রবিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি 2021 বাংলার জন্য ক্লিক করুন
  
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   স্বাস্থ্য -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
টিকা নিলেও করোনা আক্রান্ত স্বাস্থ্যকর্মী

স্বাধীন বাংলা রিপোর্ট : অক্সফোর্ডের কভিড টিকা নেওয়ার পরও রাজধানী ঢাকার এক স্বাস্থ্যকর্মী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। সাজ্জাদ হোসেন নামের ওই স্বাস্থ্যকর্মী স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ ও মিটফোর্ড হাসপাতালের ওয়ার্ড মাস্টার হিসেবে কর্মরত। গত ৭ ফেব্রুয়ারি দেশে গণটিকাদান শুরুর পরদিন তিনি টিকা নেন। এর ১৬ দিনের মাথায় মঙ্গলবার তার করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসে।

সাজ্জাদ বলেন, টিকা নেওয়ার স্থানে প্রথমে ব্যথা এবং পরে জ্বর অনুভব করেন। টানা দু`দিন জ্বর ছিল। তবে প্যারাসিটামল ওষুধ সেবনে তা সেরে যায়। পরে হাসপাতালে কাজে ফেরেন। তিন দিন আগে তিনি আবারও জ্বরজ্বর অনুভব করেন। তাই সোমবার তিনি করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা দেন। মঙ্গলবার ওই নমুনা পরীক্ষার ফল পজিটিভ আসে। বর্তমানে তিনি বাসায় আইসোলেশনে আছেন।

টিকা নেওয়ার পরও সাজ্জাদের করোনায় আক্রান্ত হওয়ার খবরে মিটফোর্ড হাসপাতালের চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীদের মধ্যে কিছুটা আতঙ্ক তৈরি হয়েছে। মিটফোর্ড হাসপাতালের কয়েকজন স্বাস্থ্যকর্মীর সঙ্গে আলাপ করে জানা যায়, করোনার প্রতিষেধক টিকা নেওয়ার পর তারা অনেকটাই স্বস্তিতে ছিলেন। সবাই মনে করেছিলেন, টিকা নেওয়ার পর করোনামুক্ত স্বাভাবিক জীবনে ফিরেছেন। এ কারণে টিকা নেওয়ার পর থেকে তারা আগের মতো স্বাস্থ্যবিধি মানছিলেন না। অনেকে মাস্কও সঠিকভাবে ব্যবহার করেননি। সাজ্জাদের আক্রান্ত হওয়ার ঘটনায় সবার মধ্যে উদ্বেগ দেখা দিয়েছে। এখন তারা মনে করছেন, টিকা নিলেও তাদের আগের মতোই স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে, মাস্ক ব্যবহার করতে হবে।

করোনার জাতীয় টিকা বিতরণ সংক্রান্ত কোর কমিটির সদস্য ও আইইডিসিআরের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ডা. এএসএম আলমগীর বলেন, প্রতিষেধক টিকা নিলে কেউ করোনায় আক্রান্ত হবেন না, এমন কোনো নিশ্চয়তা বিজ্ঞানীরা দেননি। টিকা নেওয়ার পর কেউ আক্রান্ত হলে তার সংক্রমণ হবে মৃদু। একই সঙ্গে তার মারাত্মক সংক্রমণ ও মৃত্যুঝুঁকিও কম থাকবে। অর্থাৎ টিকা মৃত্যুঝুঁকি কমানোর পাশাপাশি মারাত্মক সংক্রমণ থেকেও রক্ষা করবে।

টিকা গ্রহণের কতদিন পর অ্যান্টিবডি তৈরি হয়, এমন প্রশ্নের জবাবে ডা. এএসএম আলমগীর বলেন, টিকা গ্রহণের ১৪ থেকে ২১ দিনের মাথায় শরীরে অ্যান্টিবডি তৈরি হতে থাকে। ওই অ্যান্টিবডি তৈরি হলে শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে। তখন আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি কমে। তবে করোনাভাইরাস থেকে মুক্ত থাকতে টিকাই একমাত্র উপায় নয়। টিকা একটি মাত্র উপায়। এর সঙ্গে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে। বিশেষ করে কোনো কিছু খাওয়ার আগে নূ্যনতম ২০ সেকেন্ড ধরে হাত ধুয়ে নিতে হবে। একই সঙ্গে মাস্ক ব্যবহার করতে হবে। তাহলেই করোনার সংক্রমণ থেকে মুক্ত থাকা সম্ভব হবে। টিকা নেওয়ার পর দেশে আরও কেউ আক্রান্ত হয়েছেন কিনা জানতে চাইলে ডা. আলমগীর বলেন, এমন খবর এখনও তারা পাননি।

টিকা নিয়েও দেশে দেশে করোনায় আক্রান্ত : টিকা নেওয়ার পরও বিশ্বের অনেক দেশে করোনায় আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। গত বছরের ১৮ ডিসেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার সান ডিয়েগোর নার্স ম্যাথিউ ডব্লিউ ফাইজারের টিকার প্রথম ডোজ নেন। এর পর ৮ দিনের মাথায় তিনি করোনা পজিটিভ হন। এর পরই বিশ্বব্যাপী শোরগোল পড়ে যায়। প্রশ্ন ওঠে টিকার কার্যকারিতা নিয়ে।

৩১ ডিসেম্বর নিউইয়র্ক টাইমসের এ সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদনে বলা হয়, ফাইজারের টিকা মেসেঞ্জার আরএনএ বা এমআরএনএ অনুভিত্তিক টিকা। এটি মানবদেহে প্রবেশ করে করোনাভাইরাসের স্পাইক প্রোটিনের অনুরূপ প্রোটিন তৈরির নির্দেশ দেয়। এসব নকল স্পাইক প্রোটিনে করোনা হয় না। কিন্তু মানবদেহের রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থা তাদের বিরুদ্ধে সক্রিয় হয় এবং সৃষ্ট অ্যান্টিবডি স্পাইক প্রোটিনকে চিনে রাখে। পরে সহজেই করোনার সংক্রমণ রোধ করতে পারে। এই পুরো প্রক্রিয়াটি তৈরি হতে কয়েকদিন সময়ের প্রয়োজন হয়। এই সময়ের মধ্যে কেউ করোনায় আক্রান্ত হলে সেটি বিরল ঘটনা হবে।

যুক্তরাষ্ট্রের পাশাপাশি ইউরোপের বিভিন্ন দেশ, ইসরায়েল, ভারতসহ বিভিন্ন দেশে টিকা গ্রহণের পরও অনেকে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। বিবিসির এক প্রতিবেদনে লন্ডনের ইম্পেরিয়াল কলেজের ইমিউনোলজিস্টের অধ্যাপক ড্যানি অল্টম্যানের উদ্ধৃতি দিয়ে বলা হয়, কোনো ব্যক্তি টিকা নেওয়ার পর সঙ্গে সঙ্গেই সেটি কার্যকর হবে না। ইমিউনিটি তৈরি হতে দুই থেকে তিন সপ্তাহ সময় লেগে যেতে পারে।

টিকা নেওয়ার পর মানবদেহ করোনার জেনেটিক উপাদানগুলো শনাক্ত করতে এবং অ্যান্টিবডি ও টি-সেল তৈরি করতে বেশ খানিকটা সময় নেয়। এর পর ধীরে ধীরে এগুলো ভাইরাসের দেহকোষে অনুপ্রবেশ ঠেকাতে বা আক্রান্ত কোষগুলোকে মেরে ফেলতে সক্রিয় হয়ে ওঠে।

টিকা কতদিন পর্যন্ত রোগ প্রতিরোধ করবে : করোনার প্রতিষেধক টিকা আসার পর বিশ্বজুড়ে সবার প্রশ্ন ছিল, টিকা কতদিন পর্যন্ত সুরক্ষিত রাখতে পারবে? মহামারি শুরু হওয়ার এক বছর পর মধ্যম ও দীর্ঘ মেয়াদে ইমিউনিটির ওপর বিভিন্ন দেশে গবেষণা হয়েছে। ক্যালিফোর্নিয়ার লা জোলা ইনস্টিটিউট অব ইমিউনোলজির গবেষণা বলছে, করোনার সংক্রমণ থেকে সেরে ওঠার পর প্রায় ছয় মাস পর্যন্ত রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা মানবদেহে থেকে যায়। ব্রিটেনের জনস্বাস্থ্য বিভাগের গবেষণায়ও প্রায় একই ফলাফল দেখা যায়। এতে বলা হয়, কভিড থেকে সেরে ওঠার পর বেশিরভাগ রোগী অন্তত পাঁচ মাস আবার সংক্রমণের ঝুঁকি থেকে মুক্ত থাকবেন।

তবে টিকা কতদিন সুরক্ষা দেবে, তা এখনও অজানা। বিজ্ঞানীরা এখনও এটা উদ্‌ঘাটন করতে পারেননি। বিবিসির এক প্রতিবেদনে ব্রিটেনের লেস্টার বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইরোলজিস্ট ড. জুলিয়ান ট্যাংয়ের উদ্ধৃতি দিয়ে বলা হয়, টিকা গ্রহণের পর কতদিন রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কার্যকর থাকবে, তা এখনও বলা কঠিন। কারণ বিশ্বব্যাপী কেবল টিকাদান শুরু হয়েছে। একেক মানুষের ওপর এই টিকার ফলাফল একেক ধরনের। আবার কে কী ধরনের টিকা প্রয়োগ করছে, সেটির ওপরও অনেক কিছু নির্ভর করছে। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ছয় মাস থেকে এক বছর পর্যন্ত থাকতে পারে বলে মনে করেন তিনি। টিকা গ্রহণের পর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কয়েক বছর থেকে যাবে বলে যুক্তরাষ্ট্রের অপর এক গবেষণায় বলা হয়।

টিকা নিলেন আরও ১ লাখ ৮২ হাজার মানুষ : দেশে গণটিকাদান কর্মসূচির ১৫তম দিনে গতকাল বুধবার টিকা নিয়েছেন আরও এক লাখ ৮১ হাজার ৯৮৫ জন। তাদের মধ্যে পুরুষ ১ লাখ ১২ হাজার ৯৯ জন এবং নারী ৬৯ হাজার ৮৮৬ জন। এ নিয়ে মোট টিকা নিলেন ২৬ লাখ ৭৩ হাজার ৩৮ জন। এদিন সন্ধ্যা ছয়টা পর্যন্ত টিকা পেতে ৩৮ লাখ ৮৯ হাজার ৩৪৫ জন নিবন্ধন করেছেন।

টিকা নিলেও করোনা আক্রান্ত স্বাস্থ্যকর্মী
                                  

স্বাধীন বাংলা রিপোর্ট : অক্সফোর্ডের কভিড টিকা নেওয়ার পরও রাজধানী ঢাকার এক স্বাস্থ্যকর্মী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। সাজ্জাদ হোসেন নামের ওই স্বাস্থ্যকর্মী স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ ও মিটফোর্ড হাসপাতালের ওয়ার্ড মাস্টার হিসেবে কর্মরত। গত ৭ ফেব্রুয়ারি দেশে গণটিকাদান শুরুর পরদিন তিনি টিকা নেন। এর ১৬ দিনের মাথায় মঙ্গলবার তার করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসে।

সাজ্জাদ বলেন, টিকা নেওয়ার স্থানে প্রথমে ব্যথা এবং পরে জ্বর অনুভব করেন। টানা দু`দিন জ্বর ছিল। তবে প্যারাসিটামল ওষুধ সেবনে তা সেরে যায়। পরে হাসপাতালে কাজে ফেরেন। তিন দিন আগে তিনি আবারও জ্বরজ্বর অনুভব করেন। তাই সোমবার তিনি করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা দেন। মঙ্গলবার ওই নমুনা পরীক্ষার ফল পজিটিভ আসে। বর্তমানে তিনি বাসায় আইসোলেশনে আছেন।

টিকা নেওয়ার পরও সাজ্জাদের করোনায় আক্রান্ত হওয়ার খবরে মিটফোর্ড হাসপাতালের চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীদের মধ্যে কিছুটা আতঙ্ক তৈরি হয়েছে। মিটফোর্ড হাসপাতালের কয়েকজন স্বাস্থ্যকর্মীর সঙ্গে আলাপ করে জানা যায়, করোনার প্রতিষেধক টিকা নেওয়ার পর তারা অনেকটাই স্বস্তিতে ছিলেন। সবাই মনে করেছিলেন, টিকা নেওয়ার পর করোনামুক্ত স্বাভাবিক জীবনে ফিরেছেন। এ কারণে টিকা নেওয়ার পর থেকে তারা আগের মতো স্বাস্থ্যবিধি মানছিলেন না। অনেকে মাস্কও সঠিকভাবে ব্যবহার করেননি। সাজ্জাদের আক্রান্ত হওয়ার ঘটনায় সবার মধ্যে উদ্বেগ দেখা দিয়েছে। এখন তারা মনে করছেন, টিকা নিলেও তাদের আগের মতোই স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে, মাস্ক ব্যবহার করতে হবে।

করোনার জাতীয় টিকা বিতরণ সংক্রান্ত কোর কমিটির সদস্য ও আইইডিসিআরের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ডা. এএসএম আলমগীর বলেন, প্রতিষেধক টিকা নিলে কেউ করোনায় আক্রান্ত হবেন না, এমন কোনো নিশ্চয়তা বিজ্ঞানীরা দেননি। টিকা নেওয়ার পর কেউ আক্রান্ত হলে তার সংক্রমণ হবে মৃদু। একই সঙ্গে তার মারাত্মক সংক্রমণ ও মৃত্যুঝুঁকিও কম থাকবে। অর্থাৎ টিকা মৃত্যুঝুঁকি কমানোর পাশাপাশি মারাত্মক সংক্রমণ থেকেও রক্ষা করবে।

টিকা গ্রহণের কতদিন পর অ্যান্টিবডি তৈরি হয়, এমন প্রশ্নের জবাবে ডা. এএসএম আলমগীর বলেন, টিকা গ্রহণের ১৪ থেকে ২১ দিনের মাথায় শরীরে অ্যান্টিবডি তৈরি হতে থাকে। ওই অ্যান্টিবডি তৈরি হলে শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে। তখন আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি কমে। তবে করোনাভাইরাস থেকে মুক্ত থাকতে টিকাই একমাত্র উপায় নয়। টিকা একটি মাত্র উপায়। এর সঙ্গে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে। বিশেষ করে কোনো কিছু খাওয়ার আগে নূ্যনতম ২০ সেকেন্ড ধরে হাত ধুয়ে নিতে হবে। একই সঙ্গে মাস্ক ব্যবহার করতে হবে। তাহলেই করোনার সংক্রমণ থেকে মুক্ত থাকা সম্ভব হবে। টিকা নেওয়ার পর দেশে আরও কেউ আক্রান্ত হয়েছেন কিনা জানতে চাইলে ডা. আলমগীর বলেন, এমন খবর এখনও তারা পাননি।

টিকা নিয়েও দেশে দেশে করোনায় আক্রান্ত : টিকা নেওয়ার পরও বিশ্বের অনেক দেশে করোনায় আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। গত বছরের ১৮ ডিসেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার সান ডিয়েগোর নার্স ম্যাথিউ ডব্লিউ ফাইজারের টিকার প্রথম ডোজ নেন। এর পর ৮ দিনের মাথায় তিনি করোনা পজিটিভ হন। এর পরই বিশ্বব্যাপী শোরগোল পড়ে যায়। প্রশ্ন ওঠে টিকার কার্যকারিতা নিয়ে।

৩১ ডিসেম্বর নিউইয়র্ক টাইমসের এ সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদনে বলা হয়, ফাইজারের টিকা মেসেঞ্জার আরএনএ বা এমআরএনএ অনুভিত্তিক টিকা। এটি মানবদেহে প্রবেশ করে করোনাভাইরাসের স্পাইক প্রোটিনের অনুরূপ প্রোটিন তৈরির নির্দেশ দেয়। এসব নকল স্পাইক প্রোটিনে করোনা হয় না। কিন্তু মানবদেহের রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থা তাদের বিরুদ্ধে সক্রিয় হয় এবং সৃষ্ট অ্যান্টিবডি স্পাইক প্রোটিনকে চিনে রাখে। পরে সহজেই করোনার সংক্রমণ রোধ করতে পারে। এই পুরো প্রক্রিয়াটি তৈরি হতে কয়েকদিন সময়ের প্রয়োজন হয়। এই সময়ের মধ্যে কেউ করোনায় আক্রান্ত হলে সেটি বিরল ঘটনা হবে।

যুক্তরাষ্ট্রের পাশাপাশি ইউরোপের বিভিন্ন দেশ, ইসরায়েল, ভারতসহ বিভিন্ন দেশে টিকা গ্রহণের পরও অনেকে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। বিবিসির এক প্রতিবেদনে লন্ডনের ইম্পেরিয়াল কলেজের ইমিউনোলজিস্টের অধ্যাপক ড্যানি অল্টম্যানের উদ্ধৃতি দিয়ে বলা হয়, কোনো ব্যক্তি টিকা নেওয়ার পর সঙ্গে সঙ্গেই সেটি কার্যকর হবে না। ইমিউনিটি তৈরি হতে দুই থেকে তিন সপ্তাহ সময় লেগে যেতে পারে।

টিকা নেওয়ার পর মানবদেহ করোনার জেনেটিক উপাদানগুলো শনাক্ত করতে এবং অ্যান্টিবডি ও টি-সেল তৈরি করতে বেশ খানিকটা সময় নেয়। এর পর ধীরে ধীরে এগুলো ভাইরাসের দেহকোষে অনুপ্রবেশ ঠেকাতে বা আক্রান্ত কোষগুলোকে মেরে ফেলতে সক্রিয় হয়ে ওঠে।

টিকা কতদিন পর্যন্ত রোগ প্রতিরোধ করবে : করোনার প্রতিষেধক টিকা আসার পর বিশ্বজুড়ে সবার প্রশ্ন ছিল, টিকা কতদিন পর্যন্ত সুরক্ষিত রাখতে পারবে? মহামারি শুরু হওয়ার এক বছর পর মধ্যম ও দীর্ঘ মেয়াদে ইমিউনিটির ওপর বিভিন্ন দেশে গবেষণা হয়েছে। ক্যালিফোর্নিয়ার লা জোলা ইনস্টিটিউট অব ইমিউনোলজির গবেষণা বলছে, করোনার সংক্রমণ থেকে সেরে ওঠার পর প্রায় ছয় মাস পর্যন্ত রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা মানবদেহে থেকে যায়। ব্রিটেনের জনস্বাস্থ্য বিভাগের গবেষণায়ও প্রায় একই ফলাফল দেখা যায়। এতে বলা হয়, কভিড থেকে সেরে ওঠার পর বেশিরভাগ রোগী অন্তত পাঁচ মাস আবার সংক্রমণের ঝুঁকি থেকে মুক্ত থাকবেন।

তবে টিকা কতদিন সুরক্ষা দেবে, তা এখনও অজানা। বিজ্ঞানীরা এখনও এটা উদ্‌ঘাটন করতে পারেননি। বিবিসির এক প্রতিবেদনে ব্রিটেনের লেস্টার বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইরোলজিস্ট ড. জুলিয়ান ট্যাংয়ের উদ্ধৃতি দিয়ে বলা হয়, টিকা গ্রহণের পর কতদিন রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কার্যকর থাকবে, তা এখনও বলা কঠিন। কারণ বিশ্বব্যাপী কেবল টিকাদান শুরু হয়েছে। একেক মানুষের ওপর এই টিকার ফলাফল একেক ধরনের। আবার কে কী ধরনের টিকা প্রয়োগ করছে, সেটির ওপরও অনেক কিছু নির্ভর করছে। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ছয় মাস থেকে এক বছর পর্যন্ত থাকতে পারে বলে মনে করেন তিনি। টিকা গ্রহণের পর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কয়েক বছর থেকে যাবে বলে যুক্তরাষ্ট্রের অপর এক গবেষণায় বলা হয়।

টিকা নিলেন আরও ১ লাখ ৮২ হাজার মানুষ : দেশে গণটিকাদান কর্মসূচির ১৫তম দিনে গতকাল বুধবার টিকা নিয়েছেন আরও এক লাখ ৮১ হাজার ৯৮৫ জন। তাদের মধ্যে পুরুষ ১ লাখ ১২ হাজার ৯৯ জন এবং নারী ৬৯ হাজার ৮৮৬ জন। এ নিয়ে মোট টিকা নিলেন ২৬ লাখ ৭৩ হাজার ৩৮ জন। এদিন সন্ধ্যা ছয়টা পর্যন্ত টিকা পেতে ৩৮ লাখ ৮৯ হাজার ৩৪৫ জন নিবন্ধন করেছেন।

করোনায় আরো ১৮ জনের প্রাণহানি
                                  

স্বাধীন বাংলা রিপোর্ট : মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দেশে গত চব্বিশ ঘণ্টায় ১৮ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা দাঁড়ালো ৮ হাজার ৩৭৪ জনে। নতুন করে রোগী শনাক্ত হয়েছে ৩৯৯ জন। মোট শনাক্ত ৫ লাখ ৪৪ হাজার ১১৬ জনে দাঁড়িয়েছে।

চব্বিশ ঘণ্টায় ৮২৮ জন এবং এখন পর্যন্ত ৪ লাখ ৯২ হাজার ৮৮৭ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন। আজ স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য  জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরো জানানো হয়, ২১৪টি পরীক্ষাগারে গত চব্বিশ ঘণ্টায় ১২ হাজার ৬৯৮টি নমুনা সংগ্রহ এবং ১২ হাজার ৭৪৮টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত ৩৯ লাখ ৭১ হাজার ৫২৪ টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে।

চব্বিশ ঘণ্টায় শনাক্তের হার ৩ দশমিক ১৩ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৯০ দশমিক ৫৮ শতাংশ এবং শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৫৪ শতাংশ।

স্বাধীন বাংলা/জ উ আহমাদ

করোনায় আরো ৭ জনের প্রাণহানি
                                  

স্বাধীন বাংলা রিপোর্ট : মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দেশে গত চব্বিশ ঘণ্টায় ৭ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা দাঁড়ালো ৮ হাজার ৩৫৬ জনে। নতুন করে রোগী শনাক্ত হয়েছে ৩৬৬ জন। মোট শনাক্ত ৫ লাখ ৪৩ হাজার ৭১৭জনে দাঁড়িয়েছে।

চব্বিশ ঘণ্টায়  ৬৯২ জন এবং এখন পর্যন্ত ৪ লাখ ৯২ হাজার ৫৯ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন। আজ স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য  জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরো জানানো হয়, ২১৪টি পরীক্ষাগারে গত চব্বিশ ঘণ্টায় ১১ হাজার ৫১টি নমুনা সংগ্রহ এবং ১১হাজার ১০৩টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত ৩৯লাখ ৫৮হাজার ৭৭৬টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে।

চব্বিশ ঘণ্টায় শনাক্তের হার ৩ দশমিক ৩০ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৯০ দশমিক ৫০ শতাংশ এবং শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৫৪ শতাংশ।

স্বাধীন বাংলা/জ উ আহমাদ

ভারত থেকে ২০ লাখ টিকা আসছে আজ
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক : ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটে উৎপাদিত অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার করোনাভাইরাস প্রতিরোধী টিকার দ্বিতীয় চালান আজ সোমবার দেশে আসার কথা রয়েছে। তবে ফ্লাইট শিডিউল ঠিক না হওয়ায় কয়টা নাগাদ পৌঁছাবে তা নিশ্চিত করতে পারছেন না সংশ্লিষ্টরা। রোববার মন্ত্রণালয় ও অধিদপ্তরের একাধিক সূত্রে এ তথ্য জানা যায়।

বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সংসদ সদস্য নাজমুল হাসান পাপন গণমাধ্যমে বলেছেন, একুশে ফেব্রুয়ারি এবং রোববার থাকায় দুই দেশেই সরকারি ছুটি চলছে। এজন্য কখন টিকা আসছে সে বিষয় সোমবার সকালে নিশ্চিত হতে পারব। তবে এটি নিশ্চিত যে সোমবারই দেশে সেরামের টিকার দ্বিতীয় চালান আসবে।

সেরাম ইনস্টিটিউটের কর্মকর্তা আদর পুনেওয়ালার একটি টুইট ঘিরে রোববার দুপুরে বিতর্ক শুরু হয়েছে। টুইটে তিনি লিখেছেন, বিদেশি সরকার এবং রাষ্ট্রীয় নেতাদের  জানাচ্ছি- ধৈর্য ধরতে হবে। আমরা চেষ্টা করছি উৎপাদন বাড়াতে। সরকার ভারতের গ্রহীতাদের ভ্যাকসিন আগে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ফলে আমরা আমাদের সরবরাহ ভারতের মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখছি প্রাথমিকভাবে। সেরামের কোভশিল্ড ব্রাজিল, মেক্সিকো, বাংলাদেশে সরবরাহ হচ্ছে। অন্য দেশেও যাচ্ছে। পুনেওয়ালার এ টুইটের পর বিভিন্ন দেশে টিকার প্রাপ্যতা নিয়ে সন্দেহের সৃষ্টি হয়েছে।

৩ কোটি ডোজ করোনার টিকা পেতে ৫ নভেম্বর সেরাম ইনস্টিটিউটের সঙ্গে বাংলাদেশের শীর্ষস্থানীয় ওষুধ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের চুক্তি হয়। চুক্তি অনুযায়ী, প্রতি মাসে ৫০ লাখ ডোজ টিকা পাঠানোর কথা। দেশে টিকার প্রথম চালান আসে ২৫ জানুয়ারি।

এর আগে উপহার হিসাবে বাংলাদেশে পাঠানো ভারত সরকারের ২০ লাখ টিকা পৌঁছায় ২১ জানুয়ারি। এ টিকা পাওয়ার পর সরকার ২৭ জানুয়ারি দেশে প্রথম টিকা প্রয়োগ শুরু করে। ৭ ফেব্রুয়ারি শুরু হয় গণটিকা কার্যক্রম।

স্বাধীন বাংলা/জ উ আহমাদ

করোনায় আরো ৭ জনের প্রাণহানি
                                  

স্বাধীন বাংলা রিপোর্ট : মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দেশে গত চব্বিশ ঘণ্টায় ৭ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা দাঁড়ালো ৮ হাজার ৩৪৯ জনে। নতুন করে রোগী শনাক্ত হয়েছে ৩২৭ জন। মোট শনাক্ত ৫ লাখ ৪৩ হাজার ৩৫১ জনে দাঁড়িয়েছে।

চব্বিশ ঘণ্টায়  ৪৭৫ জন এবং এখন পর্যন্ত ৪ লাখ ৯১ হাজার ৩৬৭ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন। আজ স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য  জানানো হয়েছে।

 বিজ্ঞপ্তিতে আরো জানানো হয়, ২১৪টি পরীক্ষাগারে গত চব্বিশ ঘণ্টায় ১৪ হাজার ২১২টি নমুনা সংগ্রহ এবং ১৪ হাজার ৩৬টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত ৩৯ লাখ ৪৭ হাজার ৬৭৩টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে।

চব্বিশ ঘণ্টায় শনাক্তের হার ২ দশমিক ৩৩ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৯০ দশমিক ৪৩ শতাংশ এবং শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৫৪ শতাংশ।

স্বাধীন বাংলা/জ উ আহমাদ

করোনায় আরো ৫ জনের প্রাণহানি
                                  

স্বাধীন বাংলা রিপোর্ট : মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দেশে গত চব্বিশ ঘণ্টায় ৫ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা দাঁড়ালো ৮ হাজার ৩৪২জনে। নতুন করে রোগী শনাক্ত হয়েছে ৩৫০ জন। মোট শনাক্ত ৫ লাখ ৪৩ হাজার ২৪জনে দাঁড়িয়েছে।

চব্বিশ ঘণ্টায়  ৪২৪জন এবং এখন পর্যন্ত ৪ লাখ ৯০হাজার৮৯২ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন। আজ স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য  জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরো জানানো হয়, ২১৪টি পরীক্ষাগারে গত চব্বিশ ঘণ্টায় ১১ হাজার ২২টি নমুনা সংগ্রহ এবং ১১হাজার ১৪৮টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত ৩৯লাখ ৩৩হাজার ৬৩৭টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে।

চব্বিশ ঘণ্টায় শনাক্তের হার ৩ দশমিক ১৪ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৯০ দশমিক ৪০শতাংশ এবং শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৫৪ শতাংশ।

স্বাধীন বাংলা/জ উ আহমাদ

করোনায় আরো ৮ জনের প্রাণহানি
                                  

স্বাধীন বাংলা রিপোর্ট : মহামারী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দেশে গত চব্বিশ ঘণ্টায়  ৮ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা দাঁড়ালো ৮ হাজার ৩৩৭জনে। নতুন করে রোগী শনাক্ত হয়েছে ৪০৬ জন। মোট শনাক্ত ৫ লাখ ৪২ হাজার ৬৭৪ জনে দাঁড়িয়েছে।

চব্বিশ ঘণ্টায়  ৫৩৬জন এবং এখন পর্যন্ত ৪ লাখ ৯০হাজার ৪৬৮ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন। আজ স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য  জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরো জানানো হয়, ২১৪টি পরীক্ষাগারে গত চব্বিশ ঘণ্টায় ১৪ হাজার ৪৩৮টি নমুনা সংগ্রহ এবং ১৪হাজার ২৩২টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত ৩৯লাখ ২২হাজার ৪৮৯টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে।

চব্বিশ ঘণ্টায় শনাক্তের হার ২ দশমিক ৮৫শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৯০ দশমিক ৩৮শতাংশ এবং শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৫৪ শতাংশ।

স্বাধীন বাংলা/জ উ আহমাদ

করোনায় দেশে আরও ১৫ জনের প্রাণহানি
                                  

স্বাধীন বাংলা রিপোর্ট : মহামারী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দেশে গত চব্বিশ ঘণ্টায় ১৫ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা দাঁড়ালো ৮ হাজার ৩২৯ জনে। নতুন করে রোগী শনাক্ত হয়েছে ৩৯১ জন। মোট শনাক্ত ৫ লাখ ৪২ হাজার ২৬৮ জনে দাঁড়িয়েছে।

চব্বিশ ঘণ্টায় ৬৭৮ জন এবং এখন পর্যন্ত ৪ লাখ ৮৯হাজার ৯৩২ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন। আজ স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরো জানানো হয়, ২১৪টি পরীক্ষাগারে গত চব্বিশ ঘণ্টায় ১৪ হাজার ৭৪২টি নমুনা সংগ্রহ এবং ১৪ হাজার ৬০৩টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত ৩৯ লাখ ৮হাজার ২৫৭ টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে।

চব্বিশ ঘণ্টায় শনাক্তের হার ২ দশমিক ৬৮শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৯০ দশমিক ৩৫ শতাংশ এবং শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৫৩ শতাংশ।

স্বাধীন বাংলা/জ উ আহমাদ

করোনায় আরো ১৩ জনের প্রাণহানি
                                  

স্বাধীন বাংলা রিপোর্ট : মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দেশে গত চব্বিশ ঘণ্টায় ১৩ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা দাঁড়ালো ৮ হাজার ২৯৮ জনে। নতুন করে রোগী শনাক্ত হয়েছে ৩৯৬ জন। মোট শনাক্ত ৫ লাখ ৪১ হাজার ৪৩৪জনে দাঁড়িয়েছে

চব্বিশ ঘণ্টায় ৭৫১ জন এবং এখন পর্যন্ত ৪ লাখ ৮৮ হাজার ৬২১ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন। আজ স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য  জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরো জানানো হয়, ২১২টি পরীক্ষাগারে গত চব্বিশ ঘণ্টায় ১৫ হাজার ২৯টি নমুনা সংগ্রহ এবং ১৪ হাজার ৭৮৮টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত ৩৮ লাখ ৭৭ হাজার ৪২টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে।

চব্বিশ ঘণ্টায় শনাক্তের হার ২ দশমিক ৬৮ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৯০ দশমিক ২৫ শতাংশ এবং শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৫৩ শতাংশ।

স্বাধীন বাংলা/জ উ আহমাদ

৮ থেকে ১২ সপ্তাহ পরে দ্বিতীয় ডোজ দেয়ার পরামর্শ
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক : দেশে করোনাভাইরাস মহামারি প্রতিরোধে টিকার প্রথম ডোজ নেয়া ব্যক্তিদের বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রস্তাবনা অনুযায়ী ৮ থেকে ১২ সপ্তাহের ব্যবধানে দ্বিতীয় ডোজ দিতে সরকারকে বিশেষভাবে পরামর্শ দিয়েছে কোভিড-১৯ জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটি। গত ১৪ ফেব্রুয়ারি রাতে অনুষ্ঠিত কমিটির ২৬তম অনলাইন সভায় এ পরামর্শ দেয়া হয় বলে সোমবারের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

অধ্যাপক মোঃ সহিদুল্লাহর সভাপতিত্বে ও সব সদস্যের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত সভায় বিভিন্ন বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা এবং সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। সভায় উল্লেখ করা হয় যে, বাংলাদেশ সরকার সফলতার সাথে টিকাদান কর্মসূচি শুরু করেছে। প্রাথমিক ভয়-ভীতি, গুজব উপেক্ষা করে বৃহত্তর জনগোষ্ঠী টিকা নেয়ার জন্য উদ্বুদ্ধ হয়েছে। সুশৃঙ্খলভাবে টিকা কর্মসূচি চলছে।

টিকাদানের সার্বিক ব্যবস্থাপনায় জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটি সন্তোষ প্রকাশ করে এবং এ জন্য সরকারকে অভিনন্দন জানানো হয়। প্রাথমিকভাবে সরকারি প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমেই বিনামূল্যে টিকা কার্যক্রম চালিয়ে যাওয়ার বিষয়ে কমিটি মতামত প্রকাশ করে।

কমিটি ‘কোভিশিল্ড’ টিকার দ্বিতীয় ডোজ প্রদানের সময় নিয়ে আলোচনা করে এবং মনে করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রস্তাবনা অনুযায়ী ৮ থেকে ১২ সপ্তাহের ব্যবধানে দ্বিতীয় ডোজ দেয়ার সিদ্ধান্ত বৈজ্ঞানিকভাবে যৌক্তিক। এই প্রস্তাবনা অনুসরণ করার জন্য সরকারকে বিশেষভাবে পরামর্শ দেয়া হয়।

সভা থেকে টিকার মেয়াদকালের দিকে লক্ষ্য রেখে দ্রুত কর্ম পরিকল্পনা গ্রহণ ও বাস্তবায়নের জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানানো হয়।

এছাড়া, বৈঠকে টিকা প্রদান শুরু হওয়ার পরও স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণের বিষয়ে জনসচেতনতা বৃদ্ধির জন্য পূর্বের মতো প্রচার প্রচারণা চালিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেয়া হয়।

সোমবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুম থেকে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, কোভিড-১৯ টিকার প্রথম ডোজ গ্রহণের জন্য সোমবার পর্যন্ত ২০ লাখ ২২ হাজার ২০১ জন নিবন্ধন করেছেন। দেশের এক হাজার ৪০০ টিকাদান কেন্দ্র থেকে প্রতিদিন ৩ লাখ ৬০ হাজার টিকাদানের সক্ষমতা রয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ২৭ জানুয়ারি থেকে এখন পর্যন্ত সারা দেশে করোনার টিকা নিয়েছেন ১১ লাখ ৩২ হাজার ৭১১ জন। যাদের মধ্যে পুরুষ সাত লাখ ৭৩ হাজার ৬২৪ জন এবং নারী তিন লাখ ৯০ হাজার ৮৭ জন।

গত ২৭ জানুয়ারি গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত হয়ে কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে পরীক্ষামূলক টিকাদান কর্মসূচির উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর ভার্চুয়াল উপস্থিতিতে পাঁচজনকে টিকা দেয়া হয়। আর সংক্রমণ রোধে গত ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে দেশে ব্যাপকভাবে টিকাদান কর্মসূচি শুরু হয়। স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন।

করোনার টিকা নিতে চাইলে www.surokkha.gov.bd ওয়েবসাইটে গিয়ে নিবন্ধন করতে হবে।

ভারতের উপহার হিসেবে সিরাম ইনস্টিটিউটের তৈরি অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার কোভিশিল্ড টিকার ২০ লাখ ডোজ গত ২১ জানুয়ারি বাংলাদেশে এসে পৌঁছে। এরপর ২৫ জানুয়ারি সেরাম থেকে বাংলাদেশের ক্রয় করা কোভিশিল্ডের প্রথম চালানের ৫০ লাখ ডোজ নিরাপদে ঢাকায় আসে। আগামী ২২ ফেব্রুয়ারি টিকার দ্বিতীয় চালান দেশে আসবে। এ চালানে ২০ থেকে ৩০ লাখ ডোজ টিকা আনা হবে বলে বলে সোমবার জানিয়েছেন বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক নাজমুল হাসান পাপন। সূত্র : ইউএনবি

স্বাধীন বাংলা/ন উ আহমাদ

এক দিনে ২ লাখ ২৬ হাজারের বেশি মানুষ ভ্যাকসিন নিয়েছেন
                                  

স্বাধীন বাংলা রিপোর্ট : গণটিকাদান কর্মসূচির অষ্টম দিনে সারা দেশে ভ্যাকসিন নিয়েছেন ২ লাখ ২৬ হাজার ৬৭৮ জন। এর মধ্যে ঢাকায় নিয়েছেন ২৯ হাজার ৫৫ জন। অন স্পট  নিবন্ধন বন্ধের পর দুই দিন টিকা নেয়ার সংখ্যা একটু কমছিল। আজ আবার বেড়ে গেছে। যা আট দিনে মধ্যে সর্বোচ্চ।

এ পর্যন্ত টিকা নিয়েছেন ১১ লাখ ৩২ হাজার ৭১১ জন। সন্ধ্যায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে এ তথ্য জানানো হয়। প্রথম দিন টিকা নিয়েছিলেন ৩১,১৬০ জন। গত ২৭ জানুয়ারি আনুষ্ঠানিকভাবে টিকাদান কর্মসূচির উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তবে গণ টিকাদান শুরু হয় ৭ই ফেব্রুয়ারি থেকে।

স্বাধীন বাংলা/জ উ আহমাদ

করোনা টিকার দ্বিতীয় ডোজের তারিখ পরিবর্তন
                                  

স্বাধীন বাংলা রিপোর্ট : মহামারী করোনাভাইরাস থেকে সুরক্ষায় টিকার দ্বিতীয় ডোজের তারিখ পরিবর্তন করা হয়েছে।  দুই মাস পর করোনা টিকার দ্বিতীয় ডোজ দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম। সোমবার বিকালে গণমাধ্যমকে তিনি জানান, জাতীয় কারিগরী পরামর্শক কমিটির পরামর্শ অনুযায়ী দ্বিতীয় ডোজ টিকা দেওয়ার সময়ে এই পরিবর্তন করা হয়েছে।

স্বাস্থ্য মহাপরিচালক বলেন, ইতিমধ্যে যারা টিকা নিয়েছেন, তাদের দ্বিতীয় ডোজের জন্য এক মাস পরের তারিখ দেওয়া হয়েছে। সেই তারিখও বদলে দেওয়া হবে।

দেশে টিকা কর্মসূচির অষ্টম দিন করোনা টিকা নিয়েছেন রাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল ও পুলিশ প্রধান বেনজীর আহমেদ। এ সময় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ভ্যাকসিন নিয়ে অনেকে অনেক সমালোচনা করেছে। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী সমালোচকদের মুখে ছাই দিয়ে টিকা এনেছেন এবং দেশের সাধারণ মানুষসহ সবাই টিকা পাচ্ছেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল সবাইকে টিকা নিয়ে দেশকে কোভিড মুক্ত করার আহ্বান জানিয়েছেন।

স্বাধীন বাংলা/জ উ আহমাদ

করোনায় আরো ১১ জনের প্রাণহানি
                                  

স্বাধীন বাংলা রিপোর্ট : মহামারী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দেশে গত চব্বিশ ঘণ্টায় ১১ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা দাঁড়ালো ৮ হাজার ২৮৫ জনে। নতুন করে রোগী শনাক্ত হয়েছে ৪৪৬ জন। মোট শনাক্ত ৫ লাখ ৪১ হাজার ৩৮ জনে দাঁড়িয়েছে।

চব্বিশ ঘণ্টায়  ৬৪১ জন এবং এখন পর্যন্ত ৪ লাখ ৮৭ হাজার ৮৭০ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন। আজ স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য  জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরো জানানো হয়, ২১০টি পরীক্ষাগারে গত চব্বিশ ঘণ্টায় ১৩ হাজার ৯৭৪টি নমুনা সংগ্রহ এবং ১৪ হাজার ১৩৮টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত ৩৮ লাখ ৬২ হাজার ২৫৪টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে।

চব্বিশ ঘণ্টায় শনাক্তের হার ৩ দশমিক ১৫ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৯০ দশমিক ১৭ শতাংশ এবং শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৫৩ শতাংশ।

স্বাধীন বাংলা/জ উ আহমাদ

২২ ফেব্রুয়ারি আসছে টিকার দ্বিতীয় চালান
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক : আগামী ২২ ফেব্রুয়ারি ভারতের সিরাম ইনস্টিটিউটে উৎপাদিত করোনা ভাইরাসের টিকার দ্বিতীয় চালান আসবে। বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক নাজমুল হাসান পাপন এ তথ্য জানিয়েছেন। আজ রাজধানীর কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে করোনা টিকা নেয়ার পর গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ তথ্য জানান।

পাপন বলেন, আগামী ২২ ফেব্রুয়ারি টিকার দ্বিতীয় চালান আসবে। এখন পর্যন্ত ৩০ লাখ টিকা আনার চিন্তাভাবনা চলছে। আমাদের চাহিদার ওপর টিকার সংখ্যা কম-বেশি হতে পারে। কারণ এখনও ৬০ লাখের বেশি টিকার মজুদ রয়েছে। টিকা নিয়ে কোনো সংকট হবে না। আমি শুরু থেকে বলে আসছি, এ টিকা হলো সবচেয়ে নিরাপদ টিকা।

কার্যকরিতা আছে তবে সবচেয়ে বড় গুণ হলো এ টিকা নিরাপদ। গত ২০ জানুয়ারি ভারতের সিরাম ইনস্টিটিউট উৎপাদিত অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রোজেনেকার ২০ লাখ ডোজ টিকা ভারত সরকার উপহার হিসেবে বাংলাদেশে পাঠায়।

পরবর্তীতে কেনা টিকার ৫০ লাখের প্রথম চালান আসে ২৫ জানুয়ারি। ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে দেশব্যাপী টিকাদান শুরু হয়। গতকাল ১৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ৯ লাখেরও বেশি মানুষ টিকা নিয়েছেন।

স্বাধীন বাংলা/জ উ আহমাদ

করোনা ধ্বংসে ৯৯ শতাংশ কার্যকরি ফরাসি স্প্রে
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক : করোনাভাইরাস ধ্বংসে ৯৯ শতাংশ কার্যকরি একটি নাকের স্প্রে তৈরি করেছে ফরাসি কোম্পানি ফার্মা এন্ড বিউটি (পিএন্ডবি)। আশা করা হচ্ছে, আগামি কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই এটি বাজারে আসবে। প্রায় এক বছর ধরে এই স্প্রে নিয়ে কাজ করছে পিএন্ডবি। তাদের দাবি, বিভিন্ন গবেষণার পর তারা নিশ্চিত হয়েছেন যে এই স্প্রে প্রয়োগে ৩০ সেকেন্ডেরও কম সময়ের মধ্যে ৯০ শতাংশের বেশি ভাইরাস ধ্বংস করে দেয়। আগামি ১লা মার্চ থেকে এটি বাজারজাত শুরু করবে কোম্পানিটি।

কোম্পানিটি জানিয়েছে, মার্চ মাসেই ১০ লাখ থেকে ৩০ লাখ বোতল উৎপাদন করবে তারা। তবে এপ্রিল থেকে এর উৎপাদন বেড়ে এক কোটি ৫০ লাখ হবে। প্রতি বোতলে থাকবে ৩০ মিলি স্প্রে এবং এর কার্যক্ষমতা থাকবে এক মাস। একেকটি বোতলের দাম ধরা হয়েছে ১৪.৯০ ইউরো করে।

স্বাধীন বাংলা/ন উ আহমাদ

করোনায় আরও ৮ জনের প্রাণহানি
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক : মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দেশে গত চব্বিশ ঘণ্টায় ৮ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। আর নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে ৩২৬ জন। আজ রোববার বিকেলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর করোনাভাইরাস সংক্রমণ পরিস্থিতির সর্বশেষ এ তথ্য জানিয়েছে।

গত চব্বিশ ঘণ্টায় নতুন শনাক্ত ৩২৬ জনকে নিয়ে দেশে আক্রান্তে সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ৫ লাখ ৪০ হাজার ৫৯২ জনে। আর নতুন ৮ জনের মৃত্যু নিয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৮ হাজার ২৭৪ জনে দাঁড়ালো।

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশে করোনাভাইরাসের প্রথম সংক্রমণ ধরা পড়েছিল গত বছরের ৮ মার্চ, তা সাড়ে ৪ লাখ পেরিয়ে যায় গত ২৪ নভেম্বর। এর মধ্যে গত ২ জুলাই ৪ হাজার ১৯ জন কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত হয়, যা এক দিনের সর্বোচ্চ শনাক্ত ছিল।

স্বাধীন বাংলা/জ উ আহমাদ


   Page 1 of 23
     স্বাস্থ্য
টিকা নিলেও করোনা আক্রান্ত স্বাস্থ্যকর্মী
.............................................................................................
করোনায় আরো ১৮ জনের প্রাণহানি
.............................................................................................
করোনায় আরো ৭ জনের প্রাণহানি
.............................................................................................
ভারত থেকে ২০ লাখ টিকা আসছে আজ
.............................................................................................
করোনায় আরো ৭ জনের প্রাণহানি
.............................................................................................
করোনায় আরো ৫ জনের প্রাণহানি
.............................................................................................
করোনায় আরো ৮ জনের প্রাণহানি
.............................................................................................
করোনায় দেশে আরও ১৫ জনের প্রাণহানি
.............................................................................................
করোনায় আরো ১৩ জনের প্রাণহানি
.............................................................................................
৮ থেকে ১২ সপ্তাহ পরে দ্বিতীয় ডোজ দেয়ার পরামর্শ
.............................................................................................
এক দিনে ২ লাখ ২৬ হাজারের বেশি মানুষ ভ্যাকসিন নিয়েছেন
.............................................................................................
করোনা টিকার দ্বিতীয় ডোজের তারিখ পরিবর্তন
.............................................................................................
করোনায় আরো ১১ জনের প্রাণহানি
.............................................................................................
২২ ফেব্রুয়ারি আসছে টিকার দ্বিতীয় চালান
.............................................................................................
করোনা ধ্বংসে ৯৯ শতাংশ কার্যকরি ফরাসি স্প্রে
.............................................................................................
করোনায় আরও ৮ জনের প্রাণহানি
.............................................................................................
শিশুদের শরীরে করোনা টিকার পরীক্ষা
.............................................................................................
করোনায় আরো ৫ জনের প্রাণহানি
.............................................................................................
‘মান্না ও নুরকে টিকা দিলে ভারতীয় এলার্জি কমে যাবে’
.............................................................................................
ডাবল মাস্ক পরলে ডাবল সুরক্ষা: গবেষণা
.............................................................................................
করোনায় আরো ১০ জনের প্রাণহানি
.............................................................................................
অ্যাস্ট্রাজেনেকার অ্যাজমার ওষুধেই করোনা দূর হয় : অক্সফোর্ড
.............................................................................................
করোনায় আরো ৮ জনের প্রাণহানি
.............................................................................................
করোনার টিকা নিয়ে যা বললেন সাবেক অর্থমন্ত্রী
.............................................................................................
ভ্যাকসিন নিলেও যেসব বিষয় মেনে চলতে হবে
.............................................................................................
যশোরে এমপি কাজী নাবিল প্রথম করোনা টিকা নিলেন
.............................................................................................
এমপি মানিক সুনামগঞ্জে প্রথম টিকা নিলেন
.............................................................................................
৬ মন্ত্রীসহ টিকা নিলেন যারা
.............................................................................................
করোনাভাইরাসের গণটিকাদান কর্মসূচি উদ্বোধন
.............................................................................................
করোনায় আরও ৮ জনের প্রাণহানি
.............................................................................................
করোনায় আরো ৭ জনের প্রাণহানি
.............................................................................................
করোনায় আরো ১৩ জনের প্রাণহানি
.............................................................................................
করোনায় আরো ১৩ জনের প্রাণহানি
.............................................................................................
বিশ্বে করোনায় মৃত্যু ২২ লাখ ৫১ হাজার ছাড়িয়েছে
.............................................................................................
করোনায় আরো ১২ জনের প্রাণহানি
.............................................................................................
করোনায় আরো ১০ জনের প্রাণহানি
.............................................................................................
করোনায় আরো ১৬ জনের প্রাণহানি
.............................................................................................
করোনায় দেশে আরো ১৭ জনের প্রাণহানি
.............................................................................................
করোনায় আরো ৭ জনের প্রাণহানি
.............................................................................................
করোনায় আরো ১৫ জনের প্রাণহানি
.............................................................................................
রাজনীতিকদের মধ্যে প্রথম টিকা নিলেন পলক
.............................................................................................
ঢাকার ৫ হাসপাতালে করোনার টিকা দেওয়া হবে আজ
.............................................................................................
করোনায় আরো ১৭ জনের প্রাণহানি
.............................................................................................
করোনায় আরো ১৪ জনের প্রাণহানি
.............................................................................................
করোনায় আরো ১৮ জনের প্রাণহানি
.............................................................................................
করোনায় আরও ২০ জনের প্রাণহানি
.............................................................................................
করোনায় আরো ২২ জনের প্রাণহানি
.............................................................................................
২৮ জানুয়ারি ঢাকায় করোনার টিকাদান শুরু, ৮ ফেব্রুয়ারি সারা দেশে
.............................................................................................
প্রথম করোনার টিকা নেবেন কুর্মিটোলার নার্স
.............................................................................................
প্রধানমন্ত্রী আগে ভ্যাকসিন নিলে জনগণ সাহস পাবে : ডা. জাফরুল্লাহ
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আখলাকুল আম্বিয়া
নির্বাহী সম্পাদক: মাে: মাহবুবুল আম্বিয়া
যুগ্ম সম্পাদক: প্রদ্যুৎ কুমার তালুকদার

সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: স্বাধীনতা ভবন (৩য় তলা), ৮৮ মতিঝিল বাণিজ্যিক এলাকা, ঢাকা-১০০০। Editorial & Commercial Office: Swadhinota Bhaban (2nd Floor), 88 Motijheel, Dhaka-1000.
সম্পাদক কর্তৃক রঙতুলি প্রিন্টার্স ১৯৩/ডি, মমতাজ ম্যানশন, ফকিরাপুল কালভার্ট রোড, মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত ।
ফোন : ০২-৯৫৫২২৯১ মোবাইল: ০১৬৭০৬৬১৩৭৭

Phone: 02-9552291 Mobile: +8801670 661377
ই-মেইল : dailyswadhinbangla@gmail.com , editor@dailyswadhinbangla.com, news@dailyswadhinbangla.com

 

    2015 @ All Right Reserved By dailyswadhinbangla.com

Developed By: Dynamic Solution IT