রবিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি 2021 বাংলার জন্য ক্লিক করুন
  
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   আন্তর্জাতিক -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
পাকিস্তান-ইরান সীমান্তে ২ ইরানী নাগরিকের মৃত্যু, ব্যাপক উত্তেজনা ইরানে

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক:
ইরানের সীমান্তবর্তী প্রদেশ সিস্তান-বেলুচিস্তান সীমাান্তে ২ ইরানের নাগরিক গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হওয়ার পর ব্যাপক উত্তেজনা দেখা দিয়েছে ইরানে। ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয় দাবি করছে, নিহতদের মধ্যে একজনের লাশ ফেরত দিলেও অপর জনের লাশ ফেরত দেয়নি পাকিস্তান।

ইরানের সরকার বলছে, গত সোমবার জ্বালানি তেলসহ সীমান্ত অতিক্রমের সময় দুইজন গুলিবিদ্ধ হয়।

বিষয়টি নিয়ে দক্ষিণ ইরানের সীমান্ত প্রদেশ সিস্তান-বেলুচিস্তান জুড়ে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া একটি ভিডিওতে দেখা গেছে বিক্ষোভকারীরা দক্ষিণ-পূর্ব ইরানের এক গভর্নর অফিস ভাঙচুর করেছে এবং একটি পুলিশের গাড়িতে আগুন দিয়েছে। তবে এর সত্যতা নিশ্চিত করতে পারেনি কেউ। সূত্র : রয়টার্স।

পাকিস্তান-ইরান সীমান্তে ২ ইরানী নাগরিকের মৃত্যু, ব্যাপক উত্তেজনা ইরানে
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক:
ইরানের সীমান্তবর্তী প্রদেশ সিস্তান-বেলুচিস্তান সীমাান্তে ২ ইরানের নাগরিক গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হওয়ার পর ব্যাপক উত্তেজনা দেখা দিয়েছে ইরানে। ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয় দাবি করছে, নিহতদের মধ্যে একজনের লাশ ফেরত দিলেও অপর জনের লাশ ফেরত দেয়নি পাকিস্তান।

ইরানের সরকার বলছে, গত সোমবার জ্বালানি তেলসহ সীমান্ত অতিক্রমের সময় দুইজন গুলিবিদ্ধ হয়।

বিষয়টি নিয়ে দক্ষিণ ইরানের সীমান্ত প্রদেশ সিস্তান-বেলুচিস্তান জুড়ে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া একটি ভিডিওতে দেখা গেছে বিক্ষোভকারীরা দক্ষিণ-পূর্ব ইরানের এক গভর্নর অফিস ভাঙচুর করেছে এবং একটি পুলিশের গাড়িতে আগুন দিয়েছে। তবে এর সত্যতা নিশ্চিত করতে পারেনি কেউ। সূত্র : রয়টার্স।

অরুণাচলকে করনামুক্ত প্রদেশ ঘোষণা করল ভারত
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক:
ভারতের অরুণাচল প্রদেশকে করোনাভাইরাসমুক্ত প্রথম রাজ্য হিসেবে ঘোষণা দেয়া হয়েছে। রোববার রাজ্যের স্বাস্থ্য দফতরের এক শীর্ষ কর্মকর্তা জানিয়েছেন, রাজ্যে আর কোনও সক্রিয় করোনা রোগী নেই। সকলেই সুস্থ হয়ে গিয়েছেন। সুস্থতার হার ৯৯.৬৬ শতাংশ এবং সংক্রমণের হার শূন্য। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার।

অরুণাচল প্রদেশের পর্যবেক্ষক কর্মকর্তা লোবসাং জাম্পা জানিয়েছেন, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে কোনো সংক্রমণ ধরা পড়েনি।

অরুণাচল প্রদেশে মোট ১৬ হাজার ৮৩৬ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন। তাদের মধ্যে ১৬ হাজার ৭৮০ জন সুস্থ হয়েছেন। তিন জন সক্রিয় করোনা রোগী ছিলেন। রোববার তারা সুস্থ হওয়ায় এই রাজ্য করোনা মুক্ত হল বলেই দাবি করেছেন ওই কর্মকর্তা।

জাম্পা জানিয়েছেন, মোট ৪ লক্ষ ৫ হাজার ৬৪৭ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। শনিবার ৩১২ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। পরীক্ষায় কারও রিপোর্ট পজিটিভ আসেনি।

তিনি আরও জানান, রাজ্যে ভ্যাকসিন প্রয়োগ কার্যক্রম দ্রুত গতিতে চলছে। এখন পর্যন্ত ৩২ হাজার ৩২৫ জন স্বাস্থ্যকর্মী এবং সামনের সারির করোনা যোদ্ধাদের ভ্যাকসিন দেয়া হয়েছে। সোম, বৃহস্পতি, শুক্র এবং শনিবার— সপ্তাহে এই চার দিন ভ্যাকসিন প্রয়োগ কর্মসূচী চালানো হচ্ছে।

অরুণাচল প্রদেশ করোনামুক্ত হলেও ভারতের বেশ কয়েকটি রাজ্যে নতুন করে সংক্রমণ বৃদ্ধিতে উদ্বেগ তৈরি হচ্ছে। টান চার দিন দৈনিক সংক্রমণ ১৬ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। মোট দৈনিক সংক্রমণের মধ্যে ৮৬ শতাংশই মহারাষ্ট্র, কেরালা, পাঞ্জাব, কর্নাটক, তামিলনাড়ু এবং গুজরাটের। সংক্রমণ ঠেকাতে অমরাবতী, নাগপুরসহ মহারাষ্ট্রের বেশ কয়েকটি জেলায় লকডাউন জারি করেছে প্রশাসন। ৮ মার্চ পর্যন্ত এই লকডাউনের মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে। কেরালাতেও বেশ কয়েকটি জেলায় কঠোর পদক্ষেপ নিয়েছে প্রশাসন।

রিয়াদে ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়েছে ইয়েমেন; ভূপাতিত করার দাবি
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক : ইয়েমেনের সশস্ত্র বাহিনী সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াদে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানোর পাশাপাশি দেশটির দক্ষিণাঞ্চলীয় একটি প্রদেশে ড্রোন হামলা চালিয়েছে বলে দাবি করেছে রিয়াদ। সৌদি সরকার শনিবার দাবি করেছে, তাদের আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা রিয়াদের আকাশে ইয়েমেনি ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রকে গুলি করে ভূপাতিত করতে সক্ষম হয়েছে।

সৌদি আরবের আল-ইখবারিয়া টেলিভিশনে প্রচারিত ফুটেজে দেখা গেছে, তাদের আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা থেকে গুলি ছুড়ে একটি ক্ষেপণাস্ত্রকে আকাশেই ধ্বংস করে দেয়া হচ্ছে।

ইয়েমেনের সেনাবাহিনী সৌদি আরবের দক্ষিণাঞ্চলীয় জিযান প্রদেশে বোমা-ভর্তি ড্রোন হামলা চালিয়েছে বলেও রিয়াদ জানিয়েছে। এসব ড্রোনের অন্তত তিনটি আত্মঘাতী হামলা চালিয়েছে এবং বাকিগুলো হামলা চালিয়ে তাদের উৎসে ফিরে গেছে।

সৌদি সরকার দাবি করেছে এসব হামলার পেছনে আনসারুল্লাহ আন্দোলন জড়িত রয়েছে। যদিও হুথি আনসারুল্লাহ আন্দোলনের পক্ষ থেকে এ সম্পর্কে এখনো কোনো প্রতিক্রিয়া জানা যায়নি। সৌদি আরবের পক্ষ থেকে এসব হামলায় তাদের কোনো ক্ষয়ক্ষতি হয়নি বলে দাবি করা হয়েছে।

সৌদি সরকার ইয়েমেনের ক্ষেপণাস্ত্র হামলা নিশ্চিত করার কিছুক্ষণ আগে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এই খবর ছড়িয়ে পড়ে যে, রাজধানী রিয়াদের অধিবাসীরা তাদের আকাশে বিস্ফোরণের শব্দ শুনতে পেয়েছেন।

ওমান সাগরে ইসরাইলি মালিকানাধীন একটি জাহাজে বিস্ফোরণের কারণে মধ্যপ্রাচ্যে উত্তেজনা বেড়ে যাওয়ার একই সময়ে সৌদি আরবে ইয়েমেনের ক্ষেপণাস্ত্র ও ড্রোন হামলার খবর এল। এখনো কেউ ওই বিস্ফোরণের দায়িত্ব স্বীকার করেনি। সূত্র : পার্সটুডে

স্বাধীন বাংলা/জ উ আহমাদ

আইএইএ’র সঙ্গে ইরানের সম্পর্ক নষ্ট করতে চায় আমেরিকা : মুখপাত্র
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক : ইরানের সংসদের জাতীয় নিরাপত্তা ও পররাষ্ট্রনীতি বিষয়ক কমিশনের মুখপাত্র আবুলফজল আমুয়ি বলেছেন, মার্কিন সরকার আন্তর্জাতিক পরমাণু শক্তি সংস্থার সঙ্গে ইরানের সম্পর্ক নস্যাত করার চেষ্টা করছে। তিনি গতকাল (শনিবার) তেহরানে বার্তা সংস্থা ইরান প্রেসকে দেয়া সাক্ষাৎকারে এ মন্তব্য করেন।

আমুয়ি বলেন, ইরান পরমাণু কর্মসূচির ক্ষেত্রে সর্বশেষ যে পদক্ষেপ নিয়েছে তা পরমাণু সমঝোতার ভিত্তিতে নিয়েছে। এছাড়া, নিজের বেসামরিক পরমাণু কর্মসূচি পূর্ণোদ্যমে চালিয়ে যাওয়ার অধিকার তেহরানের রয়েছে।

তিনি বলেন, আমেরিকাসহ পশ্চিমা দেশগুলোর উচিত ইরানের সঙ্গে আইএইএ’র সম্পর্ক নষ্ট না করে পরমাণু সমঝোতায় নিজেদের দেয়া প্রতিশ্রুতি পূরণ করা। ইরানের এই মুখপাত্র বলেন, পশ্চিমা দেশগুলো যেন আইএইএ’র নির্বাহী পরিষদের অপব্যবহার না করে। কারণ, তেমনটি করলে এই সংস্থার সঙ্গে ইরানের সম্পর্কে মারাত্মক নেতিবাচক প্রভাব পড়বে।

২০১৮ সালের মে মাসে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘন করে ইরানের পরমাণু সমঝোতা থেকে তার দেশকে বের করে নিয়ে তেহরানের ওপর কঠোর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেন। ইরানও এর প্রতিক্রিয়ায় পরমাণু সমঝোতায় নিজের দেয়া প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন কমিয়ে দিতে শুরু করে এবং বর্তমানে শতকরা ২০ মাত্রায় ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করছে তেহরান।

নয়া মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন তার দেশের পরমাণু সমঝোতায় ফিরে আসার জন্য এখন ইরানকে আগে তার প্রতিশ্রুতিতে ফিরে যাওয়ার আহ্বান জানাচ্ছেন। কিন্তু তেহরান বলছে, আগে আইন লঙ্ঘন করেছে বলে আমেরিকাকেই আগে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে সদিচ্ছার পরিচয় দিতে হবে এবং তারপর তেহরান তার প্রতিশ্রুতিতে পুরোপুরি ফিরে যাবে। সূত্র : পার্সটুডে

স্বাধীন বাংলা/জ উ আহমাদ

সৌদি যুবরাজকে নিষেধাজ্ঞা দিতে আমেরিকার প্রতি জাতিসংঘের আহ্বান
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক : সৌদি ভিন্ন মতাবলম্বী সাংবাদিক জামাল খাশোগিকে হত্যা করার নির্দেশ দেয়ার অপরাধে সৌদি যুবরাজ মোহাম্মাদ বিন সালমানের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা দেয়ার জন্য আমেরিকার প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন জাতিসংঘের বিশেষ প্রতিনিধি অ্যাগনেস ক্যালামার্ড।

তিনি এক বিবৃতিতে হোয়াইট হাউজকে উদ্দেশ করে বলেছেন, বিন সালমানের সম্পদ বাজেয়াপ্ত করার পাশাপাশি তার আন্তর্জাতিক বাণিজ্যিক লেনদেনের ওপরও নিষেধাজ্ঞা আরোপ করতে হবে। ক্যালামার্ড বলেন, যারা খাশোগিকে হত্যার নির্দেশ দিয়েছে তাদেরকে আন্তর্জাতিক সমাজ থেকে একঘরে করে রাখতে পারলে একই ধরনের অপরাধ করার কথা যারা চিন্তা করে তারা শিক্ষা পেয়ে যাবে।  খাশোগি হত্যাকাণ্ডের ব্যাপারে পুঙ্খানুপুঙ্খ গোয়েন্দা প্রতিবেদন প্রকাশ করে দেয়ার জন্যও মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন জাতিসংঘের বিশেষ প্রতিনিধি।

সৌদি আরবের ক্ষমতাধর যুবরাজ মোহাম্মাদ বিন সালমান ব্যক্তিগতভাবে সেদেশের ভিন্ন মতাবলম্বী সাংবাদিক জামাল খাশোগিকে হত্যা করার নির্দেশ দিয়েছিলেন বলে সদ্য প্রকাশিত মার্কিন গোয়েন্দা প্রতিবেদনে জানা গেছে।

২০১৮ সালে তৈরি করা মার্কিন সরকারের গোয়েন্দা প্রতিবেদনটি সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ধামাচাপা দিয়ে রাখলেও বর্তমান প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন তা প্রকাশ করে দিয়েছেন। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মোহাম্মাদ বিন সালমান এমন একটি পরিকল্পনা অনুমোদন করেছিলেন যাতে সৌদি নিরাপত্তা বাহিনীকে এই নির্দেশ দেয়া হয়েছিল যে, খাশোগিকে ‘ধরে আনতে অথবা হত্যা করতে’ হবে।

এই প্রথম মার্কিন সরকার খাশোগিকে হত্যার জন্য সরাসরি সৌদি যুবরাজকে দায়ী করল। তবে বাইডেন প্রশাসন বলে দিয়েছে, তারা খুনি বিন সালমানের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করবে না। সূত্র : পার্সটুডে

স্বাধীন বাংলা/জ উ আহমাদ

‘আমেরিকার সঙ্গে উত্তেজনা বৃদ্ধিতে কোনো স্বার্থ খুঁজে পায় না ইরান’
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক : জাতিসংঘে নিযুক্ত ইরানের স্থায়ী প্রতিনিধি মাজিদ তাখতে রাভানচি বলেছেন, তার দেশ আমেরিকার সঙ্গে উত্তেজনা বাড়াতে চায় না। উসকানি সৃষ্টি করা ওয়াশিংটনের স্বভাব হলেও এ ধরনের কাজে তেহরান কোনো স্বার্থ খুঁজে পায় না বলেও তিনি মন্তব্য করেছেন।

ইরানের এই শীর্ষস্থানীয় কূটনীতিক আল-জাযিরা নিউজ চ্যানেলের এক প্রশ্নের জবাবে এ মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, ইরান প্রমাণ করেছে যে, উত্তেজনা বৃদ্ধিতে তার কোনো আগ্রহ নেই; এমনকি [সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট] ট্রাম্পের শাসনামলে যখন ওয়াশিংটন ব্যাপকভাবে উত্তেজনা সৃষ্টি ও উসকানিমূলক পদক্ষেপ নিতে শুরু করে তখনও তেহরান উত্তেজনা এড়িয়ে চলেছে।

ইরান পাশ্চাত্যের সঙ্গে স্বাক্ষরিত পরমাণু সমঝোতায় দেয়া প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন থেকে সরে আসার কারণে উত্তেজনা বাড়বে কিনা- এমন প্রশ্নের জবাবে তাখতে রাভানচি বলেন, অন্য পক্ষগুলো যখন তাদের প্রতিশ্রুতি থেকে পুরোপুরি সরে গেছে তখন পাল্টা ব্যবস্থা হিসেবে ইরান তার প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নের পরিমাণ কমিয়েছে মাত্র। এর ফলে উত্তেজনা বাড়ার কোনো কারণ নেই বলে তিনি মন্তব্য করেন।

জাতিসংঘে নিযুক্ত ইরানি রাষ্ট্রদূত বলেন, ট্রাম্প প্রশাসন যখন আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘন করে পরমাণু সমঝোতা থেকে বেরিয়ে যায় তখন তিন ইউরোপীয় দেশ তেহরানকে একই কাজ করা থেকে বিরত থাকার অনুরোধ করে। এসব দেশ জানায়, আমেরিকা সমঝোতা থেকে বেরিয়ে যাওয়ার কারণে তেহরানের যে ক্ষতি হয়েছে তা তারা পুষিয়ে দেবে।

রাভানচি বলেন, তাদের সে প্রতিশ্রুতির বাস্তবায়ন দেখার জন্য ইরান এক বছর পর্যন্ত অপেক্ষা করে। কিন্তু ইউরোপীয়রা ইরানের অর্থনৈতিক স্বার্থ রক্ষা করতে চরম ব্যর্থতার পরিচয় দেয়ার পর তেহরান পরমাণু সমঝোতায় নিজের দেয়া প্রতিশ্রুতি থেকে সরে আসতে বাধ্য হয়। মাজিত তাখতে রাভানচি বলেন, ভারসাম্য রক্ষা করার জন্য ইরানের সামনে এর চেয়ে অন্য কোনো বিকল্প ছিল না। সূত্র : পার্সটুডে

স্বাধীন বাংলা/জ উ আহমাদ

যৌন হয়রানির অভিযোগে কানাডীয় সেনাপ্রধানের পদত্যাগ
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক : কানাডার সেনাপ্রধান এডমিরাল আর্ট ম্যাকডোনাল্ড তার দায়িত্ব থেকে পদত্যাগ করছেন। ২০১০ সালে এক নারীসেনার সঙ্গে ম্যাকডোনাল্ডের যৌনতার অভিযোগে পদত্যাগ করেছেন। এই নিয়ে সামরিক পুলিশের তদন্ত চলছে। তদন্ত চলাকালেই তিনি তার পদ থেকে স্বেচ্ছায় সরে গেলেন।

সিবিসি নিউজ থেকে জানা যায়, এ ব্যাপারে ৫৪ বছর বয়স্ক ম্যাকডোনাল্ড মুখ না খুললেও ফেডারেল প্রতিরক্ষা মন্ত্রী হারজিৎ সাজ্জানহারজিৎ সাজ্জান আজ শুক্রবার এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, এডমিরাল ম্যাকডোনাল্ডের বিরুদ্ধে চলমান তদন্তের কারণেই তিনি স্বেচ্ছায় পদ থেকে অব্যহতি নিলেন।

তিনি মাত্র এক মাস আগে অর্থাৎ গত ১৪ জানুয়ারি কানাডার সেনাবাহিনীর প্রধানের দায়িত্ব গ্রহণ করেন।

স্বাধীন বাংলা/ন উ আহমাদ

হামলার পর ইরানকে কড়া হুঁশিয়ারি বাইডেনের
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক : সিরিয়ায় ইরানের অনুগত মিলিশিয়া বাহিনীর স্থাপনায় বিমান হামলা চালিয়েছে মার্কিন বাহিনী। এ নিয়ে শুক্রবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছেন, এই হামলাকে একটি সতর্কবার্তা হিসেবে দেখা উচিৎ ইরানের।

টেক্সাস যাওয়ার পথে হিউস্টনে ইরানকে উদ্দেশ্য করে বাইডেন বলেন, ‘তোমরা দায়সারা আচরণ করতে পারবে না। সাবধান হও!’

এর আগে বাইডেনের প্রেস সেক্রেটারি জেন সাকি এই হামলাকে স্পষ্ট বার্তা হিসেবে উল্লেখ করেছেন।

তিনি বলেন,মার্কিনীদের রক্ষার্থে বাইডেন কাজ করছে এবং যখন কিছু হুমকিস্বরূপ মনে হবে তাতে তার পদক্ষেপ নেওয়ার অধিকার আছে।

গতকাল পেন্টাগন অফিস জানিয়েছে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের অনুমতি নিয়ে এই হামলা চালানো হয়েছে।

আল জাজিরার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, হামলায় অন্তত ১৭ জন ইরান সমর্থিত যোদ্ধা নিহত হয়েছে। ইরাকে মার্কিন বাহিনীর স্থাপনায় হামলার জেরে বদলা হিসেবে এই হামলা। সূত্র : এনডি টিভি, আল জাজিরা

স্বাধীন বাংলা/ন উ আহমাদ

মিয়ানমারের সামারিক অভ্যূথান, অসাংবিধানিক এবং মানবতা বিরোধী
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক : জাতিসংঘে মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূত বলেছেন, তিনি `দি লীগ ফর ডেমোক্রেসি, দলের প্রতিনিধিত্ব করেন, সামরিক সরকারের নয়I তিনি বৈধ ও নির্বাচিত সরকারের প্রতিনিধি হিসাবে, সারা বিশ্বকে জানাতে চান যে, বার্মার সামরিক অভ্যুথান ছিল অসাংবিধানিক এবং বিশ্ব যাকে মেনে নেয় নিI

রাষ্ট্রদূত, ক্যাও মোয়ে তুন বলেন, আমরা আগেকার দিনে ফিরে যেতে চাইনাI বার্মার জনগণ প্রতিবাদের মাধ্যমে বিশ্বকে তাই জানিয়েছেনI রাষ্ট্রদূত তুন, বহু দশক ধরে জনগণকে দমন ও শোষণ করার জন্য সেনাবাহিনীর দোষারোপ করেন যারা, অবর্ণনীয় এবং সহিংস পন্থায় জাতিগোষ্ঠী সংঘ্যালঘুর বিরুদ্ধে হামলা চালিয়েছে, যা মানবতা ও যুদ্ধাপরাধের সামিলI

তিনি সামরিক সরকারের প্রতি চাপ সৃষ্টি করতে, তাদের স্বীকৃতি না দিতে এবং সহযোগিতা না করার জন্য বিশ্ব সমাজের প্রতি আবেদন জানিয়েছেন।

স্বাধীন বাংলা/ন উ আহমাদ

আমাজন বনভূমি বিক্রি হচ্ছে ফেসবুকের মার্কেটপ্লেসে
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক : ব্রাজিলে আমাজনের উষ্ণমণ্ডলীয় বনভূমির কিছু অংশ অবৈধভাবে ফেসবুকে বিক্রি করা হচ্ছে বলে বিবিসি জানতে পেরেছে। যেসব এলাকা বিক্রি হচ্ছে এগুলো সংরক্ষিত এলাকা - যার মধ্যে আছে জাতীয় বনভূমি এবং আদিবাসীদের জন্য নির্ধারিত এলাকা। ফেসবুকে `ক্লাসিফায়েড এ্যাড` সেবার মাধ্যমে তালিকাভুক্ত আমাজনের এসব প্লটের কোনো কোনোটি এক হাজার ফুটবল মাঠের সমান বড়।

ফেসবুক বলছে, তারা এ ব্যাপারে স্থানীয় কর্তৃপক্ষের সাথে কাজ করার জন্য প্রস্তুত আছে, কিন্তু এই বাণিজ্য বন্ধ করার জন্য তারা স্বাধীনভাবে কোন পদক্ষেপ নেবে না বলে তারা আভাস দিচ্ছে। তারা বলছে, "আমাদের বাণিজ্য সংক্রান্ত নীতিমালা এমন যে সেখানে ক্রেতা ও বিক্রেতাকে আইন-কানুন মেনে চলতে হয়।"

তবে এ জন্য ক্ষতিগ্রস্ত আদিবাসী জনগোষ্ঠীগুলোর একটির নেতা ফেসবুককে এ ব্যাপারে আরো বেশি কিছু করার আহ্বান জানিয়েছেন। পরিবেশবাদী আন্দোলনকারীরা দাবি করেছেন যে দেশটির সরকার এসব বিক্রি বন্ধ করতে ইচ্ছুক নয়।

পরিবেশ বিষয়ক একটি বেসরকারি সংস্থা `কানিন্দে`-র প্রধান ইভানেইদ বানদেইরা বলছেন, "ভূমি দস্যুরা এখন নিজেদের এতই ক্ষমতাবান মনে করছে যে তারা ফেসবুকে এসব অবৈধ জমি বেচাকেনার চুক্তি করতে লজ্জা বোধ করছে না।"

কোন সার্টিফিকেট নেই
ফেসবুক মার্কেটপ্লেসের `সার্চ` ব্যবহার করে কেউ যদি পর্তুগীজ ভাষায় `বনভূমি` বা `দেশীয় জঙ্গল` এ জাতীয় শব্দ লেখেন, এবং আমাজনিয়ান রাজ্যগুলোকে `লোকেশন` হিসেবে বেছে নেন - তাহলে যে কেউ এসব অবৈধভাবে দখল করা প্লটের সন্ধান পেতে পারেন। তালিকাভুক্ত কোন কোন বনভূমির উপগ্রহ থেকে তোলা ছবি এবং জিপিএসের অক্ষাংশ-দ্রাঘিমাংশও দেয়া আছে।

এগুলো যারা বিক্রি করছেন - তারা খোলাখুলি স্বীকার করেন যে তাদের এসব জমির মালিকানার কোন দলিলপত্র নেই - যা ব্রাজিলীয় আইন অনুযায়ী কোন জমির মালিকানার প্রমাণ। ব্রাজিলে এখন যে `ক্যাটল র‍্যাঞ্চিং` বা বড় আকারে গবাদিপশুর খামার শিল্প গড়ে উঠেছে - তা এই অবৈধ কর্মকাণ্ডকে উৎসাহিত করছে বলে মনে করা হয়।

কোন ঝুঁকি নেই
বনভূমি বিক্রেতাদের একজন হচ্ছেন ফ্যাব্রিসিও গিমারেস। তিনি বনভূমির একটি অংশ আগুনে পুড়িয়ে খোলা প্রান্তরে পরিণত করেছেন। এটা করা হয়েছে সম্পূর্ণ অবৈধভাবে এবং জমিটি এখন চাষাবাদের জন্য তৈরি। গোপন ক্যামেরা দিয়ে তার কর্মকাণ্ড রেকর্ড করা হয়। "এখানে রাষ্ট্রীয় কোন কর্মকর্তার পরিদর্শনের কোন ঝুঁকিই নেই" - বলছিলেন তিনি।

তিনি জায়গাটির প্রাথমিক দাম হেঁকেছিলেন ৩৫ হাজার মার্কিন ডলার। তবে এখন সে দাম তিনগুণ বেড়ে গেছে।

ফ্যাব্রিসিও নিজে কৃষক নন। তিনি মধ্যবিত্ত শ্রেণীর, একটি শহরে ভালো চাকরি করেন। তিনি এই উষ্ণমণ্ডলীয় বনভূমিকে দেখেন একটা বিনিয়োগের সুযোগ হিসেবে।

স্টিং অপারেশন
ব্রাজিলের আমাজন বনভূমি সবচেয়ে বেশি উজাড় হচ্ছে যেখানে - সেই রাজ্যটির নাম রন্ডনিয়া। ফেসবুকের বিজ্ঞাপনের অনেকগুলোই আসে এই এলাকা থেকে।

বিবিসি এখানকার চারজন বিক্রেতার সাথে বৈঠকের ব্যবস্থা করেছিল। এজন্য একজনকে ছদ্মবেশী আইনজীবী হিসেবে পাঠানো হয় - যিনি নিজেকে কয়েকজন ধনী বিনিয়োগকারীর প্রতিনিধি হিসেবে পরিচয় দেন। একজন জমি বিক্রেতার নাম আলভিম সুজা আলভেস। তিনি স্থানীয় মুদ্রায় ১৬,৪০০ পাউণ্ড দামে একটি প্লট বিক্রির চেষ্টা করছিলেন। এই জায়গাটি উরু ইউ ওয়াউওয়াউ নামে একটি সংরক্ষিত আদিবাসী এলাকায়। এখানে ২০০ জনেরও বেশি উরু ইউ ওয়াউ ওয়াউ জনগোষ্ঠীর লোক বাস করে। এছাড়া ব্রাজিল সরকারের তধ্যমতে এখানে অন্তত আরো পাঁচটি জনগোষ্ঠী বাস করে যাদের সাথে বাইরের বিশ্বের কোন যোগাযোগই হয়নি। কিন্তু বৈঠকে মি. আলভেস দাবি করলেন, তার জায়গাটিকে কোন `ইন্ডিয়ান` নেই।

"এখানে কোন ইন্ডিয়ান নেই। আমার জমিটা যেখানে - তারা সেখান থেকে ৩১ মাইল দূরে বাস করে। তবে এমন নয় যে সেখানে আপনি তাদের আনাগোনা দেখতে পাবেন না।"

উরু ইউ ওয়াউ ওয়াউ সম্প্রদায়ের নেতা বিতাতে উরু ইউ ওয়াউওয়াউ-কে বিবিসি ফেসবুকের বিজ্ঞাপনটি দেখিয়েছিল। তিনি জানালেন, প্লটটি এমন এক জায়গায় যেখানে তারা শিকার, ফল সংগ্রহ ও মাছ ধরার জন্য ব্যবহার করেন।

"এখানে সম্মানের অভাব আছে। আমি এসব লোককে চিনি না। আমার মনে হয় তারা আদিবাসীদের জমির বন উজাড় করতে চায়, বলতে পারেন তারা আমাদের জীবনটাই উজাড় করতে চায়। "

তিনি বলেন - এখানে কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ করা উচিত এবং ফেসবুকের প্রতিও তিনি আহ্বান জানান স্বত:প্রণোদিত হয়ে এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে।

পরিস্থিতি বদলে গেছে
অবৈধ জমির বাজার চাঙ্গা হয়ে ওঠার পেছনে আরেক কারণ হলো, ক্ষমা পেয়ে যাবার সম্ভাবনা বেড়ে যাওয়া।

মি. আলভেস বলেন, তিনি অন্য কয়েকজনের সাথে মিলে কাজ করছেন যেন চুরি করা এসব জমির বৈধ মালিকানা পাবার জন্য রাজনীতিকদের সহায়তা পাওয়া যায়। তিনি বলছেন, "সত্যি কথাটা হলো, মি বোলসোনারোর সময় যদি এর সমাধান না হয় - তাহলে আর কখনোই হবে না।"

বিবিসির ছদ্মবেশী রিপোর্টারকে তিনি এক ব্যক্তির সাথে পরিচয় করিযে দেন, যিনি কুরুপিরা সমিতি নামে এক গোষ্ঠীর প্রধান। ব্রাজিলের ফেডারেল পুলিশ এ গ্রুপটিকে অবৈধ জমি দখলের সাথে যুক্ত বলে অভিহিত করেছে।

তাদের কৌশলটা হচ্ছে, প্রথমে জঙ্গল কেটে সাফ করে ফেলা- এবং তারপর `জঙ্গল এখন আর নেই" এ যুক্তি দেখিয়ে তার সংরক্ষিত মর্যাদা বাতিল করিয়ে সরকারের কাছ থেকে সেই জমি কিনে নেয়া। এ জন্য উচ্চস্তরের রাজনীতিবিদদের সহায়তায় ব্রাসিলিয়াতে সরকারি সংস্থাগুলোর সাথে বৈঠকের আয়োজন করার তদ্বির চলছে বলেও জানান তিনি।

তাদের একজন প্রধান মিত্র হচ্ছেন কংগ্রেসম্যান কর্নেল ক্রিসোতোমো। তিনি সোশ্যাল লিবারেল পার্টির সদস্য। মি. বোলসোনারো নিজের দল গঠনের আগে এই দলেরই সদস্য ছিলেন।

বিবিসি তার সাথে যোগাযোগ করলে মি. ক্রিসোতোমো বৈঠকের আয়োজনে সহায়তার কথা স্বীকার করলেও বলেন, এই কুরুপিরা গোষ্ঠী যে জমি দখলের সাথে যুক্ত তা তিনি জানতেন না। "এটা করে থাকলে তারা আমার সমর্থন আর পাবে না," বলেন তিনি।

বিবিসি ব্রাজিলের পরিবেশ মন্ত্রী রিকার্ডো সালেসের সাথে যোগাযোগ করেছিল। তিনি বলেন "প্রেসিডেন্ট বোলসোনারোর সরকার পরিবেশগত অপরাধসহ সব অপরাধের ক্ষেত্রে `শূন্য সহিষ্ণুতা` দেখিয়ে আসছে।"

তবে রন্ডনিয়ার একজন ফেডারেল কৌঁসুলি রাফায়েল বেভিলাকুইয়া বলেন, বর্তমান সরকারের সময় পরিস্থিতি আরো খারাপ হয়েছে।

ফেসবুক তাদের মার্কেটপ্লেসে আমাজনের জমি বিক্রি বন্ধ করার ব্যাপারটিকে গুরুত্ব দেয় বলে মনে হচ্ছে না। তারা বলছে, কোন বেচাকেনা অবৈধ তা বের করা খুবই জটিল, এবং তা স্থানীয় কর্তৃপক্ষ ও বিচারবিভাগেরই দেখা উচিত।

ইভানেই বানদেইরা - যিনি ৩০ বছর ধরে রন্ডনিয়ায় বন উজাড়ের বিরুদ্ধে লড়ে আসছেন - বলছেন, তিনি এখন আশা হারিয়ে ফেলছেন। "বনভূমি রক্ষা করা এর আগে কখনো এত কঠিন ছিল না" বলেন তিনি।   সূত্র: বিবিসি বাংলা

স্বাধীন বাংলা/ন উ আহমাদ

সিরিয়ায় মার্কিন বিমান হামলা: ইরানের নিন্দা
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক : সিরিয়ার পূর্বাঞ্চলীয় দেইর আয-জাওয়ার প্রদেশে মার্কিন বিমান হামলার নিন্দা জানিয়েছে ইসলামী প্রজাতন্ত্র ইরান। গতরাতে এক বিবৃতিতে ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সাঈদ খাতিবজাদে বলেন, ইহুদিবাদী ইসরাইল যেভাবে আরব দেশটিতে আগ্রাসন চালিয়ে আসছে, আমেরিকার পক্ষ থেকে চালানো হামলা প্রকৃতপক্ষে তারই ধারাবহিকতা।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ক্ষমতায় আসার পর প্রথমবারের মতো গতকাল সিরিয়া ও ইরাকের সীমান্তবর্তী প্রদেশ দেইর আয-জাওয়ার প্রদেশে মার্কিন সামরিক বাহিনী বিমান হামলা চালিয়েছে। এরপর ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থকে এই বিবৃতি দেয়া হলো।

খাতিবজাদে বলেন, সিরিয়ার অবৈধ মার্কিন ঘাঁটি থেকে সন্ত্রাসীদের প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে এবং তাদেরকে ঢাল হিসেবে ব্যবহার করছে আমেরিকা। তিনি আরো বলেন, এমন একটা প্রেক্ষাপট আমেরিকা এই হামলা চালালো যখন সাম্প্রতিক বছরগুলোতে মার্কিন বাহিনী সিরিয়ার বিভিন্ন এলাকায় অবৈধ দখলদারিত্ব কায়েম করে রেখেছে এবং তেলসহ নানা রকম প্রাকৃতিক সম্পদ লুট করছে।  

গতকাল  মার্কিন বাহিনী ইরাকের জনপ্রিয় স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন হাশ্‌দ আশ-শাবির যোদ্ধাদের ওপর বিমান হামলা চালিয়েছে। অথচ সংগঠনটি দীর্ঘদিন ধরে ইরাকি সেনাদের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে উগ্র সন্ত্রাসী গোষ্ঠী দায়েশের বিরুদ্ধে লড়াই করে আসছে। ইরাক সরকার এর স্বীকৃতিও দিয়েছে। ইহুদিবাদী ইসরাইল হাশ্‌দ আশ-শাবিকে শত্রু হিসেবে গণ্য করে এবং মার্কিন সাবেক প্রেসিডেন্ট ড্রোনাল্ড ট্রাম্পও একই দৃষ্টিভঙ্গি পোষণ করতেন। সূত্র : পার্সটুডে

স্বাধীন বাংলা/জ উ আহমাদ

তিন মাসের মধ্যে নিষেধাজ্ঞা না তুললে আইএইএ’র ক্যামেরা খুলে ফেলা হবে
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক : ইরান বলেছে, দেশটির পরমাণু স্থাপনাগুলোতে আন্তর্জাতিক আণবিক শক্তি সংস্থার যেসব ক্যামেরা বসানো আছে সাম্প্রতিক দ্বিপক্ষীয় চুক্তি অনুযায়ী তাতে ধারণ করা কোনো ছবি বা ভিডিও এই সংস্থা পাবে না। আর ওই তিন মাসের মধ্যে ইরানের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করা না হলে ওইসব ক্যামেরার সকল তথ্য মুছে ফেলার পাশাপাশি ক্যামেরাগুলো খুলে রাখা হবে।

ইরানের আণবিক শক্তি সংস্থার প্রধান ও সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী আলী আকবর সালেহি এ হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন। তিনি শুক্রবার রাতে টেলিভিশনের এক টক-শো’তে বলেন, সংসদে পাস হওয়া আইন অনুযায়ী ইরান সম্প্রতি এনপিটি চুক্তি সম্পূরক প্রটোকল বাস্তবায়ন বন্ধ করে দিয়েছে। তবে আইএইএ’র সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় চুক্তির ভিত্তিতে ওই সংস্থার ক্যামেরাগুলো এখনো ইরানের পরমাণু স্থাপনাগুলোতে বসানো রয়েছে এবং এসব স্থাপনার সব তৎপরতার দৃশ্য এসব ক্যামেরায় রেকর্ড হচ্ছে।

কিন্তু আইএইএ’র প্রধান রাফায়েল গ্রোসির সাম্প্রতিক তেহরান সফরে তার সঙ্গে ইরানের তিন মাসের সাময়িক সমঝোতা হয়েছে। এই তিন মাসের মধ্যে আমেরিকা ইরানের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার না করলে আইএইএ’কে এসব ক্যামেরার কোনো ছবি বা ভিডিও দেখতে দেয়া হবে না এবং স্থায়ীভাবে সেসব দৃশ্য মুছে ফেলা হবে। তিনি বলেন, এরপর ইরানের পরমাণু স্থাপনাগুলো থেকে আইএইএ’র সব ক্যামেরা খুলে ফেলা হবে। সূত্র : পার্সটুডে

স্বাধীন বাংলা/জ উ আহমাদ

খাশোগিকে হত্যার নির্দেশ দিয়েছিলেন মোহাম্মাদ বিন সালমান : আমেরিকা
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক : সৌদি আরবের ক্ষমতাধর যুবরাজ মোহাম্মাদ বিন সালমান ব্যক্তিগতভাবে সেদেশের ভিন্ন মতাবলম্বী সাংবাদিক জামাল খাশোগিকে হত্যা করার নির্দেশ দিয়েছিলেন। ২০১৮ সালে তৈরি করা মার্কিন সরকারের গোয়েন্দা প্রতিবেদনে এমন তথ্যই উঠে এসেছে। সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রতিবেদনটি ধামাচাপা দিয়ে রাখলেও বর্তমান প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন তা প্রকাশ করে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেন।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মোহাম্মাদ বিন সালমান এমন একটি পরিকল্পনা অনুমোদন করেছিলেন যাতে সৌদি নিরাপত্তা বাহিনীকে এই নির্দেশ দেয়া হয়েছিল যে, খাশোগিকে ‘ধরে আনতে অথবা হত্যা করতে’ হবে।

এই প্রথম মার্কিন সরকার খাশোগিকে হত্যার জন্য সরাসরি সৌদি যুবরাজকে দায়ী করল। মোহাম্মাদ বিন সালমান শুরু থেকে এই হত্যাকাণ্ডের দায় অস্বীকার করে আসছিলেন।

এদিকে, মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে, খাশোগি হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার দায়ে সৌদি আরবের ৭৬ নাগরিকের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হবে। এসব সৌদি নাগরিক আমেরিকার ভিসা পাবেন না। তবে বাইডেন  প্রশাসন সৌদি যুবরাজের বিরুদ্ধে কোনো শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়ার চিন্তাভাবনা করছে না বলে মার্কিন বার্তা সংস্থাগুলো জানিয়েছে।

মোহাম্মাদ বিন সালমান ও তার পিতা সৌদি রাজা সালমানের সমালোচক হিসেবে পরিচিত খাশোগি জীবনের নিরাপত্তার ভয়ে আমেরিকায় স্বেচ্ছা নির্বাসনে চলে গিয়েছিলেন। তিনি ওয়াশিংটন ডিসি’র শহরতলীতে বসবাস করতে শুরু করেন এবং সেখানে বসেই ওয়াশিংটন পোস্টে নিবন্ধ লিখে সৌদি রাজতন্ত্রের বিরুদ্ধে সোচ্চার থাকেন। দেশত্যাগের আগে বহুদিন রাজ পরিবারের সঙ্গে জামাল খাশোগির ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক ছিল বলে তিনি খুনি মোহাম্মাদ বিন সালমান ও তার রাজ পরিবারের হাড়ির খবর জানতেন। সৌদি যুবরাজ ঠিক এ কারণেই জামাল খাশোগিকে ভয় পেতেন।

খাশোগিত ২০১৮ সালের অক্টোবরে দ্বিতীয় বিয়ে করার জন্য তুরস্কের ইস্তাম্বুলস্থ সৌদি কনস্যুলেটে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র আনতে গিয়ে নৃশংসভাবে নিহত হন। সৌদি আরব থেকে বিশেষ বিমানে করে নিরাপত্তা বাহিনীর একটি দল তাকে হত্যা করার জন্য আগেই ইস্তাম্বুলে পৌঁছে গিয়েছিল এবং তারাই খাশোগিকে হত্যা করে তার লাশ টুকরো টুকরো করে ফেলে। এখন পর্যন্ত খাশোগির লাশের সন্ধান পাওয়া যায়নি। সূত্র : পার্সটুডে

স্বাধীন বাংলা/জ উ আহমাদ

কাশ্মিরে কঠোর যুদ্ধবিরতি পালনে সম্মত ​ভারত-পাকিস্তান
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক : ভারত ও পাকিস্তানের সামরিক বাহিনী দুই দেশের মধ্যে বিরোধপূর্ণ কাশ্মিরে ভূখণ্ডের সীমানায় কঠোর যুদ্ধবিরতি মেনে চলতে সম্মত হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুই দেশের সামরিক বাহিনীর কর্মকর্তাদের মধ্যে হটলাইনে আলোচনার পর উভয়পক্ষ এই সিদ্ধান্ত নেয় বলে পাকিস্তানের সামরিক বাহিনীর এক বিবৃতিতে জানানো হয়।

বিবৃতিতে জানানো হয়, বৃহস্পতিবার সকালে নিজ নিজ কার্যালয়ে দুই দেশের সামরিক বাহিনীর ডাইরেক্টর- জেনারেল’স অব মিলিটারি অপারেশনস (ডিজিএমও) হটলাইনে পরস্পরের সাথে কথা বলেন।

বিবৃতিতে বলা হয়, ‘নিয়ন্ত্রণ রেখা ও অন্যান্য সেক্টরে উভয়পক্ষ সব চুক্তি, সমঝোতা ও যুদ্ধবিরতির কঠোর নজরদারিতে একমত হয়েছে, যা মধ্যরাত থেকে (শুক্রবার) কার্যকর হবে।’

উভয়পক্ষের মধ্যে আলোচনা স্পষ্ট ও আন্তরিক পরিবেশে এই আলোচনা হয়েছে বলে বিবৃতিতে জানানো হয়।

নিয়ন্ত্রণরেখা নামে পরিচিত ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে বিভক্ত কাশ্মির ভূখণ্ডের সীমানায় ২০০৩ সাল থেকে উভয়পক্ষের সম্মতিতে যুদ্ধবিরতি চালু হয়। তবে বিভিন্ন সময়ই তা ভঙ্গ করা হয়েছে, যাতে দুই পক্ষের সামরিক ও বেসামরিক প্রাণহানীর ঘটনা ঘটেছে।

গত বছর ভারতীয় বাহিনীর কামানের গোলা বর্ষণ ও গুলিতে পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত কাশ্মিরে অন্তত ২৮ বেসামরিক লোক নিহত ও ২৫৭ জনের বেশি আহত হয়েছেন বলে জানায় পাকিস্তানি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

পাকিস্তান জানিয়েছে, চলতি বছরে এই পর্যন্ত ভারত অন্তত ১৭৫ বার যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘন করেছে যাতে আট বেসামরিক লোক আহত হয়েছে।

অন্যদিকে ভারতীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণায়ের মতে, ২০২০ সালে পাকিস্তান অন্তত পাঁচ হাজার এক শ’ ৩৩ বার যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘন করেছে যাতে ২২ বেসামরিক লোক ও ২৪ সৈন্য নিহত এবং আরো ১৯৭ জন আহত হয়েছেন।

১৯৪৭ সালে ব্রিটেনের কাছ থেকে স্বাধীনতার পর থেকেই ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে কাশ্মির নিয়ে দ্বন্দ্ব চলে আসছে। উভয়দেশই পুরো ভূখণ্ডটি নিজেদের দাবি করছে। ভূখণ্ডটির অধিকার নিয়ে দুই বার যুদ্ধে জড়িয়েছে উভয়দেশ। সূত্র : আলজাজিরা

স্বাধীন বাংলা/ন উ আহমাদ

‘ফ্রান্সের অস্ত্র বিক্রির কারণে ইয়েমেন বিপর্যস্ত’
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক : ফ্রান্স এবং তার মিত্র দেশগুলো সৌদি আরবের কাছে অস্ত্র বিক্রি করার কারণে ইয়েমেন এখন বিশ্বের সবচেয়ে মানবিক সংকটাপন্ন ও বিপর্যস্ত একটি জনপদে পরিণত হয়েছে।

জেনেভায় জাতিসংঘের ইরানি মিশনে নিযুক্ত মানবাধিকার বিষয়ক কর্মকর্তা মোহাম্মাদ সাদাতি নেজাদ গতকাল (বৃহস্পতিবার) এ কথা বলেছেন। এ কূটনীতিক বলেন, ইয়ামানের এই বিপর্যয়ের জন্য যারা দায়ী তাদের মুখে নীতি-নৈতিকতার কথা মানায় না।

এর আগে গত বুধবার ফ্রান্সের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জ্যঁ-ইভস লা দ্রিয়াঁ মানবাধিকার পরিষদে দেয়া বক্তৃতায় মানবাধিকার লঙ্ঘনের ইরানকে অভিযুক্ত করেছেন। ইরানে আটক ফ্রান্সের দ্বৈত নাগরিক ফারিবা আদেলখার মুক্তিও দাবি করেছেন তিনি।

২০১৯ সালে ৬০ বছর বয়সী আদেলখাকে ইরানে গুপ্তচরবৃত্তির দায়ে আটক করা হয়। ফ্রান্সের অভিযোগ নাকচ করে ইরানের কূটনীতিক মোহাম্মদ সাদাতি বলেন, মানবাধিকার ইস্যুতে ফ্রান্স এমন কোনো অবস্থান নেই যে, তারা ইরানের সমালোচনা করতে পারে। আমেরিকা, ব্রিটেন, কানাডা, ফ্রান্স এবং জার্মানি ইয়েমেনকে বিশ্বের সবচেয়ে মানবিক বিপর্যয়ের দেশে পরিণত করেছে। তারা সেখানে রীতিমতো যুদ্ধাপরাধ করেছে। সূত্র : পার্সটুডে

স্বাধীন বাংলা/জ উ আহমাদ

দক্ষিণ কোরিয়ায় আটকে পড়া ইরানি অর্থ আংশিক ছাড়ে সম্মত আমেরিকা
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক : দক্ষিণ কোরিয়ায় আটকে পড়া  ইরানের ৭০০ কোটি ডলারের অংশবিশেষ ছাড়ের বিষয়ে সম্মত হয়েছে আমেরিকা। পরমাণু সমঝোতা থেকে বেরিয়ে গিয়ে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ইরানের বিরুদ্ধে যে অন্যায় এবং অমানবিক নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছিলেন তার আওতায় ইরানের এ বিপুল পরিমাণ অর্থ দক্ষিণ কোরিয়ার ব্যাংকগুলোতে আটকা পড়ে।

দক্ষিণ কোরিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একজন সরকারি কর্মকর্তার বরাত দিয়ে রাষ্ট্র পরিচালিত রেডিও কেবিএস ওয়ার্ল্ড গতকাল (বৃহস্পতিবার) এ খবর দিয়েছে।

২০১৮ সালে ইরানের ওপর নতুন করে নিষেধাজ্ঞা আরোপের আগ পর্যন্ত দক্ষিণ কোরিয়া ছিল ইরানের জ্বালানি তেলের অন্যতম প্রধান ক্রেতা। আমেরিকা নিষেধাজ্ঞা আরোপ করার পর দক্ষিণ কোরিয়া ইরানি তেলের মূল্য পরিশোধ করতে পারে নি।  ফলে গত কয়েক বছর ধরে ইরানের বিপুল পরিমাণ অর্থ দক্ষিণ কোরিয়ার ব্যাংকগুলোতে আটকা পড়ে  রয়েছে।

অর্থ ছাড়ের ব্যাপারে দক্ষিণ কোরিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ওই কর্মকর্তা বলেছেন, সিউল এবং ওয়াশিংটনের মধ্যে বিষয়টি এখনো চূড়ান্ত হয় নি। তিনি বলেন, কোন পদ্ধতিতে ইরানকে অর্থ পরিশোধ করা যায় তা নিয়ে ওয়াশিংটনের সাথে আলোচনা চলছে এবং সম্ভবত প্রথমে ইরানের অর্থ সুইজারল্যান্ডের কাছে পাঠানো হবে।  এর আগে অন্য খবরে বলা হয়েছিল- দক্ষিণ কোরিয়া এবং আমেরিকা ইরানের অর্থ পাঠানোর বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করছে। তারা দুপক্ষ ইউরোপের এ দেশটিতে কথিত সুইচ হিউম্যানিটেরিয়ান ট্রেড এগ্রিমেন্টের মাধ্যমে ওই অর্থ পাঠাবে।

ইরান এবং আমেরিকার মধ্যে কূটনৈতিক সম্পর্ক না থাকার কারণে ইরানে আমেরিকার সাথে দেখাশুনা করে সুইজারল্যান্ড। মার্কিন নিষেধাজ্ঞা সত্বেও  ইরানে জরুরী পণ্য পাঠানোর লক্ষ্য নিয়ে গত বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে সুইজারল্যান্ড হিউম্যানিটেরিয়ান ট্রেড এগ্রিমেন্ট নামে একটি পদ্ধতি চালু করে। সূত্র : পার্সটুডে

স্বাধীন বাংলা/জ উ আহমাদ


   Page 1 of 242
     আন্তর্জাতিক
পাকিস্তান-ইরান সীমান্তে ২ ইরানী নাগরিকের মৃত্যু, ব্যাপক উত্তেজনা ইরানে
.............................................................................................
অরুণাচলকে করনামুক্ত প্রদেশ ঘোষণা করল ভারত
.............................................................................................
রিয়াদে ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়েছে ইয়েমেন; ভূপাতিত করার দাবি
.............................................................................................
আইএইএ’র সঙ্গে ইরানের সম্পর্ক নষ্ট করতে চায় আমেরিকা : মুখপাত্র
.............................................................................................
সৌদি যুবরাজকে নিষেধাজ্ঞা দিতে আমেরিকার প্রতি জাতিসংঘের আহ্বান
.............................................................................................
‘আমেরিকার সঙ্গে উত্তেজনা বৃদ্ধিতে কোনো স্বার্থ খুঁজে পায় না ইরান’
.............................................................................................
যৌন হয়রানির অভিযোগে কানাডীয় সেনাপ্রধানের পদত্যাগ
.............................................................................................
হামলার পর ইরানকে কড়া হুঁশিয়ারি বাইডেনের
.............................................................................................
মিয়ানমারের সামারিক অভ্যূথান, অসাংবিধানিক এবং মানবতা বিরোধী
.............................................................................................
আমাজন বনভূমি বিক্রি হচ্ছে ফেসবুকের মার্কেটপ্লেসে
.............................................................................................
সিরিয়ায় মার্কিন বিমান হামলা: ইরানের নিন্দা
.............................................................................................
তিন মাসের মধ্যে নিষেধাজ্ঞা না তুললে আইএইএ’র ক্যামেরা খুলে ফেলা হবে
.............................................................................................
খাশোগিকে হত্যার নির্দেশ দিয়েছিলেন মোহাম্মাদ বিন সালমান : আমেরিকা
.............................................................................................
কাশ্মিরে কঠোর যুদ্ধবিরতি পালনে সম্মত ​ভারত-পাকিস্তান
.............................................................................................
‘ফ্রান্সের অস্ত্র বিক্রির কারণে ইয়েমেন বিপর্যস্ত’
.............................................................................................
দক্ষিণ কোরিয়ায় আটকে পড়া ইরানি অর্থ আংশিক ছাড়ে সম্মত আমেরিকা
.............................................................................................
‘সালমানের নিয়ন্ত্রণাধীন বিমানে উড়ে গিয়েছিল খাশোগির ঘাতকদল’
.............................................................................................
ক্রিটিক্যাল পয়েন্টে পরমাণু সমঝোতা, নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের আহ্বান জানালো চীন
.............................................................................................
ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূতকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করল ভেনিজুয়েলা
.............................................................................................
মা’রিবকে পুরো ইয়েমেনে হামলার উৎসস্থল হিসেবে ব্যবহার করছে সন্ত্রাসীরা
.............................................................................................
সহস্রাধিক নাগরিককে মিয়ানমারে পাঠালো মালয়েশিয়া
.............................................................................................
ইরাকে মার্কিন দূতাবাসের কাছে আবারো রকেট হামলা
.............................................................................................
জাবি ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি আজীবন বহিষ্কার
.............................................................................................
ন্যাটোকে শক্তি দেখাতে ক্রিমিয়া উপত্যকায় বিশাল সামরিক মহড়া চালাবে রাশিয়া
.............................................................................................
পিছু হটলো ফেসবুকের
.............................................................................................
জান্তা সরকারের ওপর পশ্চিমা দেশগুলোর কঠিন নিষেধাজ্ঞার প্রস্তুতি
.............................................................................................
উইঘুরদের ওপর চীনা দমন পীড়নকে গণহত্যা বলে স্বীকার করল কানাডা
.............................................................................................
ইরান পরমাণু অস্ত্র তৈরির সিদ্ধান্ত নিলে কেউ ঠেকাতে পারত না : সর্বোচ্চ নেতা
.............................................................................................
‘আরব-ইসরাইল সম্পর্ক রুখতে প্রতিরোধ সবচেয়ে কার্যকর উপায়’
.............................................................................................
কোনো ইস্যুতে আমেরিকার সাথে সরাসরি আলোচনা নয় : ইরান
.............................................................................................
নিউজিল্যান্ডে তিমিদের মৃত্যুর মিছিল
.............................................................................................
ভ্যাকসিন সংকটে জাপান
.............................................................................................
বিশ্বে করোনায় মৃতের সংখ্যা ২৪ লাখ ৬৫ হাজার ছাড়িয়েছে
.............................................................................................
গ্রোসির তেহরান সফরে সমঝোতা : অচলাবস্থার সাময়িক অবসান
.............................................................................................
গোপন তথ্য ফাঁস হয়ে যাওয়ার ব্যাপারে আইএইএ’কে সতর্ক করল ইরান
.............................................................................................
তেহরানে রাফায়েল গ্রোসি, সফর ফলপ্রসূ হওয়ার রাশিয়ার আশাবাদ
.............................................................................................
আমেরিকাসহ ছয় জাতিগোষ্ঠীর সঙ্গে আলোচনায় বসার বিষয়ে বিবেচনা করছে ইরান
.............................................................................................
রাশিয়ার মোকাবিলায় ইউক্রেনের সেনাবাহিনীকে শক্তিশালী করব : আমেরিকা
.............................................................................................
নোয়াখালীতে গুলিবিদ্ধ সাংবাদিক বোরহান উদ্দিন মারা গেছেন
.............................................................................................
ইসরাইল যখন পরমাণু বোমা বানাচ্ছে তখন কিসের উদ্বেগ : জারিফ
.............................................................................................
জ্বালানি তেলের অগ্নিমূল্য : নেপাল থেকে ভারতে পেট্রোল পাচার
.............................................................................................
গলওয়ানে সংঘর্ষের ঘটনার ভিডিও প্রকাশ করল চিন
.............................................................................................
নরওয়েতে বোমারু বিমান প্রেরণ : ওয়াশিংটনকে মস্কোর হুঁশিয়ারি
.............................................................................................
খাশোগি হত্যায় আমেরিকার পূর্ণাঙ্গ তথ্য : ফেঁসে যাচ্ছেন সালমান
.............................................................................................
আফগানিস্তান থেকে সেনা প্রত্যাহারে এখনো সিদ্ধান্ত হয়নি : পেন্টাগন
.............................................................................................
ইয়েমেনি তেলবাহী জাহাজ মুক্ত করতে আন্তর্জাতিক সমাজের প্রতি আহ্বান
.............................................................................................
পরমাণু সমঝোতা নিয়ে আলোচনায় বসতে প্রস্তুত বাইডেন
.............................................................................................
ইয়েমেনের দ্বীপে গোয়েন্দা ঘাঁটি করছে ইসরাইল ও আরব আমিরাত
.............................................................................................
‘কোভ্যাক্স গ্লোবাল কোভিড-১৯ প্রোগ্রামে’ ৪০০ কোটি ডলার দেয়ার ঘোষণা বাইডেনের
.............................................................................................
বিশ্বে করোনায় মৃতের সংখ্যা ২৪ লাখ ৪১ হাজার ছাড়িয়েছে
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আখলাকুল আম্বিয়া
নির্বাহী সম্পাদক: মাে: মাহবুবুল আম্বিয়া
যুগ্ম সম্পাদক: প্রদ্যুৎ কুমার তালুকদার

সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: স্বাধীনতা ভবন (৩য় তলা), ৮৮ মতিঝিল বাণিজ্যিক এলাকা, ঢাকা-১০০০। Editorial & Commercial Office: Swadhinota Bhaban (2nd Floor), 88 Motijheel, Dhaka-1000.
সম্পাদক কর্তৃক রঙতুলি প্রিন্টার্স ১৯৩/ডি, মমতাজ ম্যানশন, ফকিরাপুল কালভার্ট রোড, মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত ।
ফোন : ০২-৯৫৫২২৯১ মোবাইল: ০১৬৭০৬৬১৩৭৭

Phone: 02-9552291 Mobile: +8801670 661377
ই-মেইল : dailyswadhinbangla@gmail.com , editor@dailyswadhinbangla.com, news@dailyswadhinbangla.com

 

    2015 @ All Right Reserved By dailyswadhinbangla.com

Developed By: Dynamic Solution IT