মঙ্গলবার, ১৫ অক্টোবর ২০১৯ | বাংলার জন্য ক্লিক করুন
  
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   আন্তর্জাতিক -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
মেক্সিকোয় বন্দুক হামলায় ১৪ পুলিশ নিহত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : মেক্সিকোতে বন্দুকধারীদের হামলায় ১৪ পুলিশ সদস্য নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও তিন জন। স্থানীয় সময় সোমবার দেশটির মিশোকান প্রদেশের এল আগুয়াজে এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

আদালতের আদেশ অনুযায়ী পুলিশ মিচোয়াকান রাজ্যের এল আগুয়াকে শহরে দায়িত্বপালন করার সময় তাদের গাড়িবহরে চোরাগোপ্তা হামলা হয় বলে জানিয়েছে বিবিসি।

পুলিশের টহল গাড়িগুলো শহররের ভিতর দিয়ে যাওয়ার সময় হামলাটি হয়। সশস্ত্র ব্যক্তিরা বেশ কয়েকটি পিক আপ ট্রাকে করে এসে পুলিশ বহরটি ঘিরে ফেলে এবং কর্মকর্তাদের লক্ষ্য করে গুলি করে, এরপর তাদের গাড়িগুলোতে আগুন ধরিয়ে দেয়।

এতে অন্তত ১৪ পুলিশ কর্মকর্তা নিহত ও অপর তিন কর্মকর্তা আহত হন।

ধারণা করা হচ্ছে, এ হামলায় জালিস্কো নুয়েভা জেনারেসন কারটেল (সিজেএনজি) নামে একটি মাফিয়া গ্রুপ জড়িত। ঘটনাস্থলে রেখে যাওয়া একটি মেসেজ থেকে তাদের জড়িত থাকার কথা জানা যায়।

দেশটির প্রেসিডেন্ট আন্দ্রেস ম্যানুয়েল লোপেজ এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়ে সাধারণ মানুষদের শান্ত থাকতে বলেছেন। তিনি বলেছেন, আপনি আগুন দিয়ে আগুন নেভাতে পারবেন না। সহিংসতার বিরুদ্ধে লড়াই সহিংসতা দিয়ে করা যায় না। শয়তানের বিরুদ্ধে লড়াই শয়তান দিয়ে হয় না-আপনি যদি শয়তানের বিরুদ্ধে লড়তে চান তাহলে সৃষ্টিকর্তার নির্দেশনা মোতাবেক লড়তে হবে।

এল আগুয়াজে এলাকাটি মাদক ব্যবসায়ী মাফিয়াদের জন্য কুখ্যাত। সেখানে সিজেএনজি ও লস ভিয়াগ্রাস নামে দু’টি গ্রুপের মধ্যে প্রায়ই সংঘর্ষ হয়। গত আগস্টে মিশোকানের একটি ব্রিজে নয়জনকে ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া যায়। আর রাস্তায় পাওয়া যায় আরও সাতটি মরদেহ।

মেক্সিকোয় বন্দুক হামলায় ১৪ পুলিশ নিহত
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : মেক্সিকোতে বন্দুকধারীদের হামলায় ১৪ পুলিশ সদস্য নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও তিন জন। স্থানীয় সময় সোমবার দেশটির মিশোকান প্রদেশের এল আগুয়াজে এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

আদালতের আদেশ অনুযায়ী পুলিশ মিচোয়াকান রাজ্যের এল আগুয়াকে শহরে দায়িত্বপালন করার সময় তাদের গাড়িবহরে চোরাগোপ্তা হামলা হয় বলে জানিয়েছে বিবিসি।

পুলিশের টহল গাড়িগুলো শহররের ভিতর দিয়ে যাওয়ার সময় হামলাটি হয়। সশস্ত্র ব্যক্তিরা বেশ কয়েকটি পিক আপ ট্রাকে করে এসে পুলিশ বহরটি ঘিরে ফেলে এবং কর্মকর্তাদের লক্ষ্য করে গুলি করে, এরপর তাদের গাড়িগুলোতে আগুন ধরিয়ে দেয়।

এতে অন্তত ১৪ পুলিশ কর্মকর্তা নিহত ও অপর তিন কর্মকর্তা আহত হন।

ধারণা করা হচ্ছে, এ হামলায় জালিস্কো নুয়েভা জেনারেসন কারটেল (সিজেএনজি) নামে একটি মাফিয়া গ্রুপ জড়িত। ঘটনাস্থলে রেখে যাওয়া একটি মেসেজ থেকে তাদের জড়িত থাকার কথা জানা যায়।

দেশটির প্রেসিডেন্ট আন্দ্রেস ম্যানুয়েল লোপেজ এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়ে সাধারণ মানুষদের শান্ত থাকতে বলেছেন। তিনি বলেছেন, আপনি আগুন দিয়ে আগুন নেভাতে পারবেন না। সহিংসতার বিরুদ্ধে লড়াই সহিংসতা দিয়ে করা যায় না। শয়তানের বিরুদ্ধে লড়াই শয়তান দিয়ে হয় না-আপনি যদি শয়তানের বিরুদ্ধে লড়তে চান তাহলে সৃষ্টিকর্তার নির্দেশনা মোতাবেক লড়তে হবে।

এল আগুয়াজে এলাকাটি মাদক ব্যবসায়ী মাফিয়াদের জন্য কুখ্যাত। সেখানে সিজেএনজি ও লস ভিয়াগ্রাস নামে দু’টি গ্রুপের মধ্যে প্রায়ই সংঘর্ষ হয়। গত আগস্টে মিশোকানের একটি ব্রিজে নয়জনকে ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া যায়। আর রাস্তায় পাওয়া যায় আরও সাতটি মরদেহ।

টাইফুনে বিধ্বস্ত জাপান, নিহত ১৯
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : জাপানে আঘাত হেনেছে ইতিহাসের সবচেয়ে বড় টাইফুন হাগিবিস। টাইফুনের আঘাতে উপকূলীয় এলাকা বিধ্বস্ত হয়ে গেছে। আগে থেকেই সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বন সত্ত্বেও অন্তত ১৯ জন নিহত হয়েছেন। এছাড়া আরও বহু মানুষ এখনও নিখোঁজ রয়েছে।

জাপানের কেন্দ্রীয় শহর নাগানোতে ভয়াবহ বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। সেখানকার একটি নদীর পানি বেড়ে ঘরবাড়ি ডুবিয়ে দিয়েছে। টাইফুনের আঘাতে ঘরবাড়ি, রাস্তাঘাট বিধ্বস্ত হয়েছে। গাছপালা ভেঙে পড়েছে। বিশাল অঞ্চল বিদ্যুৎবিহীন হয়ে পড়েছে। রাগবি বিশ্বকাপের ম্যাচ পরিত্যক্ত হয়েছে। খবর এএফপির।

শক্তিশালী এই ঝড়ের প্রভাবে জাপানের বিভিন্ন স্থানে প্রায় ১শ মানুষ আহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে কিয়োদো নিউজ। দেশজুড়ে ২৭ হাজার প্রতিরক্ষা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন করেছে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়।

জাপানের সেনাবাহিনী হেলিকপ্টারে করে উদ্ধার অভিযান পরিচালনা করছে। রাতভর অভিযান চালিয়ে নাগানোর জরুরী কর্মকর্তা ইয়াসুহিরো ইয়ামাগুছি জানায়েছেন, অন্তত ৪২৭টি বাড়ি বিধ্বস্ত এবং দেড় হাজার মতো মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।  তবে মূল ক্ষতির চেয়ে এই সংখ্যা খুবই সামন্য। মোট কত বাড়ি এবং লোক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তা এখনো জানা যায়নি।

ঘূর্ণিঝড় আছড়ে পড়ার আগেই সরকার এক সতর্কবার্তা জারি করে বলেছে, ১৯৫৮ সালের পর সর্বোচ্চ শক্তিশালী সুপার টাইফুন জাপানে আঘাত হানতে যাচ্ছে। এই ঝড়ের প্রভাবে গত ২৪ ঘণ্টায় টোকিওতে ইতিহাসের সর্বোচ্চ ৭০০ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। প্রলয়ঙ্করী এই ঝড়ের কারণে দেশটিতে চলমান রাগবি ওয়ার্ল্ড কাপের দুটি ম্যাচ স্থগিত করতে বাধ্য হয়েছে কর্তৃপক্ষ। এমনকি রাজধানী টোকিও থেকে বিমানের সব ধরনের চলাচল স্থগিত রাখা হয়েছে।

এর আগে ১৯৫৮ সালে শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় ‘ইডা’র আঘাতে জাপানে প্রায় দেড় হাজার মানুষ প্রাণ হারিয়েছিল।

মোদী-শি বৈঠকে স্থান পায়নি কাশ্মীর ইস্যু
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক: ভারতে সফররত চীনের প্রেসিডেন্ট ও ভারতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দেমোদির মধ্যে শুক্র ও শনিবার দু’দফা বৈঠক হয়েছে। বৈঠকে পারস্পরিক বিভিন্ন স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয় নিয়ে আলোচনা ও সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। তবে এ বৈঠকে স্থান পায়নি কাশ্মীর প্রসঙ্গ। মমল্লপুরমের সমুদ্রসৈকতের কাছে একটি রিসর্টে ভারত ও চিনের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের একটি নতুন যুগ শুরু হল। দুই প্রতিবেশী দেশ সিদ্ধান্ত নিল, বিশ্বে সন্ত্রাসবাদ দমনে তারা কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে লড়বে। আর বাণিজ্য, যোগাযোগ, পর্যটন ও সাংস্কৃতিক বিনিময়ের মাধ্যমে পারস্পরিক সম্পর্ককে আরও জোরাদার করে তুলবে ভারত ও চীন।

চেন্নাই থেকে ৫০ কিলোমিটার দূরে মমল্লপুরমের সমুদ্রসৈকতের কাছে একটি রিসর্টে শুক্র ও শনিবারের দু’দফার বৈঠকের পর দৃশ্যতই খুশি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও চীনা প্রেসিডেন্ট শি চিনপিং। ভারতের প্রধানমন্ত্রী মোদী বলেছেন, ‘‘উহানের শীর্ষ সম্মেলন ভারত ও চিনের পারস্পরিক বিশ্বাস ও সম্পর্ককে জোরদার করতে বড় ভূমিকা নিয়েছিল। আর চেন্নাইয়ের এই বৈঠকে (‘চেন্নাই কানেক্ট’) দু’দেশই পারস্পরিক সম্পর্কে একটি নতুন যুগ শুরু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।’’ চিনা প্রেসিডেন্টের সঙ্গে বৈঠকের পর দু’দেশের প্রতিনিধিদদলের বৈঠকে এ কথা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। পরে সাংবাদিক সম্মেলনে একই কথা জানিয়েছেন পররাষ্ট্র সচিব বিজয় গোখলে।

শুক্রবার রাতের বৈঠক সম্পর্কে চীনা প্রেসিডেন্ট শি চিনপিং মোদীর সুরে সুর মিলিয়েই বলেছেন, ‘‘গত কাল প্রধানমন্ত্রীর (নরেন্দ্র মোদী) সঙ্গে আমার বন্ধুর মতো কথা হয়েছে। দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক নিয়ে কথা হয়েছে খুবই আন্তরিক ভাবে। নতুন যুগ শুরু হল দু’দেশের সম্পর্কে।’’ এ দিন ভারতে পররাষ্ট্র সচিব গোখলে বলেছেন, ‘‘প্রধানমন্ত্রী মোদীর সঙ্গে বৈঠক সেরে নেপাল রওনা হওয়ার আগে চীনা প্রেসিডেন্ট জানিয়ে গিয়েছেন বৈঠকে তিনি খুব খুশি। দু’দেশের সম্পর্কে একটি নতুন যুগ শুরু হতে চলেছে।’’

কাশ্মীর নিয়ে কোনও অস্বস্তি যাতে মাঝপথে তৈরি না-হয়, সে জন্য কোনও প্রশ্ন ওঠেনি মমল্লপুরমে শি-মোদীর দু’দফার বৈঠকে। কূটনৈতিক সূত্রের মতে, আপাতত কাশ্মীর নিয়ে কোনও বড় মাপের বিরোধিতা বেজিংয়ের পক্ষ থেকে আসবে না- এমনটাই আশা করেছিলেন তারা। ভারতের বিদেশ মন্ত্রকের এক শীর্ষ কর্তার মতে, ‘দ্বিপাক্ষিক স্বস্তি’ই হল মমল্লপুরমের মূল কথা। দুই শীর্ষ নেতার এই বৈঠককে চলতি পরিস্থিতিতে পাকিস্তানের জন্য বার্তাবহ বলেও মনে করা হচ্ছে।

গত কাল প্রধানমন্ত্রী মোদির সঙ্গে মহাবলীপুরম মন্দির ঘুরে দেখেন চিনফিং, যা এখন মমল্লপুরম নামে পরিচিত। তার পর একটি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উপভোগ করেন দুই রাষ্ট্রপ্রধান। অনুষ্ঠানের পর নৈশভোজও সারেন তাঁরা।

শুক্রবার রাতে এক সাংবাদিক সম্মেলনে বিদেশ মন্ত্রকের তরফে বলা হয়, ‘‘কট্টরপন্থা ও সন্ত্রাসবাদকে সাধারণ চ্যালেঞ্জ হিসাবে বিবেচনা করে ভারত ও চিন তার বিরুদ্ধে এক সঙ্গে লড়াই করতে রাজি হয়েছে।’’

গত কালের মতো এ দিনও প্রধানমন্ত্রী মোদী এবং শি চিনফিং মমল্লপুরম সমুদ্রসৈকতে তাজ ফিশারম্যানস কোভ রিসর্ট এবং স্পায় এক সঙ্গে বৈঠক করেন। তাঁদের বৈঠক ছাড়াও সেখানে দুই দেশের প্রতিনিধিদলেরও বৈঠক হয়। তার পর প্রধানমন্ত্রী মোদীর সঙ্গে মধ্যাহ্নভোজ সারেন চিনা প্রেসিডেন্ট।

শুক্রবার দুই রাষ্ট্রনেতাই দোভাষীর সাহায্যে বাণিজ্য ঘাটতি-সহ নানা বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন। সেই আলোচনা ছিল এতটাই ঘরোয়া যে, সেখানে বিভিন্ন রকমের স্থানীয় তামিল খাবারদাবারের প্রসঙ্গও উঠে আসে।

পররাষ্ট্র সচিব বিজয় গোখলে পরে এক বিবৃতিতে বলেন, ‘আলোচনা প্রায় দেড় ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে চলেছে। যা নির্ধারিত সময়ের চেয়ে বেশি। আর তা হয়েছে খুব উন্মুক্ত ও সৌহার্দ্যপূর্ণ পরিবেশে। দুই নেতাই একে অপরের সঙ্গে ভাল সময় কাটিয়েছেন।’

শুক্রবার সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রী মোদী ভেস্তির তামিল পোশাকে, সাদা শার্ট এবং একটি ‘অঙ্গবস্ত্র’ পরে, শিকে সঙ্গে নিয়ে অর্জুনের তপস্যা, কৃষ্ণের বাটারবল, পঞ্চরথ এবং মন্দিরের সমস্ত ঐতিহ্যবাহী স্থানগুলি ঘুরে দেখান। প্রাচীন মন্দির শহর থেকেই, দুই নেতার মধ্যে দ্বিতীয় শীর্ষ সম্মেলনের সূচনা হয়। যা একেবারেই আনুষ্ঠানিক ছিল না। প্রধানমন্ত্রী মোদীর উহান সফরের সময় চিনা প্রেসিডেন্ট তাঁকে হুবেই প্রাদেশিক জাদুঘর ঘুরিয়ে দেখিয়েছিলেন।

দুই রাষ্ট্রনেতার একান্ত প্রায় আড়াই ঘণ্টার নৈশভোজের পরে বিদেশসচিব বললেন, ‘মোট পাঁচ ঘণ্টা আলোচনা হয়েছে। দুই নেতা খুবই ভাল সময় কাটিয়েছেন। কথা হয়েছে দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্যে ভারতের ঘাটতি, নতুন বিনিয়োগের ক্ষেত্র খুঁজে বার করা নিয়ে। দু’দেশই মৌলবাদ এবং সন্ত্রাসবাদের শিকার। স্থির হয়েছে, সন্ত্রাসবাদ যাতে দু’দেশের বহুস্তরীয় সংস্কৃতি ও সমাজকে বিনষ্ট না করতে পারে সে জন্য একত্রে কাজ করা হবে।’

পররাষ্ট্র সচিবের বক্তব্য, দুই নেতাই একে অপরকে তাঁদের জাতীয় দর্শন কী তা জানিয়েছেন এবং দ্বিপাক্ষিক সহযোগিতার পথে কী ভাবে এগোনো যায়, তা নিয়ে কথা বলেছেন।

চিনা প্রেসিডেন্ট বলেছেন, ‘তামিলনাড়ুর সঙ্গে চিনের পারস্পরিক মত বিনিময় এবং সমুদ্র বাণিজ্য নিয়ে ঘনিষ্ঠ যোগাযোগের দীর্ঘ ইতিহাস রয়েছে। সেই ইতিহাসকে এমন ভাবে বাঁচিয়ে রাখতে হবে যাতে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের বিকাশ আরও দীর্ঘস্থায়ী হয় আর তা এশীয় সভ্যতার পক্ষে নতুন গৌরবের হয়।’

চিনা প্রেসিডেন্ট শুক্রবার বিকেলে ‘এয়ার চায়না বোয়িং ৭৪৭’ বিমানে চড়ে ভারতে আসেন। তাঁকে চেন্নাইয়ে স্বাগত জানাতে উপস্থিত ছিলেন তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী ই কে পলানিস্বামী, রাজ্যপাল বানওয়ারিলাল পুরোহিত, তামিলনাড়ু বিধানসভার অধ্যক্ষ পি ধনপাল এবং চিনে ভারতের রাষ্ট্রদূত বিক্রম মিস্রি। চিনের প্রেসিডেন্টকে সম্মান জানাতে একটি সংক্ষিপ্ত সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানেরও আয়োজন করা হয়েছিল।

প্রধানমন্ত্রী মোদী এবং চিনা প্রেসিডেন্টের মধ্যে প্রথম অনানুষ্ঠানিক শীর্ষ সম্মেলনটি হয় গত বছর, ডোকলামে। দু’দেশের সেনাবাহিনীর মধ্যে ৭৩ দিনের চাপানউতরের কয়েক মাস পর। সেই বৈঠক হয়েছিল চিনের হ্রদ শহর উহানে।

তিন দিন আগে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সঙ্গে বৈঠকের পর ভারত সফর আসেন চিনের প্রেসিডেন্ট।

গত কাল মমল্লপুরমে প্রাচীন মন্দির পরিদর্শনের ফাঁকে ডাবে চুমুক দিতে দিতে অথবা মন্দিরের নৃত্যানুষ্ঠানের অবসরে দোভাষীদের সঙ্গে নিয়ে একনাগাড়ে কথা বলে গিয়েছেন মোদী এবং শি। এ দিন মধ্যাহ্নভোজ সেরেই নেপালের বিমান ধরার জন্য রওনা হয়ে যান চিনা প্রেসিডেন্ট।

কূটনৈতিক পর্যবেক্ষকদের বক্তব্য, এই স্বল্পমেয়াদি সফরে মাইলফলক কোনও সিদ্ধান্ত হওয়ার কথা ছিল না। হয়ওনি। প্রতীকী ছবিই কূটনীতিতে বার্তাবহ, যা এ বার এশিয়ার দুই শক্তিশালী রাষ্ট্রনেতা অকাতরে বিলিয়েছেন।

কাশ্মীরে খুলে দেয়া হচ্ছে মোবাইল সেবা
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক: দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর আগামী সোমবার থেকে অবরুদ্ধ কাশ্মীরে আংশিকভাবে পোস্টপেইড মোবাইল সেবা চালুর সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার। আজ শনিবার এক সংবাদ সম্মেলনে জম্মু-কাশ্মীরের প্রিন্সিপাল সেক্রেটারি রোহিত কানশাল বলেন,‘আগামী সোমবার থেকে সকল ধরনের পোস্টপেইড মোবাইল সেবা পুনরায় চালু করা হবে।’ তবে প্রিপেইড মোবাইল চালুর বিষয়ে কোন সিদ্ধান্ত জানানো হয়নি। অথচ ৯০ শতাংশ মানুষ প্রিপেইড মোবাইল ব্যবহার করে।

৫ আগস্ট কাশ্মীর উপত্যকার বিশেষ সাংবিধানিক মর্যাদা রদ করে মোবাইল-ইন্টারনেটসহ সকল যোগাযোগ বন্ধ করে দেয়া হয়। সেখানকার ৯০ শতাংশ মানুষ প্রিপেইড মোবাইল সেবার আওতাধীন। তাই এটাকে মোবাইল সেবা পুনরায় চালু বলাও যাচ্ছে না।

সংবিধান থেকে কাশ্মীরের ‘বিশেষ মর্যাদা’ বাতিলের সিদ্ধান্তের পর কাশ্মীরে ব্যাপক নির্যাতনের অভিযোগ রয়েছে দেশটির সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে। কাশ্মীরের বর্তমান পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণের জন্য বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যম সেখানে প্রবেশের অনুমতি চাইলেও তাদেরকে কোন অনুমতি দেয়া হচ্ছে না। গত সপ্তাহে এক মার্কিন কংগ্রেসের সিনেটর কাশ্মীরের পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করতে চাইলেও তাকে প্রবেশের অনুমতি দেয়া হয়নি।

পর্যটকদের জন্যে খুলে দেওয়া হল কাশ্মীরের দরজা
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক: দু’মাসেরও বেশি সময় পর পর্যটকদের জন্যখুলে দেওয়া হল ভূ-স্বর্গের দরজা। জম্মু-কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা রদের ৬৪ দিন পরে বৃহস্পতিবার পর্যটকদের জন্যে বিধিনিষেধ তোলা হল। সোমবারই প্রশাসনিক বৈঠক করে পর্যটকদের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়ার কথা জানিয়েছিলেন রাজ্যপাল সত্যপাল সিংহ। এদিন সেই সিদ্ধান্তই কার্যকর হল।

প্রশাসনের তরফে জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা রদের সিদ্ধান্ত জানানোর আগে, অগস্ট মাসের শুরুতে পর্যটকদের উপত্যকা খালি করে দিতে বলা হয়। সম্ভাব্য সন্ত্রাসী হামলার কথা ঘোষণা করা হয়েছিল সেই সময়। স্থগিত হয় এ বছরের অমরনাথ যাত্রা। এর পরে ৩৭০ ধারা বাতিল করে কেন্দ্র। উপত্যকায় বাতিল হয় টেলিফোন, ইন্টারনেট পরিষেবা। গ্রেফতার হন চারশোর বেশি রাজনৈতিক নেতা।

এই পরিস্থিতির কারণেই জম্মু-কাশ্মীর গত দুই মাসের বেশি সময় পর্যটক শূন্য। সরকারি সূত্রেই খবর, প্রথম সাত মাসে উপত্যকায় পাঁচ লক্ষের বেশি পর্যটক এসেছিলে। অমরনাথ যাত্রা স্থগিত হওয়ার আগেই এসেছিল তিন লক্ষ ৪০ হাজার তীর্থযাত্রী। কিন্তু হঠাৎ করেই পর্যটকের আনাগোনা নিষিদ্ধ হওয়ায় বিপাকে পড়েন উপত্যকার ব্যবসায়ীরা।

কেন্দ্র বারবারই চেষ্টা করেছে কাশ্মীরের স্বাভাবিক চিত্র তুলে ধরতে। ধাপে ধাপে উঠেছে নিষেধাজ্ঞা। সম্প্রতি ব্লক উন্নয়ন পরিষদের নির্বাচনের কথাও জানানো হয়েছে। গত সোমবার রাজ্যের পরিস্থিতি নিয়ে বৈঠকে বসেন রাজ্যপাল সত্যপাল মালিক। সেখানেই ঠিক হয়, বিশেষ মর্যাদা লোপের ঠিক আগে জঙ্গি হামলার আশঙ্কায় তীর্থযাত্রী ও পর্যটকদের সে রাজ্য ছাড়ার যে বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছিল তা প্রত্যাহার করে নেওয়া হবে।

বুধবার উপত্যকার বেশ কিছু স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় খুলে দেওয়া হয়েছে। যদিও স্কুল কলেজের বাইরে সেনা মোতায়েন করা রয়েছে। অন্য দিকে বৃহস্পতিবার বেশ কয়েকজন কাশ্মীরি নেতা মুক্তি পেতে পারেন বলে খবর। ‘সুব্যবহারের’ প্রতিশ্রুতি দিয়ে বন্ড সই করলে তাঁদের মুক্ত করা হবে।

কাশ্মীর ইস্যুতে পাকিস্তানের ‘বিবেকী নীতিতে’ সমর্থন দেবে চীন
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক: বেইজিং সফররত পাকিস্তানের সেনাপ্রধানের সঙ্গে এক বৈঠকে চীনা সশস্ত্র বাহিনীর উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘোষণা দিয়েছেন, কাশ্মীর ইস্যুতে পাকিস্তানের ‘বিবেকী নীতিতে’ সব ধরনের সামরিক সহায়তা দেবে চীনা সেনাবাহিনী। মঙ্গলবার চীনের রাজধানী বেইজিংয়ে দেশটির সশস্ত্র বাহিনীর কমান্ডারদের সঙ্গে বৈঠক করেন পাক সেনাপ্রধান জেনারেল কামার জাভেদ বাজওয়া। বৈঠকে চীনা সেনাবাহিনীর কর্মকর্তারা এ ঘোষণা দেন। খবর পাকিস্তানের দৈনিক এক্সপ্রেস ট্রিবিউনের।

ভারত সরকার গত আগস্টে কাশ্মীরকে বিশেষ মর্যাদাদানকারী সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ রদের পর জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে বিষয়টি তুলেছিল চীন। সেনাপ্রধান বলেছেন, কাশ্মীর নিয়ে জাতিসংঘের প্রস্তাবনার প্রতি সম্মান জানাতে হবে ভারতকে। এছাড়া অবরুদ্ধ কাশ্মীরিদের অধিকার ফিরিয়ে দিতে হবে।

পাকিস্তানের আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদফতরের এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, কাশ্মীর ইস্যুতে পাকিস্তান যে বিবেকী নীতিগত অবস্থান নিয়েছে তার প্রশংসা করেন চীনের সামরিক কমান্ডাররা। এছাড়া কাশ্মীর ইস্যুতে ইসলামাদের পাশে থাকায় বেইজিংয়ের প্রশংসা করেন পাক সেনাপ্রধান।

ধর্ষণের অভিযোগ : পদত্যাগের পর নেপালের সাবেক স্পিকার গ্রেফতার
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : সরকারি এক নারী কর্মচারীকে ধর্ষণের অভিযোগে নেপালের পার্লামেন্টের সাবেক স্পিকার কৃষ্ণ বাহাদুর মাহারাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ব্যাপক প্রতিক্রিয়া ও বিরোধীদের তুমুল সমালোচনার মধ্যে মঙ্গলবার পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষের এ স্পিকার পদত্যাগ করেছিলেন।

রাজধানী কাঠমান্ডুর একটি আদালত তার বিরুদ্ধে পরোয়ানা জারির পর তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। খবর বিবিসির

ওই নারী অভিযোগ করেন, গত রোববার রাতে স্বামী যখন বাড়িতে ছিলেন না তখন মাহারা তাকে ধর্ষণ করেন।

তবে মাহারার কার্যালয় এক বিবৃতিতে এই অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছে। তার চরিত্র হনন করতে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে এই অভিযোগ আনা হয়েছে বলে দাবি করা হয়েছে।

বিবৃতিতে দাবি করা হয়েছে, রোববার বিকালে মাহারা মাত্র দুই ঘণ্টার জন্য সরকারি বাসভবনের বাইরে ছিলেন। পরে সন্ধ্যায় মাহারা ঘরেই ছিলেন।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, অভিযোগ করা ওই নারী মাহারার কার্যালয়ে চাকরি না পেয়ে ক্ষুব্ধ হয়ে থাকতে পারেন।

যে শান্তি আলোচনার মাধ্যমে ২০০৬ সালে নেপাল দশককালের গৃহযুদ্ধের সমাপ্তি টেনেছিল, মাহারা ওই আলোচনায় মাওবাদী বিদ্রোহী অংশের প্রধান মধ্যস্থতাকারী ছিলেন।

২০১৭ সালের নির্বাচনে কট্টর ও মধ্যপন্থি কমিউনিস্ট দলগুলোর জোট থেকে সাংসদ ও পরে স্পিকার হয়েছিলেন তিনি।

মঙ্গলবার পদত্যাগের সময় তিনি জানান, ধর্ষণের অভিযোগের সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থেই তিনি পদ ছেড়ে দিচ্ছেন। এর আগে ক্ষমতাসীন নেপালি কমিউনিস্ট পার্টিও মাহারাকে পদত্যাগের অনুরোধ জানিয়েছিল।

সালাহকে দেখে বেন বার্ড এখন মুসলিম
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক: ব্রিটিশ যুবক বেন বার্ড ছিলেন মারাত্মক মুসলিম বিদ্বেষী। কিন্তু মিশরের কিংবদন্তী ফুটবলার সালাহকে দেখে মুগ্ধ হয়ে তিনি ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছেন।

ব্রিটেনের জনপ্রিয় সংবাদপত্র ‌‌দ্য গার্ডিয়ান-এ দেয়া এক সাক্ষাতকারে বার্ড তার জীবন বদলে যাওয়ার কাহিনী বর্ণনা করেছেন। যেখানে তিনি পরিষ্কারভাবেই উল্লেখ করেছেন সালাহর নামটি।

বার্ড নটিংহামের একজন মৌসুমি টিকিট বিক্রেতা। সেখানে ফরেস্ট ফুটবল ক্লাবে টিকিট বিক্রি করেন। তিনি জানান, এক সময় মুসলিম বিদ্বেষী ছিলেন, কিন্তু সালাহর জীবনাচরণ দেখে আস্তে আস্তে ইসলামের প্রতি আকর্ষণ অনুভব করেন এবং শেষতক ইসলাম ধর্ম কবুলও করেন।

বার্ড বলেন, ‘মোহাম্মদ সালাহই প্রথম মুসলিম যার মধ্যে আমি নিজেকে খুঁজে পেয়েছি। তিনি যেভাবে জীবনযাপন করেন, যেভাবে মানুষের সঙ্গে কথা বলেন। একবার দেখলাম তিনি লিভারপুলের একজন ভক্তের সঙ্গে ছবি তুলছেন, যে কিনা ভাঙা নাক নিয়ে তার পেছনে ছুটছিল। আমি জানি অন্য ফুটবলারও এমন করতে পারে, তবে আপনি শুধু সালাহর কাছেই এমনটা আশা করতে পারেন।’

‘আমি সবসময়ই মুসলিমদের ঘৃণা করতাম’-বলেন বার্ড। ছোটবেলা থেকে মিডিয়ায় ইসলামের বিরুদ্ধে শুনে তার মনেও বিরূপ ধারণা জন্মেছিল। তবে কখনও পড়াশোনার সময় কোনো মুসলিমের কাছে এমন কোনো আচরণ লক্ষ্য করেননি বলে তার মনে খটকা লাগতো।

বার্ড আরও বলেন, ‘আমি আর দশজন শ্বেতাঙ্গ ছাত্রের মতো বিভিন্ন শহরে গিয়েছি। প্রথম আমি ইসলাম সম্পর্কে জানতে পারি পড়ালেখার মাধ্যমেই। বিশ্ববিদ্যালয় আমাকে সুযোগ দিয়েছিল সৌদি আরবের ছাত্রদের সঙ্গে সাক্ষাত করার। আমি ভাবতাম, তারা খারাপ মানুষ যারা তলোয়ার নিয়ে চলাফেরা করে। কিন্তু যাদের সঙ্গে মিশেছি, সবাই খুব ভালো মানুষ ছিল। আরব দেশ সম্পর্কে আমার যে ধারণা ছিল তার কিছুই মিল পাইনি।’

মুসলমানদের ধর্মগ্রন্হ কুরআন নিয়ে বার্ড বলেন, ‘যখন মানুষ কোরআন পড়ে অথবা ইসলাম সম্পর্কে পড়ালেখা করে, তারা আলাদা কিছুই দেখতে পায়। তেমনটা নয়, যেমনটা মিডিয়ায় প্রচার হয়। আমি মুসলিম সম্প্রদায়ে নতুন এবং এখনও শিখছি। এটা কঠিন। পুরো লাইফস্টাইলই আলাদা।’

মোদি সরকারের আমলে ভারতে স্বৈরতন্ত্র কায়েম হতে চলছে: রাহুল গান্ধী
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক: মোদি সরকারের আমলে দেশে স্বৈরতন্ত্র কায়েম হতে চলছে বলে অভিযোগ করেছেন রাহুল গান্ধী। রাহুল গান্ধী বলেন, ভারতে স্বৈরতন্ত্র চলছে। প্রধানমন্ত্রী এবং কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে মুখ খুললেই জেলে পুরে দেওয়া হচ্ছে।
শুক্রবার নিজের নির্বাচনী কেন্দ্র ওয়েনাডেতে এক জনসভায় এসব কথা বলেন রাহুল গান্ধী।

গণপিটুনি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে চিঠি দেওয়ায় দেশের ৫০ জন বিশিষ্ট ব্যক্তিত্বের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদোহের মামলা দায়ের করা হয়েছে। তা নিয়ে এবার কেন্দ্রীয় সরকারকে একহাত নিলেন কংগ্রেসের সাবেক সভাপতি রাহুল গান্ধী।

দেশ জুড়ে ক্রমবর্ধমান গণপিটুনির ঘটনা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে গত জুলাই মাসে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে খোলা চিঠি দিয়েছিলেন ইতিহাসবিদ রামচন্দ্র গুহ, চিত্র পরিচালক মণিরত্নম, অনুরাগ কাশ্যপ, শ্যাম বেনাগাল, অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় এবং অভিনেত্রী অপর্ণা সেন-সহ মোট ৫০ জন বিশিষ্ট নাগরিক।

তাতে বলা হয়, মুসলিম, দলিত এবং সংখ্যালঘুদের এভাবে পিটিয়ে মারার ঘটনা অবিলম্বে বন্ধ করতে হবে। গণতান্ত্রিক শাসন ব্যবস্থায় ভিন্নমত থাকাটাও স্বাভাবিক বলেও চিঠিতে উল্লেখ করেন তারা। তা নিয়েই গত বৃহস্পতিবার বিহারের মুজাফ্ফরপুরে তাদের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।  

রাহুল গান্ধী বলেন, এই মুহূর্তে দেশে কী চলছে, সে ব্যাপারে প্রত্যেকেই অবগত। কোনো গোপনীয়তা নেই। এমনকি গোটা বিশ্বও জেনে গিয়েছে। ক্রমশ স্বৈরতন্ত্রের দিকে এগোচ্ছি আমরা।’’

মোদি সরকার সমালোচনা শুনতে পারে না বলে উল্লেখ করে রাহুল গান্ধীর দাবি, প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে কিছু বললে, কেন্দ্রীয় সরকারের কাজ নিয়ে প্রশ্ন তুললে, আজকাল জেলে পুরে দেওয়া হয়। পড়তে হয় হামলার মুখেও। গুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে সংবাদমাধ্যমকেও।

তিনি আরও বলেন, এক দিকে ধারণা জন্মেছে যে, এক ব্যক্তি-ই দেশ শাসন করবেন। দেশে একটি মাত্র আদর্শই থাকবে। বাকিদের মুখে কুলুপ এঁটে থাকতে হবে। আর অন্য দিকে বহু ভাষা, বহু সংস্কৃতি এবং বাক স্বাধীনতার জন্য লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে কংগ্রেস-সহ বিরোধীরা। দেশে এখন এই যুদ্ধই চলছে।’

সূত্র : আনন্দবাজার

পাকিস্তানে ফের সেনা অভ্যুত্থানের আশঙ্কা!
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক: পাকিস্তানে আবারও সেনা অভ্যুত্থানের আশঙ্কা তৈরি হয়েছে বলে গুঞ্জন ছড়িয়েছে। দেশটির সেনা প্রধান জেনারেল বাজওয়া ‘১১১ ব্রিগেডে’র ছুটি বাতিলের নির্দেশ দেওয়ায় বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ক্ষমতা হারাতে চলেছেন বলে খবর রটেছে। ইমরান গদি হারাতে পারেন এ খবর বেশ জলদি চাউর হয়েছে ১১১ ব্রিগেডের ছুটি বাতিল ঘোষণার কারণেই। কেননা, এর আগে তিনবার ১১১ ব্রিগেড ব্যবহার করে নির্বাচিত সরকার ফেলে দিয়েছে পাকিস্তান আর্মি। প্রতিবারই রাওয়ালপিন্ডিতে ১১১ ব্রিগেড মোতায়েন করা হয়েছিল। এবারও সেখানেই এই ব্রিগেড মোতায়েন করা হবে বলেও জানিয়েছে ভারতীয় গণমাধ্যম জি ২৬ ঘণ্টা।

কয়েকটি ভারতীয় গণমাধ্যম এ খবর ফলাও করে প্রকাশ করেছে। জি ২৬ ঘণ্টা তাদের এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, কাশ্মীরে ভারতের পদক্ষেপ (৩৭০ প্রত্যাহার) যেভাবে সামলেছেন, তাতে ইমরানের ব্যাপারে খুশি নন সেনা প্রধান বাজওয়া। এ কারণে সেনাদের ছুটি বাতিল করে কাজে যোগ দিতে নির্দেশ দিয়েছেন। পাশাপাশি দেশের শীর্ষ শিল্পপতিদের সঙ্গেও বৈঠক করেছেন তিনি।

এদিকে পাকিস্তানি গণমাধ্যম ডন ও জিয়ো নিউজ উর্দূর খবর থেকে জানা গেছে, পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে গদি থেকে সরাতে ইসলামাবাদে অবরোধের ডাক দিয়েছে দেশটির অন্যতম প্রভাবশালী রাজনৈতিক দল জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম। আগামী ২৭ অক্টোবর ‘আজাদী মার্চ’ নামে ওই অবরোধ কর্মসূচি পালিত হবে

গতকাল বৃহস্পতিবার ইসলামাবাদে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি জানিয়েছেন, সব বিরোধী দল এ বিষয়ে একমত যে বর্তমান সরকার একটি ভুয়া নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতায় এসেছে। ২০১৮ সালের ২৫ জুলাইয়ের নির্বাচনকে সবাই প্রত্যাখ্যান করে নতুন নির্বাচনের দাবিতে রাজনৈতিক দলগুলো একমত হয়েছে। এ ভুয়া সরকারকে দেশের জনগণ আর চায় না।

এই আন্দোলনকে স্বাগত জানিয়েছে বিরোধী দলগুলোও। পিপলস পার্টি ও মুসলিম লীগ সরকারবিরোধী আন্দোলনে সমর্থন দিতে যাচ্ছে। আগামী ২৭ অক্টোবর কাশ্মীরিদের সঙ্গে একাত্মতা পোষণ ও ইমরান খান হটাও আন্দোলনে তারাও শরিক হতে পারে। এবং সারাদেশ থেকে জনগণ সরকারের পদত্যাগের দাবিতে ইসলামাবাদ অভিমুখে মার্চ করবে বলে জানিয়েছে ডন।

এদিকে মাওলানা ফজলুর রহমান গ্রেপ্তার হতে পারেন বলেও গুঞ্জন উঠেছে পাকিস্তানের রাজনৈতিক অঙ্গনে।

সৌদিতে ব্যাপক ধরপাকড়, বাদ যাচ্ছে না বৈধরাও
                                  

স্বাধীন বাংলা রিপোর্ট: সৌদি আরবে বেশ কিছুদিন থেকে ধরপাড়ক চলছে। দিনের পর দিন তা বৃদ্ধি পাচ্ছে। বর্তমানে বৈধ আকামাধারীরাও রেহাই পাচ্ছে না। তাদেরকেও ধরে দেশে পাঠানো হচ্ছে। গত বৃহস্পতিবার ১৩০ জন কর্মী দেশে ফিরেছেন সৌদি এয়ারলাইন্সের একটি বিমানে।

ফেরত আসাদের মধ্যে নাটোরের রবিউল করিম, বাগেরহাটের মেহেদি হাসানসহ সৌদি আরব থেকে ফেরত আসা অন্যান্য কর্মীরা অভিযোগ করে বলেছেন, দেশটিতে বেশ কিছুদিন ধরে ধরপাকড়ের শিকার হচ্ছেন বাংলাদেশি শ্রমিকরা। সেই অভিযানে বাদ যাচ্ছে না বৈধ আকামা থাকা কর্মীরাও।

ফেরত অনেক কর্মীর অভিযোগ, তারা কর্মস্থল থেকে রুমে ফেরার পথে তাদের পুলিশ গ্রেফতার করেন। সে সময় নিয়োগকর্তাকে ফোন করা হলেও তারা দায়িত্ব নিচ্ছেন না। বরং আকামা থাকা সত্ত্বেও কর্মীদেরকে ডির্পোটেশন ক্যাম্পে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। আবার দীর্ঘদিন অবৈধভাবে থাকার কারণেও অনেককে আটক করে ফেরত পাঠানো হচ্ছে। চলতি বছর সৌদি আরব থেকে এভাবে অন্তত ১১ থেকে ১২ হাজার কর্মী দেশে ফিরেছেন।

ভুক্তভোগীরা অভিযোগ করছেন, সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের ব্যর্থতার কারণেই এ ধরণের ঘটনা ঘটছে।

কাশ্মীর উত্তেজনার মধ্যে ইসরাইল থেকে ট্যাংক কিলার আনলো ভারত
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক: ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে কাশ্মীর ইস্যু নিয়ে চলমান চরম উত্তেজনার মধ্যে ইসরাইল থেকে শক্তিশালী ট্যাংক কিলার আনলো ভারত। এই মুহূর্তের প্রয়োজনীয়তা মেটাতে আপাতত সীমিত সংখ্যক ইসরায়েলি স্পাইক অ্যান্টি-ট্যাংক গাইডেড মিসাইল (ATGMs) অধিগ্রহণ করল ভারতীয় সেনাবাহিনী। DRDO-র তৈরি দেশীয় প্রযুক্তির মানবচালিত পোর্টেবল ট্যাংক কিলার তৈরি না-হওয়া পর্যন্ত এই অস্ত্রকেই কাজে লাগানো হবে বলে জানা গেছে।

একটি সূত্র জানিয়েছে, প্রথম ধাপে ২১০ স্পাইক মিসাইল ও এক ডজন লঞ্চার ১০ দিন আগে ভারতে এসেছে। পাকিস্তানের বিরুদ্ধে চলা চাপা উত্তেজনার মধ্যেই জরুরি ভিত্তিতে এই অস্ত্র ভারতীয় সেনায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

২৬ ফেব্রুয়ারি পাকিস্তানের বালাকোটে জইশ শিবিরের উপর ভারতীয় মিরাজ ২০০০ ফাইটার জেট অভিযানের পর প্রায় ২৮০ কোটি টাকা দিয়ে এই বিশেষ ক্ষমতাসম্পন্ন ফায়ার অ্যান্ড ফরগেট স্পাইক ATGMs কেনে ভারত। এগুলো ৪ কিমি দূরের লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানতে সক্ষম।

ভারতীয় সেনাবাহিনী সূত্র জানিয়েছে, ‘আগামী বছরের মধ্যে DRDO-র তৈরি করা মানব-পোর্টেবল ATGM তৈরি না-হলে ফের ইজরায়েলি এই অস্ত্রের অর্ডার করা হবে। আমরা কোনও অবস্থাতেই পিছিয়ে থাকতে চাই না।`

যদিও ২০২০ সালেই ভারতীয় সেনাবাহিনীকে মানব-পোর্টেবল ATGM উপহার দেওয়ার ব্যাপারে নিশ্চিত ডিআরডিও। গত মাসেই কুর্নুলে এই অস্ত্রের তিনটি সফল ট্রায়াল করেছে তারা।

ভারতে বন্যায় ১২২ জনের মৃত্যু
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ভারতের উত্তর প্রদেশ ও বিহারে ভারী বৃষ্টিপাত ও বন্যায় এখন পর্যন্ত একশজনেরও বেশি মানুষের প্রাণহানি ঘটেছে। বিভিন্ন স্থানে টানা বৃষ্টিপাতের কারণে সৃষ্ট আকস্মিক বন্যায় জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে।

সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হয়েছে উত্তর প্রদেশ রাজ্যে। সেখানে ৯৩ জনের মৃত্যুর খবর জানিয়েছে রাজ্য সরকার। এছাড়া বিহারে মারা গেছে অন্তত ২৯ জন।

দুই রাজ্যের স্থানীয় কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ভারী বৃষ্টিপাত ও বন্যায় রেলসেবা, যান চলাচল, স্বাস্থ্যসেবা, স্কুল এবং বিদ্যুৎ সেবা বিঘিœত হচ্ছে। অনেক এলাকা প্রায় বুক সমান পানিতে তলিয়ে গেছে। উভয় রাজ্যেই জনজীবন স্থবির হয়ে পড়েছে।

বিহারের আবহাওয়া অফিস আগামী ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যের ২৪ জেলায় আরও বৃষ্টিপাতের সতর্কতা জারি করেছে বলে জানিয়েছে এনডিটিভি ও ইন্ডিয়া টুডে।

রাজ্যের সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত জেলা পাটনা। তিনদিন ধরে লাগাতার বৃষ্টিতে ভেসে গিয়েছে ঘরবাড়ি, হাসপাতাল। সড়কপথে চলছে নৌকা। দুর্যোগের কারণে পাটনার সব স্কুল মঙ্গলবার পর্যন্ত বন্ধ রাখার কথা ঘোষণা করা হয়েছে।

জলাবদ্ধতার কারণে আটকে পড়া বাসিন্দাদের উদ্ধার করে নৌকার মাধ্যমে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। লোকজনকে উদ্ধারে পৌরসভার ক্রেনও ব্যবহার করা হচ্ছে।

রোববার পাটনাসহ বিহারের অন্যান্য অঞ্চলে অনেক ট্রেন বাতিল করা হয়েছে। জম্মু ও কাশ্মীর, উত্তরাখণ্ড, রাজস্থান ও মধ্যপ্রদেশেরও প্রবল বর্ষণ হয়েছে। গত কয়েকদিনে ওইসব রাজ্যে প্রবল বৃষ্টির কারণে কয়েকজনের মৃত্যু হয়েছে।

উত্তরপ্রদেশে শুক্রবার স্বাভাবিকের থেকে ১৭০০ শতাংশ বেশি রেকর্ড পরিমাণ বৃষ্টিপাত হয়েছে । রাজ্যের পূর্বাঞ্চল সবথেকে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। শনিবার প্রয়াগরাজে ১০২ দশমিক ১ মিলিমিটার ও বারানসিতে ৮৪ দশমিক ২ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে। এ বছরের গড় বৃষ্টিপাতের তুলনায় যা অনেক বেশি।

চীনে বাস-ট্রাকের সংঘর্ষে নিহত ৩৬
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : চীনের পূর্বাঞ্চলে বাস ও ট্রাকের মধ্যে সংঘর্ষে ৩৬ জন নিহত হয়েছে। স্থানীয় সময় শনিবার সকালের ওই দুর্ঘটনায় আরও ৩৬ জন আহত হয়েছে। রোববার স্থানীয় কর্তৃপক্ষ এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

চীনা গণমাধ্যম সিনহুয়া জানিয়েছে, পূর্বাঞ্চলীয় জিয়ানসু প্রদেশের একটি সড়কে শনিবার সকালে ভয়াবহ ওই সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে। দুর্ঘটনার সময় বাসটিতে ৬৯ জন যাত্রী ছিলেন। এছাড়া ট্রাকে ছিলেন ৩ জন। দুর্ঘটনায় আহত ৩৬ জনের মধ্যে ৯ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

দুর্ঘটনার পর এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, প্রাথমিক তদন্তে থেকে জানা গেছে, বাসের বাম পাশের চাকা পাংচার হয়ে যাওয়ার কারণে এই দুর্ঘটনা ঘটে থাকতে পারে।

জিয়াংসু প্রদেশের ইশিং শহরের পুলিশ জানিয়েছে, বাসটির সামনের দিকের একটি চাকা পাংচার হয়ে গেলে চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলেন। বাসটি তখন রাস্তার ডিভাইডার ভেঙে বিপরীত দিকের লেইনে গিয়ে একটি ট্রাকের সঙ্গে ধাক্কা খায়।

দুর্ঘটনার কারণে আট ঘণ্টা চাংচুন-শেনজেন সড়কে সব ধরনের যান চলাচল বন্ধ রাখা হয়। পরে উদ্ধার কাজ শেষে আবারও ওই সড়ক খুলে দেয়া হয়।

ট্রাফিক আইন ভালোভাবে মেনে না চলায় চীনে সড়ক দুর্ঘটনা প্রায়ই ঘটে থাকে। এর আগে ২০১৫ সালে দেশের বিভিন্ন স্থানে সড়ক দুর্ঘটনায় ৫৮ হাজার মানুষ নিহত হয়। ট্রাফিক আইন অমান্য করার কারণেই দেশটিতে ৯০ শতাংশ দুর্ঘটনা ঘটছে। যার ফলে প্রতি বছর বহু মানুষ প্রাণ হারাচ্ছে বা আহত হচ্ছে।

৬ কাশ্মীরিকে গুলি করে হত্যা করেছে ভারতীয় বাহিনী
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক: স্বাধীনতাকামী ৬ কাশ্মিরীকে গুলি করে হত্যা করেছে ভারতীয় বাহিনী। শনিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে রাজ্যেও রামবানের বাতোতে এলাকায় অভিযান চালানোর সময় এসব হতাহতের ঘটনা ঘটে।

বার্তা সংস্থা এএফপির খবরে বলা হয়, জম্মু-শ্রীনগর মহাসড়কে স্বাধীনতাকামীরা একটি যাত্রীবাহী বাস থামানোর চেষ্টা করেছে বলে ভারতীয় বাহিনী দাবি করেছে। এরপরই নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে তাদের গোলাগুলি শুরু হয়।

কয়েকটি সূত্র জানিয়েছে, বাসটির চালক ভারতীয় সামরিক বাহিনীর ইউনিফর্ম পরা বিচ্ছিন্নতাবাদীদের আসতে দেখে বাসের গতি বাড়িয়ে দেন, এরপর পুলিশকে খবর দেন। সঙ্গে সঙ্গে নিরাপত্তা বাহিনী হাজির হয়ে এলাকাটি ঘিরে ফেলে তল্লাশি অভিযান শুরু করে। এ সময় দুটি বিস্ফোরণের শব্দ শুনেছেন বলে এক প্রত্যক্ষদর্শী এনডিটিভিকে জানিয়েছেন।

একই দিনে নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর গুরেজ সেক্টরের গন্ডেরবল এলাকায় দ্বিতীয় হামলা হয়। সেখানে সেনাবাহিনীকে লক্ষ্য করে গেরিলারা গুলিবর্ষণ করলে জওয়ানদের পাল্টা গুলিতে একজনের মৃত্যু হয়। সেনাবাহিনীর নর্দান কম্যান্ডের পক্ষ থেকে একজন নিহত হওয়ার কথা জানানো হয়েছে। নিহতের কাছ থেকে প্রচুর অস্ত্র ও গুলিবারুদ উদ্ধারের দাবি করেছে ভারতীয় বাহিনী।

শুক্রবার রাতে শুরু হওয়া বিক্ষোভের পর ফের উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে ভারত অধিকৃত কাশ্মীর। কাশ্মীর নিয়ে শুক্রবার পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের জাতিসংঘে দেয়া ভাষণের পরই পাল্টে গেছে উপত্যকাটির পরিস্থিতি। কাশ্মীরের মানবিক সংকট ও সেখানকার নাগরিকদের অবরুদ্ধ জীবনযাপনের বিষয়টি তুলে ধরে ইমরানের বক্তৃতাকে স্বাগত জানিয়ে মিছিল করেছে স্থানীয় জনগণ।

কাশ্মীরে কারফিউ উঠে গেলে রক্তবন্যা বয়ে যাবে : ইমরান
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ভারত যখন কাশ্মীর থেকে কারফিউ তুলে নেবে তখন সেখানে রক্তবন্যা বয়ে যাবে বলে বিশ্বকে সতর্ক করে দিয়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। তিনি এও বলেছেন, যদি পরমাণু শক্তিধর দুই দেশ পাকিস্তান ও ভারত পরস্পরের বিরুদ্ধে যুদ্ধে লিপ্ত হয় তাহলে পুরো বিশ্বকেই এর ফল ভোগ করতে হবে।

শুক্রবার নিউ ইয়র্কে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭৪তম অধিবেশনে দেওয়া বক্তব্যে তিনি এমন মন্তব্য করেন।

আবেগঘন বক্তব্যে তিনি বলেন, ৮০ লাখ কাশ্মীরিকে পাহারা দিয়ে রেখেছে ৯ লাখ ভারতীয় সেনার বাহিনী। কারফিউ উঠে গেলে কি হবে? কাশ্মীরিরা কি চুপচাপ তাদের মর্যাদার এই পরিবর্তন মেনে নেবে? কারফিউ উঠে গেলে যা হবে তা হচ্ছে, রক্তবন্যা বয়ে যাবে। মানুষ রাস্তায় নেমে আসবে। আর সেনারা কি করবে? তারা তাদের দিকে গুলি ছুড়বে.. আরো মৌলবাদের দিকে ঝুঁকবে কাশ্মীরিরা।

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী বলেন, এটি জাতিসংঘের জন্য একটি পরীক্ষা। এই সংস্থা কাশ্মিরি জনগণের আত্মনিয়ন্ত্রণের অধিকারের গ্যারান্টি দিয়েছিল। এখন আত্মতুষ্টিতে না ভুগে বরং যথাযথ পদক্ষেপ নেওয়ার সময় এসেছে। এজন্য সবার আগে ভারতকে দখলকৃত কাশ্মিরে আরোপ করা কারফিউ তুলে নিতে হবে। সব বন্দিদের মুক্তি দিতে হবে। আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে অবশ্যই কাশ্মিরিদের আত্মনিয়ন্ত্রণের অধিকার দিতে হবে।

ইমরান খান বলেন, যদি গতানুগতিক যুদ্ধ বাঁধে তবে যে কোনো ঘটনাই ঘটতে পারে। এমন পরিস্থিতি হলে পাকিস্তান তার চেয়ে সাতগুণ বড় প্রতিবেশী দেশকে কীভাবে মোকাবিলা করবে? হয় আমাদের নত স্বীকার করতে হবে অথবা আমাদের মৃত্যু পর্যন্ত লড়াই করে যেতে হবে। আমরা কি করব? আমি নিজেকেই এই প্রশ্ন করি। আমার বিশ্বাস আল্লাহ ছাড়া কেউ নেই। আর আমরা লড়াই করে যাব। তিনি বলেন, যদি একটি পরমাণু শক্তিধর দেশ শেষ পর্যন্ত লড়াই করে যায় তবে তা সীমান্ত ছাড়িয়ে অন্য দেশেও ছড়িয়ে পড়বে।


   Page 1 of 122
     আন্তর্জাতিক
মেক্সিকোয় বন্দুক হামলায় ১৪ পুলিশ নিহত
.............................................................................................
টাইফুনে বিধ্বস্ত জাপান, নিহত ১৯
.............................................................................................
মোদী-শি বৈঠকে স্থান পায়নি কাশ্মীর ইস্যু
.............................................................................................
কাশ্মীরে খুলে দেয়া হচ্ছে মোবাইল সেবা
.............................................................................................
পর্যটকদের জন্যে খুলে দেওয়া হল কাশ্মীরের দরজা
.............................................................................................
কাশ্মীর ইস্যুতে পাকিস্তানের ‘বিবেকী নীতিতে’ সমর্থন দেবে চীন
.............................................................................................
ধর্ষণের অভিযোগ : পদত্যাগের পর নেপালের সাবেক স্পিকার গ্রেফতার
.............................................................................................
সালাহকে দেখে বেন বার্ড এখন মুসলিম
.............................................................................................
মোদি সরকারের আমলে ভারতে স্বৈরতন্ত্র কায়েম হতে চলছে: রাহুল গান্ধী
.............................................................................................
পাকিস্তানে ফের সেনা অভ্যুত্থানের আশঙ্কা!
.............................................................................................
সৌদিতে ব্যাপক ধরপাকড়, বাদ যাচ্ছে না বৈধরাও
.............................................................................................
কাশ্মীর উত্তেজনার মধ্যে ইসরাইল থেকে ট্যাংক কিলার আনলো ভারত
.............................................................................................
ভারতে বন্যায় ১২২ জনের মৃত্যু
.............................................................................................
চীনে বাস-ট্রাকের সংঘর্ষে নিহত ৩৬
.............................................................................................
৬ কাশ্মীরিকে গুলি করে হত্যা করেছে ভারতীয় বাহিনী
.............................................................................................
কাশ্মীরে কারফিউ উঠে গেলে রক্তবন্যা বয়ে যাবে : ইমরান
.............................................................................................
৮ বাংলাদেশিকে আটক করেছে বিএসএফ
.............................................................................................
পর্যটন ভিসা চালু করছে সৌদি আরব
.............................................................................................
কাশ্মীরে নিখোঁজ ১৩ হাজার শিশু-কিশোর
.............................................................................................
নতুন খবর দিলো সৌদি সরকার; দেবে ভ্রমণ ভিসা
.............................................................................................
মুসলমানদের কিডনি-ফুসফুস কেটে বিক্রি করছে চীন!
.............................................................................................
সাবেক ফরাসি প্রেসিডেন্ট জ্যাক শিরাক মারা গেছেন
.............................................................................................
সৌদি আরবে সেনা পাঠাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র
.............................................................................................
গণহত্যার ঝুঁকিতে মিয়ানমারে থেকে যাওয়া রোহিঙ্গারা : জাতিসংঘ
.............................................................................................
বুধবার মোদী-মমতা বৈঠক
.............................................................................................
২ পাক সেনা মৃত্যুর দাবি ভারতীয়দের
.............................................................................................
এনআরসি নিয়ে মোদি সরকারকে মমতার চ্যালেঞ্জ
.............................................................................................
কারবালায় তাজিয়া মিছিলে পদদলিত হয়ে নিহত ৩১
.............................................................................................
পাকিস্তানের আকাশসীমায় নিষিদ্ধ ভারতের রাষ্ট্রপতি
.............................................................................................
রাজধানীতে গ্যাং বলে কিছু থাকবে না
.............................................................................................
হাজার হাজার পোস্টার মেরে কাশ্মীরে অসহযোগ আন্দোলনের ডাক
.............................................................................................
সীমান্তে সেনাদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করলেন ইমরান খান
.............................................................................................
জিম্বাবুয়ের জাতির পিতা মুগাবের জীবনাবসান
.............................................................................................
মুসলিম নির্যাতিত হলে বিশ্বমানবতা মরে যায়: ইমরান খান
.............................................................................................
ফিলিপাইনে শিশুপাচারকারী সন্দেহে মার্কিন নারী আটক
.............................................................................................
সীমান্তে পাকসেনা বৃদ্ধি, পর্যবেক্ষণে ভারত
.............................................................................................
কাশ্মীর সঙ্কট: পাকিস্তানকে সমর্থন দেবে সৌদি-আমিরাত
.............................................................................................
ভারতের ৭০ কিমি ভিতরে চীনের ব্রীজ নির্মাণ; প্রত্যাখ্যান করলো ভারতীয় সেনা
.............................................................................................
মেহবুবা মুফতির সঙ্গে মেয়েকে দেখা করতে দেওয়ার নির্দেশ
.............................................................................................
আসাম থেকে বিদেশি সাংবাদিকদের বের করে দেয়া হচ্ছে
.............................................................................................
মুরসির ছেলের আকস্মিক মৃত্যু
.............................................................................................
ব্রেক্সিট: পার্লামেন্টের ভোটে হেরে গেলেন জনসন
.............................................................................................
যুক্তরাষ্ট্র-তালেবান চুক্তি : আফগানিস্তান ছাড়বে ৫৪০০ মার্কিন সেনা
.............................................................................................
বাহামা দ্বীপপুঞ্জে হারিকেন ডোরিয়ানের তাণ্ডব, নিহত ৫
.............................................................................................
ফিলিপাইনে এয়ার অ্যাম্বুলেন্স বিধ্বস্তে নিহত ৯
.............................................................................................
টেক্সাসে বন্দুকধারীর এলোপাতাড়ি গুলিতে নিহত ৫
.............................................................................................
আসামে নাগরিক তালিকা প্রকাশ, বাদ পড়লেন ১৯ লাখ
.............................................................................................
কাশ্মির ইস্যুতে পাকিস্তান সর্বশক্তি প্রয়োগ করবে: ইমরান খান
.............................................................................................
কাশ্মীরে ব্যাপক নির্যাতন চালানো হচ্ছে: বিবিসি
.............................................................................................
ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালাচ্ছে পাকিস্তান
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আখলাকুল আম্বিয়া
নির্বাহী সম্পাদক: মাে: মাহবুবুল আম্বিয়া

সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: স্বাধীনতা ভবন (৩য় তলা), ৮৮ মতিঝিল বাণিজ্যিক এলাকা, ঢাকা-১০০০। Editorial & Commercial Office: Swadhinota Bhaban (2nd Floor), 88 Motijheel, Dhaka-1000.
সম্পাদক কর্তৃক রঙতুলি প্রিন্টার্স ১৯৩/ডি, মমতাজ ম্যানশন, ফকিরাপুল কালভার্ট রোড, মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত ।
ফোন : ০২-৯৫৫২২৯১ মোবাইল: ০১৬৭০৬৬১৩৭৭

Phone: 02-9552291 Mobile: +8801670 661377
ই-মেইল : dailyswadhinbangla@gmail.com , editor@dailyswadhinbangla.com, news@dailyswadhinbangla.com

 

    2015 @ All Right Reserved By dailyswadhinbangla.com

Developed By: Nytasoft