল মাদরাসায় এই নির্বাচন হলেও অন্য কোনো পর্যায়ের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান যেমন- নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়, উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও কলেজ এবং আলিম, ফাজিল ও কামিল মাদরাসা নির্বাচনের আওতায় বিবেচিত হবে না।

তফসিল অনুযায়ী, ১৪ জানুয়ারি থেকে স্টুডেন্টস কেবিনেট নির্বাচনের মনোনয়নপত্র আহ্বান করা হয়। ১৬ জানুয়ারি মনোনয়নপত্র জমা নেয়ার শেষ দিন ছিল। যাচাই বাছাই শেষে ১৮ জানুয়ারি বৈধ প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করা হয়। ১৯ জানুয়ারি মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার শেষে প্রার্থীর চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করা হয়।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের তথ্যানুযায়ী, এ বছর দেশের ৮টি বিভাগ ও ৮টি মহানগরের আওতাধীন ৫৫৯টি উপজেলা/থানায় মোট ২২ হাজার ৯২৬টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। তার মধ্যে ১৬ হাজার ৩৮৪টি মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও ৬ হাজার ৫৪২টি দাখিল মাদরাসা রয়েছে।

এবার মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ১ লাখ ৩১ হাজার ৭২টি ও মাদরাসায় ৫২ হাজার ৩৩৬টি পদে প্রার্থীরা অংশগ্রহণ করছে। নির্বাচনে মোট ১ কোটি ১৫ লাখ ৫৩ হাজার ৯১৬ জন ভোটার রয়েছে। তাদের মধ্যে ৬২ লাখ ৫১ হাজার ৬৮৩ জন ছাত্রী (৫৪ দশমিক ১০ শতাংশ) রয়েছে।

২০১৬, ২০১৭, ২০১৮, ২০১৯ সালে দেশে সব মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও দাখিল মাদরাসায় স্টুডেন্টস কেবিনেট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছিল।

চবিতে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনায় আটক ২০
                                  

চবি প্রতিনিধি: চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে গতকালের ছাত্রলীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় ২০ নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। এদের মধ্যে সিএফসি’র (চুজ ফ্রেন্ডস উইথ কেয়ার) ১২ জন ও বিজয়ের ৮জন নেতাকর্মী। বুধবার রাতে শাহ আমানত ও সোহরাওয়ার্দী হলে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়।

জানা যায়, তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বুধবার বিকাল ৪টার দিকে ছাত্রলীগের তিন কর্মীকে মারধর ও কুপিয়ে জখম করার প্রতিবাদে অনির্দিষ্টকালের জন্য অবরোধের ডাক দেয় ছাত্রলীগের এক পক্ষ ‘বিজয়’। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সোহরাওয়ার্দী ও শাহ আমানত হলের সামনে সংঘর্ষে জড়ান বিজয় ও (চুজ ফ্রেন্ডস উইথ কেয়ারের) সিএফসি নেতাকর্মীরা।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর এস এম মনিরুল হাসান জানান, তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্পদ নষ্ট করেছে। তাদের অনেক ছাড় দেয়া হয়েছে। এখন অপরাধীদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের দুইটি হল থেকে সন্দেহভাজন হিসেবে ২০ জনকে আটক করা হয়েছে। যাচাই-বাছাই শেষে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বারৈচা বালিকা বিদ্যালয়ে খোলা মাঠে পাঠদান
                                  

বেলাব (নরসিংদী) প্রতিনিধি: নরসিংদীর বেলাব উপজেলার বারৈচা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের পাঠদান হচ্ছে খোলা মাঠে। শ্রেণী কক্ষের সংকটের কারণে দীর্ঘদিন ধরে বেলাব উপজেলার পাঁচবারের শ্রেষ্ঠ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান হিসেবে স্বীকৃতি পাওয়া এই বিদ্যালয়ের পাঠদান চলে খোলা মাঠে।
বেলাব উপজেলার চর উজিলাব ইউনিয়নের ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের পাশে বারৈচায় স্থাপিত এই বিদ্যালয়ে গিয়ে দেখা যায় , হাড় কাঁপানো শীতের সকালে ও শ্রেণী কক্ষে শিক্ষার্থীদের জায়গা না হওয়ায় খোলা মাঠে শতাধিক শিক্ষার্থীদের ক্লাস নিচ্ছেন শিক্ষকরা। এভাবেই চলছে দুই বছর ধরে। কুয়াশা ও হাড়কাঁপানো শীতে শিক্ষার্থীদের ঠান্ডাজনিত সমস্যাসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হচ্ছে।

১৯৮৪ সালে নির্মিত বেলাব উপজেলার শ্রেষ্ঠ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বারৈচা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের বর্তমান শিক্ষার্থীর সংখ্যা ৯২৩ জন। শ্রেণীকক্ষ রয়েছে ১২ টি। প্রতি কক্ষে বসতে পারে ৫০ জন শিক্ষার্থী। চলতি বছরও বিদ্যালয়টি বেলাব উপজেলার মধ্যে জেএসসি ও এসএসসি পরিক্ষায় একাধিক জিপি ৫ সহ শতভাগ পাস করে বেলাব উপজেলার মধ্যে শ্রেষ্ঠপ্রতিষ্ঠান হিসেবে স্বীকৃতি পায়। চারবার বিদ্যালয়টির ফলাফলের কারণে বেলাব উপজেলার শ্রেষ্ঠ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান হিসেবে স্বীকৃতি পায়।এছাড়া বিদ্যালয়ে রয়েছে মেধাবী শিক্ষার্থীদের আবাসিক সুবিধা।  এসব কারণে বেলাব উপজেলার পাশাপাশি রায়পুরা , শিবপুর ,  মনোহরদী উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে শিক্ষার্থী ভতি হয় এই বিদ্যালয়ে।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো.মোস্তফা কামাল বলেন, প্রায় দুই বছর ধরে শ্রেণী কক্ষ সংকটের কারণে বিদ্যালয়ের মাঠে আমরা দুই তিনটি করে ক্লাস নিচ্ছি। এতে আমাদের শিক্ষার্থীদের অনেক সমস্যা হয়। এই কারণে একটি ভবন তৈরি করে ও এ সমস্যা সমাধান করার জন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয়সহ বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত আবেদন করেছি। কিন্তু এর কোন ফল পাওয়া যাচ্ছে না।

বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মো. আব্দুল জব্বার মাষ্টার বলেন, চলতি বছর সহ পাঁচবার আমাদের বিদ্যালয়টি বেলাব উপজেলায় শ্রেষ্ঠ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে। আমাদের বিদ্যালয়ের লেখাপড়ার মান ভালো। এই কারণে শিক্ষার্থীর সংখ্যা ও বেশি। যার কারণে শ্রেণীকক্ষে জায়গা না হওয়ায় বাইরে ক্লাস নিতে হচ্ছে বাধ্য হয়ে। অনেক দরখাস্ত করেছি। আজ ও বিদ্যালয়ের অতিপ্রয়োজনীয় একটি ভবন তৈরি হয়নি।

প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক পাচ্ছেন জবির ৬ শিক্ষার্থী
                                  

জবি প্রতিনিধিঃ বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) প্রদত্ত ‘প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক-২০১৮ পাচ্ছেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের(জবি) ৬ শিক্ষার্থী।

বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) নিজস্ব ওয়েবসাইটে এ তথ্য প্রকাশ করা হয়। জবির ৬ অনুষদে সর্বোচ্চ ফলাফলধারীরা পাচ্ছেন এ পদক।রোববার (১২জানুয়ারি) বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক-২০১৮ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীরা হলেন- লাইফ অ্যান্ড আর্থ সায়েন্স অনুষদের মাইক্রোবায়োলজি অ্যান্ড বায়োটেকনোলজি বিভাগের শিক্ষার্থী মেহেদী হাসান, বিজ্ঞান অনুষদের গণিত বিভাগের শিক্ষার্থী সেলিম হোসেন, কলা অনুষদের ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের শিক্ষার্থী মো. ওমর ফারুক, ব্যবসা অনুষদের ব্যবস্থাপনা বিভাগের শিক্ষার্থী শারমিন সুলতানা, সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের সমাজকর্ম বিভাগের শিক্ষার্থী উম্মে হাবিবা ও আইন অনুষদের আইন বিভাগের শিক্ষার্থী আলমগীর হোসেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার প্রকৌশলী ওহিদুজ্জামান বলেন, অনুষদভিত্তিক ফলাফলের জন্য ৬ শিক্ষার্থী প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক পাচ্ছেন। শিক্ষার্থীদের সাফল্যে আমরা গর্বিত ও আনন্দিত। আমরা তাদের উত্তরোত্তর সাফল্য কামনা করছি।

উল্লেখ্য, উচ্চশিক্ষায় শিক্ষার্থীদের মেধাবিকাশে উৎসাহিত করতেই ইউজিসি ২০০৬ সাল থেকে ‘প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক’ প্রদান করে আসছে।এ বছর ‘প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক-২০১৮’ এর জন্য সারাদেশের ৩৬টি বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৭২ জন শিক্ষার্থীকে মনোনীত করা হয়। এর মধ্যে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ৬ শিক্ষার্থীর নাম রয়েছে।

হাসপাতাল ছাড়লেন ঢাবির সেই ছাত্রী
                                  

স্টাফ রিপোর্টার : রাজধানীর কুর্মিটোলা এলাকায় ধর্ষণের শিকার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) সেই ছাত্রীকে হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে। শারীরিক অবস্থার উন্নতি হওয়ায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ এ সিদ্ধান্ত নেয়।

বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার দিকে হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টার থেকে ছাড়পত্র দেওয়ার পর বাড়ির উদ্দেশে রওনা হন ওই ছাত্রী।

ঢামেক পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ কে এম নাসির উদ্দিন সাংবাদিকদের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, মেয়েটি সব ধরনের ট্রমা ও সমস্যা কাটিয়ে এখন সুস্থ আছে। তাই বোর্ড চিকিৎসকদের পরামর্শে তাকে রিলিজ দেয়া হয়েছে। এছাড়াও পরবর্তীতে কোনো সমস্যা হলে তাকে আবারও আসতে বলা হয়েছে বলে জানান তিনি।

হাসপাতাল ছেড়ে চলে যাওয়ার আগে ওই ছাত্রীর বাবা প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, পুলিশবাহিনী ও ঢামেক কর্তৃপক্ষের সহযোগিতার জন্য ধন্যবাদ জানিয়ে একটি চিঠি দিয়ে গেছেন বলে জানান ঢামেকের পরিচালক।

গত ৫ জানুয়ারি সন্ধ্যায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় বর্ষের ওই ছাত্রী শেওড়ায় বান্ধবীর বাসায় যাওয়ার পথে কুর্মিটোলায় বাস থেকে নামেন। এ সময় পেছন থেকে মুখ চেপে ধরে তাকে তুলে সড়কের পাশে নিয়ে ধর্ষণ করা হয়।

কয়েক ঘণ্টা পর চেতনা ফিরে পেয়ে ওই ছাত্রী বান্ধবীর বাসায় যান। রাতেই তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে ভর্তি করা হয়। পরদিন ক্যান্টনমেন্ট থানায় একটি মামলা করেন তার বাবা।

সহপাঠী ধর্ষিত হওয়ার খবরে সেই রাত থেকেই ক্ষোভে উত্তাল হয়ে ওঠে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। মামলা তদন্তের দায়িত্ব গোয়েন্দা পুলিশকে দেওয়া হলেও র‌্যাবসহ পুলিশের অন্যান্য বিভাগ তদন্তে নামে।

র‌্যাব জানায়, ধর্ষণ করার পর ওই ছাত্রীর মোবাইল ফোন ও ব্যাগ নিয়ে গিয়েছিল ধর্ষক, যার সূত্র ধরে মঙ্গলবার দুইজনকে আটক করা হয়। পরে তাদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে বুধবার ভোর পৌনে পাঁচটায় শেওড়া রেল ক্রসিং এলাকা থেকে মজনুকে র‌্যাব গ্রেপ্তার করে। তার কাছ থেকে ধর্ষণের শিকার শিক্ষার্থীর মোবাইল ফোন, ব্যাগ ও পাওয়ার ব্যাংক উদ্ধার করার কথাও জানানো হয় র‌্যাবের পক্ষ থেকে।

বুধবার দুপুরে মজনুকে কারওয়ানবাজারে র‌্যাবের মিডিয়া সেন্টারে নেওয়ার পর সংবাদ সম্মেলনে তার বিষয়ে বিভিন্ন তথ্য প্রকাশ করেন সারোয়ার বিন কাশেম। গ্রেপ্তারকৃত মজনু এর আগেও ‘বহু নারীকে ধর্ষণ করেছে’ বলে সংবাদ সম্মেলনে জানান র‌্যাব কর্মকর্তা সারোয়ার। তিনি জানান, মজনু একজন ‘মাদকাসক্ত এবং ‘সিরিয়াল রেপিস্ট’।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে মজনু ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ওই ছাত্রীকে ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছেন বলে জানিয়েছে র‌্যাব।

শিক্ষার্থী ধর্ষণের প্রতিবাদে বিক্ষোভে উত্তাল ঢাবি
                                  

স্টাফ রিপোর্টার : রাজধানীর কুর্মিটোলায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়-ঢাবির দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী ধর্ষণের ঘটনায় দোষীদের কঠোর শাস্তি চেয়ে আজও আন্দোলনে নেমেছেন শিক্ষার্থীরা।

মঙ্গলবার সকালে তীব্র শীতেও শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ মিছিল করছেন। স্লোগানে স্লোগানে ধর্ষণের প্রতিবাদ ও এর বিচার দাবি করছেন তারা।

আজ সকাল সাড়ে ১০টার দিকে প্রথমে শুভ সংঘের ব্যানারে প্রতিবাদ জানানো হয়। বেলা পৌনে ১১টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলার শিক্ষার্থীসহ অন্যান্য বিভাগের শিক্ষার্থীরা মিলে মুখে কালো পতাকা বেঁধে পদযাত্রা করেন। পরে তারা রাজু ভাস্কর্যের সামনে অবস্থান নেন।

সেখান থেকে তাসনিম ফারিয়া নামে এক শিক্ষার্থী বলেন, আমরা আগেও দেখেছি, এ ধরনের ঘটনার বিচার হয় না। আসামিরা আইনের আওতায় আসে না। আমাদের সহপাঠীর ওপর চলা নির্যাতনের প্রতিবাদ ও বিচারের দাবিতে আন্দোলন চলবে। আমরা চাই, দ্রুত জড়িতদের গ্রেপ্তার করা হোক। আইনের শাসন নিশ্চিত হোক।

গত রোববার বিকাল সাড়ে পাঁচটার পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসে করে বান্ধবীর বাসায় যাচ্ছিলেন ঘটনার শিকার ওই ছাত্রী। কুর্মিটোলা বাস স্টেশনে নামার পর তাকে অজ্ঞাত এক ব্যক্তি অনুসরণ করতে থাকে। একপর্যায়ে মাঝপথে তাকে ধরে নির্জন স্থানে নিয়ে ধর্ষণ করে। রাত ১০টার দিকে জ্ঞান ফিরলে রিকশায় করে বান্ধবীর বাসায় যান ওই ছাত্রী। সেখান থেকে বান্ধবীসহ অন্য সহপাঠীরা রাত পৌনে একটার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) ভর্তি করেন। ঘটনাটি জানাজানি হওয়ার পর থেকে বিক্ষোভে ফেটে পড়েন ঢাবি শিক্ষার্থীরা। সোমবার সারাদিন বিক্ষোভ, অবরোধ করে সহপাঠীর সঙ্গে এমন আচরণের বিচার দাবি করেন তারা।

ছাত্রী ধর্ষণের প্রতিবাদে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য বরাবর স্মারকলিপি দিয়েছে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল। মঙ্গলবার বেলা ১১টায় মধুর ক্যান্টিন থেকে এক বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে উপাচার্যের কার্যালয়ের যান ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা।  এসময় তারা `ধর্ষকের কালো হাত ভেঙে দাও গুঁড়িয়ে দাও`  `শিক্ষা ঐক্য প্রগতি ছাত্রদলের মূলনীতি` এবং খালেদা জিয়ার মুক্তি নিয়েও বিভিন্ন স্লোগান দেন। পরে ছাত্রদলের সভাপতি ফজলুর রহমান খোকনসহ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের কয়েকজন নেতা উপাচার্যের কাছে স্মারকলিপি জমা দেন।

এদিকে পূর্বঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী ধর্ষণের ঘটনার প্রতিবাদে রাজু ভাস্কর্যে অবস্থান নিয়েছে ছাত্রলীগ। এসময় নেতাকর্মীরা প্রতিবাদস্বরূপ বিভিন্ন চিত্রের অংকন করেন। ধর্ষণের বিরুদ্ধে আল্পনা আঁকেন।  বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি সনজিত চন্দ্র দাসসহ বিভিন্ন হলের নেতাকর্মী উপস্থিত রয়েছেন।

ঢাবি ছাত্রীকে ধর্ষণের প্রতিবাদে অনশন
                                  

স্টাফ রিপোর্টার : রাজধানীর কুর্মিটোলা এলাকায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়-ঢাবির এক ছাত্রী ধর্ষণের শিকার হওয়ার প্রতিবাদে অনশনে বসেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের দর্শন বিভাগের এক ছাত্র।

অনশনে বসা ছাত্রের নাম সিফাতুল ইসলাম সিফাত। দর্শন বিভাগের ২০১৩-১৪ সেশনের ছাত্র তিনি। সোমবার সকাল থেকে অনশন শুরু করেন সিফাত। পরে তার সঙ্গে যোগ দেন আরো কয়েকজন শিক্ষার্থী।

জানা যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে একটি ব্যানার নিয়ে সকাল থেকে অনশন শুরু করেন সিফাত। পাশে হাতে লেখা একটা ব্যানারে লেখা, ‘ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীকে ধর্ষণের প্রতিবাদে অনশন।’

সিফাতুল ইসলাম বলেন, আমাদের বোন ধর্ষণের শিকার হয়েছে। তার প্রতিবাদে অনশন পালন করছি। দ্রুত ধর্ষকদের গ্রেপ্তারের দাবি জানাচ্ছি।

পরে অনশনে যোগ দেওয়া দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের ছাত্রী শেখ কান্তা রেজা বলেন, এরকম ধর্ষণের ঘটনা দেশে প্রায় প্রতিদিনই ঘটে। কিছু দিন পরে আবার তা ধামাচাপা পড়ে যায়। ঢাবি শিক্ষার্থীকে ধর্ষণে যারা জড়িত, তাদের গ্রেপ্তার করে বিচারের আওতায় আনার দাবি জানাচ্ছি।

জানা যায়, রোববার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসে করে শেওড়া যাওয়ার উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেন ওই ছাত্রী। সন্ধ্যা ৭টার দিকে কুর্মিটোলায় বাস থেকে নামার পর অজ্ঞাত ব্যক্তি মুখ চেপে তাকে পার্শ্ববর্তী একটি স্থানে নিয়ে যান। সেখানে তাকে অজ্ঞান করে ধর্ষণ ও শারীরিক নির্যাতন করা হয়। পরে রাত ১০টার দিকে জ্ঞান ফিরলে তিনি নিজেকে নির্জন স্থানে আবিষ্কার করেন। পরে সেখান থেকে সিএনজিচালিত অটোরিকশায় করে নিজ গন্তব্যে পৌঁছালে রাত ১২টার পর তাকে ঢামেক জরুরি বিভাগে নিয়ে আসা হয়। পরে তাকে ওসিসিতে ভর্তি করে।

ফারাবির অবস্থার উন্নতি, খোলা হয়েছে লাইফ সাপোর্ট
                                  

স্টাফ রিপোর্টার : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের হামলায় আহত বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের নেতা ও ধানমণ্ডির চার্টার্ড বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের ছাত্র তুহিন ফারাবীর শারীরিক অবস্থার উন্নতি হয়েছে।

সোমবার ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের (ঢামেক) জরুরি বিভাগের আবাসিক চিকিৎসক ডা. মো. আলাউদ্দিন এই তথ্য নিশ্চিত করে জানান, ফারাবির লাইফ সাপোর্ট খুলে দেওয়া হয়েছে। তিনি এখন কথা বলছেন। অন্যদিকে ডাকসুর ভিপি নুরুল হক নুরসহ বাকি দুই জনের অবস্থা আগের চেয়ে ভালো।

এর আগে গত রোববার দুপুরে ডাকসু ভবনের নিজ কক্ষে হামলার শিকার হন ভিপি নুর ও তার অনুসারীরা। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ডাকসু ভবনের মূল ফটক বন্ধ করে নুরের ওপর লাঠিসোটা নিয়ে হামলা করা হয়। এছাড়া বাইরে থেকেও মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের নেতাকর্মীরা ইটপাটকেল ছোড়েন। হামলায় অন্তত ৩২ জন আহত হন।

নুরসহ আহত ছয়জনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আহতদের মধ্যে ফারাবীকে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়েছিল। এছাড়া আহত বাকিদের চিকিৎসা দিয়ে ঢামেক থেকে ছেড়ে দেয়া হয়।

জবিতে বহিষ্কৃত ছাত্রদের দৌরাত্ম, নিরব প্রশাসন
                                  

জবি প্রতিনিধিঃ জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে (জবি) বিভিন্ন অপকর্মে জড়িত থাকার অভিযোগে বহিস্কৃত ছাত্রদের দৌরাত্ম্যে অতিষ্ট হয়ে উঠছে সাধারণ শিক্ষার্থীরা। প্রতিনিয়ত ক্যাম্পাস ও এর আশেপাশের এলাকায় এসব শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে প্রায়ই মেয়েদের লাঞ্চিত, চাঁদাবাজি, মারামারি এবং গুমের মত ঘটনা ঘটাচ্ছে। এই ঘটনাগুলো বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন জানলেও কঠোর ব্যবস্তা নিচ্ছেনা তাদের বিরুদ্ধে। সুযোগ দেওয়ায় বারবার বিভিন্ন অপকর্মে জড়িয়ে পড়ছেন উশৃঙ্খল ছাত্ররা।
অনুসন্ধানে দেখা যায়, বিভিন্ন অপকর্মে জড়ানো যে সমস্ত শিক্ষার্থীর নাম প্রায় উঠে আসছে তারা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে শৃঙ্খলাভঙ্গের দায়ে একাধিকবার শাস্তিপ্রাপ্ত। তারা রাজনৈতিক ছত্রছায়ায় এবং প্রশাসনের উদাসীনতায় এদের দৌরাত্ম্য বেড়েই চলেছে।

অনুসন্ধানে আরও দেখা যায়, ইতিহাস বিভাগের ১২ ব্যাচের নূরে আলম, সমাজবিজ্ঞান বিভাগের ১১ব্যাচের আল সাদিক হৃদয় ইতিপূর্বে শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে বহিস্কার হলেও বর্তমান ক্যাম্পাস ও এর আশেপাশের এলাকায় বিভিন্ন অপরাধকান্ডে জড়িত। গত ১৩ তারিখে রাতেও এক নারী শিক্ষার্থীকে লাঞ্চিত করে তারা।
ইতিপূর্বে, প্রগতিশীল ছাত্রজোটের নেতাকর্মী ও সাংবাদিকদের উপর অতর্কিত হামলার প্রেক্ষিতে ২০১৮ সালের অক্টোবরে সাময়িক বহিষ্কার হয় ইতিহাস বিভাগের শিক্ষার্থী নূরে আলম। একই বছর ১৫ নভেম্বর আলি সাদিক হৃদয়কে এক টমটম চালককে মারধর ও ছাত্রলীগের দুইগ্রুপে সংঘর্ষে জড়িত থাকার অভিযোগে বহিষ্কার করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।
সম্প্রতি, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক মেসেঞ্জারে মেসেজ চালাচালির জের ধরে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে (জবি) সাবেক দুই শিক্ষার্থীকে চাপাতি দিয়ে কোপানোর অভিযোগে ৭ ছাত্রের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। এ ঘটনায় অন্যতম সমাজবিজ্ঞান বিভাগের আল সাদিক হৃদয়।
এদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসির প্রায় থেকে নূরে আলম ও আল সদিক হৃদয় দৈনিক প্রায় ১০ হাজার টাকা চাঁদা তোলে। জানা যায়, ফুচকা দোকান সহ ১৩টি চায়ের দোকান থেকে দৈনিক ১৫০-২০০ টাকা, খিচুড়ি ৩ টা দোকান থেকে ৩০০ টাকা ,ভাতের হোটেল ২টা ৩০০ টাকা ,রুটি-লুচি  ৩টা দোকান থেকে ৩০০ টাকা, সিংগারা-সমুচা দোকান থেকে ৫০০,  এছাড়াও রয়েছে বরফ,শরবত, শুকনো খাবারের দোকান সহ কয়েকটি পান-সিগারেটের দোকান থেকে ১০০-২০০ টাকা করে টাকা তোলা হয়। এছাড়াও গত ফেব্রুয়ারিতে প্রেমঘটিত কারণে শাখা ছাত্রলীগের দুইগ্রুপে সংঘর্ষেও অস্ত্রহাতে দেখা যায় নূরে আলমকে। এছাড়াও ক্যাম্পাসে বেপোরয়াভাবে বাইক চালানোর অভিযোগ আছে তাদের বিরুদ্ধে। এসব ঘটনায় জড়িত বহিস্কৃত পরিচয়হীন ছাত্রলীগ কর্মীদের আড়াল থেকে মদদ দিচ্ছেন জবি ছাত্রলীগের পদপ্রত্যাশী  নেতা সৈয়দ শাকিল । এই পদপ্রত্যাশী নেতাকেও বিভিন্ন সময়ে মারামারির ঘটনায় হাতে চাপাতি ও দা নিয়ে ঘুরতে। এছাড়াও জবি ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শেখ জয়নুল আবেদিন রাসেলের ঘনিষ্ঠ হিসাবে পরিচিত শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ শাকিল। শাখা ছাত্রলীগের দুইগ্রুপের সংঘর্ষে শাকিলের হাতে ধারালো অস্ত্র নিয়ে মহড়ার ছবিও বিভিন্ন জাতীয় পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে।

এসমস্ত অভিযোগের বিষয়ে আল সাদিক হৃদয় বলেন,  টিএসসিতে আমরা সবসময় যাতায়াত করি চা খায়, আমরা ওখান থেকে কোনো প্রকার চাঁদা নিই না, বরং আমরা দোকানদারদের বলে দিছি কেউ চাঁদা নিলে আমাদের বলতে।

নারী শিক্ষার্থী লাঞ্চিত করার বিষয়ে তিনি বলেন, আমি ছোটোভাইয়ের বাইকে আমি আসছিলাম, মেয়ে সাইড দিতেছিলো না আমার ছোটভাই সোজা চালইদিছে, মেয়ের গায়ে লাগে কি লাগে নাই। আমি ৭-৮ বার সরি বলছি মেয়েকে।

এবিষয়ে কথা বলতে চাইলে নূরে আলমের সাথে কথা বলার চেষ্টা করা হলেও সম্ভব হয়নি।

কর্মীদের অপকর্মের বিষয়ে সৈয়দ শাকিল বলেন, এরা এভাবে চললে আমার সাথে এদের রাজনীতি করার দরকার নাই, আমি এদের বলে দিবো। কোনো জায়গা থেকে টাকা নিবে, কোনো মেয়েকে আপত্তিকর কথা বললে আমার সাথে এদের রাজনীতি করার প্রয়োজন নাই।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর বলেন, যারা ক্যাম্পাসে অপকর্মে করবে তাদের বিরুদ্ধে আগের চেয়ে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।
যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ আসবে তাদের শাস্তি প্রদান করা হবে।

এ বিষয়ে কোতয়ালী থানার ওসি মো. মিজানুর রহমান বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের আশেপাশে যদি কেও চাদাবাজি করে থাকে  এবং তাদের নাম জানতে পারলে আমরা অবশ্যই ব্যবস্থা নিবো।
আমরা এ ব্যাপারে আপনাদের সহযোগীতা চাই।

রাজাকারকে শহীদ বলা জঘন্য অপরাধ: ঢাবি উপাচার্য
                                  

স্টাফ রিপোর্টার : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়-ঢাবি উপাচার্য অধ্যাপক মোহাম্মদ আখতারুজ্জামান বলেছেন, আমরা একটা পত্রিকায় দেখলাম একজন চিহ্নিত রাজাকারকে শহীদ বলা হয়েছে। স্বাধীন সার্বভৌম রাষ্ট্রে এই রাজাকারকে শহীদ বলা জঘন্য অপরাধ।

শনিবার সকালে রাজধানীর মিরপুর শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে শ্রদ্ধা জানানোর পর ঢাবি ভিসি এই মন্তব্য করেন।

ঢাবি উপাচার্য বলেন, আলবদর ও রাজাকারদের বিচার হয়েছে। বিচারের রায়ে অনেক রাজাকারের ফাঁসি হয়েছে। এসব রাজাকারকে শহীদ আখ্যায়িত করা জঘন্য অপরাধ। সামনে যেন এ ধরনের অপরাধ করার সাহস না পায় কেউ।

আখতারুজ্জামান আরও বলেন, আমাদের তরুণ সমাজ জেগেছে। এ ধরনের জঘন্য আস্ফালন তারা মানেনি। এটাই দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে। রাজাকারকে শহীদ বলা তরুণ সমাজ মানবে না, এটাই আমাদের আশার জায়গা।

দৈনিক সংগ্রাম পত্রিকায় কাদের মোল্লাকে শহীদ বলে সংবাদ প্রকাশ করে। এই ঘটনার জেরে শুক্রবার রাতে পত্রিকার অফিসে হামলা করে মুক্তিযোদ্ধা মঞ্চ নামের একটি সংগঠন। এছাড়া পত্রিকাটির সম্পাদক আবুল আসাদকে তুলে দেয়া হয় পুলিশের কাছে।


   Page 1 of 30
     শিক্ষা
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি বাড়ছে
.............................................................................................
ঢাবি শিক্ষার্থীদের হল ছাড়ার নির্দেশ
.............................................................................................
ঢাবিতে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ
.............................................................................................
পরীক্ষার সময় রাজনৈতিক কর্মসূচি না দেওয়ার আহ্বান শিক্ষামন্ত্রীর
.............................................................................................
বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে জবি শিক্ষক সমিতির শ্রদ্ধা
.............................................................................................
গ্রিন ইউনিভার্সিটিতে ‘রিয়েল এস্টেট সেল্স এ্যান্ড মার্কেটিং’ শীর্ষক ওয়ার্কশপ
.............................................................................................
উৎসবমুখর পরিবেশে স্টুডেন্ট কেবিনেট নির্বাচন চলছে
.............................................................................................
চবিতে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনায় আটক ২০
.............................................................................................
বারৈচা বালিকা বিদ্যালয়ে খোলা মাঠে পাঠদান
.............................................................................................
প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক পাচ্ছেন জবির ৬ শিক্ষার্থী
.............................................................................................
হাসপাতাল ছাড়লেন ঢাবির সেই ছাত্রী
.............................................................................................
শিক্ষার্থী ধর্ষণের প্রতিবাদে বিক্ষোভে উত্তাল ঢাবি
.............................................................................................
ঢাবি ছাত্রীকে ধর্ষণের প্রতিবাদে অনশন
.............................................................................................
ফারাবির অবস্থার উন্নতি, খোলা হয়েছে লাইফ সাপোর্ট
.............................................................................................
জবিতে বহিষ্কৃত ছাত্রদের দৌরাত্ম, নিরব প্রশাসন
.............................................................................................
রাজাকারকে শহীদ বলা জঘন্য অপরাধ: ঢাবি উপাচার্য
.............................................................................................
জবিতে গ্যারেজ খালি, যত্রতত্র কার পার্কিং
.............................................................................................
ঢাবির ৫২তম সমাবর্তন কাল
.............................................................................................
র‌্যাগিং ও রাজনীতিতে জড়িত হলে বুয়েট থেকে বহিষ্কার
.............................................................................................
জবির নতুন ট্রেজারার ড. কামাল উদ্দিন আহমেদ
.............................................................................................
প্রাথমিক-ইবতেদায়ি সমাপনী পরীক্ষা শুরু
.............................................................................................
জবিতে ২৩ নভেম্বর থেকে শুরু হতে যাচ্ছে UV-VIS & IR শীর্ষক ট্রেনিং
.............................................................................................
উপাচার্যের অপসারণ দাবিতে উত্তাল জাবি
.............................................................................................
জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষা শুরু
.............................................................................................
আবাসন সংকট : উপাচার্যের বাসার সামনে ঢাবি শিক্ষার্থীদের অবস্থান
.............................................................................................
জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষা শুরু ২ নভেম্বর
.............................................................................................
জবির বিজ্ঞান শাখার ফলাফল প্রকাশ
.............................................................................................
ঢাবির ‘খ’ ইউনিটের ফল প্রকাশ, পাস ২৩.৭২ শতাংশ
.............................................................................................
বুয়েটে ছাত্রলীগের রুম সিলগালা । দৈনিক স্বাধীন বাংলা
.............................................................................................
কাল ঢাবি ‘খ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার ফল
.............................................................................................
বুয়েটের আন্দোলন ২ দিনের জন্য শিথিল
.............................................................................................
ফাহাদ হত্যার বিচার দাবিতে উত্তাল বুয়েট
.............................................................................................
বুয়েট হলের সিঁড়িতে ছাত্রের লাশ, শরীরে আঘাতের চিহ্ন
.............................................................................................
ঢাবির ‘গ’ ইউনিটের ফল প্রকাশ, পাসের হার ১৫.৪৯ শতাংশ
.............................................................................................
শিক্ষার্থী আন্দোলনে উত্তাল বশেমুবিপ্রবি
.............................................................................................
শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মুখে বশেমুরবিপ্রবি বন্ধ ঘোষণা
.............................................................................................
পরীক্ষা থাকছে না প্রথম থেকে তৃতীয় শ্রেণী পর্যন্ত
.............................................................................................
দিনে শিক্ষক, রাতে রিক্সা-ভ্যান চালক
.............................................................................................
প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার সূচি প্রকাশ
.............................................................................................
ধলেশ্বরী নদীতে গোসল করতে গিয়ে ৩ শিক্ষার্থী নিখোঁজ
.............................................................................................
দ্বিতীয় দিনের মতো ঢাবির সব ভবনে তালা
.............................................................................................
সাত কলেজের অধিভুক্তি বাতিলের দাবিতে ঢাবির সব ফটকে তালা
.............................................................................................
শতভাগ পাস ৯০৯ প্রতিষ্ঠানে, ৪১টিতে পাস করেনি কেউ
.............................................................................................
যেভাবে জানা যাবে এইচএসসির ফল
.............................................................................................
এইচএসসিতে পাশের হার ৭৩.৯৩ শতাংশ
.............................................................................................
এমপিওভুক্তিতে অবহেলিত এলাকা অগ্রাধিকার পাবে
.............................................................................................
মৌলিক গবেষণায় পিছিয়ে পড়ছে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো
.............................................................................................
ফেসবুক পেজের বিরুদ্ধে রাবি ছাত্রীর জিডি
.............................................................................................
প্যানেল ঘোষণা করলো কোটা আন্দোলনকারীরা
.............................................................................................
দুদক জ্বরে কাঁপছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আখলাকুল আম্বিয়া
নির্বাহী সম্পাদক: মাে: মাহবুবুল আম্বিয়া
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক: প্রদ্যুৎ কুমার তালুকদার

সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: স্বাধীনতা ভবন (৩য় তলা), ৮৮ মতিঝিল বাণিজ্যিক এলাকা, ঢাকা-১০০০। Editorial & Commercial Office: Swadhinota Bhaban (2nd Floor), 88 Motijheel, Dhaka-1000.
সম্পাদক কর্তৃক রঙতুলি প্রিন্টার্স ১৯৩/ডি, মমতাজ ম্যানশন, ফকিরাপুল কালভার্ট রোড, মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত ।
ফোন : ০২-৯৫৫২২৯১ মোবাইল: ০১৬৭০৬৬১৩৭৭

Phone: 02-9552291 Mobile: +8801670 661377
ই-মেইল : dailyswadhinbangla@gmail.com , editor@dailyswadhinbangla.com, news@dailyswadhinbangla.com

 

    2015 @ All Right Reserved By dailyswadhinbangla.com

Developed By: Nytasoft