শুক্রবার, ৬ ডিসেম্বর ২০১৯ | বাংলার জন্য ক্লিক করুন
  
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   আন্তর্জাতিক -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
সুদানে সিরামিক কারখানায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড, নিহত ২৩

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : সুদানের রাজধানী খারতুমের একটি কারখানায় বিস্ফোরণ থেকে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ২৩ জন নিহত হয়েছে। এ  দুর্ঘটনায় আরও প্রায় ১৩০ জন আহত হয়েছে। এদের মধ্যে বেশ কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

মঙ্গলবার সরকারি এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। নিহতের সংখ্যা বাড়তে পারে বলেও আশঙ্কা প্রকাশ করা হয়েছে। অগ্নিদগ্ধদের স্থানীয় বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও দমকলের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, বিস্ফোরণটি এত শক্তিশালী ছিল যে ট্যাংকারটি উড়ে পাশের একটি মালপত্রের স্তূপের ভিতরে গিয়ে পড়ে।  

ভিডিও ফুটেজে দেখা গেছে, দুর্ঘটনাস্থলে লোকজন দৌঁড়াদৌঁড়ি করছে ও চিৎকার করে সাহায্য চাইছে। কারখানাটি থেকে আগুনের শিখা ও ধোঁয়া বের হচ্ছে আর স্বেচ্ছাসেবক ও নিরাপত্তা বাহিনীগুলো আগুন নেভানোর চেষ্টা করছে।

আগুনে কারখানাটি পুরোপুরি ভস্মীভূত হয়ে গেছে বলে সরকারি বিবৃতিতে বলা হয়েছে।

কারখানাটির কর্মী উইলিয়াম বলেন, কী হয়েছে আমি কিছুই বুঝতে পারিনি। বিস্ফোরণের শব্দ শুনে আমি দৌঁড় দেই। আলখাল্লা পরা এক লোক আমার পেছনে দৌঁড়াচ্ছিল, সে গুরুতর আহত ছিল আর আমার পায়েও আঘাত লেগেছিল।

ঘটনাস্থলে থাকা স্বেচ্ছাসেবক হুসেইন ওমর বলেন, আমি ১৪টি মৃতদেহ টেনে বের করেছি। সেগুলো পুরোপুরি দগ্ধ ছিল।

আহতদের চিকিৎসার জন্য নাগরিকদের রক্ত দেওয়ার অনুরোধ করেছে সুদান সরকার।

সরকারি বিবৃতিতে বলা হয়েছে, প্রাথমিক পর্যবেক্ষণে কারখানাটিতে প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা ব্যবস্থার অপ্রতুলতা ও অগ্নিনির্বাপণ যন্ত্রপাতির অভাব ছিল বলে ইঙ্গিত পাওয়া গেছে।

সুদানে সিরামিক কারখানায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড, নিহত ২৩
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : সুদানের রাজধানী খারতুমের একটি কারখানায় বিস্ফোরণ থেকে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ২৩ জন নিহত হয়েছে। এ  দুর্ঘটনায় আরও প্রায় ১৩০ জন আহত হয়েছে। এদের মধ্যে বেশ কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

মঙ্গলবার সরকারি এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। নিহতের সংখ্যা বাড়তে পারে বলেও আশঙ্কা প্রকাশ করা হয়েছে। অগ্নিদগ্ধদের স্থানীয় বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও দমকলের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, বিস্ফোরণটি এত শক্তিশালী ছিল যে ট্যাংকারটি উড়ে পাশের একটি মালপত্রের স্তূপের ভিতরে গিয়ে পড়ে।  

ভিডিও ফুটেজে দেখা গেছে, দুর্ঘটনাস্থলে লোকজন দৌঁড়াদৌঁড়ি করছে ও চিৎকার করে সাহায্য চাইছে। কারখানাটি থেকে আগুনের শিখা ও ধোঁয়া বের হচ্ছে আর স্বেচ্ছাসেবক ও নিরাপত্তা বাহিনীগুলো আগুন নেভানোর চেষ্টা করছে।

আগুনে কারখানাটি পুরোপুরি ভস্মীভূত হয়ে গেছে বলে সরকারি বিবৃতিতে বলা হয়েছে।

কারখানাটির কর্মী উইলিয়াম বলেন, কী হয়েছে আমি কিছুই বুঝতে পারিনি। বিস্ফোরণের শব্দ শুনে আমি দৌঁড় দেই। আলখাল্লা পরা এক লোক আমার পেছনে দৌঁড়াচ্ছিল, সে গুরুতর আহত ছিল আর আমার পায়েও আঘাত লেগেছিল।

ঘটনাস্থলে থাকা স্বেচ্ছাসেবক হুসেইন ওমর বলেন, আমি ১৪টি মৃতদেহ টেনে বের করেছি। সেগুলো পুরোপুরি দগ্ধ ছিল।

আহতদের চিকিৎসার জন্য নাগরিকদের রক্ত দেওয়ার অনুরোধ করেছে সুদান সরকার।

সরকারি বিবৃতিতে বলা হয়েছে, প্রাথমিক পর্যবেক্ষণে কারখানাটিতে প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা ব্যবস্থার অপ্রতুলতা ও অগ্নিনির্বাপণ যন্ত্রপাতির অভাব ছিল বলে ইঙ্গিত পাওয়া গেছে।

যুক্তরাষ্ট্রে বিমান বিধ্বস্ত, নিহত ৯
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : যুক্তরাষ্ট্রের সাউথ ডেকোটায় একটি বিমান বিধ্বস্ত হয়ে নয়জনের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছে আরও তিনজন। নিহতদের মধ্যে বিমানের পাইলটও রয়েছেন। স্থানীয় সময় শনিবার বিকেলে ওই দুর্ঘটনা ঘটেছে।

এনবিসি নিউজ ও সিএনএন জানিয়েছে, পিলাটাস পিসি-১২ নামের বিমানটি চেম্বারলেইন বিমানবন্দর থেকে উড্ডয়নের অল্প পরেই বিধ্বস্ত হয়।

১২ যাত্রী নিয়ে এক ইঞ্জিনের ছোট বিমানটি আইডাহো যাওয়ার পথে খারাপ আবহাওয়ার কারণে দুর্ঘটনায় পড়ে বলে কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

এক বিবৃতিতে ফেডারেল অ্যাভিয়েশন জানিয়েছে, চেম্বারলেইন থেকে প্রায় এক মাইল দূরে ব্রুল কাউন্টিতে বিধ্বস্ত হয় বিমানটি।

রাজ্যের আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছে, ওই সময় আবহাওয়া পরিস্থিতি খুব খারাপ ছিল। সাউথ ডাকোটার ওই এলাকায় তখন তুষার ঝড় ছিল।

মেক্সিকোয় বন্দুকযুদ্ধে ৪ পুলিশসহ নিহত ১৪
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : মেক্সিকোর উত্তরাঞ্চলে এক বন্দুকযুদ্ধে ১০ অস্ত্রধারী ও চার পুলিশ নিহত হয়েছেন। শনিবার যুক্তরাষ্ট্রের সীমান্তবর্তী মেক্সিকোর একটি শহরে এই বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। খবর রয়টার্সের।

উত্তর মেক্সিকোর কোহুইলা রাজ্যের সরকার জানিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের সীমান্তবর্তী মেক্সিকো শহর পাইদারস নেগ্রাসের প্রায় ৪০ (৬৫ কিলোমিটার) মাইল দক্ষিণ-পশ্চিমে ছোট্ট শহর ভিলা ইউনিয়নে এই ঘটনা ঘটেছে। ভারী অস্ত্রে সজ্জিত মাদক পাচারকারীদের সঙ্গে মধ্যরাতে পুলিশের সংঘর্ষ হয়েছে।

রাজ্যের গভর্নর মিগুয়েল অ্যাঞ্জেল রিকেলমে সাংবাদিকদের জানান, এ ঘটনায় সাত বন্দুকধারী ও চার পুলিশ সদস্য নিহত হয়েছে। ঘণ্টাব্যাপী চলা এই বন্দুকযুদ্ধে আরও ছয় পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। পরে রাজ্য সরকারের এক বিবৃতিতে জানানো হয়, আরও তিন বন্দুকধারীকে হত্যা করা হয়েছে।

প্রায় এক যুগ ধরে মাদক পাচারকারীদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করছে মেক্সিকো। দেশটির সরকার ও সেনাবাহিনী একযোগে এই লড়াই করছেন। মাদকবিরোধী অভিযানের কারণে বড় মাদক ব্যবসায়ী গোষ্ঠীগুলো ছোট ছোট উপদলে ভাগ হয়ে গেছে। এর ফলে দেশটিতে মাদক সংক্রান্ত হত্যাকা-ের সংখ্যা রেকর্ড পরিমাণে পৌঁছেছে।সম্প্রতি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প জানিয়েছেন, মেক্সিকোর মাদক পাচারকারীদের সন্ত্রাসী হিসেবে আখ্যা দেবে যুক্তরাষ্ট্র।

কর্মী ভিসা বন্ধ করে দিল লেবানন
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক: দেশের অর্থ বাইরে যাওয়া ঠেকাতে ও লেবানিজদের কর্মসংস্থান তৈরি করতে এবার লেবাননে বিদেশি কর্মীর ভিসা বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে দেশটির শ্রম মন্ত্রণালয়। ভিসা বন্ধ হলেও লেবাননে যে সব প্রবাসী রয়েছেন, তাদের কোন সমস্যা হবে না বলে জানিয়েছে দেশটির সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়।

 ২৭ নভেম্বর লেবাননভিত্তিক অনলাইন নিউজপোর্টাল ‘লেবাননফাইলসডটকম’র খবরে লেবাননে শ্রম মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে এমন খবর প্রকাশ করা হয়।

খবরে বলা হয়, লেবানন শ্রম মন্ত্রণালয় এক জরুরি বিবৃতি জারি করেছে যে, বিদেশে মুদ্রা স্থানান্তরের পরিমাণ কমাতে এবং লেবানিজদের জন্য কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষে বিদেশি কর্মী আনার আবেদন বন্ধের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে।

লেবানিজদের বেকারত্ব ঘোচাতে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে বিবৃতিতে জানানো হয়। বিদেশি নতুন কর্মী ভিসার আর কোন আবেদন গ্রহণ করা হবে না।

প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালটি লেবাননে চরম মন্দা যাচ্ছে। লেবাননে ব্যাংকগুলোতে ডলার সংকট হওয়ার ডলারের দাম বেড়ে আকাশচুম্বি হয়ে দাঁড়িয়েছে বেকার হয়ে পড়ছে হাজার হাজার লেবানিজ। মৌলিক দাবি আদায়ে সরকারবিরোধী আন্দোলন চলছে গত দেড় মাস ধরে। এর জেরে গত ২৭ নভেম্বর লেবাননে শ্রম মন্ত্রণালয় বিদেশি শ্রমিক আনার উপর নিষেধাজ্ঞ জারি করে।

ইরাকে একদিনে নিহত ৪৫
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ইরাকের বিক্ষোভ দিন দিন রক্তক্ষয়ী রুপ ধারণ করছে। গতকাল বিক্ষোভকারীরাদের দমনে আরও চড়াও হয় নিরপত্তা বাহিনী। তারপর নিরাপত্তাবাহিনীর গুলিতে অন্তত ৪৫ বিক্ষোভকারী নিহত হয়েছেন। এছাড়া আহত হয়েছেন আরও ২৫০ বিক্ষোভকারী। গত অক্টোবরে শুরু হওয়ার বিক্ষোভে এ নিয়ে চার শতাধিক মানুষ নিহত হলো।
গতকাল বৃহস্পতিবার রাজধানী বাগদাদ, নাজাফ ও নাসিরিয়াসহ বিভিন্ন শহরে নিরাপত্তাবাহিনী বিক্ষোভকারীদের সরাসরি গুলি করলে এসব হতাহতের ঘটনা ঘটে। দেশটির চলমান এই বিক্ষোভের সবচেয়ে সবচেয়ে প্রাণঘাতী দিন ছিল এটি। গতকালও বিক্ষোভকারীরা একাধিক শহরে বিক্ষোভ করেন।

এর আগে গত বুধবার রাতে নাজাফ শহরে অবস্থিত ইরানে একটি কনস্যুলেট ভবনে অগ্নিসংযোগ করে বিক্ষোভকারীরা। তারপর গতকাল বৃহস্পতিবার বিভিন্ন শহরে বিক্ষোভকারীরা রাস্তায় নামলেই তাদের লক্ষ্য করে উন্মুক্ত গুলি চালানো শুরু করে নিরাপত্তাবাহিনী।

কনস্যুলেট ভবন ঘেরাও করে বিক্ষোভকারীরা ইরানের পতাকা নামিয়ে তার বদলে ইরাকের পতাকা ঝুলিয়ে দেয়। ইরাকের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে ইরান সরকারের হস্তক্ষেপ নিয়েই মূলত বিক্ষোভকারীদের এই ক্ষোভ। তারা ইরানের সংসদ ও রাজনৈতিক দলসহ সরকারি প্রতিষ্ঠানে প্রভাব খাটানোর জন্য ইরানকে দায়ী করছেন স্লোগানে স্লোগানে।

বুধবার রাতে ইরানি কনস্যুলেটে আগুন ধরিয়ে দেয়ার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক হারে ছড়িয়ে পড়ে। ভিডিওগুলোতে বিক্ষোভকারীদের জ্বলন্ত কনস্যুলেটের সামনে স্লোগান দিতে দেখা যায়। ইরাকের বিক্ষোভে এ ঘটনাকে ‘টার্নিং পয়েন্ট’ হিসেবে বর্ণনা করেছে ব্রিটিশ দৈনিক গার্ডিয়ান।

গতকাল বৃহস্পতিবার নাসিরিয়া শহরে বিক্ষোভকারীরা ভোর হওয়ার আগেই একটি সেতু দখলে নেয়। তাদের সরাতে উন্মুক্ত গুলি চালাতে শুরু করে সেনারা। সেখানে নিহত হন ২৯ জন। তারপর বিক্ষোভ ব্যাপক আকার ধারণ করে। পরবর্তীতে বিক্ষোভকারীরা একটি পুলিশ স্টেশনের বাইরে জড়ো হয়।

এছাড়া রাজধানী বাগদাদে টাইগ্রিস নদীর উপর নির্মিত এক সেতুর নিকটে অবস্থান নেন অনেক বিক্ষোভকারী। তাদের ছত্রভঙ্গ করতে বিক্ষোভকারীদের সমাবেশ লক্ষ্য করে উন্মুক্ত গুলি ও রাবার বুলেট ছোড়ে নিরাপত্তাবাহিনী। এতে নিহত হন অন্তত ৪ জন। এছাড়া আরেক শহর নাজাফে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে নিহত হন ১২ বিক্ষোভকারী।

বৃহস্পতিবার তীব্র সহিংসতার পর ইরাকের সঙ্গে মেহরান সীমান্ত বন্ধ করে দিয়েছে ইরান। সীমান্তটি কখন খুলে দেয়া হবে এ বিষয়ে কোনো ঘোষণা দেয়া হয়নি। মিত্র ইরানের কনস্যেুলেটে হামলার পর তার নিন্দা জানিয়ে কঠোর হস্তে বিক্ষোভ দমনে নামে ইরাক সরকার। ফলে গতকাল দেশটির বিক্ষোভ সর্বাধিক সংখ্যক হতাহতের ঘটনা ঘটে।

কর্মসংস্থানের সংকট, নিম্ন-জীবন মান অতির্কিত ব্যায়, সরকারি পরিষেবার দূর্বল মান এবং প্রশাসনে ব্যাপক দুর্নীতির অভিযোগে রাজধানী বাগদাদসহ দক্ষিণাঞ্চলীয় শহরগুলোতে বিক্ষোভ শুরু হয়। এছাড়া সরকার দুর্নীতিগ্রস্ত এবং ইরানের আজ্ঞাবহ অভিযোগ তুলে রাজনীতি থেকে ইরানের প্রভাব দূর করার দাবিও তুলছেন তারা।

কাদার মধ্যেই বিয়ের ফটোশ্যুট!
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক: বিয়ের সময় নবদম্পতিরা বিভিন্ন থিমে ফটোশ্যুট করে থাকেন। তবে ভারতীয় দম্পতি এমন থিমে বিয়ের ছবি তুলেছেন যা কেউ চিন্তাও করে নাই।

সবাই যখন পরিষ্কার এবং সুন্দর কোনও জায়গা বেছে নেয়। ভারতের কেরালার জোশ এবং অনিশা দম্পতি বেছে নিয়েছেন কাদায় ভর্তি ক্ষেত। কাদায় মাখামাখি নবদম্পতির সেই ছবি ভাইরাল হয়ে পড়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যেমে।

দু’‌জনের কাদায় মাখামাখি ফটোগুলো প্রথমে ফেসবুকে শেয়ার করা হয়। এরপরই তা ছড়িয়ে পড়ে টুইটারেও। রীতিমতো ভাইরাল হয়ে যায় জোশ ও অনিশার এই ছবি। অনেকেই আবার সেই নিয়ে তাঁদের ট্রোল করেন। আবার কেউ কেউ ওই নবদম্পতির এই ফটোশ্যুট পছন্দও করেন।

মালিতে কপ্টার দুর্ঘটনায় ফ্রান্সের ১৩ সেনা নিহত
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক: মালিতে সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনাকালে ফ্রান্সের সেনাবাহী হেলিকপ্টার দুর্ঘটার শিকার হয়। এতে প্রাণ হারান ১৩ ফরাসী সেনা। খবর পার্সটুডের

ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাকরনও এ খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

ফরাসি প্রেসিডেন্টের দপ্তর থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, গতকাল (সোমবার) সন্ধ্যায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। এসব সেনা নিহতের ঘটনায় প্রেসিডেন্ট ম্যাকরন গভীর শোক প্রকাশ করেন এবং নিহতদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান।

চলতি মাসের গোড়ার দিকে মালিতে ফ্রান্সের আরো এক সেনা নিহত হয়েছে। সেসময় ফরাসি ওই সেনার গাড়ির পাশে সন্ত্রাসীদের পেতে রাখা বোমার বিস্ফোরণ ঘটে। এতে তার গাড়িটি উড়ে যায় এবং ওই সেনা নিহত হয়।

২০১২ সাল থেকে মালি সহিংসতার কবলে পড়েছে। ওই বছর উগ্র সন্ত্রাসী গোষ্ঠী ‘তোয়ারেগ’ দেশের উত্তরাঞ্চলে দখল করে নেয়। সেখান থেকে উগ্র সন্ত্রাসী গোষ্ঠী আল-কায়েদা ও দায়েশ প্রতিবেশী দেশগুলোর ওপর সন্ত্রাসী হামলা চালাচ্ছে। সন্ত্রাসী গোষ্ঠীগুলোর তৎপরতার মুখে জাতিসংঘ মালিতে শান্তিরক্ষী বাহিনী মোতায়েন করেছে।

হংকংয়ের নির্বাচনে গণতন্ত্রপন্থিদের জয়
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : হংকংয়ের ডিস্ট্রিক্ট কাউন্সিল নির্বাচনে সাফল্য পেয়েছে গণতন্ত্রপন্থি প্রার্থীরা। নির্বাচনে ৪৫২টি পদের মধ্যে ৩৮৮টি পদে বিজয়ী হয়েছেন গণতন্ত্রপন্থি প্রার্থীরা। অন্যদিকে, বেইজিংপন্থিরা পেয়েছেন মাত্র ৬৪টি ভোট। এই ফলকে কয়েক মাস ধরে চলা বিক্ষোভের পক্ষে বড় বিজয় হিসেবে দেখা হচ্ছে।

অপরদিকে হংকংয়ের স্থানীয় নির্বাচনের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি ভোট পড়েছে এই নির্বাচনে। চার লাখ নতুন ভোটারসহ এবার ভোট দিতে নিবন্ধন করেছিলেন ৪১ লাখ মানুষ। এর মধ্যে ভোট দিয়েছেন ২৯ লাখ ৪০ হাজারেও বেশি মানুষ অর্থাৎ ৭১ শতাংশ ভোটার। ডিস্ট্রিক্ট কাউন্সিলের ৪৫২টি পদের জন্য লড়েন ১১০৪ জন প্রার্থী।

বেইজিংপন্থি আইন প্রণেতা জুনিয়াস হো তার আসনে পরাজিত হয়েছেন। পরাজয়ের পর তিনি বলেছেন, স্বর্গ আর পৃথিবী ওলট-পালট হয়ে গেছে।

হংকংয়ে চলমান গণতন্ত্রপন্থী বিক্ষোভের নেতিবাচক প্রভাব নির্বাচনে পড়ার আশঙ্কা করা হলেও বাস্তবে শান্তিপূর্ণভাবেই ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়।

প্রায় ছয় মাস ধরে বিক্ষোভ সহিংসতায় অস্থিতিশীল হংকংয়ের এবারের নির্বাচনকে দেখা হয় বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে। স্থানীয় পরিষদে প্রতিনিধিত্ব বাড়ানোর মাধ্যমে বেইজিংপন্থি প্রশাসনকে চাপে ফেলার লক্ষ্য নিয়ে অংশ নেয় গণতন্ত্রপন্থিরা।

নির্বাচনকে ঘিরে চলতি সপ্তাহে প্রথমবারের মতো গত কয়েক মাসের মধ্যে বিক্ষোভকারী ও পুলিশের মধ্যে কোনো ধরনের সংঘর্ষ বা সংঘাত হয়নি।

এদিকে ভোটদানের পর হংকংয়ের প্রধান নির্বাহী ক্যারি ল্যাম বলেন, চরম চ্যালেঞ্জিং পরিস্থিতির মুখে আমি সন্তুষ্ট চিত্তে বলছি, নির্বাচনের দিন পরিস্থিতি তুলনামূলকভাবে শান্ত ও শান্তিপূর্ণ ছিল।

কেনিয়ায় ভূমিধসে নিহত ২৪
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ভারী বর্ষণের কারণে হওয়া ভূমিধসের ফলে কেনিয়ার উত্তরপশ্চিমাঞ্চলীয় এলাকায় একই পরিবারের ৭ জনসহ অন্তত ২৪ জন নিহত হয়েছে। নিহতদের মধ্যে ৭ জন শিশুও রয়েছে।

শনিবার (২৩ নভেম্বর) স্থানীয় এক সরকারি কর্মকর্তার বরাতে এ তথ্য জানায় বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

শুক্রবার (২২ নভেম্বর) থেকে শুরু হওয়া ভারী বর্ষণের কারণে উগান্ডার সীমান্তঘোঁষা কেনিয়ার পশ্চিম পোকোট কাউন্টিতে বন্যা ও ভূমিধসের ঘটনা ঘটে। বন্যায় ভেসে গেছে মুইনো গ্রামের চারটি সেতু। ফলে গ্রামটিতে সড়কপথে যাওয়ার পথ বন্ধ হয়ে গেছে।

কাউন্টির গভর্নর জন লনিয়ানগাপুয়ো বলেন, মুইনো গ্রামে অনেক মানুষ এখনো পানিবন্দি অবস্থায় রয়েছেন। পুরো গ্রামটিই পানিতে তলিয়ে যাওয়ার ঝুঁকিতে রয়েছে।

কাউন্টিটির কমিশনার অ্যাপোলো ওকেল্লো বলেন, সাত শিশুসহ ১২টি মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। বাকিদের উদ্ধারে অভিযান চলছে। সেতু ভেঙে যাওয়ার কারণে উদ্ধার অভিযান ব্যাহত হচ্ছে। নিহতদের মধ্যে একই পরিবারের সাতজন সদস্য রয়েছে।

কেনিয়ার আবহাওয়া বিভাগ জানায়, দেশটি বর্তমানে বর্ষা মৌসুমের চেয়েও বেশি ভারী বর্ষণ মোকাবিলা করছে।

বাইডেনকে ‘পাগলা কুকুর’ বলল উ. কোরিয়া
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক: উত্তর কোরিয়ার শীর্ষ নেতা কিম জং উনকে ‘অপমানের পাল্টায়’ মার্কিন সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনকে ‘পাগলা কুকুর’ অ্যাখ্যা দিয়েছে উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম কেসিএনএ। তবে বাইডেনের কোন কথায় উত্তরের শীর্ষ নেতা অপমানিত হয়েছেন, কেসিএনএ তা উল্লেখ করেনি।

ডেমোক্রেট এ নেতা ‘উন্মত্ততার চূড়ান্ত পর্যায়ে’ রয়েছেন, তার ‘দেহত্যাগের সময় এসে গেছে’ বলে মন্তব্য করেছে কেসিএনএ।

২০২০ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্রেট দলের মনোনয়নপ্রত্যাশীদের মধ্যে জনমত জরিপে এগিয়ে থাকা বাইডেনকে ‘ঠাণ্ডা করা দরকার’ বলেও মন্তব্য করেছে তারা। ‘কিমের অপমানের’ প্রতিক্রিয়ায় শুক্রবার উত্তর কোরিয়ার বার্তা সংস্থা কোরিয়ান সেন্ট্রাল নিউজ এজেন্সি (কেসিএনএ) এ প্রতিক্রিয়া দেখায় বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

আগামী বছরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্রেট দলের এ মনোনয়নপ্রত্যাশী অবশ্য অনেক দিন ধরেই ডনাল্ড ট্রাম্পের কোরীয় নীতির কঠোর সমালোচক; বর্তমান মার্কিন প্রেসিডেন্ট একটি ‘খুনি স্বৈরশাসককে’ প্রশ্রয় দিচ্ছেন বলেও অভিযোগ করে আসছেন তিনি।

বাইডেন টানা ৩৬ বছর দেলাওয়ারার সিনেটর ছিলেন। বারাক ওবামার দুই মেয়াদেই তিনি ভাইস প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব পালন করেন।

“ডিপিআরকের সর্বোচ্চ নেতার মর্যাদাকে কুৎসিতভাবে অপমান করার দুঃসাহস দেখিয়েছে এই লোক। মৃত্যুর অপেক্ষায় থাকা পাগলা কুকুরের এটাই শেষ চেষ্টা,” উত্তর কোরিয়ার আনুষ্ঠানিক নাম ডেমোক্রেটিক পিপলস রিপাবলিক অব কোরিয়ার (ডিপিআরকে) সংক্ষিপ্ত রূপ ব্যবহার করে বলেছে কেসিএনএ।

“জলাতঙ্কে আক্রান্ত পাগলা কুকুরগুলোকে না থামালে তারা অনেককে আঘাত করতে পারে। দেরি হয়ে যাওয়ার আগেই ওই কুকুরগুলোকে অবশ্যই লাঠি দিয়ে পিটিয়ে মেরে ফেলা উচিত,” বলেছে তারা।

বাইডেনকে তুলোধুনা করলেও উত্তর কোরিয়ার এ রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম শত্রুতা ভুলে দুই দেশকে কাছাকাছি আনার পেছনে ট্রাম্প ও কিমের ‘ঘনিষ্ঠ ব্যক্তিগত সম্পর্ককে’ কৃতিত্ব দিয়েছে।

রোহিঙ্গা দমন-নিপীড়ন : সুচির বিরুদ্ধে আর্জেন্টিনায় মামলা
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : মিয়ানমারের রাখাইন প্রদেশে রোহিঙ্গাদের ওপর গণহত্যা ও দমন-পীড়নের দায়ে দেশটির কার্যত সরকারপ্রধান শান্তিতে নোবেলজয়ী অং সান সুচির বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে আর্জেন্টিনায়। ওই মামলায় সুচির পাশাপাশি মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর শীর্ষ পর্যায়ের বেশ ক’জন কর্মকর্তাকেও আসামি করা হয়েছে।

গত বুধবার এই মামলা দায়ের করে রোহিঙ্গা ও লাতিন আমেরিকান কিছু মানবাধিকার সংগঠন। রোহিঙ্গাদের ওপর গণহত্যা চালানোর জন্য এই প্রথম আইনি কোনো পদক্ষেপের মুখোমুখি হলেন অং সান সু চি।

মামলার আসামি হিসেবে সামরিক শীর্ষ কর্মকর্তাদের মধ্যে সশস্ত্র বাহিনীর প্রধান সিনিয়র জেনারেল মিন অং হ্লাইংও রয়েছেন। এর আগে সিনিয়র জেনারেল হ্লাইংসহ তার ক’জন কর্মকর্তা একই অভিযোগে বিভিন্ন নিষেধাজ্ঞার মুখে পড়েছেন।

‘ইউনিভার্সাল জুরিসডিকশন’ বা ‘বৈশ্বিক বিচার-দায়বদ্ধতার’ আওতায় দায়ের করা মামলায় রোহিঙ্গাদের ওপর যুদ্ধাপরাধ ও মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগ তুলে বলা হয়, এ ধরনের নৃশংস অপরাধ কেবল এক জাতির প্রতি হয়নি, (বিচার না হলে) এটা যে কোথাও হতে পারে।

মামলার বাদীপক্ষের আইনজীবী তোমাস ওহেয়া বলেন, এই মামলায় অপরাধী ও তাদের সহযোগীদের ওপর নিষেধাজ্ঞা চাওয়া হয়েছে এবং গণহত্যার সব তথ্য প্রকাশের দাবি করা হয়েছে। আমরা আর্জেন্টিনায় এই মামলা করলাম, কারণ এভাবে মামলা দায়েরের সুযোগ আর কোথাও পাবো না।

ক’দিন আগেই রোহিঙ্গা গণহত্যার অভিযোগে ‘ইন্টারন্যাশনাল কোর্ট অব জাস্টিস’-এ (আইসিজে) মিয়ানমারের বিরুদ্ধে মামলা করে পশ্চিম আফ্রিকার দেশ গাম্বিয়া। ৪৬ পৃষ্ঠার অভিযোগপত্রে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে রোহিঙ্গাদের গণহত্যা, ধর্ষণ ও উচ্ছেদের অভিযোগ আনে গাম্বিয়া।

অভিযোগপত্রে বলা হয়, ২০১৬ সালের অক্টোবরে রোহিঙ্গা ‘নির্মূলে’ এক অভিযান চালায় মিয়ানমারের সামরিক বাহিনী। এ অভিযানে তারা রোহিঙ্গা হত্যা, ধর্ষণসহ বিভিন্ন যৌন নিপীড়ন চালায়। একইসঙ্গে রোহিঙ্গাদের বাড়িতে আটকে রেখে পুরো গ্রাম জ্বালিয়ে দেওয়া হয়।

আগামী ডিসেম্বরে এ অভিযোগের প্রাথমিক শুনানি শুরু হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

নেপালে বাস নদীতে পড়ে শিশুসহ নিহত ১৭
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : নেপালে যাত্রীবাহী বাস  নদীতে পড়ে শিশুসহ অন্তত ১৭ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছে অর্ধশতাধিক এবং বেশ কয়েকজন নিখোঁজ রয়েছেন বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। রাজধানী কাঠমান্ডুর উত্তরপশ্চিমে সিন্ধুপালচক জেলায় রোববার ওই দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতদের মধ্যে সাত শিশু রয়েছে।

পুলিশের বরাত দিয়ে গালফ নিউজ ও দি হিন্দু জানিয়েছে, দোলাখা জেলা থেকে কাঠমান্ডু যাওয়ার পথে বাসটি সড়ক থেকে ছিটকে ১৬৫ ফুট নিচে সংকোশি নদীতে গিয়ে পড়ে।

জেলার কর্মকর্তা গোমা দেবি সেমজং জানিয়েছেন, ৭ শিশুসহ ১৭ জন নিহত হয়েছেন। চালকসহ আহত হয়েছেন আরও প্রায় ৫০ জন। আহতদের চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

তিনি জানান, বাসে ঠিক কতো জন যাত্রী ছিল এ ব্যাপারে বাসমালিক কর্তৃপক্ষের কাছে কোনো তথ্য নেই, ফলে দুর্ঘটনায় কতো জন নিখোঁজ রয়েছেন তা বলা যাচ্ছে না।  দুর্ঘটনার পর উদ্ধারকাজে স্থানীয় মাঝিরা পুলিশ ও সেনাবাহিনীকে সহযোগিতা করে। কর্তৃপক্ষ এখনও দুর্ঘটনার প্রকৃত কারণ নিশ্চিত করতে পারেনি।

বেহাল রাস্তাঘাট, যানবাহন রক্ষণাবেক্ষণের অভাব ও বেপরোয়া গাড়ি চালানোর ফলে প্রায়ই হিমালয়ের এসব অঞ্চলে প্রাণঘাতী সড়ক দুর্ঘটনা হয়ে থাকে। গত মাসেও যাত্রীবাহী আরেকটি বাস নদীতে পড়ে ১১ জন নিহত হন।

মালিতে সন্ত্রাসী হামলায় ৫৩ সেনা নিহত
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : মালির উত্তরপূর্বাঞ্চলে একটি সেনা চৌকিতে সন্ত্রাসী হামলা চালানো হয়েছে। এতে ৫৩ সেনা সদস্য নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরো বেশ কয়েকজন। গতকাল শুক্রবার ওই হামলা চালানো হয়।

দেশটির সরকারি সূত্রে পাওয়া তথ্যের বরাত দিয়ে শনিবার বার্তা সংস্থা এএফপির এক প্রতিবেদনে একথা বলা হয়েছে।

এতে আরও বলা হয়েছে, ইসলামি জঙ্গিদের সাম্প্রতিক সহিংস ঘটনার ক্ষেত্রে মালির সামরিক বাহিনীর বিরুদ্ধে এটি ছিল সবচেয়ে ভয়াবহ হামলা।

মালির যোগাযোগ মন্ত্রী ইয়াইয়া সানগার এক টুইটে জানান, নাইজেরিয়া সীমান্তবর্তী মানাকা অঞ্চলের ইন্ডিলিমানে ওই সামরিক ফাঁড়িতে হামলায় একজন বেসামরিক নাগরিকও নিহত হয়।

নিহতের সংখ্যার হালনাগাদ তথ্য দিয়ে তিনি লিখেছেন, হামলায় ৫৩ সৈন্য নিহত হয়েছে। বর্তমানে সেখানের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। উদ্ধার অভিযান এবং লাশ চিহ্নিত করার প্রক্রিয়া অব্যাহত রয়েছে।

তিনি জানান, ওই সামরিক ফাঁড়ি থেকে ১০ জনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। হামলায ফাঁড়িটির ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। তবে এই হামলার ব্যাপারে বিস্তারিত আর কিছু জানাননি তিনি।

এর আগে এক বিবৃতিতে মালির সরকার এ ‘সন্ত্রাসী হামলার’ নিন্দা জানিয়ে হামলায় বহুসংখ্যক লোক হতাহত হওয়ার কথা জানায়। তবে তখন তারা নিহতের সংখ্যা জানায়নি।

বিবৃতিতে আরো বলা হয়, ওই এলাকার নিরাপত্তা জোরদারে এবং হামলাকারীদের গ্রেফতারে অভিযান চালাতে আরো সৈন্য পাঠানো হয়েছে।

পাকিস্তানে ট্রেনে সিলিন্ডার বিস্ফোরণ, নিহত ৬২। স্বাধীন বাংলা
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : পাকিস্তানে যাত্রীবাহী ট্রেনে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে অন্তত ৬২ জন নিহত হয়েছে। আহত হয়েছেন আরো অনেকে।

বৃহস্পতিবার পাঞ্জাব প্রদেশের লিয়াকতপুরে করাচি থেকে রাওয়ালপিন্ডিগামী তেজগাম ট্রেনটিতে এ ঘটনা ঘটে। ট্রেনের ভেতর চুলা জ্বালিয়ে রান্নার সময় বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে।

জিও টেলিভিশন জানিয়েছে,  আগুনে ট্রেনের তিনটি বগি বিধ্বস্ত হয়েছে।

জেলার অগ্নিনির্বাপন বাহিনীর প্রধান বাকির হুসেইন বলেছেন, ৬২ জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত হওয়া গেছে। নিহতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

তিনি জানান, নিহতদের মধ্যে কয়েকজন আগুনের ধোঁয়া থেকে বাঁচতে চলন্ত ট্রেন থেকে লাফ দিয়েছিলেন।

রেলমন্ত্রী শেখ রশিদ বলেছেন, দুটি রান্নার চুলা বিস্ফোরিত হয়েছে। ওই সময় রান্না হচ্ছিল। রান্নার তেল থাকায় আগুন আরো ছড়িয়ে পড়ে। ট্রেন থেকে লাফ দিয়ে পড়ায় অধিকাংশ মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে।

তিনি জানান, যে বগিটিতে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে তাতে তাবলিগ জামাতের একটি দল ছিল। তারা সেখানে সকালের নাস্তার জন্য রান্না করছিলেন। তাদের সিলিন্ডার বিস্ফোরণে এ ঘটনা ঘটেছে।

ঔপনিবেশিক আমলে নির্মিত পাকিস্তানের রেলব্যবস্থা গত কয়েক দশক ধরে সংস্কারহীন। গত জুলাইয়ে ট্রেন দুর্ঘটনায় দেশটিতে নিহত হয় ১১ জন। সেপ্টেম্বরে আরেকটি দুর্ঘটনায় নিহত হয় চার জন।

অগ্নিগর্ভ ইরাক, নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৬৩
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক: সরকার বিরোধী বিক্ষোভে অংশ নিতে ইরাকের রাজধানী বাগদাদে দেশটির বিভিন্ন অঞ্চল থেকে বিক্ষোভকারীরা এসে জমায়েত হচ্ছে। নিরাপত্তাবাহিনীর রক্তাক্ত অভিযানে এখন পর্যন্ত ৬৩ জন প্রাণ হারিয়েছেন। তবে বাগদাদের তাহরির স্কয়ারমুখি যাত্রা অব্যাহত রয়েছে। সরকারবিরোধী এই বিক্ষোভের শুরু থেকেই নিরাপত্তাবাহিনী বিক্ষোভকারীদের হটিয়ে দেয়ার লক্ষ্যে রাবার বুলেট, গুলি বর্ষণ ও হাত বোমার বিস্ফোরণও ঘটালেও বিক্ষোভরত জনতা রাজপথ ছেড়ে যাননি।

ইরাকের আধা সরকারি মানবাধিকার বিষয়ক হাই কমিশনের তথ্য বলছে, বিক্ষোভে দ্রুত প্রাণহানির সংখ্যা বাড়লেও রাজধানী বাগদাদে বিক্ষোভকারীরা জমায়েত অব্যাহত রেখেছেন।

ইরাকি পতাকা মাথায় জড়িয়ে একজন বিক্ষোভকারী ফরাসী বার্তাসংস্থা এএফপিকে বলেন, ‘আমরা এখানে এসেছি পুরো সরকারকে টেনে নামানোর জন্য, সরকারকে ছুড়ে ফেলার জন্য। আমরা তাদের একজনকেও আর ক্ষমতায় দেখতে চাই না। আর সেটা সংসদের স্পিকার মোহাম্মদ হালবুসি কিংবা প্রধানমন্ত্রী আবদেল মাহদি হোক না কেন। আমরা পুরো শাসনব্যবস্থার শেষ চাই। এদিকে, রাজধানী বাগদাদের গুরুত্বপূর্ণ সব ভবন রক্ষার জন্য রোববার বাগদাদে দেশটির এলিট কাউন্টার টেরোরিজম সার্ভিসের সদস্যদের মোতায়েন করা হয়েছে।

দেশটির এলিট এই বাহিনী এক বিবৃতিতে বলেছে, বিক্ষোভ এবং বিক্ষোভকারীদের মাঝে যাতে সুযোগসন্ধানীরা অনুপ্রবেশ না করে সেজন্য কাউন্টার টেরোরিজম সার্ভিসের সদস্যদের মোতায়েন করা হয়েছে। বিক্ষোভের সময় অপ্রীতিকর ঘটনা থেকে সরকারি বিভিন্ন স্থাপনার সুরক্ষায় কাজ করবে কাউন্টার টেরোরিজম সার্ভিস।

এর আগে শনিবার বিক্ষোভকারীরা বাগদাদে বিভিন্ন দেশের দূতাবাস, সরকারি ভবন ও স্থাপনায় প্রবেশের চেষ্টা চালান বিক্ষোভকারীরা। পরে তাদের ছত্রভঙ্গ করতে টিয়ার গ্যাস, রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে আইনশৃঙ্খলাবাহিনী। এ সময় টিয়ার গ্যাসের আঘাতে অন্তত তিনজনের প্রাণহানি ঘটে। এছাড়া দেশটির দক্ষিণাঞ্চলের নাসিরিয়া শহরে স্থানীয় সরকারি এক কর্মকর্তার বাড়িতে বিক্ষোভকারীরা হামলা চালালে সেখানে পুলিশের গুলিতে তিন বিক্ষোভকারী নিহত হয়েছেন।

অর্থনৈতিক সঙ্কট, সামাজিক বিশৃঙ্খলা ও দুর্নীতি লাগাম টানতে ইরাকের ক্ষমতাসীন সরকারের পদত্যাগের দাবিতে চলতি মাসের শুরুর দিকে ধীরে ধীরে বিক্ষোভ শুরু হয়। তবে অক্টোবরের মাঝের দিকে এসে এই বিক্ষোভ ক্রমান্বয়ে তীব্র আকার ধারণ করায় সরকারি বাহিনী বিক্ষোভ দমাতে কঠোর অবস্থানে যায়।

সরকারি আইন শৃঙ্খলারক্ষাকারী বাহিনীর সঙ্গে বিক্ষোভকারীদের সংঘর্ষ, সংঘাত ও সহিংসতাংয় এখন পর্যন্ত কমপক্ষে ১৯০ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। চলমান এই অস্থিরতায় প্রায় দুই বছরের স্থিতিশীল ইরাকে অচলাবস্থা তৈরি হয়েছে।

মার্কিন অভিযানে আইএস নেতা বাগদাদি নিহত
                                  

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক আন্তর্জাতিক জঙ্গি গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট-আইএস নেতা আবু বকর আল বাগদাদিকে লক্ষ্য করে বিশেষ অভিযান চালিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনী।

স্থানীয় সময় শনিবার সিরিয়ার উত্তরপশ্চিমাঞ্চলীয় এলাকায় এই অভিযান পরিচালিত হয়।

অভিযানের ফলাফল সম্পর্কে অবগত মার্কিন সেনাবাহিনীর এক কর্মকর্তা নিউজইউককে জানিয়েছেন, অভিযানে বাগদাদি নিহত হয়েছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় হোয়াইট হাউসকে জানিয়েছে, অভিযানে যে শীর্ষ-পর্যায়ের লক্ষ্য নিহত হয়েছে সে বাগদাদি এ বিষয়ে তাদের ‘প্রবল বিশ্বাস’ আছে, কিন্তু ডিএনএ ও বায়োমেট্রিক পরীক্ষার করে আরও যাচাই করার পর বিষয়টি পুরোপুরি নিশ্চিত করা যাবে।

সিএনএন বলছে, তারা বিশ্বাস করছে মার্কিন অভিযানে বাগদাদি নিহত হয়েছেন। প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের করা একটি টুইট বার্তাও সেই ইঙ্গিত দিচ্ছে। এর আগে ট্রাম্প তার টুইট বার্তায় বলেছেন, এইমাত্র বিশাল বড় কিছু একটা ঘটে গেছে। তিনি এ নিয়ে শিগগিরই ঘোষণা দিতে যাচ্ছেন।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে মার্কিন ওই প্রতিরক্ষা কর্মকর্তা আরও জানিয়েছেন আইএস নেতা বাগদাদির অবস্থান শনাক্তের কাজটি করেছে দেশটির কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএ। তারপর সেখানে অভিযান চালানো হয়।

মার্কিন প্রতিরক্ষা কর্মকর্তা জানিয়েছেন, বাগদাদির গোপন আস্তানায় যখন মার্কিন বাহিনী অভিযান চালায় তখন তিনি তার শরীরের বিস্ফোরক ভর্তি বেল্ট পড়ে ছিলেন। ধারণা করা হচ্ছে, সেটির বিস্ফোরণ ঘটানোর মাধ্যমে আত্মহত্যা করেছে আইএস নেতা আবু বকর আল বাগদাদি।

অভিযানটির বিষয়ে জ্ঞাত সূত্রগুলোর ভাষ্যমতে, নির্ভরযোগ্য গোয়েন্দা সূত্রে খবর পাওয়ার পর জয়েন্ট স্পেশাল অপারেশন্স কমান্ডের ডেল্টা টিম শনিবারের শীর্ষ পর্যায়ের অভিযানটি চালিয়েছে। বিশেষ অভিযানের সেনারা যে জায়গায় অভিযান চালিয়েছে কিছুদিন ধরেই তা নজরদারির মধ্যে ছিল।   

গত এপ্রিলে আইএসের গণমাধ্যম শাখা আল ফুরকান একটি ভিডিও প্রকাশ করে যাতে তাদের নেতা আবু বকর আল বাগদাদিকে দেখা যায়। ২০১৪ সালের পর প্রকাশ্যে তাকে গত এপ্রিলেই প্রথম বক্তব্য দিতে দেখা যায়। তাকে শেষবার দেখা গিয়েছিল ইরাকের মসুলে অবস্থিত গ্রেট মসজিদে।

২০১৮ সালে ফেব্রুয়ারিতে বেশ কয়েকজন মার্কিন কর্মকর্তা বলেন, ২০১৭ সালের মে মাসে পরিচালিত একটি বিমান হামলায় আইএস নেতা আবু বকর আল বাগদাদি আহত হয়েছিলন। আহত হওয়ার কারণে তারপর পাঁচ মাস তিনি আইএসের নিয়ন্ত্রণ অন্যের কাছে অর্পণ করেন।

২০১০ সালে ইসলামিক স্টেট অব ইরাকের (আইএসআই) নেতা হন বাগদাদি। ২০১৩ সালে আইএসআই ঘোষণা দেয় তারা সিরিয়ায় আল কায়েদা সমর্থিত জঙ্গিগোষ্ঠীর সঙ্গে মিলে কাজ করছে। বাগদাদি বলেন, তার দল এখন থেকে ইসলামিক স্টেট ইন ইরাক অ্যান্ড দ্যা সিরিয়া তথা আইএসআইএস অথবা আইএসআইএল হিসেবে পরিচিত হবে।


   Page 1 of 124
     আন্তর্জাতিক
সুদানে সিরামিক কারখানায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড, নিহত ২৩
.............................................................................................
যুক্তরাষ্ট্রে বিমান বিধ্বস্ত, নিহত ৯
.............................................................................................
মেক্সিকোয় বন্দুকযুদ্ধে ৪ পুলিশসহ নিহত ১৪
.............................................................................................
কর্মী ভিসা বন্ধ করে দিল লেবানন
.............................................................................................
ইরাকে একদিনে নিহত ৪৫
.............................................................................................
কাদার মধ্যেই বিয়ের ফটোশ্যুট!
.............................................................................................
মালিতে কপ্টার দুর্ঘটনায় ফ্রান্সের ১৩ সেনা নিহত
.............................................................................................
হংকংয়ের নির্বাচনে গণতন্ত্রপন্থিদের জয়
.............................................................................................
কেনিয়ায় ভূমিধসে নিহত ২৪
.............................................................................................
বাইডেনকে ‘পাগলা কুকুর’ বলল উ. কোরিয়া
.............................................................................................
রোহিঙ্গা দমন-নিপীড়ন : সুচির বিরুদ্ধে আর্জেন্টিনায় মামলা
.............................................................................................
নেপালে বাস নদীতে পড়ে শিশুসহ নিহত ১৭
.............................................................................................
মালিতে সন্ত্রাসী হামলায় ৫৩ সেনা নিহত
.............................................................................................
পাকিস্তানে ট্রেনে সিলিন্ডার বিস্ফোরণ, নিহত ৬২। স্বাধীন বাংলা
.............................................................................................
অগ্নিগর্ভ ইরাক, নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৬৩
.............................................................................................
মার্কিন অভিযানে আইএস নেতা বাগদাদি নিহত
.............................................................................................
চালকের বিরুদ্ধে ৩৯ জনকে হত্যার অভিযোগ
.............................................................................................
সৌদিতে সড়ক দুর্ঘটনায় ৩৫ ওমরাহযাত্রী নিহত
.............................................................................................
জাপানে টাইফুনে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৭৪
.............................................................................................
মেক্সিকোয় বন্দুক হামলায় ১৪ পুলিশ নিহত
.............................................................................................
টাইফুনে বিধ্বস্ত জাপান, নিহত ১৯
.............................................................................................
মোদী-শি বৈঠকে স্থান পায়নি কাশ্মীর ইস্যু
.............................................................................................
কাশ্মীরে খুলে দেয়া হচ্ছে মোবাইল সেবা
.............................................................................................
পর্যটকদের জন্যে খুলে দেওয়া হল কাশ্মীরের দরজা
.............................................................................................
কাশ্মীর ইস্যুতে পাকিস্তানের ‘বিবেকী নীতিতে’ সমর্থন দেবে চীন
.............................................................................................
ধর্ষণের অভিযোগ : পদত্যাগের পর নেপালের সাবেক স্পিকার গ্রেফতার
.............................................................................................
সালাহকে দেখে বেন বার্ড এখন মুসলিম
.............................................................................................
মোদি সরকারের আমলে ভারতে স্বৈরতন্ত্র কায়েম হতে চলছে: রাহুল গান্ধী
.............................................................................................
পাকিস্তানে ফের সেনা অভ্যুত্থানের আশঙ্কা!
.............................................................................................
সৌদিতে ব্যাপক ধরপাকড়, বাদ যাচ্ছে না বৈধরাও
.............................................................................................
কাশ্মীর উত্তেজনার মধ্যে ইসরাইল থেকে ট্যাংক কিলার আনলো ভারত
.............................................................................................
ভারতে বন্যায় ১২২ জনের মৃত্যু
.............................................................................................
চীনে বাস-ট্রাকের সংঘর্ষে নিহত ৩৬
.............................................................................................
৬ কাশ্মীরিকে গুলি করে হত্যা করেছে ভারতীয় বাহিনী
.............................................................................................
কাশ্মীরে কারফিউ উঠে গেলে রক্তবন্যা বয়ে যাবে : ইমরান
.............................................................................................
৮ বাংলাদেশিকে আটক করেছে বিএসএফ
.............................................................................................
পর্যটন ভিসা চালু করছে সৌদি আরব
.............................................................................................
কাশ্মীরে নিখোঁজ ১৩ হাজার শিশু-কিশোর
.............................................................................................
নতুন খবর দিলো সৌদি সরকার; দেবে ভ্রমণ ভিসা
.............................................................................................
মুসলমানদের কিডনি-ফুসফুস কেটে বিক্রি করছে চীন!
.............................................................................................
সাবেক ফরাসি প্রেসিডেন্ট জ্যাক শিরাক মারা গেছেন
.............................................................................................
সৌদি আরবে সেনা পাঠাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র
.............................................................................................
গণহত্যার ঝুঁকিতে মিয়ানমারে থেকে যাওয়া রোহিঙ্গারা : জাতিসংঘ
.............................................................................................
বুধবার মোদী-মমতা বৈঠক
.............................................................................................
২ পাক সেনা মৃত্যুর দাবি ভারতীয়দের
.............................................................................................
এনআরসি নিয়ে মোদি সরকারকে মমতার চ্যালেঞ্জ
.............................................................................................
কারবালায় তাজিয়া মিছিলে পদদলিত হয়ে নিহত ৩১
.............................................................................................
পাকিস্তানের আকাশসীমায় নিষিদ্ধ ভারতের রাষ্ট্রপতি
.............................................................................................
রাজধানীতে গ্যাং বলে কিছু থাকবে না
.............................................................................................
হাজার হাজার পোস্টার মেরে কাশ্মীরে অসহযোগ আন্দোলনের ডাক
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আখলাকুল আম্বিয়া
নির্বাহী সম্পাদক: মাে: মাহবুবুল আম্বিয়া

সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: স্বাধীনতা ভবন (৩য় তলা), ৮৮ মতিঝিল বাণিজ্যিক এলাকা, ঢাকা-১০০০। Editorial & Commercial Office: Swadhinota Bhaban (2nd Floor), 88 Motijheel, Dhaka-1000.
সম্পাদক কর্তৃক রঙতুলি প্রিন্টার্স ১৯৩/ডি, মমতাজ ম্যানশন, ফকিরাপুল কালভার্ট রোড, মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত ।
ফোন : ০২-৯৫৫২২৯১ মোবাইল: ০১৬৭০৬৬১৩৭৭

Phone: 02-9552291 Mobile: +8801670 661377
ই-মেইল : dailyswadhinbangla@gmail.com , editor@dailyswadhinbangla.com, news@dailyswadhinbangla.com

 

    2015 @ All Right Reserved By dailyswadhinbangla.com

Developed By: Nytasoft