শনিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২০ বাংলার জন্য ক্লিক করুন
  
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   খেলাধূলা -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
‘অ্যাম্বুলেন্স বিলম্ব করায় ম্যারাডোনাকে বাঁচানো যায়নি’

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক : কিংবদন্তি ফুটবল তারকা ম্যারাডোনার বাড়িতে অ্যাম্বুলেন্স বিলম্বে আসায় তার মৃত্যু হয়েছে। এ অভিযোগ করেছেন ম্যারাডোনার আইনজীবী ম্যাটিয়াস মোরলা। অ্যাম্বুলেন্স আসতে অতিরিক্ত সময় নেয়ার কারণে তিনি তদন্তের দাবি জানিয়েছেন। ৬০ বছর বয়সেই মারা গেলেন কিংবদন্তি দিয়েগো মারাডোনা। নিজের জন্মশহর বুয়েনস আয়ার্সের উপকণ্ঠে অবস্থিত সমাধিস্থলে বৃহস্পতিবার  মা-বাবার কবরের পাশে সমাহিত করা হয়েছে ম্যারাডোনাকে।

ম্যারাডোনার সমাহিত করার আগে বড়সড় এক অভিযোগ এনেছেন তার আইনজীবী মাতিয়াস মোরলা। তার অভিযোগ, ম্যারাডোনার মৃত্যুর পেছনে লা প্লাতা আইপেনসা ক্লিনিকের খামখেয়ালী দায়ী। ওই ক্লিনিকে ভর্তি ছিলেন ম্যারাডোনা। ইএসপিএন ও নিউইয়র্কপোস্টের খবরে এমন তথ্য মিলেছে। ম্যারাডোনার মৃত্যুর দিন ওই ক্লিনিকের অ্যাম্বুলেন্স আসতে ৩০ মিনিট দেরি করে। এরপর হ্যার্ট অ্যাটাক হওয়া ম্যারাডোনাকে তারা দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে গেলেও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়।  

মোরলা জানান, হার্ট অ্যাটাক করার পর যদি ম্যারাডোনাকে দ্রুততম সময়ের মধ্যে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পর্যবেক্ষণে নেয়া হতো, তাহলে অন্য কিছু হলেও হতে পারত। মৃত্যুর আগে ম্যারাডোনাকে ওই ক্লিনিকের পক্ষ থেকে ১২ ঘণ্টা কোনো চিকিৎসা সহায়তা দেয়নি বলেও অভিযোগ তুলেছেন মোরলা। বিশেষ করে দেরি করে ম্যারাডোনার বাড়িতে অ্যাম্বুলেন্স পৌঁছানোকে অপরাধমূলক কাজ বলে মনে করেন এই আইনজীবী।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেয়া এক আনুষ্ঠানিক বিবৃতিতে এসব অভিযোগ এনেছেন ম্যারাডোনার আইনজীবী ও বন্ধু মোরলা। মোরলা লিখেছেন, সান ইসিদ্রোর প্রসিকিউটর অফিস থেকে পাওয়া তথ্য মোতাবেক, মৃত্যুর আগে ১২ ঘণ্টার মধ্যেও আমার বন্ধুর জন্য নিয়োজিত কেউ তার কাছে যায়নি। পরে অ্যাম্বুলেন্স আসতেও ৩০ মিনিটের বেশি সময় লেগেছে। এটা স্পষ্টত অপরাধমূলক কাজ।  বিষয়টা এড়িয়ে যাবার নয়।  আমি শিগগিরই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের এমন দায়িত্বজ্ঞানহীন কর্মকাণ্ডের জন্য পূর্ণাঙ্গ তদন্ত চাই।

উল্লেখ্য, চলতি বছরেই ৬০তম জন্মদিন পালন করেছিলেন দিয়েগো ম্যারাডোনা। এরপর পরই মস্তিষ্কে রক্ত জমে যাওয়ায় জটিল অস্ত্রোপচার করতে হয় তার। প্রচণ্ড দুশ্চিন্তার পর সফল অস্ত্রোপচারের পর সুস্থ হয়ে বাসায় ফিরেছিলেন তিনি। তবে ডাক্তাররা আর্জেন্টিনার রাজধানী বুয়েনস আয়ার্সে তার নিজ বাসায়ই পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করেছিলেন। যেখানে উন্নতির দিকেই যাচ্ছিল ম্যারাডোনার স্বাস্থ্যের অবস্থা। কিন্তু বুধবার রাতে হঠাৎ করে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে নিজ বাসস্থানে মারা যান এই কিংবদন্তি ফুটবলার।

স্বাধীন বাংলা/জ উ আহমাদ

‘অ্যাম্বুলেন্স বিলম্ব করায় ম্যারাডোনাকে বাঁচানো যায়নি’
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক : কিংবদন্তি ফুটবল তারকা ম্যারাডোনার বাড়িতে অ্যাম্বুলেন্স বিলম্বে আসায় তার মৃত্যু হয়েছে। এ অভিযোগ করেছেন ম্যারাডোনার আইনজীবী ম্যাটিয়াস মোরলা। অ্যাম্বুলেন্স আসতে অতিরিক্ত সময় নেয়ার কারণে তিনি তদন্তের দাবি জানিয়েছেন। ৬০ বছর বয়সেই মারা গেলেন কিংবদন্তি দিয়েগো মারাডোনা। নিজের জন্মশহর বুয়েনস আয়ার্সের উপকণ্ঠে অবস্থিত সমাধিস্থলে বৃহস্পতিবার  মা-বাবার কবরের পাশে সমাহিত করা হয়েছে ম্যারাডোনাকে।

ম্যারাডোনার সমাহিত করার আগে বড়সড় এক অভিযোগ এনেছেন তার আইনজীবী মাতিয়াস মোরলা। তার অভিযোগ, ম্যারাডোনার মৃত্যুর পেছনে লা প্লাতা আইপেনসা ক্লিনিকের খামখেয়ালী দায়ী। ওই ক্লিনিকে ভর্তি ছিলেন ম্যারাডোনা। ইএসপিএন ও নিউইয়র্কপোস্টের খবরে এমন তথ্য মিলেছে। ম্যারাডোনার মৃত্যুর দিন ওই ক্লিনিকের অ্যাম্বুলেন্স আসতে ৩০ মিনিট দেরি করে। এরপর হ্যার্ট অ্যাটাক হওয়া ম্যারাডোনাকে তারা দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে গেলেও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়।  

মোরলা জানান, হার্ট অ্যাটাক করার পর যদি ম্যারাডোনাকে দ্রুততম সময়ের মধ্যে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পর্যবেক্ষণে নেয়া হতো, তাহলে অন্য কিছু হলেও হতে পারত। মৃত্যুর আগে ম্যারাডোনাকে ওই ক্লিনিকের পক্ষ থেকে ১২ ঘণ্টা কোনো চিকিৎসা সহায়তা দেয়নি বলেও অভিযোগ তুলেছেন মোরলা। বিশেষ করে দেরি করে ম্যারাডোনার বাড়িতে অ্যাম্বুলেন্স পৌঁছানোকে অপরাধমূলক কাজ বলে মনে করেন এই আইনজীবী।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেয়া এক আনুষ্ঠানিক বিবৃতিতে এসব অভিযোগ এনেছেন ম্যারাডোনার আইনজীবী ও বন্ধু মোরলা। মোরলা লিখেছেন, সান ইসিদ্রোর প্রসিকিউটর অফিস থেকে পাওয়া তথ্য মোতাবেক, মৃত্যুর আগে ১২ ঘণ্টার মধ্যেও আমার বন্ধুর জন্য নিয়োজিত কেউ তার কাছে যায়নি। পরে অ্যাম্বুলেন্স আসতেও ৩০ মিনিটের বেশি সময় লেগেছে। এটা স্পষ্টত অপরাধমূলক কাজ।  বিষয়টা এড়িয়ে যাবার নয়।  আমি শিগগিরই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের এমন দায়িত্বজ্ঞানহীন কর্মকাণ্ডের জন্য পূর্ণাঙ্গ তদন্ত চাই।

উল্লেখ্য, চলতি বছরেই ৬০তম জন্মদিন পালন করেছিলেন দিয়েগো ম্যারাডোনা। এরপর পরই মস্তিষ্কে রক্ত জমে যাওয়ায় জটিল অস্ত্রোপচার করতে হয় তার। প্রচণ্ড দুশ্চিন্তার পর সফল অস্ত্রোপচারের পর সুস্থ হয়ে বাসায় ফিরেছিলেন তিনি। তবে ডাক্তাররা আর্জেন্টিনার রাজধানী বুয়েনস আয়ার্সে তার নিজ বাসায়ই পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করেছিলেন। যেখানে উন্নতির দিকেই যাচ্ছিল ম্যারাডোনার স্বাস্থ্যের অবস্থা। কিন্তু বুধবার রাতে হঠাৎ করে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে নিজ বাসস্থানে মারা যান এই কিংবদন্তি ফুটবলার।

স্বাধীন বাংলা/জ উ আহমাদ

ফুটবল কিংবদন্তি ম্যারাডোনা মা-বাবার কবরের পাশে সমাহিত হলেন
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক : ফুটবল কিংবদন্তি দিয়েগো ম্যারাডোনাকে পারিবারিক আনুষ্ঠানিকতার মধ্য দিয়ে সমাহিত করা হয়েছে। এসময় তার কিছু ঘনিষ্ঠ আত্মীয় এবং বন্ধু উপস্থিত ছিল। খবর বিবিসির।

তাকে সমাহিত করার আগে সারাদিনই রাজধানী বুয়েনোস আইরেসের রাস্তায় হাজার-হাজার মানুষ জড়ো হয়ে ম্যারাডোনার প্রতি শেষ শ্রদ্ধা নিবেদন করেছে। এসময় রাজধানী-জুড়ে এক আবেগ-ঘন পরিবেশ সৃষ্টি হয়। এ সময় কেউ কাঁদছিলেন, কেউবা তার জন্য দুহাত তুলে প্রার্থনা করছিলেন।

গত বুধবার ৬০ বছর বয়সে হার্ট অ্যাটাকে মারা যান ম্যারাডোনা। ম্যারাডোনার মৃত্যু বিশ্বজুড়ে শোকের আবহ সৃষ্টি করেছে। তবে তার দেশ আর্জেন্টিনায় সেই শোক আরো বেশি অনুভূত হয়েছে।

আর্জেন্টিনার মানুষ ম্যারাডোনাকে জাতীয় বীর মনে করে। ম্যারাডোনার মরদেহ যে কফিনে রাখা হয়েছিল সেটিকে আর্জেন্টিনার পতাকা এবং ১০ নম্বর জার্সি দিয়ে ঢেকে প্রেসিডেন্ট প্রাসাদের সামনে রাখা হয়েছিল জনগণের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য।

শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য হাজার হাজার মানুষ প্রেসিডেন্ট প্রাসাদে আসলে এক পর্যায়ে মানুষের সারি এক কিলোমিটারের বেশি দীর্ঘ হয়।

শোকার্ত মানুষ যখন কফিনের কাছে আসতে চেয়েছিল তখন তাদের সামাল দিতে পুলিশকে শক্তি প্রয়োগ করতে হয়েছে। এসময় পুলিশ টিয়ার গ্যাস এবং রাবার বুলেট ছুঁড়েছে।

একপর্যায়ে ম্যারাডোনার কফিন জনসম্মুখে যে জায়গায় রাখা হয়েছিল সেখান থেকে সরিয়ে নেয়া হয়। এরপর মোটর শোভাযাত্রায় ম্যারাডোনার মরদেহ বুয়েনোস আইরেস শহরের উপকণ্ঠে বেল্লা ভিস্তায় কবরস্থানে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে বাবা-মায়ের কবরের পাশে ম্যারাডোনাকে অন্তিম শয়ানে রাখা হয়।

স্বাধীনবাংলা/জ উ আহমাদ

বিশ্বের কাছে আর্জেন্টিনাকে উজ্জ্বল করে তুলেছিলেন ম্যারাডোনা
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক : কিংবদন্তি ফুটবল তারকা দিয়াগো ম্যারাডোনার মৃত্যুতে ৩ দিনের রাষ্ট্রীয় শোক ঘোষণা করেছে আর্জেন্টিনা। একই সঙ্গে শেষ শ্রদ্ধা জানানোর জন্য তার মৃতদেহ দেশটির প্রেসিডেন্টের কার্যালয় `গভর্নমেন্ট হাউসে` নেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। আর্জেন্টিনার প্রেসিডেন্ট আলবার্তো ফার্নান্দেজের বরাত দিয়ে আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমগুলো স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার এতথ্য জানিয়েছে। অনেক দিন ধরেই অসুস্থ ছিলেন, আলোচনায় ছিলেন ম্যারাডোনা। পরিবার থেকে বুয়েন্স আয়ার্সের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। জটিল অস্ত্রোপচার করা হয়েছিল তার মস্তিস্কে। একটু সুস্থ হতেই ফের বাড়ি ফেরেন তিনি। বাড়িতেই বুধবার হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মাত্র ৬০ বছর বয়সে চিরবিদায় নেন ফুটবলের অমর জাদুকর।

আর্জেন্টিনার প্রেসিডেন্ট আলবার্তো ফার্নান্দেজ বলেন, এটা ভয়ানক সংবাদ। এই সংবাদ সহ্য করা কঠিন। আর্জেন্টিনার পরিচয়ের জন্য তিনি অনেক কিছুই করেছেন। আপনি বিশ্বের যেখানেই যাবেন, যদি বলেন আর্জেন্টিনা থেকে এসেছেন, তারা বলবে, `ও ম্যারাডোনা`। আর্জেন্টিার প্রতিশব্দ ম্যারাডোনা। ম্যরাডোনার শেষকৃত্য নিয়ে তিনি বলেন,  ম্যারাডোনার সাবেক স্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেছি। তার পরিবার যেভাবে চায়, সেভাবেই সব হবে। আর্জেন্টিনার প্রেসিডেন্ট ফার্নান্দেজ বলেন, ভুলে গেলে চলবে না আমরা মহামারি মধ্যে দিন কাটাচ্ছি। আমাদের সংগঠিত হতে হবে। গভর্নমেন্ট হাউসে তার শেষ শ্রদ্ধার আয়োজন করতে যাচ্ছি, যাতে সেখানে লাখ লাখ মানুষ তাকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে পারে।

১৯৮৬ বিশ্বকাপে ম্যারাডোনা মনোমুগ্ধ করে দিয়েছিলেন গোটা বিশ্বকে, যার ছোঁয়া লেগেছিল এই বাংলাদেশেও। মূলত ওই বিশ্বকাপ থেকেই, ওই প্রজন্ম থেকেই এ দেশে বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনার পতাকা ওঠে ছাদে। ম্যারাডোনার ওই বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে তার `হ্যান্ড অব গড` গোলটি আইকনিক হয়ে ওঠে। ১৯৯০ বিশ্বকাপেও তিনি আর্জেন্টিনাকে ফাইনালে তুলেছিলেন। কিন্তু সেরা হতে পারেননি। ১৯৯৭ সালে ফুটবলকে বিদায় জানানোর পর কোচিং শুরু করেছিলেন। ২০০৮ থেকে ২০১০ পর্যন্ত মেসিদেরও কোচ ছিলেন।

স্বাধীন বাংলা/জ উ আহমাদ

কাজী সালাউদ্দিন করোনায় আক্রান্ত
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক : সাবেক ফুটবল তারকা ও বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এ খবর নিশ্চিত করেছেন বাফুফের সাধারণ সম্পাদক আবু নাইম সোহাগ।

আবু নাইম সোহাগ জানান, গত কয়েক দিন ধরে কাজী সালাউদ্দিনের ঠাণ্ডাজনিত কাশির সঙ্গে অন্যান্য সমস্যা দেখা দেয়। সন্দেহ হলে মঙ্গলবার পরীক্ষা করান তিনি। পরদিন কোভিড-১৯ রিপোর্ট পজিটিভ আসে তার।

আগামী ৪ ডিসেম্বর কাতারের বিপক্ষে বিশ্বকাপ ও এশিয়ান কাপ বাছাইয়ের ম্যাচ বাংলাদেশের। ম্যাচটি দেখতে কাতার যাওয়ার কথা সালাউদ্দিনের। কিন্তু করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় তার সেখানে যাওয়ার বিষয়টি এখন অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। কাজী সালাউদ্দিন টানা চতুর্থবারের মতো বাফুফে সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন।

স্বাধীন বাংলা/জ উ আহমাদ

ম্যারাডোনার অকাল প্রয়াণে পেলের হৃদয়ছোঁয়া টুইট
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক : আলোচিত স্বার্থক নাম ম্যারাডোনা। পেলের খ্যাতির প্রতিদ্বন্দ্বী। জীবন্ত কিংবদন্তী ফুটবলার স্বয়ং পেলেই টুইটে বলেছেন, আমি আমার বন্ধুকে হারালাম, বিশ্ব হারালো এক কিংবদন্তীকে, একদিন নিশ্চয়ই আমরা আকাশে ফুটবল খেলবো।

ম্যারাডোনার প্রয়াণে পেলের এই টুইট  হৃদয়কে ছুঁয়ে যায়। পেলে একদিকে ম্যারাডোনার ফুটবল খেলার প্রশংসা করেছেন আবার  সমালোচনা করেছেন ম্যারাডোনার জীবনযাত্রার। উনিশশো চুরানব্বইয়ের বিশ্বকাপে  ম্যারাডোনা ড্রাগ নেওয়ার পর পেলে সব থেকে বেশি সরব হয়েছিলেন এই ঘটনার নিন্দায়।  লোকে তখন ভেবেছিলো, এক প্রতিভাবানের ওপর আর এক প্রতিভার সহজাত ঈর্ষা। কিন্তু না, আসলে পেলে বরাবরই ম্যারাডোনাকে আগলে রাখতে চেয়েছিলেন সস্নেহে।

২০১৮ সালে একটি সাক্ষাৎকারে ম্যারাডোনা বলেছিলেন,  ড্রাগ-আলকোহোলের এই আসক্তি না থাকলে লোকে কি আমাকে মনে রাখতো নাকি প্রাক্তন হয়েও খবরের শিরোনামে থাকতাম? আমি আমার মতো। এইভাবেই জীবন কাটাতে চাই। কি রকম সেই জীবন?  মদ, নারী, জুয়া।  ক্যাসিনোতে ক্যাসিনোতে বিচরণ।

ড্রাগের নিষিদ্ধ জগতে ভ্রমণ, জামাকাপড় পাল্টানোর মতো বান্ধবী বদল। পিতৃত্বের মামলা। তাঁর ছোটবেলার বান্ধবী, প্রথম বিয়ে করা স্ত্রী ক্লদিয়া ভিল্লাফান  এর গর্ভে ম্যারাডোনার  দুই মেয়ে, তাঁর প্রাণাধিক ডালমা আর গিয়ানিনি। এছাড়াও ম্যারাডোনা ছয় সন্তানের জনক হয়েছেন। এর মধ্যে তিন সন্তান তাঁর  কিউবায়  ড্রাগ রিহ্যাব সেন্টারে দীর্ঘদিন থাকার সময় নারী সংসর্গের ফসল।

 ম্যারাডোনা দেউলিয়া হয়েছেন, আলফা-রোমিও গাড়ি নিয়ে দুরন্ত গতিতে চলতে গিয়ে পুলিশের দ্বারা বুকড হয়েছেন, ভিলা কিনেছেন, এম কোম্পানি গড়েছেন, আবার তা এক লহমায় আয়কর থেকে বাঁচার  জন্যে  সারেন্ডার করেছেন। অথচ, কেউ ভোলেনি তাঁর ফুটবল চাতুর্য,  তাঁর স্কিল, তাঁর ড্রিবলিং, তাঁর ড্রাইভ।

স্বাধীন বাংলা/জ উ আহমাদ

কিংবদন্তি ফুটবলার ম্যারাডোনা আর নেই
                                  

স্বাধীন বাংলা ডেস্ক : আর্জেন্টিনার কিংবদন্তি ফুটবলার ম্যারাডোনা আর নেই। তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে বুধবার নিজ বাসায় মারা গেছেন। মৃত্যুকালে ম্যারাডোনার বয়স হয়েছিল ৬০ বছর। খবরটি নিশ্চিত করেছে বার্তা সংস্থা এএফপি।

বেশ কিছুদিন ধরেই অসুস্থ ছিলেন ৮৬ সালের বিশ্বকাপজয়ী এ কিংবদন্তি খেলোয়াড়। গত মাসে হাসপাতাল থেকে বাসায় ফিরেছিলেন ম্যারাডোনা। বুয়েনস এইরেসের হাসপাতালে তার মস্তিষ্কে জরুরি অস্ত্রোপচার করা হয়। মস্তিষ্কে জমাট বেঁধে থাকা রক্ত অপসারণ করা হয়েছিল। তখন মাদকাসক্তি নিয়ে ভীষণ সমস্যায় ভুগেছেন তিনি।

অনেক বিশেষজ্ঞ, ফুটবল সমালোচক, সাবেক ও বর্তমান খেলোয়াড় এবং ফুটবল সমর্থক তাকে সর্বকালের সেরা ফুটবলার হিসেবে গণ্য করেন। তিনি বিশ্বফুটবলের নিয়ন্ত্রণ সংস্থা ফিফার বিংশ শতাব্দীর সেরা খেলোয়াড় পেলের সঙ্গে যৌথভাবে ছিলেন। ম্যারাডোনাই একমাত্র খেলোয়াড় যিনি দুইবার স্থানান্তর ফির ক্ষেত্রে বিশ্বরেকর্ড গড়েন। প্রথমবার বার্সেলোনায় স্থানান্তরের সময় ৫ মিলিয়ন ইউরো এবং দ্বিতীয়বার নাপোলিতে স্থানান্তরের সময় ৬.৯ মিলিয়ন ইউরো।

পেশাদার ক্যারিয়ারে ম্যারাডোনা আর্জেন্টিনা জুনিয়র্স, বোকা জুনিয়র্স, বার্সেলোনা, নাপোলি, সেভিয়া এবং নিওয়েলস ওল্ড বয়েজের হয়ে খেলেছেন। আন্তর্জাতিক পর্যায়ে আর্জেন্টিনার হয়ে তিনি ৯১ খেলায় ৩৪ গোল করেন। তিনি চারটি ফিফা বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করেন। যার মধ্যে ছিল ১৯৮৬ বিশ্বকাপ, যেখানে তিনি আর্জেন্টিনার অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করেছেন এবং দলকে বিশ্বকাপ জয়ে নেতৃত্ব দেন। প্রতিযোগিতার সেরা খেলোয়াড় হিসেবে স্বর্ণপদক জেতেন।

ম্যারাডোনা ম্যানেজার হিসেবে খুব কম অভিজ্ঞতাসম্পন্ন হওয়া সত্ত্বেও ২০০৮ সালের নভেম্বরে আর্জেন্টিনা জাতীয় দলের কোচের দায়িত্ব দেয়া হয় তাকে। ২০১০ বিশ্বকাপের পর চুক্তি শেষ হওয়ার আগ পর্যন্ত তিনি আঠারো মাস এই দায়িত্ব পালন করেন।

স্বাধীন বাংলা/জ উ আহমাদ

নকআউট নিশ্চিত করল বার্সেলোনা-জুভেন্টাস
                                  

ক্রীড়া ডেস্ক : লা লিগায় না পারলেও উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগে নিজেদের ধারাবাহিকতা বজায় রেখেছে বার্সেলোনা। মেসিকে ছাড়াই ডায়নামো কিয়েভের মাঠ থেকে ৪-০ গোলের বড় ব্যবধানে জিতে ফিরেছে বার্সা।

মাত্র ৪০ মিনিটের মধ্যে এই এক হালি গোল দিয়ে প্লে-অফের টিকিটও নিশ্চিত করেছে কোম্যান শিষ্যরা। আন্তর্জাতিক সূচিতে ব্যস্ত সময় কাটায় নিয়মিত অধিনায়ক লিওনেল মেসিকে বিশ্রাম দিয়েছিলেন বার্সেলোনার কোচ।

গ্রুপ `জি`তে টানা ৪ জয়ে পূর্ণ ১২ পয়েন্ট নিয়ে প্রথম দল হিসেবে নকআউট পর্বের টিকিট নিশ্চিত করে কাতালানরা। একই গ্রুপ থেকে নকআউট নিশ্চিত হয়েছে ৪ ম্যাচে ৯ পয়েন্ট পাওয়া জুভেন্টাসের।

মঙ্গলবার রাতে ডায়নামোর মাঠে খেলতে গেলেও পূর্ণ আধিপত্য ছিল বার্সেলোনার। ম্যাচের ৭০ ভাগ সময় বলের নিয়ন্ত্রণ নিজেদের দখলেই রেখেছিল ক্লাবটি। তবু প্রথমার্ধে ডায়নামোর জমাট রক্ষণ ভাঙতে পারেননি ত্রিনকাও, কৌতিনহোরা।

বিরতির পর ম্যাচের ৫২ মিনিটে প্রথম গোল পায় বার্সা। গোলটি করেন ডিফেন্ডার সার্জি ডেস্ট। পেদ্রির বাড়ানো বল ডি-বক্সে পেয়ে ডেস্টের উদ্দেশ্যে এগিয়ে দেন  পান ব্রাথওয়েট। ডান পায়ের প্লেসিং শটে বার্সেলোনার জার্সিতে নিজের প্রথম গোলটি করেন যুক্তরাষ্ট্রের এ ডিফেন্ডার।

মিনিট পাঁচেকের মধ্যেই দ্বিতীয় গোল করেন ব্রাথওয়েট। গোলমুখে বল পেয়ে স্লাইডের মাধ্যমে জালে জড়ান ব্রাথওয়েট।

ম্যাচের ৭০ মিনিটের সময় ডি-বক্সের মধ্যে ব্রাথওয়েট ফাউলের শিকার হলে পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি। ব্রাথওয়েটের সফল স্পটকিকে ৩-০ গোলে এগিয়ে যায় বার্সা। ম্যাচের যোগ করা সময়ের দ্বিতীয় মিনিটে জর্দি আলবার এসিস্টে হালি পূরণ করেন গ্রিজম্যান।

অন্যদিকে, ঘরের মাঠ অ্যালিয়াঞ্জ অ্যারেনায় ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো ও আলভারো মোরাতার গোলে ফেরেন্সভারোসের বিপক্ষে ২-১ গোলের জয় তুলে নিয়েছে জুভেন্টাস। ফলে চার ম্যাচে ৯ পয়েন্ট নিয়ে বার্সার পাশাপাশি শেষ ষোলোয় জায়গা করে নিয়েছে সিরি আর সফলতম দলটি।

স্বাগতিকদের চমকে দিয়ে ম্যাচের ১৪ মিনিটের সময় এগিয়ে যায় ফেরেন্সভারোস। সফরকারীদের মির্তো উজুনি গোল করে জুভেন্টাসের বিপক্ষে ১-০ ব্যবধানের লিড এনে দেয় ফেরেন্সভারোসকে।

ম্যাচের ৩৫ মিনিটে জুভেন্টাসকে ম্যাচে সমতা এনে দেন সিআর সেভেন। ডি বক্সের বাইরে থেকে বাঁ পায়ের অসাধারণ এক নীচু শটে ম্যাচে সমতা ফেরান পাঁচ বারের ব্যালন ডি’অর জয়ী রোনালদো।

ম্যাচে শুরু থেকে অনেক সুযোগ মিস করা জুভেন্টাস এরপরেও অনেক গোল হাতছাড়া করে। এক পর্যায়ে মনে হচ্ছিলো ড্র নিয়ে দ্বিতীয় রাউন্ডে ওঠার অপেক্ষা বাড়াবে জুভেন্টাস। তবে ম্যাচের যোগ করা সময়ের দ্বিতীয় মিনিটে গোল করে দলকে দ্বিতীয় রাউন্ডের টিকিট দুই ম্যাচ আগেই পাইয়ে দেন স্প্যানিশ মোরাতা।

স্বাধীন বাংলা/এআর

এক দশক পর বার্সাকে হারাল অ্যাতলেতিকো
                                  

ক্রীড়া ডেস্ক : সময়ের হিসাবে এক দশক পর লা লিগায় স্প্যানিশ জায়ান্ট বার্সেলোনাকে হারিয়েছে অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদ। শনিবার রাতে ওয়ান্দা মেত্রোপলিতানোয় ১-০ গোলে জিতেছে অ্যাতলেতিকো। যা দিয়েগো সিমেওনের অধীনে লা লিগায় কাতালান দলটির বিপক্ষে এটাই প্রথম জয়।

বহুল প্রতিক্ষীত এই জয়ে পয়েন্ট টেবিলেও উন্নতি হয়েছে অ্যাতলেতিকোর। ৮ ম্যাচে ২০ পয়েন্ট নিয়ে তারা অবস্থান নিয়েছে দ্বিতীয় স্থানে। সমান ম্যাচে ১১ পয়েন্ট নিয়ে বার্সেলোনার অবস্থান দশম স্থানে।

ম্যাচ শুরু তৃতীয় মিনিটেই প্রথম সুযোগ পায় বার্সেলোনা। উসমান দেম্বেলের ক্রসে অঁতোয়ান গ্রিজমানের শট একটুর জন্য লক্ষ্যে থাকেনি। দুই মিনিট পর সাউল নিগেসের বুলেট গতির দূরপাল্লার শট ঝাঁপিয়ে ঠেকিয়ে দেন বার্সেলোনা গোলরক্ষক টের স্টেগান।

১৭ ও ২০তম মিনিটে লিওনেল মেসির পাস থেকে ভালো জায়গায় বল পেয়েও গোল করতে পারেননি গ্রিজমান আর সার্জিও রবের্তো।

৪১তম মিনিটে দারুণ একটা সুযোগ পেয়েছিলেন মেসি। জর্দি আলবার পাস থেকে অ্যাতলেতিকো গোলরক্ষক ওকলাককে একা পেয়ে গিয়েছিলেন বার্সা দলপতি। কিন্তু গোল করতে পারেননি তিনিও।

এর কয়েক মিনিট পরই ধাক্কা খায় বার্সা।  প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে এগিয়ে যায় অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদ। বার্সার গোলরক্ষক আন্দ্রে টার স্টেগানের ভুলের সুযোগ নিয়ে জয়সূচক একমাত্র গোলটি করেন ইয়ানিক কারাসকো। এ সময় বার্সার অর্ধে লম্বা পাসে বল পেয়ে যান কারাসকো। ভুলক্রমে স্টেগান এগিয়ে আসে গোলপোস্ট ছেড়ে প্রায় মাঝ মাঠে। সেখানে স্টেগানের পায়ে ফাঁকা দিয়ে বল বের করে লম্বা শটে ফাঁকা পোস্টে বল জড়ান কারাসকো। বাকি সময়ে এই গোলটি আর শোধ দিতে পারেনি বার্সা।

দ্বিতীয়ার্ধে আক্রমণের ধার বাড়ালেও আর গোলের দেখা পায়নি বার্সেলোনা। ৫৬তম মিনিটে আলবার ক্রসে ওবলাক বরাবর হেড নিয়ে সুযোগ হাতছাড়া করেন ক্লেমোঁ লংলে। পরের মিনিটে মেসির দারুণ ক্রসে আবার একইভাবে সুযোগ নষ্ট করেন অরক্ষিত এই ডিফেন্ডার।

হারের সঙ্গে আরও একটি দুঃসংবাদ পেয়েছে বার্সা। ম্যাচের ৬১তম মিনিটে চোট পেয়ে মাঠ ছেড়েছেন পিকে। তার জায়গায় মাঠে নামেন সের্জিনো দেস্ত।

৭২তম মিনিটে জোয়াও ফেলিক্স একটুর জন্য দারুণ একটি ক্রসে মাথা ছোঁয়াতে পারেননি। পরের মিনিটে কারাসকোর শট পোস্ট ঘেঁষে বাইরে চলে যায়। ৮২তম মিনিটে সুযোগ আসে গ্রিজমানের সামনে। মেসির ক্রসে তার হেড ঠেকিয়ে দেন গোলরক্ষক। শেষপর্যন্ত অপ্রত্যাশিত এক হার নিয়েই মাঠ ছাড়ে রোনাল্ড কোম্যানের দল।

স্বাধীন বাংলা/এআর

প্রেসিডেন্টস কাপে আজ তামিমের প্রতিপক্ষ নাজমুল
                                  

ক্রীড়া প্রতিবেদক : বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে প্রথম জয়ের খোঁজে মাঠে নামছে তামিম ইকবাল একাদশ। আজ তাদের প্রতিপক্ষ টুর্নামেন্টের উদ্বোধনী ম্যাচ জয়ী নাজমুল একাদশ। আজ বৃহস্পতিবার মিরপুরের শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে ম্যাচটি শুরু হবে দুপুর দেড়টায়।

নিজেদের প্রথম ম্যাচে মাহমুদউল্লাহ একাদশকে ৪ উইকেটে হারায় নাজমুল একাদশ। আর তামিমরা তাদের প্রথম ম্যাচে মাহমুদউল্লাহদের কাছে ৫ উইকেটে হেরেছে। পয়েন্ট টেবিলে এখন শীর্ষে শান্তর দল। তামিমরা সবার নিচে। দুই নম্বরে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের দল।

প্রথম ম্যাচের ভুল শুধরে ব্যাটিংয়ে হাল ধরতে হবে অধিনায়ক তামিম ইকবালকে। তাকে উপযুক্ত সঙ্গ দিতে ওপেনিংয়ে জুটি গড়বেন আরেক ‘তামিম’ তানজিদ হাসান। দুই তামিম এই টুর্নামেন্টের রান খরা কাটানোর পথ তৈরি করে দেবেন বিশ্বাস তামিম একাদশের।

অন্যদিকে প্রথম ম্যাচে টপ অর্ডার ব্যর্থ হলেও যুব বিশ্বকাপ জয়ী তৌহিদ হৃদয়ের হাফসেঞ্চুরি নাজমুল একাদশকে এনে দেয় দারুণ জয়। তার সঙ্গে ফিফটি ছিল ইরফান শুক্কুরের। এবার টপ অর্ডারে থাকা সৌম্য সরকার, সাইফ হাসান, নাজমুল হোসেন শান্ত ও মুশফিকুর রহিমদের ব্যাট হাতে প্রস্ফুটিত হওয়ার পালা।

করোনাভাইরাসের কারণে দীর্ঘ দিন বন্ধ থাকার পর প্রেসিডেন্টস কাপের ম্যাচ দিয়ে মাঠে ফিরেছে ক্রিকেট। এই টুর্নামেন্টে একটি দল অন্য দলের বিপক্ষে দুইবার করে মুখোমুখি হবে। পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষ দুই দল ২৩ অক্টোবর ফাইনাল ম্যাচে মুখোমুখি হবে।

তামিম একাদশ : তামিম ইকবাল (অধিনায়ক), তানজিদ হাসান তামিম, মোসাদ্দেক হোসেন, মোহাম্মদ মিথুন, শাহদাত হোসেন, ইয়াসির আলী, আকবর আলী, এনামুল হক বিজয়, সাইফ উদ্দিন, মোস্তাফিজুর রহমান, সৈয়দ খালেদ আহমেদ, শরিফুল ইসলাম, মেহেদী হাসান, তাইজুল ইসলাম ও মিনহাজুল আবেদিন আফ্রিদি।

নাজমুল একাদশ : নাজমুল হোসেন শান্ত (অধিনায়ক), সৌম্য সরকার, সাইফ হাসান, আফিফ হোসেন, মুশফিকুর রহিম, তৌহিদ হৃদয়, ইরফান শুক্কুর, পারভেজ হোসেন ইমন, তাসকিন আহমেদ, আল-আমিন হোসেন, আবু জায়েদ রাহি, মুকিদুল ইসলাম মুগ্ধ, নাঈম হাসান, নাসুম আহমেদ, রিশাদ হোসেন।

স্বাধীন বাংলা/এআর

দুই ফাইনালিস্টের লড়াইয়ে আবারও জিতল ফ্রান্স
                                  

ক্রীড়া ডেস্ক : রাশিয়া বিশ্বকাপের দুই ফাইনালিস্টের মুখোমুখি লড়াইয়ে আবারও জিতল ফ্রান্স। পুনরাবৃত্তি হলো মস্কো ফাইনালের। ঘরের মাঠে দারুণ লড়াই করল ক্রোয়েশিয়া। কিন্তু ভাগ্য বদলাতে পারেনি তারা।

উয়েফা নেশন্স লিগে নিজেদের চতুর্থ ম্যাচে ক্রোয়েশিয়াকে ২-১ গোলে হারিয়েছে ফ্রান্স। পিছিয়ে পড়ার পর সমতা ফিরিয়েছিল ক্রোটরা। কিন্তু শেষ দিকে এমবাপ্পের গোলে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে ফ্রান্স। দুই দলের প্রথম দেখায় ঘরের মাঠে ৪-২ গোলে জিতেছিল ফ্রান্স।

ম্যাচের শুরু থেকে আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলতে থাকে রাশিয়া বিশ্বকাপের চ্যাম্পিয়নরা। তাতে ফলও পায় দলটি। আতোঁয়া গ্রিয়েজমান অষ্টম মিনিটে ফ্রান্সকে এগিয়ে দেন। ডানদিকে ফারল্যান্ড মেন্ডির ক্রস ডোমাগোজ ভিডা বিপদমুক্ত করতে ব্যর্থ হলে ১২ মিটার দূর থেকে লক্ষ্যে বল পাঠান ফ্রান্সের ফরোয়ার্ড। কিছুক্ষণ পর এমবাপ্পে স্কোর ২-০ করার সহজ সুযোগ নষ্ট করেন। তার শট গোলপোস্ট ঘেঁষে মাঠের বাইরে চলে যায়। তিন মিটার দূর থেকে মারিও পাসালিচের শট রুখে দিয়ে ফ্রান্সকে বাঁচান গোলকিপার হুগো লরিস।

পিছিয়ে পড়ার পর যেন জেগে ওঠে ক্রোয়েশিয়া। চেপে ধরে বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের। তাদের আক্রমণের ঝাপটা সামাল দিয়ে প্রথমার্ধের শেষ দিকে আবার ভীতি ছড়ায় ফ্রান্স।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে একের পর এক আক্রমণ করে ৬৪তম মিনিটে সুফল পায় স্বাগতিকরা। চমৎকার এক ফিনিশিংয়ে সমতা অনেন ভøাসিচ। ইয়োসিপ ব্রেকালোর কাছ থেকে বল পেয়ে তিন ফরাসি খেলোয়াড়ের মাঝ দিয়ে দূরের পোস্ট ঘেঁষে জাল খুঁজে নেন তিনি।

সমতা ফেরার পর যেন গা ঝাড়া দেয় ফ্রান্স। লম্বা সময় রক্ষণে মনোযোগ দেওয়া ফ্রান্স যায় আক্রমণে। ৭৮তম মিনিটে আবার এগিয়ে যায় তারা।  গোল করে ফ্রান্সকে জয়ের পথে এগিয়ে নেন তরুণ ফরোয়ার্ড এমবাপ্পে। তার গোলের সুবাদেই শেষ হাসি হাসে ফ্রান্স।

চার ম্যাচে তিন জয় ও এক ড্রয়ে ১০ পয়েন্ট নিয়ে দুই নম্বরে রয়েছে ফ্রান্স। সমান খেলে গোল পার্থক্যে এগিয়ে থেকে শীর্ষে পর্তুগাল। মাত্র একটি জয়ে তিন পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় ক্রোয়েশিয়া। শূন্য পয়েন্টে সুইডেন সবার নিচে।

স্বাধীন বাংলা/এআর

ঘুরে দাঁড়িয়ে আর্জেন্টিনা-ব্রাজিলের জয়
                                  

ক্রীড়া ডেস্ক : ২০২২ কাতার বিশ্বকাপে জায়গা করে নিতে বাছাইপর্বে লড়ছে লাতিন আমেরিকা দেশগুলো। নিজের প্রথম ম্যাচে জিতেছিল ব্রাজিল, আর্জেন্টিনা, কলম্বিয়া ও উরুগুয়ের মতো শক্তিশালী দলগুলো। বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের দ্বিতীয় ম্যাচেও জয় পেয়েছে ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনা।

বলিভিয়ার মাঠে খেলতে গিয়ে জয় নিয়ে ফিরেছে মেসির আর্জেন্টিনা। দু’বারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা বলিভিয়াকে হারিয়েছে ২-১ গোলে। লা আলবিসেলেস্তেরা বাছাইপর্ব অভিযান শুরু করেছিল লিওনেল মেসির পেনাল্টি থেকে করা একমাত্র গোলে ইকুয়েডরকে হারিয়ে। এবার বলিভিয়ার মাঠ এস্তাদিও হার্নান্দো সাইলেসে গিয়েও কঠিন পরীক্ষায় পড়তে হয় মেসিদের। অবশ্য মাঠটি ভূ-পৃষ্ঠ থেকে অনেক উুঁচুতে হওয়ায় প্রায় প্রত্যেক দলকে দিতে হয় কঠিন পরীক্ষা। তবে এবার পাশ করে গেছেন মেসিরা।  ২০০৫ সালের পর এই প্রথম বলিভিয়ার মাটিতে জিতল আর্জেন্টিনা।  

ম্যাচ শুরুর প্রথম আধা ঘন্টা আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলে আর্জেন্টিনাকে কোণঠাসা করে রেখেছিল বলিভিয়া। ম্যাচের ২৪ মিনিটে এগিয়েও যায় দলটি। আলেহান্দ্রো সাউলের চমৎকার ক্রসে জাল খুঁজে নেন মার্সেলো মার্তিন্স।

তবে গোল হজম করেএকের পর এক আক্রমণ করতে থাকে  আর্জেন্টিনা। ৩৯ মিনিটে মেসির দূর থেকে নেয়া বাঁ পায়ের শট পোস্টের একটু বাইরে দিয়ে চলে যায়। পরের মিনিটেই পারদেসের শট ফিরে আসে পোস্টে লেগে।

আলবিসেলেস্তেদের এই আক্রমণের সুফল মেলে সৌভাগ্যের এক গোলে। বাঁ দিক থেকে মার্তিনেস বল বাড়িয়ে দিতে চেয়েছিলেন ওকাম্পোসের দিকে। প্রতিপক্ষ ডিফেন্ডার সেটি ক্লিয়ার করতে গেলে ফের মার্তিনেসের পায়ে লেগে বল জাল খোঁজে নেয়।

আর্জেন্টিনা দ্বিতীয় গোলটি পায় ৭৯তম মিনিটে। লওতারোর পাস থেকে মেসিদের জয়সূচক গোল এনে দেন বদলি হিসেবে নামা জোয়াকিন কোরেয়া। পিছিয়ে পড়ে আক্রমণে ঝড় তুলে বলিভিয়া। তবে পুরো ম্যাচে বল দখলের লড়াইয়ে এগিয়ে থাকলেও হার এড়াতে পারেনি সিজার ফারিয়ারেস দল।

শেষ পর্যন্ত ২-১ গোলের স্বস্তির জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে আর্জেন্টিনা। বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে এটি তাদের টানা দ্বিতীয় জয়। প্রথম ম্যাচে লিওনেল মেসির দল ১-০ গোলে হারিয়েছিল ইকুয়েডরকে।

অন্যদিকে, নিজেদের মাঠে ব্রাজিলকে ভালোই চ্যালেঞ্জ জানিয়েছিল পেরু। আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলে দুই দফা এগিয়েও গিয়েছিল। কিন্তু নেইমারের দুর্দান্ত হ্যাটট্রিকে জয়ের স্বপ্ন আর পূরণ হয়নি তাদের। দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়িয়ে ব্রাজিল জিতেছে ৪-২ গোলের ব্যবধানে।

প্রতিপক্ষের মাঠে ম্যাচের শুরুতেই পিছিয়ে পড়ে তিতের শিষ্যরা। ষষ্ঠ মিনিটে স্বাগতিকদের এগিয়ে দেন আন্দ্রে কারিয়ো। তবে ব্যবধানটা বেশিক্ষণ ধরে রাখতে পারেনি তারা।

২৮তম মিনিটে নেইমারের সফল স্পট কিকে সমতায় ফেরে ব্রাজিল। ডি-বক্সে পিএসজি ফরোয়ার্ডকে পেরুর মিডফিল্ডার ইয়োতুন জার্সি টেনে ধরে খেলতে বাধা দেওয়ায় পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি। এরপর দুই দল অনেক চেষ্টা করলেও প্রথমার্ধে আর কেউ গোল করতে পারেনি। ১-১ গোলের সমতা দিয়েই শেষ হয় প্রধমার্ধ।

দ্বিতীয়ার্ধে ৫৯তম মিনিটে রেনাতো তাপিয়ার গোলে আবারও পিছিয়ে পড়ে ব্রাজিল। এবারও ব্যবধান বেশিক্ষণ ধরে রাখতে দেয়নি পাঁচবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। রবার্তো ফিরমিনোর পাস থেকে ব্রাজিলকে সমতায় ফেরান রিচার্লিসন। আর ম্যাচের অন্তিম মুহুর্তে জ্বলে ওঠেন নেইমার। ৮৩তম মিনিটে পেনাল্টি থেকে নিজের দ্বিতীয় গোল করেন পিএসজি ফরোয়ার্ড।

উত্তেজনা ছড়ানো ম্যাচটিতে ৮৬তম মিনিটে তাদের কার্লোস চাচেদা এবং ৮৯তম মিনিটে কার্লোস জামব্রানো লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন। সেই সুযোগে হ্যাটট্রিক পূরণ করেন নেইমার। যোগ করা চতুর্থ মিনিটে দলের চতুর্থ গোলটি করেন তিনি। সেই সঙ্গে দুর্দান্ত মাইলফলক গড়ার পথে আরও একধাপ এগিয়ে গেলেন ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড। শেষতক ৪-২ গোলের জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে ব্রাজিল।

নারী আইপিএল : সালমা-জাহানারার দুই দফা করোনা পরীক্ষা
                                  

ক্রীড়া প্রতিবেদক : আইপিএলের গত আসরে বাংলাদেশের একমাত্র প্রতিনিধি ছিলেন অলরাউন্ডার জাহানারা আলম। যেখানে ভেলোসিটির হয়ে ফাইনালসহ দুইটি ম্যাচ খেলেছিলেন তিনি। ভালো বোলিংয়ের সুবাদে নারী আইপিএলে এবারও ডাক পেয়েছেন তিনি। তবে এবার আর জাহানারা একা নন, বাংলাদেশ থেকে চান্স পেয়েছেন আরও একজন। তিনি বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দলের টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক সালমা খাতুন।

জানা গেছে, আগামীকাল বুধবার ও আগামী সোমবার ১৯ অক্টোবর দুই দফা করোনা পরীক্ষা করা হবে সালমা ও জাহানারার। সব ঠিক থাকলে ২১ অক্টোবর আরব আমিরাতের উদ্দেশ্যে দেশ ছাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে তাদের।
উল্লেখ্য, আগামী ৪ নভেম্বর শুরু হয়ে ৯ নভেম্বর শেষ হবে চার ম্যাচের এই টুর্নামেন্ট। যেখানে সর্বোচ্চ তিনটি করে ম্যাচ খেলার সুযোগ পাবে যেকোনো দুই দল। যদি ভেলোসিটি ও ট্রেইলব্ল্যাজার্স ওঠে ফাইনালে তাহলে সালমা-জাহানারা পাবেন তিনটি করে ম্যাচ।

অপরদিকে, প্রথম দুই আসরে সুযোগ না পেলেও নারী আইপিএলের তৃতীয় আসরে ডাক পেয়েছেন অফস্পিনিং অলরাউন্ডার সালমা। গতবারের মতো এবারও ভেলোসিটির হয়েই খেলবেন জাহানারা। তবে সালমা খেলবেন ট্রেইলব্ল্যাজার্সে।

স্বাধীন বাংলা/এআর

নারী ফুটবল দলে জাপানি কন্যা
                                  

ক্রীড়্রা প্রতিবেদক : বাংলাদেশের লাল-সবুজ জার্সিতে ফুটবল খেলার স্বপ্ন জাপানে জন্ম নেয়া মাতসুশিমা সুমাইয়ার। বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের কোচ গোলাম রব্বানী ছোটনের সুমাইয়ার খেলাও পছন্দ হয়েছে। সম্প্রতি মতিঝিল বাফুফে ভবনে তাকে ডেকে এনে কথাও বলেছেন ছোটন।

সুমাইয়ার বয়স ২০ হয়ে যাওয়ায় এখন তাকে কেবল জাতীয় দলেই নেয়া সম্ভব। তাই এরপর যখন সিনিয়র মেয়েদের আবাসিক ক্যাম্প শুরু হবে, তখন সুমাইয়াকে ডাকার বিষয়টি অনেকটাই নিশ্চিত। সুমাইয়ার বাবা বাংলাদেশের মাসুদুর রহমান এবং মা জাপানের মাতসুশিমা তমোমি। দুই বছর বয়সে বাংলাদেশে এসেছিলেন মাতসুশিমা। শৈশব থেকেই তিনি ফুটবলের প্রতি অনুরাগী।

সুমাইয়া সি ব্রিজ ইন্টারন্যাশনাল স্কুলে ‘এ’ লেভেলে লেখাপড়া করছেন। ২০১৮ সালে এই স্কুলের একটি ফুটবল দলের নেতৃত্ব দিয়েছিলেন আন্তঃইংলিশ মিডয়াম স্কুল ফুটবল টুর্নামেন্টে। তার দল সেখানে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল, সেরা খেলোয়াড় হয়েছিলেন সুমাইয়া। তিনি এখন আইএমসি স্পোর্টিং একাডেমিতে খেলছেন।

স্বাধীন বাংলা/এআর

ফ্রান্স-পর্তুগাল ম্যাচ ড্র
                                  

ক্রীড়া ডেস্ক : একদিকে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স অন্যদিকে ইউরোর চ্যাম্পিয়ন পর্তুগাল। উয়েফা নেশন্স লিগে মুখোমুখি হয়েছিল দল দুটি। উড়ন্ত ফর্মে থাকা দুই দলের মাঠের লড়াইয়ে পুরোটা সময় ধরে চলল আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণ। কিন্তু ফরোয়ার্ডদের ব্যর্থতায় গোল হয়নি একটিও। ম্যাচ শেষ হয়েছে গোল শূন্য ড্র’তে।

ফ্রান্সের জাতীয় স্টেডিয়ামে উয়েফা নেশন্স লিগে রোববার রাতে ‘এ’ লিগের ৩ নম্বর গ্রুপের ম্যাচটি গোলশূন্য ড্র হয়েছে। দুটি দলই নিজেদের প্রথম দুই ম্যাচে জিতেছিল।

পুরো ম্যাচে সমানে সমান লড়েছে দুই দল। ম্যাচে রোনালদোর পর্তুগালের দখলে ছিল ৫১ ভাগ, আর বাকি ৪৯ ভাগ সময় নিজেদের কাছেই বল রেখেছিল ফ্রান্স। পুরো ম্যাচে প্রায় দশবার করে আক্রমণ সাজিয়েছে দুই দলই। কিন্তু কোনোটিই ঠিক জোরালো আক্রমণ ছিল না।

ম্যাচ শুরুর পর থেকেই চলতে থাকে আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণ। কিন্তু কোন দলই সুযোগ তৈরি করতে পারছিল না। ম্যাচের ২৪তম মিনিটে সতীর্থের বাড়ানো বল ডি-বক্সে বুক দিয়ে নামিয়ে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর নেওয়া শট ঠেকিয়ে দেন ফ্রান্সের গোলরক্ষক লুকা এরনঁদেজ।

বিরতির আগে পর্তুগালের রক্ষণের ভুলে ডি-বক্সে বল পেয়েও গোল করতে পারেনি ফ্রান্সের ফরোয়ার্ড অলিভিয়ে জিরুদ।

দ্বিতীয়ার্ধের দ্বিতীয় মিনিটেই গোল করার সুযোগ পেয়েছিলেন কিলিয়ান এমবাপ্পে। ডি-বক্সে এক ডিফেন্ডারকে ফাঁকি দিয়ে শট নিলেও তা ঠেকিয়ে দেন পর্তুগাল গোলরক্ষক। তিন মিনিট পর সতীর্থের ক্রসে ডি-বক্সে বল পেলেও কঠিন সুযোগটা কাজে লাগাতে পারেননি রোনালদো।

৩ ম্যাচ থেকে ৭ পয়েন্ট সংগ্রহ করে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে আছে পর্তুগাল। সমান ম্যাচ থেকে সমান পয়েন্ট নিয়ে গোল ব্যবধানে পিছিয়ে থেকে দ্বিতীয় স্থানে আছে ফ্রান্স। ৩ ম্যাচ থেকে ৩ পয়েন্ট সংগ্রহ করে ক্রোয়েশিয়া আছে তৃতীয় স্থানে। চতুর্থ স্থানে থাকা সুইডেন এখন পর্যন্ত কোনো পয়েন্ট সংগ্রহ করতে পারেনি।

স্বাধীন বাংলা/এআর

ফের প্রশ্নবিদ্ধ নারাইনের বোলিং
                                  

স্পোর্টস ডেস্ক : আবুধাবিতে অনুষ্ঠিত আইপিএলে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের বিপক্ষে কলকাতা নাইট রাইডার্সে নাটকীয় জয়ের ম্যাচে প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছে সুনিল নারাইনের বোলিং। দীনেশ কার্তিকদের ২ রানের জয়ের ম্যাচে দারুণ বল করে জয়ে ভূমিকা রেখেছিলেন এই ক্যারিবিয়ান স্পিনার।

এক বিবৃতিতে আইপিএল জানায়, আইপিএলের সন্দেহভাজন ত্রুটিযুক্ত বোলিং অ্যাকশন পলিসি অনুযায়ী মাঠের আম্পায়াররা এই রিপোর্ট দিয়েছে। আপাতত নারাইনকে সতর্কতা দেওয়া হয়েছে। তবে আইপিএলের নিয়মঅনুযায়ী তিনি পরের ম্যাচগুলো খেলতে পারবেন। কিন্তু এই আসরেই আরও একবার ডানহাতি নারাইনের বোলিং প্রশ্নবিদ্ধ হলে তাকে নিষিদ্ধ হতে হবে। আর টুর্নামেন্টে ফিরতে হলে বিসিসিআইয়ের ছাড়পত্র পেয়েই আসতে হবে।

এর আগে ২০১৪ সাল থেকেই প্রশ্নবিদ্ধ বোলিং নিয়ে ভুগছেন নারাইন। তিনি সেবার চ্যাম্পিয়নস লিগে দুবার ত্রুটিযুক্ত বোলিংয়ের কারণে প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছিলেন। পরবর্তীতে অ্যাকশন শুধরাতে ২০১৫ ওয়ানডে বিশ্বকাপে জাতীয় দল ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে খেলেননি তিনি।

২০১৫ সালের আইপিএলে আরও এক দফা নারাইনের বোলিং প্রশ্নবিদ্ধ হয়, আর সেবছর নভেম্বরে বোলিং থেকে নিষিদ্ধ হন। আইসিসি নারাইনের বোলিংয়ে ২০১৬ সালের এপ্রিলে ছাড়পত্র দেয়। তবে সেবছর ভারতে অনুষ্ঠিত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে তিনি নিজের নাম প্রত্যাহার করে নেন। পরবর্তীতে ২০১৮ সালে পাকিস্তান সুপার লিগে আরও একবার তার বোলিং প্রশ্নবিদ্ধ হয়।

স্বাধীন বাংলা/এআর

বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপ শুরু আজ
                                  

ক্রীড়া প্রতিবেদক : আজ মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে তিন দলের দিবা রাত্রি ওয়ানডে ম্যাচ দিয়ে শুরু হচ্ছে বিসিবি প্রেসিডেন্ট কাপ টুর্নামেন্ট।  বেলা দেড়টায় উদ্বোধনী ম্যাচে মুখোমুখি হবে মাহমুদউল্লাহ একাদশ বনাম নাজমূল একাদশ । একদিন বিরতি দিয়ে একই সময় ১৩ অক্টোবর মাহমুদউল্লাহ একাদশ মুখোমুখি হবে তামিম একাদশের বিপক্ষে। ২৩ অক্টোবর টুর্নামেন্টের ফাইনাল ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে।  

বিসিবি জানিয়েছে, টুর্নামেন্টের খেলার দিনগুলোতে চলমান করোনা মহামারী সম্পর্কিত স্বাস্থবিষয়ক সতর্কতার অংশ হিসেবে স্টেডিয়ারের প্রেস বাক্স সীমিত আকারে চালু থাকবে। প্রেস বক্সের আসন সংখ্যা সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করে বন্টন করা হবে। প্রেস বাক্স এর পাশাপাশি শহীদ জুয়েল স্ট্যান্ডও উন্মুক্ত থাকবে। প্রবেশ গেট নাম্বার ২৩। টুর্নামেন্ট এর জন্য কোনো আলাদা মিডিয়া এ্যাক্রেডিটেশন কার্ড নেই। তবে নিজ, নিজ প্রতিষ্ঠান কর্তৃক প্রদত্ত আইডেন্টিটি কার্ড সাথে রাখার জন্য অনুরোধ জানিয়েছে বিসিবি। গেট খুলে দেয়া হবে বেলা ১২ টায়। আটটি ক্যামেরায় ম্যাচগুলো ধারণ করে সম্প্রচার করা হবে। এছাড়া বাংলাদেশ বেতারে টুর্নামেন্টের খেলাগুলোর চলতি ধারাবিবরণী শোনা যাবে। অনলাইনে খেলা দেখা যাবে এই লিঙ্কে: www.facebook.com/bcbtigercricket

জাতীয় দল, এইচপি আর যুব বিশ্বকাপজয়ী দলের ক্রিকেটারদের নিয়ে গড়া হয়েছে তিন দল। যুবাদের ক্রিকেটে বিশ্বসেরা টাইগার জুনিয়র ক্যাপ্টেন আকবর আলী এবং সম্ভাবনাময় পেসার শরিফুল ইসলাম খেলবেন দেশসেরা ওপেনার ও একদিনের ফরম্যাটে টিম বালাদেশের অধিনায়ক তামিম ইকবালের দলে। যুব বিশ্বকাপজয়ী প্রতিভাবান বাঁহাতি স্পিনার রাকিবুল হাসান মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের দলে।

নাজমুল হোসেন শান্তর দলে আছেন যুব বিশ্বকাপ মাতিয়ে আসা প্রতিশ্রুতিশীল ব্যাটসম্যান তৌহিদ হৃদয় আর পারভেজ হাসান ইমন। কিন্তু এই তিন দলের কোচের দায়িত্বে থাকবেন কারা? তবে কি জাতীয় দলের হেড কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো, পেস বোলিং কোচ ওটিস গিবসন আর ফিল্ডিং কোচ রায়ান কুকের কোচিংয়ে খেলবে ঐ তিন দল? সবার ধারণা ছিল তেমনই। তবে বাস্তব চিত্র খানিক ভিন্ন।

ওটিস গিবসন আর রায়ান কুক ঠিকই আছেন কোচ হিসেবে। তবে নেই রাসেল ডোমিঙ্গো। টাইগারদের দক্ষিণ আফ্রিকান হেড কোচ তিন দলের কোনো দলের সাথেই নেই। তাহলে তৃতীয় প্রশিক্ষক কে হবেন? তিনি কি বাংলাদেশি কেউ? তিন দলের কোনোটারই কোচ দেশি নন। তিনিও বিদেশি।

নির্ভরযোগ্য সূত্র নিশ্চিত করেছে, তৃতীয় কোচ হলেন হাই পারফরমেন্স ইউনিট এইচপির হেড কোচ টবি রেডফোর্ড। এই ইংলিশ নাজমুল হোসেন শান্তর দলের কোচের দায়িত্ব পালন করবেন। তামিম ইকবাল বাহিনীর কোচ থাকবেন রায়ান কুক। আর মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের দলকে কোচিং করাবেন ওটিস গিবসন। এদিকে তিন দলের কোচের পাশাপাশি তিন ম্যানেজার মনোনয়নও চূড়ান্ত। বোর্ডের উচ্চ পর্যায়ের এক দায়িত্বশীল সূত্র নিশ্চিত করেছে, ক্রিকেট অপারেশন্স ম্যানেজার সাব্বির খান এক দলের ম্যানেজার হচ্ছেন। অপর দুজন ম্যানেজার হলেন জাতীয় দলের সাবেক উইকেটকিপার এবং টিম বাংলাদেশের সাবেক কম্পিউটার অ্যানালিস্ট নাসির আহমেদ নাসু এবং এইচপি ম্যানেজার জামাল বাবু।

তিন দলের স্কোয়াড :
মাহমুদউল্লাহ একাদশ : মাহমুদউল্লাহ (অধিনায়ক), নাইস শেখ, লিটন কুমার, মমিনুল হক, মাহমুদুল হাসান, নূরুল হক সোহান, সাব্বির রহমান, ইমরুল কায়েস, হাসান মাহমুদ, ইবাদত হোসেন , রুবেল হোসেন, মৃত্যুঞ্জয়ী চৌ, নিয়ন, মেহেদী হাসান মিরাজ, রাকিবুল হাসান, এনামুল ইসলাম বিপ্লব। অতিরিক্ত : আবু হায়দার রনি, সানজামুল ইসলাম ও হাসান মুরাদ।

তামিম একাদশ : তামিম ইকবাল (অধিনাযক), তানজিত হাসান, মোসাদ্দেক হোসেন, মোঃ মিথুন, শাহাদত হোসেন, ইয়াসির আলী চৌঃ, আকবর আলী, এনামূল হক বিজয়,  মোঃ শফিউদ্দিন, মোস্তাফিজুর রহমান, খালেদ আহমেদ, শরীফুল ইসলাম, শেখ মেহেদী হাসান, তাইজুল ইসলাম, মিনহাজুল আবেদিন আফ্রিদি। অতিরিক্ত : শরীফুল ইসলাম, মাহিদুল আকন্দ ও মেহেদি হাসান রানা।

নাজমূল একাদশ : নাজমূল হোসেন শান্ত (অধিনাযক),  সৌম্য সরকার, সাইফ হাসান, আফিফ হোসেন ধ্রুব, মুশফিকুর রহিম,  তৈহিদ হৃদয় , ইরফান সাকুর, পারভেজ হাসান ইমন, তাসকিন আমমেদ, আল আমিন হোসেন, আবু জাহেদ রাহি, মুকিদুল ইসলাম, নাইম হাসান, নাসুম আহমেদ ও রিসাদ হোসেন। অতিরিক্ত : সুমন খান, সাদমান ইসলাম ও তানভীর ইসলাম।

স্বাধীন বাংলা/এআর


   Page 1 of 57
     খেলাধূলা
‘অ্যাম্বুলেন্স বিলম্ব করায় ম্যারাডোনাকে বাঁচানো যায়নি’
.............................................................................................
ফুটবল কিংবদন্তি ম্যারাডোনা মা-বাবার কবরের পাশে সমাহিত হলেন
.............................................................................................
বিশ্বের কাছে আর্জেন্টিনাকে উজ্জ্বল করে তুলেছিলেন ম্যারাডোনা
.............................................................................................
কাজী সালাউদ্দিন করোনায় আক্রান্ত
.............................................................................................
ম্যারাডোনার অকাল প্রয়াণে পেলের হৃদয়ছোঁয়া টুইট
.............................................................................................
কিংবদন্তি ফুটবলার ম্যারাডোনা আর নেই
.............................................................................................
নকআউট নিশ্চিত করল বার্সেলোনা-জুভেন্টাস
.............................................................................................
এক দশক পর বার্সাকে হারাল অ্যাতলেতিকো
.............................................................................................
প্রেসিডেন্টস কাপে আজ তামিমের প্রতিপক্ষ নাজমুল
.............................................................................................
দুই ফাইনালিস্টের লড়াইয়ে আবারও জিতল ফ্রান্স
.............................................................................................
ঘুরে দাঁড়িয়ে আর্জেন্টিনা-ব্রাজিলের জয়
.............................................................................................
নারী আইপিএল : সালমা-জাহানারার দুই দফা করোনা পরীক্ষা
.............................................................................................
নারী ফুটবল দলে জাপানি কন্যা
.............................................................................................
ফ্রান্স-পর্তুগাল ম্যাচ ড্র
.............................................................................................
ফের প্রশ্নবিদ্ধ নারাইনের বোলিং
.............................................................................................
বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপ শুরু আজ
.............................................................................................
এবার করোনায় আক্রান্ত রিয়াল মাদ্রিদের গোলরক্ষক লুনিন
.............................................................................................
গোল পেলেন নেইমার, পিএসজির বড় জয়
.............................................................................................
ঘরের মাঠে রিয়ালের কষ্টার্জিত জয়
.............................................................................................
আগামী মার্চে নিউজিল্যান্ড সফরে যাবে বাংলাদেশ
.............................................................................................
ঘরের মাঠে ৫ গোল খেল সিটি
.............................................................................................
মেসি-ফাতির গোলে জয়ে মিশন শুরু বার্সার
.............................................................................................
কেকেআরের ঘুরে দাঁড়ানোর পরীক্ষা, নাইট শিবিরে অনুশীলন
.............................................................................................
মুম্বাইয়ে হোটেলে অজি তারকা ডিন জোন্সের মৃত্যু
.............................................................................................
আইপিএল : রোহিত ঝড় উড়িয়ে দিল নাইটদের
.............................................................................................
আইপিএলে আজ মুম্বাই বিরুদ্ধে নামছে নাইটরা
.............................................................................................
স্বাধীন বাংলা ফুটবল দলের নওশের করোনায় মারা গেলেন
.............................................................................................
মৌসুমের প্রথম ম্যাচে রিয়ালের হোঁচট
.............................................................................................
৮ গোলের স্মৃতি ফেরালো বায়ার্ন
.............................................................................................
মেসির জোড়া গোলে বার্সার জয়
.............................................................................................
দুই ম্যাচ নিষিদ্ধ নেইমার
.............................................................................................
মা-ছেলেকে উপহার দিলেন মুশফিকুর রহিম
.............................................................................................
উপার্জনে সবার উপরে মেসি, দুইয়ে রোনালদো
.............................................................................................
৫ লাল কার্ডের ম্যাচে পিএসজির হার
.............................................................................................
সালাহর হ্যাটট্রিকে লিভারপুলের শ্বাসরুদ্ধকর জয়
.............................................................................................
নতুন মৌসুমে পুরনো মেসিকেই চান বার্সা কোচ
.............................................................................................
রোনালদোর সেঞ্চুরিতে পর্তুগালের জয়
.............................................................................................
বার্সার অনুশীলনে যোগ দিলেন মেসি
.............................................................................................
ফাতি-রামোস নৈপুণ্যে স্পেনের বড় জয়
.............................................................................................
ক্রোয়েশিয়াকে উড়িয়ে শিরোপা ধরে রাখার মিশন শুরু পর্তুগালের
.............................................................................................
আলোচনায় ফল শূন্য, বার্সায় থাকতে হচ্ছে মেসিকে!
.............................................................................................
দেশে ফিরলেন সাকিব
.............................................................................................
নতুন মৌসুমের প্রথম এল ক্লাসিকো ২৫ অক্টোবর
.............................................................................................
বিস্ফোরক ব্যাটিংয়ে পুরানের প্রথম সেঞ্চুরি
.............................................................................................
সাকিব ফিরছেন সোমবার
.............................................................................................
মেসির বার্সা ছাড়ার খবরে ক্যাম্প ন্যুতে সমর্থকদের প্রতিবাদ
.............................................................................................
বার্সেলোনা ছাড়ছেন মেসি
.............................................................................................
পিএসজিকে হারিয়ে বায়ার্নের ট্রেবল জয়
.............................................................................................
বার্সায় থাকতে চান সুয়ারেজ
.............................................................................................
রোমাঞ্চকর লড়াইয়ে ষষ্ঠ শিরোপা সেভিয়ার
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আখলাকুল আম্বিয়া
নির্বাহী সম্পাদক: মাে: মাহবুবুল আম্বিয়া
যুগ্ম সম্পাদক: প্রদ্যুৎ কুমার তালুকদার

সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: স্বাধীনতা ভবন (৩য় তলা), ৮৮ মতিঝিল বাণিজ্যিক এলাকা, ঢাকা-১০০০। Editorial & Commercial Office: Swadhinota Bhaban (2nd Floor), 88 Motijheel, Dhaka-1000.
সম্পাদক কর্তৃক রঙতুলি প্রিন্টার্স ১৯৩/ডি, মমতাজ ম্যানশন, ফকিরাপুল কালভার্ট রোড, মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত ও প্রকাশিত ।
ফোন : ০২-৯৫৫২২৯১ মোবাইল: ০১৬৭০৬৬১৩৭৭

Phone: 02-9552291 Mobile: +8801670 661377
ই-মেইল : dailyswadhinbangla@gmail.com , editor@dailyswadhinbangla.com, news@dailyswadhinbangla.com

 

    2015 @ All Right Reserved By dailyswadhinbangla.com

Developed By: Dynamic Solution IT